সালমান খান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
সালমান খান
সালমান খান
২০১৭ সালে সালমান খান
জন্ম আব্দুর রশিদ সেলিম সালমান খান
(১৯৬৫-১২-২৭) ২৭ ডিসেম্বর ১৯৬৫ (বয়স ৫১)
ইন্দোর, মধ্যপ্রদেশ, ভারত
বাসস্থান বান্দ্রা, মুম্বাই, মহারাষ্ট্র[১]
জাতীয়তা ভারত ভারতীয়
অন্য নাম সাল্লু/Bollywood tiger/Sultan of bollywood
পেশা
  • অভিনেতা
  • চলচ্চিত্র প্রযোজক
  • টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব
কার্যকাল ১৯৮৮–বর্তমান
ধরণ Salman khan the only one whose style better than any other hollywood actor .. we r proud of salman khan .
মোট সম্পত্তি 200million
টেলিভিশন big,boss. =world famous megaster Salman khan name is enofgh. most handsome in the world 7th rank in top 10 .
ধর্ম সুন্নি মুসলিম [২][৩][৪]
পিতা-মাতা
আত্মীয় দেখুন খান পরিবার
ওয়েবসাইট salmankhan.net
স্বাক্ষর
সালমান খানের স্বাক্ষর.jpeg

সালমান খান (হিন্দি: सलमान ख़ान; উচ্চারণঃ [səlˈmaːn ˈxaːn]; (১৯৬৫-১২-২৭)ডিসেম্বর ২৭, ১৯৬৫)[৫] একজন জনপ্রিয় ভারতীয় চলচ্চিত্র অভিনেতা। তিনি ইতোমধ্যেই ৮০টির বেশি হিন্দি ভাষার চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন।

সালমান খান বলিউডে আত্মপ্রকাশ করেন বিবি হো তো এহসি চলচ্চিত্রে একটি গৌণ ভূমিকায় অভিনয়ের মধ্যে দিয়ে ১৯৮৮-তে। তাঁর অভিনীত প্রথম ব্যবসা সফল চলচ্চিত্র ম্যায়নে পিয়ার কিয়া ১৯৮৯ সালে মুক্তি পায়; এজন্যে তিনি ফিল্মফেয়ার পুরস্কার অনুষ্ঠানে শ্রেষ্ঠ নবাগতার পুরস্কার লাভ করেন। এরপর নব্বইয়ের দশকে তিনি বলিউডে বেশ কিছু ব্যবসা সফল হিন্দি চলচ্চিত্র উপহার দেন, যেমন সাজান (১৯৯১), হাম আপকে হ্যায় কউন..! (১৯৯৪), করণ অর্জুন (১৯৯৫), জুড়ুয়া (১৯৯৭), পিয়ার কিয়া তো ডারনা কিয়া (১৯৯৮) বিবি না. ১৯৯৯

==ব্যক্তি জীবন== সালমান খান বলিউডে নাম টাই যথেস্ট. ১৯৬৫ সালের ২৭ ডিসেম্বর ভারতের মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরে নামকরা চিত্রনাট্যকার সেলিম খানের ঔরসে সালমা খানের গর্ভে সালমান খানের জন্ম হয়। তার নাম রাখা হয় আবদুর রশিদ সলিম সালমান খান। সালমান খানের উচ্চতা পাঁচ ফুট ছয় । তবে কম উচ্চতা কখনোই তাঁর সাফল্যে ভাটা পড়তে দেয়নি।[৬]

সালমানের বাবা সেলিম খান অভিনেতা ও চিত্রনাট্যকার হিসেবে পরিচিত হলেও একটা সময়ে তিনি পুলিশ কর্মকর্তা ছিলেন। ১৯৬৪ সালে সুশীলাকে বিয়ে করেন সেলিম। পরের বছর সালমানের জন্ম হয়। সেলিম-সুশীলা দম্পতির চার সন্তান সালমান, আরবাজ, সোহেল ও আলভিরা। ১৯৮১ সালে দ্বিতীয় বিয়ে করেন সেলিম খান। তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী এক সময়ের পর্দা-কাঁপানো বলিউডের অভিনেত্রী হেলেন। বিয়ের পর মেয়ে অর্পিতা খানকে দত্তক নেন সেলিম-হেলেন দম্পতি। পাঁচ ভাই-বোনের মধ্যে সবার বড় সালমান।

স্কুলে পড়ার সময় বহুবার সাঁতার প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন তিনি। ভারতের প্রতিনিধি হিসেবে তিনি দেশের বাইরেও সাঁতার প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছেন ...

