উত্তর আয়ারল্যান্ড জাতীয় ফুটবল দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
উত্তর আয়ারল্যান্ড
দলের লোগো
ডাকনামসবুজ-সাদা সৈন্য
নর্ন আয়রন
অ্যাসোসিয়েশনআইরিশ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন
কনফেডারেশনউয়েফা (ইউরোপ)
প্রধান কোচউইয়ান বার্কলোক
অধিনায়কস্টিভেন ডেভিস
সর্বাধিক ম্যাচস্টিভেন ডেভিস (১২৪)
শীর্ষ গোলদাতাডেভিড হিলি (৩৬)
মাঠউইন্ডসর পার্ক
ফিফা কোডNIR
ওয়েবসাইটwww.irishfa.com
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ৭২ অপরিবর্তিত (২১ ডিসেম্বর ২০২৩)[১]
সর্বোচ্চ২০ (সেপ্টেম্বর ২০১৭)
সর্বনিম্ন১২৯ (সেপ্টেম্বর ২০১২)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ৮২ হ্রাস ১০ (১২ জানুয়ারি ২০২৪)[২]
সর্বোচ্চ(১৮৮২, মে ১৯৮৬)
সর্বনিম্ন১১৪ (অক্টোবর ২০১৩)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
 উত্তর আয়ারল্যান্ড ১–৪ ইংল্যান্ড 
(বেলফাস্ট, উত্তর আয়ারল্যান্ড; ৭ অক্টোবর ১৯৫০)
বৃহত্তম জয়
 উত্তর আয়ারল্যান্ড ৫–০ সাইপ্রাস 
(বেলফাস্ট, উত্তর আয়ারল্যান্ড; ২১ এপ্রিল ১৯৭১)
 ফ্যারো দ্বীপপুঞ্জ ০–৫ উত্তর আয়ারল্যান্ড 
(লান্ডস্ক্রোনা, সুইডেন; ১১ সেপ্টেম্বর ১৯৯১)
বৃহত্তম পরাজয়
 নেদারল্যান্ডস ৬–০ উত্তর আয়ারল্যান্ড 
(আমস্টার্ডাম, নেদারল্যান্ডস; ২ জুন ২০১২)
বিশ্বকাপ
অংশগ্রহণ৩ (১৯৫৮-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যকোয়ার্টার-ফাইনাল (১৯৫৮)
উয়েফা ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নশিপ
অংশগ্রহণ১ (২০১৬-এ প্রথম)
সেরা সাফল্য১৬ দলের পর্ব (২০১৬)

উত্তর আয়ারল্যান্ড জাতীয় ফুটবল দল (ইংরেজি: Northern Ireland national football team) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে উত্তর আয়ারল্যান্ডের প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম উত্তর আয়ারল্যান্ডের ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইরিশ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই দলটি ১৯১১ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং ১৯৫৪ সাল হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা উয়েফার সদস্য হিসেবে রয়েছে। ১৯৫০ সালের ৭ই অক্টোবর তারিখে, উত্তর আয়ারল্যান্ড প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; উত্তর আয়ারল্যান্ডের বেলফাস্টে অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচে উত্তর আয়ারল্যান্ড ইংল্যান্ডের কাছে ৪–১ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে।

২২,০০০ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট উইন্ডসর পার্কে সবুজ-সাদা সৈন্য নামে পরিচিত এই দলটি তাদের সকল হোম ম্যাচ আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় উত্তর আয়ারল্যান্ডের রাজধানী বেলফাস্টে অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন উইয়ান বার্কলোক এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন র‍েঞ্জার্সের মধ্যমাঠের খেলোয়াড় স্টিভেন ডেভিস

