মারি ক্যুরি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মারিয়া স্ক্লদভ্‌স্কা ক্যুরি
Mariecurie.jpg
মারিয়া স্ক্লদভ্‌স্কা ক্যুরি
জন্ম নভেম্বর ৭ ১৮৬৭
ওয়ার্‌শ, কংগ্রেস পোল্যান্ড
মৃত্যু জুলাই ৪, ১৯৩৪(১৯৩৪-০৭-০৪) (৬৬ বছর)
Sancellemoz, ফ্রান্স
জাতীয়তা পোলীয়, ফরাসি
কর্মক্ষেত্র পদার্থবিজ্ঞান এবং রসায়ন
প্রতিষ্ঠান সরবোন
প্রাক্তন ছাত্র সরবোন এবং ইএসপিসিআই
পিএইচডি উপদেষ্টা অঁরি বেকেরেল
পিএইচডি ছাত্ররা André-Louis Debierne
Marguerite Catherine Perey
পরিচিতির কারণ তেজস্ক্রিয়তা
উল্লেখযোগ্য পুরস্কার Nobel prize medal.svg পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার (১৯০৩)
Nobel prize medal.svg রসায়নে নোবেল পুরস্কার (১৯১১)
টীকা
বিজ্ঞানেরই ভিন্ন দুটি ক্ষেত্র নোবেল পুরস্কার প্রাপ্ত একমাত্র ব্যক্তি

মারি ক্যুরি[১] (ফরাসি: Marie Curie) প্রথম মহিলা বিজ্ঞানী যিনি নোবেল পুরস্কার লাভ করেন। এই ফরাসি বিজ্ঞানী ১৯০৩ সালে তেজস্ক্রিয়তার উপর গবেষণার জন্য তার স্বামী পিয়ের ক্যুরি এবং তেজস্ক্রিয়তার আবিষ্কারক অঁরি বেকেরেলের সাথে যৌথভাবে নোবেল পুরস্কার পান। সেই ছিলো প্রথম মহিলা বিজ্ঞানী যে বিজ্ঞানের দুইটি ভিন্ন শাখায় দুইবার নোবেল পুরস্কার জেতেন। সে প্যারিস বিশ্ববিদ্যালয়েরও প্রথম মহিলা অধ্যাপক ছিলেন এবং সেই ছিল প্রথম মহিলা যার অসামান্য মেধার কারণে ১৯৯৫ সালে প্যান্থিয়নে সমাহিত করা হয়।[২]

মারি ক্যুরি ১৮৬৭ সালের ৭ই নভেম্বর পোল্যান্ডের ওয়ার্সাতে জন্মগ্রহণ করেন, যেটি তখন রাশিয়ান সাম্রাজ্যের অংশ ছিলো। মারি কুরি ওয়ার্সার গোপন ভাসমান বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়ন করেছিলেন এবং ওয়ার্সাতেই তার ব্যবহারিক বৈজ্ঞানিক প্রশিক্ষণ শুরু করেছিলেন। ১৮৯১ সালে ২৪ বছর বয়সে সে তার বড় বোন ব্রোনিস্লাভাকে অনুসরণ করে প্যারিসে পড়তে যান। সেখানেই সে তার পরবর্তি বৈজ্ঞানিক কাজ পরিচালিত করেছিলেন। ১৯০৩ সালে মারি কুরি তার স্বামী পিয়েরে কুরি এবং পদার্থবিদ হেনরি বেকেরেলের সাথে পদার্থ বিদ্যায় নোবেল পুরস্কার জেতেন। তিনি এককভাবে ১৯১১ সালে রসায়নেও নোবেল পুরস্কার জেতেন।

পদার্থবিজ্ঞানে তিনি নোবেল পান তেজষ্ক্রিয়তা নিয়ে কাজ করার জন্য। আর রসায়নে নোবেল পান পিচব্লেন্ড থেকে রেডিয়াম পৃথক করার জন্য।