অভিনয়জীবন[সম্পাদনা]

১৯৮৮ সালে ‘বিবি হো তো অ্যায়সি’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে পা রাখেন সালমান খান। তার দ্বিতীয় ও সাফল্য পাওয়া ‘ম্যায়নে পেয়ার কিয়া’ (১৯৮৯) ছবির জন্য ফিল্মফেয়ার সেরা অভিনেতার পুরস্কার লাভ করেন। দীর্ঘ অভিনয় জীবনে তিনি বহু ব্যবসাসফল ছবির নায়ক হিসেবে অভিনয় করেছেন। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- সজন, হাম আপকে হ্যায় কৌন, করণ-অর্জুন, বিবি নাম্বার ওয়ান, হাম দিল দে চুকে সানাম, তেরে নাম, পার্টনার, বডি গার্ড, দাবাং, রেডি, বজরংগী ভাইজান, সুলতান ইত্যাদি। ১৯৯৮ সালে ‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’ ছবিটিতে পার্শ্ব চরিত্রে অভিনয় করে তিনি সেরা পার্শ্ব অভিনেতার সম্মান লাভ করেন।

চলচ্চিত্রসমূহ[সম্পাদনা]

বছর নাম ভূমিকা মন্তব্য
১৯৮৮ বিবি হ ত এহসি ভিকি বাহান্দারি
১৯৮৯ মেনে পেআর কিয়া প্রেম চৌধুরী ফিল্মফেয়ার সেরা নবাগত অভিনেতা পুরস্কার
মনোনীত—ফিল্মফেয়ার সেরা অভিনেতা পুরস্কার
১৯৯০ বাঘি: এ রিবেল ফর লাভ সাজান সুদ
১৯৯১ সানাম বেওফা সালমান খান
১৯৯১ পাত্থার কে ফুল ইন্সপেক্টর সুরজ
১৯৯১ কুরবান আকাশ সিংহ
১৯৯১ লাভ প্রিথ্ভি
১৯৯১ সাজন আকাশ ভার্মা
১৯৯২ সুর্যভানশি ভিকি/সুর্যভানশি বিক্রম সিংহ
১৯৯২ এক লাড়কা এক লাড়কি রাজা
১৯৯২ জাগ্রুতি জুগনু
১৯৯২ নিশ্চায় রোহান যাদভ/ভাসুদেভ গুজরাল
১৯৯৩ চন্দ্র মুখী রাজা রায়
১৯৯৩ দিল তেরা আশিক বিজয়
১৯৯৪ আন্দাজ আপনা আপনা প্রেম ভপালি
১৯৯৪ হাম আপকে হ্যায় কোন..! প্রেম নীয়াস
১৯৯৪ চাঁদ কা টুকরা শ্যাম মালহোত্রা
১৯৯৪ সঙ্গদিল সানাম কিষান
১৯৯৫ কারণ অর্জুন কারণ সিংহ/অজয় মনোনয়ন—ফিল্মফেয়ার শেষ্ঠ অভিনেতা পুরস্কার
১৯৯৫ ভীর্গতি অজয়
১৯৯৬ মাঝধার গোপাল
১৯৯৬ খামোশী: দ্যা মিউজিক্যাল রাজ
১৯৯৬ জীত রাজু মনোনয়ন—ফিল্মফেয়ার শেষ্ঠ পার্শ অভিনেতা পুরস্কার
১৯৯৬ দুশমন দুনিয়া কা নিজ বিশেষ উপস্থিতি
১৯৯৭ জড়ুয়া রাজা/প্রেম মালহোত্রা
১৯৯৭ অজার ইন্সপেক্টর সুরাজ প্রকাশ