উত্তর আয়ারল্যান্ড এপর্যন্ত ৩ বার ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করেছে, যার মধ্যে সেরা সাফল্য হচ্ছে ১৯৫৮ ফিফা বিশ্বকাপের ফাইনালে পৌঁছানো, যেখানে তারা ফ্রান্সের কাছে ৪–০ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে। অন্যদিকে, উয়েফা ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নশিপে উত্তর আয়ারল্যান্ড এপর্যন্ত মাত্র ১ বার অংশগ্রহণ করেছে, যেখানে তাদের সাফল্য হচ্ছে উয়েফা ইউরো ২০১৬-এর ১৬ দলের পর্বে পৌঁছানো, যেখানে তারা ওয়েলসের কাছে ১–০ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে।

পেট জেনিংস, স্টিভেন ডেভিস, অ্যারন হিউজেস, ডেভিড হিলি এবং কাইল ল্যাফার্টির মতো খেলোয়াড়গণ উত্তর আয়ারল্যান্ডের জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

র‌্যাঙ্কিং[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে উত্তর আয়ারল্যান্ড তাদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ অবস্থান (২০তম) অর্জন করে এবং ২০১২ সালের সেপ্টেম্বর মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ১২৯তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে উত্তর আয়ারল্যান্ডের সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ৫ম (যা তারা সর্বপ্রথম ১৮৮২ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ১১৪। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
২১ ডিসেম্বর ২০২৩ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[১]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
৭০ অপরিবর্তিত  মন্টিনিগ্রো ১৩৪২.৬৪
৭১ অপরিবর্তিত  আইসল্যান্ড ১৩৩৮.৩৯
৭২ অপরিবর্তিত  উত্তর আয়ারল্যান্ড ১৩৩৩.১৭
৭৩ অপরিবর্তিত  কাবু ভের্দি ১৩২৯.৮
৭৪ অপরিবর্তিত  ওমান ১৩২৪.৮৯
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
১২ জানুয়ারি ২০২৪ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[২]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
৮০ বৃদ্ধি  জাম্বিয়া ১৪৯৪
৮০ বৃদ্ধি ১০  গুয়াতেমালা ১৪৯৪
৮২ হ্রাস ১০  উত্তর আয়ারল্যান্ড ১৪৯১
৮৩ বৃদ্ধি  গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র ১৪৮৯
৮৪ হ্রাস ২৬  বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা ১৪৮৫

প্রতিযোগিতামূলক তথ্য[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
উরুগুয়ে ১৯৩০ ফিফার সদস্য ছিল না ফিফার সদস্য ছিল না
ইতালি ১৯৩৪
ফ্রান্স ১৯৩৮
ব্রাজিল ১৯৫০ উত্তীর্ণ হয়নি ১৭
সুইজারল্যান্ড ১৯৫৪
সুইডেন ১৯৫৮ কোয়ার্টার-ফাইনাল ৮ম ১০
চিলি ১৯৬২ উত্তীর্ণ হয়নি
ইংল্যান্ড ১৯৬৬
মেক্সিকো ১৯৭০
পশ্চিম জার্মানি ১৯৭৪
আর্জেন্টিনা ১৯৭৮
স্পেন ১৯৮২ দ্বিতীয় গ্রুপ পর্ব ৯ম
মেক্সিকো ১৯৮৬ গ্রুপ পর্ব ২১তম
ইতালি ১৯৯০ উত্তীর্ণ হয়নি ১২
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯৪ ১২ ১৪ ১৩
ফ্রান্স ১৯৯৮ ১০ ১০
দক্ষিণ কোরিয়া জাপান ২০০২ ১০ ১১ ১২
জার্মানি ২০০৬ ১০ ১০ ১৮
দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১০ ১০ ১৩
ব্রাজিল ২০১৪ ১০ ১৭
রাশিয়া ২০১৮ ১২ ১৭
কাতার ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট কোয়ার্টার-ফাইনাল ৩/২১ ১৩ ১৩ ২৩ ১৩৪ ৪৩ ৩৬ ৫৫ ১৪৯ ১৬১

অর্জন[সম্পাদনা]

শিরোপা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ২১ ডিসেম্বর ২০২৩। সংগ্রহের তারিখ ২১ ডিসেম্বর ২০২৩ 
  2. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ১২ জানুয়ারি ২০২৪। সংগ্রহের তারিখ ১২ জানুয়ারি ২০২৪ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]