প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় হাসপাতালগুলোতে এক্স-রের সরঞ্জামের ঘাটতি ছিল। যুদ্ধাহত রোগিদের এক্স রে সঠিকভাবে করানোর অর্থ যোগাতে তিনি তহবিল সংগ্রহে নামেন। এসময় অসুস্থ শরীর নিয়ে তিনি ২২০ টি রেডিওলোজি স্টেশন গড়ে তোলেন। এর মধ্যে ২০০ টি ছিল বিভিন্ন জায়গায় স্থায়ী ছিল, এবং ২০ টি ছিল ভ্রাম্যমান। এগুলো তিনি বিভিন্ন ধনী মহিলাদের কাছ থেকে গাড়ি ধার নিয়ে তৈরী করেছিলেন। তিনি নিজেও বিভিন্ন স্টেশনে এক্সেরে করতে সাহায্য করতেন এবং যুদ্ধের সময় তার গড়া এই রেডিওলজি ইনস্টিটিউটগুলোয় প্রায় ১০ লাখ যুদ্ধাহতের এক্স রে করা হয়েছিল।

পোল্যান্ডের রাজধানী ওয়ারসতে নিজের গড়া রেডিয়াম ইনস্টিটিউটসহ তিনি অন্য একটি রেডিয়াম ইনস্টিটিউটে কাজ করতেন। রেডিয়াম বিষয় নিয়ে রেডিয়াম ইনস্টিটিউটে গবেষণা করে তিনি তার মেয়ে ইরিন, মেয়ের স্বামী ফ্রেডরিক জুলিয়েটের সাথে যৌথভাবে নোবেল পান।

ফ্রান্সের একজন নাগরিক হিসেবে থাকা অবস্থায়ও মারি স্ক্লদভস্কা ক্যুরি (তিনি তাঁর দুটো উপাধিই লিখতেন )[৩][৪] তাঁর পোলিশ পরিচয় ভুলে যাননি। তিনি তাঁর কন্যাদের পোলিশ ভাষা শিখিয়েছিলেন এবং তাদের পোল্যান্ডে নিয়েও গিয়েছিলেন।[৫] তিনি নিজে প্রথম যে মৌলটি আবিষ্কার করেন, তাঁর জন্মভূমির নামানুসারে ঐ মৌলের নাম দেন পোলনিয়াম[a] গবেষণার সময় নিজের জামার পকেটে রেডিয়াম পূর্ণ টেস্টটিউব রাখা এবং প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় নিজের তৈরি ভ্রাম্যমাণ এক্স রশ্মি ইউনিটে কাজ করার মাধ্যমে তেজস্ক্রিয়তার সম্পর্কে আসায় অ্যাপ্লাস্টিক অ্যানেমিয়া হওয়ায় মারি ক্যুরি ১৯৩৪ সালে ফ্রান্সের (হাউতে-সাভইএর) সাঞ্চেল্লেমজের একটি স্বাস্থ্যনিবাসে মৃত্যুবরণ করেন।[৬]

জীবনী[সম্পাদনা]

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

ওয়ার্সর ইউলিকা ফ্রেতা -এর "নতুন শহরে "  মারি ক্যুরির জন্মস্থান – বর্তমানে এটি মারিয়া স্ক্লদভস্কা-ক্যুরি জাদুঘর

রাশিয়া বিভাগের সময় পোল্যান্ডের ওয়ার্সতে ১৮৬৭ সালের ৭ নভেম্বর মারি ক্যুরি জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ছিলেন বিখ্যাত শিক্ষক বরিন্সলা, নী বগুস্কা ও ভ্লাদিস্লাও স্ক্লদভস্কির পাঁচ সন্তানের মধ্যে সর্ব-কনিষ্ঠ। [৭] ক্যুরির জ্যেষ্ঠ ভাই বোনদের নাম জোফিয়া (জন্ম ১৮৬২), জোজেফ (জন্ম ১৮৬৩), বরিন্সলা (জন্ম ১৮৬৫) এবং হেলেনা (জন্ম ১৮৬৬)[৮]

Władysław Skłodowski with daughters (from left) Maria, Bronisława, Helena, 1890

১৮৬৩ থেকে ১৮৬৫ এর মধ্যে ঐতিহাসিক জানুয়ারি আপ্সপ্রিং-এর সময় পোল্যান্ডের স্বাধীনতা আন্দোলনে যোগ দেয়ার কারণে মারি ক্যুরির পৈতৃক এবং নানা বাড়ির সম্পত্তি ধ্বংস হয়ে যায়।[৯] এই কারণে মারি ক্যুরি এবং তাঁর ভাইবোনদের খুব অল্প বয়সেই জীবন সংগ্রাম দেখতে হয়।