১৯৯৭ দাস কাপ্টেইন জীত শর্মা অসম্পূর্ণ চলচ্চিত্র
১৯৯৭ দিওয়ানা মাস্তানা প্রেম কুমার বিশেষ উপস্থিতি
১৯৯৮ পিয়ার কিয়া তো দারনা কিয়া সুরাজ খান্না মনোনয়ন—ফিল্মফেয়ার শেষ্ঠ অভিনেতা পুরস্কার
১৯৯৮ যাব পিয়ার কিসিসে হোতা হাই সুরাজ ধানরাজগির
১৯৯৮ সার উঠা কে জিও নিজ বিশেষ অতিথি
১৯৯৮ বন্ধন রাজু
১৯৯৮ কুচ কুচ হোতা হাই আমান মেহরা বর্ধিত বিশেষ উপস্থিতি
ফিল্মফেয়ার শেষ্ঠ পার্শ অভিনেতা পুরস্কার
১৯৯৯ জানাম সামঝা কারো রাহুল
১৯৯৯ বিবি না. ১ প্রেম মনোনয়ন—ফিল্মফেয়ার শেষ্ঠ কৌতুক পুরস্কার
১৯৯৯ সির্ফ তুম প্রেম বিশেষ উপস্থিতি
১৯৯৯ হাম দিল দে চুকে সানাম সমীর রাফিল্লিনি মনোনয়ন—ফিল্মফেয়ার শেষ্ঠ অভিনেতা পুরস্কার
১৯৯৯ হ্যাল্লো ব্রাদার হিরো
১৯৯৯ হাম সাথ-সাথ হাই: উই স্ট্যান্ড উইনাইটেড সামীর রাফিল্লিনি মনোনয়ন—ফিল্মফেয়ার শেষ্ঠ অভিনেতা পুরস্কার
২০০০ দুলহান হাম লে জায়েঙ্গে রাজা অবেরই
২০০০ চাল মেরে ভাই প্রেম অবেরই
২০০০ হার দিল যো পিয়ার কারেগা রাজ/রোমি
২০০০ ধাই অক্ষর প্রেম কে নিজ বিশেষ উপস্থিতি
২০০০ কাহীন পিয়ার না হো যায়ে প্রেম কাপুর
২০০১ চোরি চোরি চুপকে চুপকে রাজ মালহোত্রা
২০০২ তুমকো না ভুল পায়েঙে ভীর সিংহ ঠাকুর/আলী
২০০২ হাম তুমহারে হাই সানাম সুরাজ
২০০২ ইয়েঃ হাই জালওয়া রাজ 'রাজু ' সাক্সেনা/রাজ মিত্তাল
২০০৩ লাভ এট টাইমস স্কয়ার নিজ বিশেষ উপস্থিতি (গানে)
২০০৩ স্টুম্পেদ নিজ বিশেষ উপস্থিতি (গানে)
২০০৩ তেরে নাম রাধে মোহন মনোনয়ন—ফিল্মফেয়ার শেষ্ঠ অভিনেতা পুরস্কার
২০০৩ বাগবান অলক রাজ বিশেষ উপস্থিতি
মনোনয়ন—ফিল্মফেয়ার শেষ্ঠ পার্শ অভিনেতা পুরস্কার
২০০৪ গার্ভ: প্রাইড এন্ড অনার ইন্সপেক্টর অর্জুন রানাভাত
২০০৪ মুঝসে সাদী কারগি সমীর মালহোত্রা
২০০৪ ফির মিলেঙ্গে রহিত মানচান্দা বর্ধিত বিশেষ উপস্থিতি
২০০৪ দিল নে জিসে আপনা কাহা রিশাভ
২০০৫ লাকি: নো টাইম ফর লাভ আদিত্য
২০০৫ মাইনে পিয়ার কিউ কিয়া? ড: সামির মালহোত্রা
২০০৫ নো এন্ট্রি প্রেম মনোনয়ন—ফিল্মফেয়ার শেষ্ঠ কৌতুক অভিনেতা পুরস্কার
