পিটার হিগস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পিটার হিগস
পিটার হিগস, এপ্রিল ২০০৯
জন্ম পিটার ওয়ের হিগস
(১৯২৯-০৫-২৯) ২৯ মে ১৯২৯ (বয়স ৮৫)
টাইনের তীরে নিউক্যাসল, ইংল্যান্ড
বাসস্থান এডিনবরা, স্কটল্যান্ড
জাতীয়তা ব্রিটিশ
কর্মক্ষেত্র পদার্থবিদ্যা (তাত্ত্বিক)
প্রতিষ্ঠান এডিনবরা বিশ্ববিদ্যালয়
ইম্পেরিয়াল কলেজ লন্ডন
কিংস কলেজ লন্ডন
ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডন
প্রাক্তন ছাত্র কিংস কলেজ লন্ডন
অভিসন্দর্ভ সাম প্রবলেমস ইন দ্যা থিওরি অফ মলিকিউলার ভাইব্রেশান্স (১৯৫৫)
পিএইচডি উপদেষ্টা চার্লস কুলসন[১]
পিএইচডি ছাত্র ক্রিস্টোফার বিশপ
লুইস রাইডার
ডেভিড ওয়ালেস[১]
পরিচিতির কারণ Broken symmetry in electroweak theory
হিগস বোসন
হিগস ক্ষেত্র
হিগস কার্যপ্রণালী
উল্লেখযোগ্য পুরস্কার পদার্থবিদ্যায় নোবেল পুরস্কার (২০১৩)
পদার্থবিদ্যায় উলফ পুরস্কার (২০০৪)
সাকুরাই পুরস্কার (২০১০)
দিরাক পদক (১৯৯৭)
ওয়েবসাইট
www.ph.ed.ac.uk/higgs

পিটার ওয়ের হিগস এফআরএস (জন্ম: ২৯ মে, ১৯২৯) একজন ব্রিটিশ তাত্ত্বিক পদার্থবিদ এবং এডিনবরা বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যামিরেটাস অধ্যাপক।[২]

১৯৬০ সালে ইলেক্ট্রোউইক তত্ত্বে ভগ্ন প্রতিসাম্য বিষয়ক একটি প্রস্তাবনার জন্য তিনি সবচেয়ে বেশি পরিচিত। তার এ প্রস্তাবনার মাধ্যমে অতিপারমাণবিক কণিকাসমূহের, বিশেষ করে ডব্লিউ ও জি বোসন কণিকার ভরের উৎস সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়। হিগসের সমসাময়িক আরও কয়েকজন বিজ্ঞানে একই রকম প্রস্তাবনা রাখলেও এ প্রক্রিয়াটি হিগস কার্যপ্রণালী নামে পরিচিতি পায়। একই সাথে এই কার্যপ্রণালীটি হিগস বোসন নামে একটি নতুন কণার অস্তিত্ব সম্পর্কে ধারণা দেয় (যেটা "আধুনিক পদার্থবিদ্যায় সর্বাধিক অনুসন্ধানকৃত কণা" নামে পরিচিত[৩][৪])। ২০১৩ সালে তিনি ফ্রাঁসোয়া অ্যাংলার্টের সাথে যৌথভাবে পদার্থবিদ্যায় নোবেল পুরস্কার লাভ করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ গণিত উদ্ভববিজ্ঞান প্রকল্পে পিটার হিগস
  2. Griggs, Jessica (Summer 2008) The Missing Piece Edit the University of Edinburgh Alumni Magazine , Page 17
  3. Griffiths, Martin (20070501) physicsworld.com The Tale of the Blog's Boson Retrieved on 2008-05-27
  4. Fermilab Today (20050616) Fermilab Results of the Week. Top Quarks are Higgs' best Friend Retrieved on 2008-05-27
পুরস্কার
পূর্বসূরী
সার্গে হারোচি
ডেভিড জে. ওয়াইনল্যান্ড
পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার বিজয়ী
২০১৩
সঙ্গে: ফ্রাঁসোয়া অ্যাংলার্ট


দায়িত্ব/অবশ্য কর্তব্য