ক্যুরির দাদা যযেফ স্ক্লদভস্কি ছিলেন লুবলিনের একজন বিখ্যাত শিক্ষক। তিনি যুবক বলেস্লাও স্ক্লদভস্কিকে লেখাপড়া শিখিয়েছিলেন,[১০] যিনি পরবর্তীতে পোলিশ সাহিত্যের নেতৃত্বদানকারী হিসেবে আবির্ভূত হন।[১১] মারিয়া ক্যুরির পিতা ভ্লাদিস্লাও স্ক্লদভস্কি পদার্থবিজ্ঞান এবং রসায়ন পড়াতেন যা পরবর্তীতে মারিয়ার লেখাপড়ার বিষয় হয়ে দাড়ায়। তিনি ওয়ার্সর দুইটি বালকদের জিমনেশিয়ামের পরিচালকও ছিলেন।[৮] যুদ্ধের সময় রাশিয়ার সরকার পোল্যান্ডের বিদ্যালয়গুলোতে গবেষণার যন্ত্রপাতির ব্যবহার নিষিদ্ধ করে। ভ্লাদিস্লাও বেশিরভাগ যন্ত্রপাতি বাড়িতে নিয়ে আসেন এবং নিজের সন্তানদের লেখাপড়ায় সেগুলো ব্যবহার করেন। [৮] পোলিশ চেতনা লালনের কারণে ত কালীন রাশিয়ান প্রশাসন ক্যুরির পিতাকে পূর্বের চাকরি থেকে অব্যাহতি দিয়ে নিম্নশ্রেণীর একটি কম বেতনের চাকরি দেয় এবং তাঁরা অর্থ বিনিয়োগে ক্ষতির শিকার হন। তখন নিজেদের আয় ঠিক রাখার জন্য তাঁরা তাঁদের বাড়িকে যাত্রানিবাস হিসেবে ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নেয়।.[৮] মারি ক্যুরির মা ওয়ার্স বোর্ডিং স্কুল ফর গার্লস নামে একটি বিখ্যাত স্কুল চালাতেন। ক্যুরির জন্মের পর তিনি কর্মজীবন ত্যাগ করেন। যক্ষ্মা রোগে আক্রান্ত হয়ে ১৮৭৮ সালে ক্যুরির মা মারা যান। তাঁর তিন বছর আগে ক্যুরির জ্যেষ্ঠ বোন জোফিয়া এক বাসিন্দার কাছ থেকে জ্বরবিকার রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। মারিয়ার বাবা ছিলেন একজন নাস্তিক আর তাঁর মা ছিলেন একজন নিবেদিত ক্যাথলিক। মা ও বোনের মৃত্যু মারি ক্যুরিকে ক্যাথলিক থেকে অজ্ঞেয়বাদীতে পরিণত করে। [৮] [১২][১৩] ১০ বছর বয়সে মারিয়া ভর্তি হয়েছিলেন যে.সিকরস্কা পরিচালিত বোর্ডিং স্কুলে। পরে তিনি বালিকাদের জিমনেশিয়ামে ভর্তি হন এবং সেখান থেকেই ১৮৮৩ সালের ১২ জুন স্বর্ণপদক সহ স্নাতক লাভ করেন।[৭] পরের বছর তিনি তাঁর পিতার নিকটাত্মীয়ের সাথে গ্রামে এবং তারও পরবর্তী বছর তাঁর পিতার সাথে ওয়ার্সতে বসবাস করেন এবং কিছু সময় গৃহ শিক্ষিকার দায়িত্ব পালন করেন।[৭]

মেয়ে শিক্ষার্থী হওয়ার কারণে মারি ক্যুরি কোন নিয়মিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হতে পারেননি। তাই তিনি এবং তাঁর বোন বরিন্সলাও ক্ল্যান্ডেসটাইন ভ্রাম্যমাণ বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগদান করেন, এটি উচ্চশিক্ষা প্রদানে নিবেদিত একটি পোলিশ দেশপ্রেমিক প্রতিষ্ঠান ছিল যা মেয়ে শিক্ষার্থীকেও ভর্তি করত। [৭][৮]

একটি ওয়ার্স গবেষণাগারে ১৮৯০-৯১ সালে মারিয়া স্ক্লদভস্কা তাঁর প্রথম বৈজ্ঞানিক গবেষণা করেন।