২০০৫ কিউ কি আনন্দ
২০০৬ সাওয়ান: দ্যা লাভ সিযোন সামীর শ্যাম বর্ধিত বিশেষ উপস্থিতি
২০০৬ সাদী কারকে ফাস গায়া ইয়ার আয়ান
২০০৬ যান-এ-মান সুহান
২০০৬ বাবুল অভিনাশ কাপুর
২০০৭ সালাম-এ-ইশক: এ ট্রিবিউট টূ লাভ রাহুল
২০০৭ পার্টনার প্রেম কাপুর (লাভ গুরু)
২০০৭ মেরিগোল্ড: এন এডভ্যাঞ্চার ইন ইন্ডিয়া প্রেম ইংরেজি ভাষার চলচ্চিত্র
২০০৭ ওম শান্তি ওম নিজ বিশেষ উপস্থিতি (গানে)
২০০৭ সাবারিয়া ইমান বর্ধিত বিশেষ উপস্থিতি
২০০৮ গড তুসি গ্রেট হো অরুন প্রজাপতি
২০০৮ হেল্লো চেতন ভাগত বিশেষ উপস্থিতি
২০০৮ ওয়ান্টেড ডেড এন্ড এলাইভ সাশাঁক মানাহর
২০০৮ যুবরাজ দেবেন যুবরাজ
২০০৮ হিরোস বাল্কার সিংহ/জাসভিন্দার সিংহ
২০০৯ ওয়ান্টেড রাধে/রাজবীর শিখাওয়াত
২০০৯ মেন অউর মিসেস. খান্না মি. খান্না
২০০৯ লন্ডন ড্রীমস মান্ন/মাঞ্জিত খসলা
২০০৯ আজব প্রেম কি গাজাব কাহানি নিজ বিশেষ উপস্থিতি
২০১০ বীর বীর
২০১০ প্রেম কা গেম দ্য সুত্রধর/ন্যারাটর
২০১০ দাবাং ইনেস্পেকটর চুলবুল পান্ডে (রবিনহুড পান্ডে) মনোনয়ন—ফিল্মফেয়ার শেষ্ঠ অভিনেতা পুরস্কার
২০১০ তীস মার খান নিজ
২০১০ ইজি লাইফ ম্যায় নিজ
২০১১ রেডি প্রেম কাপুর
২০১১ বডিগার্ড (২০১১ চলচিত্র) লাভলি সিং মনোনয়ন—ফিল্মফেয়ার শেষ্ঠ অভিনেতা পুরস্কার
২০১১ টেল মি ও খুদা নিজ ছোট্ট অতিথি চরিত্রে
২০১১ ডু অর ডু পাঞ্চ নিজ বর্ধিত বিশেষ উপস্থিতি
২০১২ ইসক ইন প্যারিস নিজ বিশেষ উপস্থিতি
২০১২ ওহ মাই গড ন্যারাটর
২০১২ এক থা টাইগার টাইগার/মানিশ
২০১২ সন অব সরদার নিজ বিশেষ উপস্থিতি (গানে)
২০১২ দাবাং ২ ইনেস্পেকটর চুলবুল পান্ডে (রবিনহুড পান্ডে) মুক্তিঃ ২১ ডিসেম্বর, ২০১২
২০১৩ বান্দা ইয়ে বিন্দাস হ্যায় জয় চোপড়া
২০১৩ আন্দাজ নয়া নয়া প্রেম (কণ্ঠ)
২০১৩ শের খান
২০১৪ কিক দেবী লাল সিং(ডেভিল)
২০১৫ বজরঙ্গি ভাইজান মুক্তিঃ ১৭ জুলাই, ২০১৫
২০১৫ প্রেম রতন ধন পায়ো প্রেম মুক্তিঃ ১১ নভেম্বর, ২০১৫
২০১৬ সুলতান মুক্তিঃ ০৬ জুলাই, ২০১৬
২০১৭ টিউবলাইট লক্ষণ মুক্তিঃ ২৩ জুন ২০১৭