মারিয়া তাঁর বোন বরিন্সলাও এর সাথে একটি চুক্তি করেন যে তিনি প্যারিসে উচ্চ শিক্ষা লাভের জন্য বোনকে আর্থিক সুবিধা দিবেন, বিনিময়ে ২ বছর পর মারিয়া একই সুবিধা পাবেন। [৭][১৪] এরই প্রেক্ষিতে মারিয়া গভারনেসের চাকরি নেন: প্রথমে ওয়ার্সার একজন গৃহ শিক্ষিকা হিসেবে; এবং পরবর্তীতে দুই বছরের জন্য সযচজুকির একজন গভারনেস হিসেবে, জোরাভস্কিস উপাধির একটি সম্পদশালী পরিবারে, যারা তাঁর পিতার আত্মীয় ছিল। [৭][১৪] ঐ পরিবারের সাথে থাকতে থাকতে তিনি তাদের পুত্র কাজিমিয়েরজ জোরাভস্কির প্রেমে পরেন, যিনি পরবর্তীতে একজন বিখ্যাত গণিতবিদ হয়েছিলেন। [১৪] তাঁর অভিভাবক একজন দরিদ্র আত্মীয়কে বিয়ে করার কথায় সমর্থন দেন নি এবং তিনি তাদের বিরোধিতা করতে পারেননি।[১৪] জোরাভস্কির সাথে মারিয়ার বিচ্ছেদ দুইজনকেই আহত করে। এরপর জোরাভস্কি ডক্টরেট অর্জন করে গণিতবিদ হিসেবে রেক্টর এবং কারকও বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মজীবন শুরু করেন। [৯] এমনকি বৃদ্ধ বয়সে ওয়ার্স পলিটেকনিকে গণিতের প্রভাষক থাকা অবস্থায়ও তিনি মারিয়ার ভাস্কর্যের সামনে বসে ধ্যানমগ্ন থাকতেন যা মারিয়া ক্যুরি কর্তৃক ১৯৩২ সালে প্রতিষ্ঠিত রেডিয়াম ইন্সটিটিউটের সামনে ১৯৩৫ সালে নির্মাণ করা হয়।[৯][১৫]

১৮৯০ এর শুরুতে, বরিনস্লাও –যিনি কিছু মাস আগে পোলিশ পদার্থবিদ এবং সামাজিক ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব কাজিমিয়েরজ দলাস্কিকে বিয়ে করেন— তাঁরা মারিয়াকে তাঁদের সাথে থাকার আমন্ত্রণ জানান। [৭] মারিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বেতনের টাকার অভাবে এই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন, প্রয়োজনীয় টাকা সংগ্রহ করতে তাঁর দেড় বছরেরও বেশি সময় লেগেছিল।[৭] তিনি বাবার কাছ থেকে সাহায্য পান যিনি কিনা আবার আরও আকর্ষণীয় পদে চাকরি পেয়েছিলেন।[১৪] এই সময় তিনি বই পড়া ও পত্র আদান-প্রদানের মাধ্যমে স্বশিক্ষা চালিয়ে যান।[১৪] ১৮৮৯ এর শুরুতে তিনি ওয়ার্সয় তাঁর পিতার কাছে চলে আসেন।[৭] তিনি একজন গভারনেস হিসেবে কাজ শুরু করেন এবং ১৮৯১ সাল পর্যন্ত সেখানে থাকেন।[১৪] তিনি ভ্রাম্যমান বিশ্ববিদ্যালয়ে টিউটর,লেখাপড়া করেন এবং ১৮৯০-৯১-এওয়ার্সর পুরনো শহরের কাছে ক্রাকওস্কিএ প্রযেদ্মিএসচে ৬৬-এর শিল্প ও কৃষি জাদুঘরের একটি রসায়ন গবেষণাগারে ব্যবহারিক রসায়ন গবেষণা শুরু করেন। [৭][৮][১৪] এই গবেষণাগারের পরিচালক ছিলেন তাঁর আত্মীয় জোজেফ বগুস্কি , যিনি আবার একসময় সেন্ট পিটার্সবার্গে রাশিয়ান রসায়নবিদ দিমিত্রি মেন্ডেলিভের সহকারী ছিলেন।[৭][১৪][১৬]

প্যারিসে নতুন অভিজ্ঞতা[সম্পাদনা]