বিতর্ক[সম্পাদনা]

পাকিস্তানী অভিনেত্রী সোমি আলির সাথে প্রেমের অবসানের পর পরই ১৯৯৯ সালে ‘হাম দিল দে চুকে সনম’-এর সেটে নির্মল ভালোবাসা গড়ে উঠেছিল সালমান-ঐশ্বরিয়া রাইয়ের মধ্যে। কিন্তু ঐশ্বরিয়ার সংগে সালমানের প্রেম পরিণতি পায়নি। ঐশ্বরিয়া যখন সালমানকে পুরোপুরি অবহেলা করতে শুরু করেন তখন তার প্রতি সালমানের দুর্ব্যহারের সীমা ছাড়িয়ে যায়। এ কারণে ঐশ্বরিয়ার বাবা-মা মুম্বাই পুলিশের কাছে সালমানের বিরুদ্ধে মামলাও ঠুকে দেন এবং দাবি করেন, সালমান তাদের বাসায় ঢুকে ভয় দেখানোর পাশাপাশি জানালার কাঁচ ও বিস্তর আসবাবপত্র ভাঙচুর [৭]। রমেশ সিপ্পি’র ‘কুছ না কহো’ ছবির সেটে জোর করে ঢুকে সালমান ঐশ্বরিয়াকে শারীরিকভাবে নাজেহাল করেন এবং তাকে সেখান থেকে তুলে নিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন।

সালমনের প্রেমিকা মডেল কাম অভিনেত্রী ক্যাটরিনা কাইফের জন্মদিন উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানে সপরিবারে উপস্থিত শাহরুখ খান বন্ধু সালমানের সাথে দুষ্টুমি করতে করতে সালমান -ঐশ্বরিয়ার প্রেম নিয়ে মজা করে কিছু বলেন। কিন্তু এতে ক্ষিপ্ত হন সালমান খান। অনুষ্ঠানে উপস্থিত আমির খান ক্যাটরিনা সালমানকে শান্ত করেন। পরে ব্লগে শাহরুখকে গালিগালাজ করেন বলিউডের ব্যাড বয় খ্যাত সালমান। এতেও ক্ষান্ত না হয়ে এক রাতে মাতাল অবস্থায় ড্রাইভার সমেত হাজির হন শাহরুখের বাড়িতে। শাহরুখ তখন শুটিংয়ে। বাড়ির দারোয়ান গেট না খোলায় রাস্তায় দাঁড়িয়ে তিনি শাহরুখ পত্নী গৌরিকে হুমকি ধামকি দিতে থাকেন। ঘটনাটি চাউর হলে ক্যাটরিনা কাইফ সালমান খানের উপর বিরক্তি প্রকাশ করে তার সংগে নতুন কোন ছবিতে অভিনয় না করার ঘোষণা দেন।

মুম্বাইয়ের ‘অলিভস’ নাইট ক্লাবে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপস্থাপক ঋষি কাপুরের ছেলে অভিনেতা রণবীর কাপুর উপস্থিত অতিথিদের ঐশ্বরিয়ার প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে তার সৌন্দর্য উপভোগ করতে বলায় সালমান ক্ষেপে রণবীরকে মারধর করেন যা অনুষ্ঠানে উপস্থিত সালমানের বিশেষ বন্ধু বলিউড অভিনেতা সঞ্জয় দত্তের হস্তক্ষেপে বন্ধ হয়। পরে সালমান রণবীরের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন।