১৮৯১ এর শেষভাগে মারিয়া পোল্যান্ড থেকে ফ্রান্সের উদ্দেশ্যে পাড়ি জমান।[১৭] প্যারিসে, ১৮৯১ সালে প্যারিস বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার পর পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন এবং গণিতে অধ্যয়ন করতে থাকেন এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছেই ল্যাটিন কোয়ার্টারে একটি গ্যারেট ভাড়া করে বসবাসের পূর্বে অল্প কয়েকদিনের জন্য মারিয়া (অথবা মারি, পরবর্তীতে এই নামে ফ্রান্সে সুপরিচিত হয়েছিলেন) বোন ও দুলাভাইয়ের বাসায় আশ্রয় নিয়েছিলেন। [১৮][১৯] তাঁর স্বল্প আয়ে, শীতকালে ঠাণ্ডায় ভুগে এবং প্রায় ক্ষুধায় জ্ঞান হারিয়ে তাঁর জীবন চলত। [১৯] মারি দিনে পড়তেন, সন্ধ্যায় পড়াতেন এবং খুব সামান্যই আয় করতেন। ১৯৮৩ সালে তাঁকে পদার্থে ডিগ্রী প্রদান করা হয় এবং তিনি অধ্যাপক গ্যাব্রিয়েল লিপম্যানের শিল্পভিত্তিক গবেষণাগারে কাজ শুরু করেন। [৭] ইতিমধ্যে, ১৮৯৪ সালে আরেকটি ডিগ্রী লাভের মাধ্যমে ফেলোশিপ পেয়ে তিনি প্যারিস বিশ্ববিদ্যালয়ে লেখাপড়া চালিয়ে যান। [৭][১৯][b] মারি প্যারিসে দ্য সোসাইটি ফর দ্য এনকারেজমেন্ট অফ ন্যাশনাল ইন্ডাস্ট্রি (Société d'encouragement pour l'industrie nationale [১]).[১৯] সহায়তায় বিভিন্ন পদার্থের চৌম্বক ধর্ম পরীক্ষার মাধ্যমে বৈজ্ঞানিক গবেষণা শুরু করেন। এই সময় পিয়েরে ক্যুরি তাঁর জীবনে আসেন। প্রকৃতির বিজ্ঞানের উপর তাঁদের আগ্রহই তাঁদের এক জায়গায় নিয়ে আসে। [২০] পিয়েরে École supérieure de physique et de chimie industrielles de la ville de Paris (ESPCI)- এর স্কুল অফ ফিজিক্‌স অ্যান্ড কেমিস্ট্রির পরামর্শক ছিলেন।[৭] তাঁদের পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলেন একজন পোলিশ পদার্থবিদ, অধ্যাপকজোজেফ কোভালস্কি- ভিএরাসজ, যিনি জানতেন যে মারি একটি বড় গবেষণাগার খুঁজছেন যার ব্যবস্থা পিয়েরে করতে পারবেন।[৭][১৯] পিয়েরের কাছে কোন বড় গবেষণাগার ছিল না, কিন্তু তিনি মারিকে কাজ শুরু করার মত জায়গা দিতে পেরেছিলেন। [১৯] বিজ্ঞান সম্পর্কে উভয়ের আগ্রহ তাঁদের কাছে নিয়ে আসে এবং তাঁরা পরস্পর সম্পর্কে ধারনা উন্নত করতে থাকেন। [৭][১৯] ঘটনাক্রমে পিয়েরে বিয়ের প্রস্তাব দেন কিন্তু প্রথমে মারি তা গ্রহণ করেননি কারণ তিনি নিজ দেশে ফিরে যাওয়ার পরিকল্পনা করছিলেন। [৭] পিয়েরে তাঁর সাথে পোল্যান্ডে বসবাসেও রাজি হয়ে যান। [৭] ইতিমধ্যে, ১৮৯৪ সালে গ্রীষ্মের ছুটিতে মারি ওয়ার্স ফিরে এসে তাঁর পরিবারের সাথে দেখা করেন। [১৯] তিনি তখনও এই ধারণাই পোষণ করছিলেন যে তিনি পোল্যান্ডে কাজ করতে পারবেন, কিন্তু ক্রাকও বিশ্ববিদ্যালয় তাঁকে গ্রহণ করে কারণ তিনি একজন নারী ছিলেন[৯] পিয়েরের একটি চিঠি তাঁকে প্যারিস ফিরে এসে পিএইচডি করতে রাজী করে ফেলে।[১৯] মারির প্রবল অনুরোধে পিয়েরে চুম্বকত্বের উপর তাঁর গবেষণা লিপিবদ্ধ করেন এবং ১৮৯৫ সালের মার্চ মাসে ডক্টরেট অর্জন করেন; তিনি স্কুলের প্রভাষক পদেও উন্নীত হন। [১৯] ঠাট্টাচ্ছলে একটি কথা প্রচলিত ছিল যে মারি, "পিয়েরের সবচেয়ে বড় আবিষ্কার"[৯] ১৮৯৫ সালের ২৬ জুলাই সেকাউক্স (সেইনে)-এ তাঁরা বিয়ে করেন;[২১] কেউই ধর্মীয় আচার ততটা পালন করেননি;[৭][১৯] মারি বিয়ের পোশাকের জায়গায় গাড় নীল পোশাক পড়েছিলেন যা পরবর্তীতে বহু বছরের জন্য তাঁর গবেষণাগার পোশাক ছিল। [১৯] তাঁরা দুধরনের অবসর উপভোগ করেছিলেন: দীর্ঘ বাইসাইকেল যাত্রা ও বিদেশ ভ্রমণ , যা তাঁদের আরও কাছে নিয়ে আসে [৯] পিয়েরের মধ্যে মারি খুঁজে পেয়েছিলেন নতুন ভালবাসা , জীবনসঙ্গী এবং একজন বৈজ্ঞানিক সহকর্মী যার উপর নির্ভর করা যায়। [৯]

নতুন মৌল[সম্পাদনা]

গবেষণাগারে পিয়েরে এবং মারি ক্যুরি

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. এই ফরাসি ব্যক্তিনামটির বাংলা প্রতিবর্ণীকরণে উইকিপেডিয়া:বাংলা ভাষায় ফরাসি শব্দের প্রতিবর্ণীকরণ-এ ব্যাখ্যাকৃত নীতিমালা অনুসরণ করা হয়েছে।
  2. Marie Curie Enshrined in Pantheon
  3. তথ্যছকে তাঁর স্বাক্ষর দেখুন , "M. Skłodowska Curie"।
  4. Her 1911 Nobel Prize in Chemistry was granted to "Marie Sklodowska Curie" File:Dyplom Sklodowska‐ Curie.jpg.
  5. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; goldsmith নামের ref গুলির জন্য কোন টেক্সট প্রদান করা হয়নি
  6. ইউটিউবে "The Genius of Marie Curie: The Woman Who Lit Up the World" (a 2013 BBC documentary)
  7. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; psb111 নামের ref গুলির জন্য কোন টেক্সট প্রদান করা হয়নি
  8. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; Marie_Curie.C2.A0.E2.80.93_Polish_Girlhood_.281867.E2.80.931891.29 নামের ref গুলির জন্য কোন টেক্সট প্রদান করা হয়নি
  9. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; gwiazdapolarna নামের ref গুলির জন্য কোন টেক্সট প্রদান করা হয়নি
  10. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; robert1 নামের ref গুলির জন্য কোন টেক্সট প্রদান করা হয়নি
  11. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; undoubtedly নামের ref গুলির জন্য কোন টেক্সট প্রদান করা হয়নি
  12. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; Barker2011 নামের ref গুলির জন্য কোন টেক্সট প্রদান করা হয়নি
  13. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; Marie_Curie নামের ref গুলির জন্য কোন টেক্সট প্রদান করা হয়নি
  14. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; Marie_Curie.C2.A0.E2.80.93_Polish_Girlhood_.281867.E2.80.931891.291 নামের ref গুলির জন্য কোন টেক্সট প্রদান করা হয়নি
  15. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; robert2 নামের ref গুলির জন্য কোন টেক্সট প্রদান করা হয়নি
  16. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; teachers নামের ref গুলির জন্য কোন টেক্সট প্রদান করা হয়নি
  17. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; psb112 নামের ref গুলির জন্য কোন টেক্সট প্রদান করা হয়নি
  18. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; robert3 নামের ref গুলির জন্য কোন টেক্সট প্রদান করা হয়নি
  19. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; Marie_Curie.C2.A0.E2.80.93_Student_in_Paris নামের ref গুলির জন্য কোন টেক্সট প্রদান করা হয়নি
  20. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; Williams331 নামের ref গুলির জন্য কোন টেক্সট প্রদান করা হয়নি
  21. les Actus DN। "Marie Curie"। সংগৃহীত 24 May 2013