১৯৯৮ সালে রাজস্থানের যোধপুরে যশরাজের ছবি ‘হাম সাথ সাথ হ্যায়’ এর সিকুয়েলের জন্য একটি গানের শুটিংয়ের সময়ে সালমান সেখানকার থর মরুভূমিতে বিরল প্রজাতির ‘চিঙ্কারা’ হরিণ শিকার করেন। এই ঘটনায় পরিবেশবাদীরা খেপে ওঠে এবং ব্যাপারটা আদালত পর্যন্ত গড়ায়। রাজস্থান আদালত পাঁচ বছরের জন্য জেলেও পাঠায় সালমান খানকে।[৮] তিনি ২০০৭ সালের ২৫ আগস্ট গ্রেপ্তার হন এবং ৬ দিন জেল খেটে ৩১ আগস্ট জামিনে বের হয়ে আসেন।[৯]

২০০০ সালে মাফিয়াদের সাথে সম্পর্ক রাখার সন্দেহে গ্রেপ্তার হন সালমান। ২০০৫ সালে মুম্বাই পুলিশ ২০০১ সালের একটি মোবাইল কলের রেকর্ড উদ্ধার করে। সে রেকর্ড অনুযায়ী, সালমান ঐশ্বরিয়াকে মুম্বাইয়ের অপরাধ জগতের মানুষের সাখে কাজ করার জন্য বলছেন এবং তার কথা না শুনলে ক্ষতি হবে বলে ভয় দেখিয়েছেন। চন্ডিগড়ের ফরেনসিক ল্যাবে প্রমাণিত হয় প্রাপ্ত রেকর্ডটি ভূয়া।[১০][১১]

সালমান ২০০২ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর ঐশ্বরিয়ার সাথে ঝগড়া করে মাতাল হয়ে মুম্বাইয়ের রাস্তায় গাড়ি চালানোর সময় ফুটপাথে গাড়ি উঠিয়ে দেন। এতে ফুটপাথে শুয়ে থাকা একজন মারা যায় এবং তিনজন আহত হয়।[১২]

সম্মাননা[সম্পাদনা]

২০০৮ সালের ১৫ জানুয়ারি লন্ডনের মাদাম তুসোর জাদুঘরে চতুর্থ ভারতীয় তারকা হিসেবে সালমান খানের মোমের মূর্তি স্থাপিত হয়।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Salman Khan on Bodyguard's success: 'It's no big deal. You can't go mad about these things.'"India Today। ৯ সেপ্টেম্বর ২০১১। সংগৃহীত ২৭ জুলাই ২০১২ 
  2. "When Salman Khan said he is Muslim"। 
  3. "Am Muslim, Says Salman Khan to Judge" 
  4. "Salman Khan says he is muslim" 
  5. "Bollywood wishes Salman Khan on his 46th birthday"DNA India (New Delhi)। Press Trust of India। ২৭ ডিসেম্বর ২০১১। সংগৃহীত ২৭ এপ্রিল ২০১২ 
  6. "ছোট হয়েও বড় যারা"। সংগৃহীত ১৬ জুন ২০১৭ 
  7. Ahmed, Afsana; Sharma, Smrity (২৭ সেপ্টেম্বর ২০০২)। "Salman harassing me, says Aishwarya"The Times of India 
  8. "SC notice to Salman Khan in Black Buck Poaching Case"Patrika Group। ৯ জুলাই ২০১৪। আসল থেকে ১৩ জুলাই ২০১৪-এ আর্কাইভ করা। সংগৃহীত ৯ জুলাই ২০১৪ 
  9. "Chinkara case: Salman Khan told to appear in person"The Times of India। ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১১। সংগৃহীত ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১২ 
  10. "Police records Salman Khan's voice, Ash keeps mum"The Tribune। ১৮ জুলাই ২০০৫। আসল থেকে ২১ নভেম্বর ২০১৩-এ আর্কাইভ করা। 
  11. "Salman cleared in Aishwarya tape case"Dawnআসল থেকে ১০ এপ্রিল ২০১৩-এ আর্কাইভ করা। সংগৃহীত ১৭ সেপ্টেম্বর ২০০৫ 
  12. "Salman Khan's jeep runs over pavement dwellers, one dead; actor surrenders"। Rediff। ২৮ সেপ্টেম্বর ২০০২। 

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]