রাজকুমার রাও

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
রাজকুমার রাও
Rajkummar Rao World Premiere Newton Zoopalast Berlinale 2017 02.jpg
২০১৭ এর বার্লিন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব এ রাও
জন্ম ৩১ আগস্ট ১৯৮৪ (বয়স ৩৩)
গুরগাঁও, হরিয়াণা, ভারত
অন্য নাম রাজকুমার যাদব
শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়
ফিল্ম এন্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়া
পেশা অভিনেতা
কার্যকাল ২০১০ - বর্তমান 

রাজকুমার রাও (জন্ম ৩১ আগস্ট ১৯৮৪), তিনি রাজকুমার যাদব নামেও পরিচিত। তিনি একজন ভারতীয় অভিনেতা। সে হিন্দী চলচ্চিত্র জগতে নিজের প্রতিষ্ঠা করে। এছাড়াও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কার, ফিল্মফেয়ার পুরস্কার এবং এশিয়া প্যাসিফিক স্ক্রিন পুরষ্কার পান। 

ভারতের হড়িয়াণার গুড়গাঁও এ জন্ম এবং সেখানে বেড়ে উঠেছে, তিনি দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন এবং পরে অভিনয় নিয়ে ফিল্ম এন্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়া থেকে পড়াশুনা শেষ করেন। তারপর সে মুম্বাইতে যায় এবং পরীক্ষামুলক কাহিনীধর্মী সিনেমা Love Sex Aur Dhokha (২০১০) দিয়ে তার চলচ্চিত্র ক্যারিয়ার শুরু করেন। কয়েকটি সংক্ষিপ্ত ভূমিকাতে অভিনয়ে পর, তার বড় সাফল্য আসে কাহিনীধর্মী চলচ্চিত্র Kai Po Che! (২০১৩)। এর জন্য সে শ্রেষ্ঠ পার্শ্বচরিত্র হিসেবে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার এর মনোনয়ন পান। এরপর সে শহীদ আজমী জীবনী নির্ভর চলচ্চিত্র Shahid (২০১৩) এ অভিনয় করেন, এর জন্য সে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে জাতীয় পুরষ্কার এবং ফিল্মফেয়ার শ্রেষ্ঠ অভিনেতা সমালোচক পুরস্কার পুরষ্কার লাভ করেন। 

প্রাথমিক জীবন এবং শিক্ষা[সম্পাদনা]

রাজকুমার রাও ভারতের হরিয়াণা রাজ্যের গুড়গাঁও এ আহিরওয়াল পরিবারে জন্মগ্রহণ করে। গুড়গাঁও এর এসএইচ. এস. এন. সিদ্ধেশ্বর পাবলিক স্কুল থেকে স্কুল জীবন শেষ করে দিল্লী বিশ্ববিদ্যালয় এর অধীনস্থ আত্মা রাম সনাতন ধর্ম কলেজ থেকে কলা বিভাগে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন।  তিনি একসময়ে সিতিজ নিধি এবং দিল্লীর শ্রী রাম কেন্দ্রে থিয়েটার করতো। ২০০৮ সালে সে ভারতে পুনে তে অবস্থিত ফিল্ম এন্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়া থেকে স্নাতক লাভ করে এবং মুম্বাই ফিরে আসে। 

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

শুরু এবং চলচ্চিত্রে প্রাথমিক চরিত্র চরিত্র(২০১০-২০১৩)[সম্পাদনা]

ফিল্ম এন্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়া থেকে পাশ করার পর সে ২০১০ এর দিকে এক বছরের মতো চলচিত্র স্টুডিও এবং কাস্টিং ডিরেক্টরদের সাথে পরিদর্শন করতো। ২০১০ এর দিকে যখন দিবাকর ব্যানার্জী তার নতুন চলচ্চিত্র "লাভ সেক্স অর ধোকা" এর নতুন মুখ খুঁজছিল তখন রাজকুমার রাও তার প্রথম সুযোগ পায়।[১]

তার পরবর্তী চলচ্চিত্র ছিলো একতা কাপুর এর "রাগিনি এমএমএস।" সেখানে তিনি নেতিবাচক চরিত্রে অভিনয় করেন।এই দুই চলচ্চিত্রে বেশ অভিনয় এবং প্রশংসা পাবার পর তিনি যখন বিজয় নামবিয়ার এর "শয়তান" চলচ্চিত্রে অভনয় করেন তা দেখে "রেডিফ" এর সমালোচক রাজা সেন এর তাকে নিয়ে মন্তব্য ছিলো "নির্ভরযোগ্যভাবে ভয়ঙ্কর।" [২]

২০১২ সালে বেশ কয়েকটি সংক্ষিপ্ত তবে বেশ চরিত্র তবে গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেন। যেমন, "গ্যাংস অফ ওয়াইসপুর - পার্ট ২", "চিটাগাং" এবং "তালাশ।" "লাভ সেক্স অর ধোকা" এ তার অভিনয় দেখে অনুরাগ কাশ্যপ "গ্যাংস অফ ওয়াইসপুর" এর জন্য তাকে বাছাই করেন। 

সাফল্য এবং পরিচিতি (২০১৩-বর্তমান)[সম্পাদনা]

২০১৩ সালে চেতন ভগত এর উপন্যাস "The 3 Mistakes of My Life" এর উপর অভিষেক কাপুর এর বানানো চলচ্চিত্র "কাই পো চে!" তে গোবিন্দ চরিত্রে অভিনয় করেন। চলচ্চিত্রটি বানিজ্যিক এবং সমলোচকদের দৃষ্টিতে সফল হয়। 

তারপর সে অভিনয় করন আইনজীবী এবং মানবাধিকার কর্মী শহীদ আজমী এর জীবন নিয়ে বানানো চলচ্চিত্র "শহীদ"এ। সেখানে সে মুখ্য চরিত্র শহীদ আজমী এর চরিত্রে অভিনয় করেন। সে এর জন্য অনেক প্রশংসা পান। সমালোচক অনুপমা চোপড়া তাকে হিন্দুস্তান টাইমস এ লেখেন, "Shahid is Raj Kumar’s triumph. His Shahid has strength, anguish and a controlled anger, but also real charm. His smile lights up the frame. See Shahid for him."[৩] এই চরিত্র এর জন্য সে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কার পান। এছাড়াও তিনি ফিল্ম ফেয়ার পুরষ্কার (সমালোচক) পান।[৪][৫]

এর পর রাও কঙ্গনা রানাওয়াত এর বিপরীতে "কুইন" সিনেমায় অভিনয় করে বিজয় চরিত্রে। রাও সেখানে বেশ প্রশংসা পান। চলচ্চিত্রটি বানিজ্যিকভাবে সফল।[৬][৭][৮]

রাও এর পরবর্তী চলচ্চিত্র ছিলো হান্সল মেহতা এর "সিটিলাইটস।" এরপর ২০১৫ সালে রোমান্টিক কমেডি সিনেমা "ডলি কি ডলি" তে অভিনয় করেন।[৯][১০] এর পরের সিনেমা ছিলো ইমরান হাশমি এবং বিদ্যা বালানের সাথে ২০১৫ সালের "হামারি আধুরি কাহানি"। কিন্তু "ডলি কি ডলি" এবং "হামারি আধুরি কাহানি" বক্স অফিস ফ্লপ ছিলো।[১১][১২]

আরেকটি বহুল সমালোচিত চলচ্চিত্র "আলিগড়" এ অভিনয় করেন রাও। ২০১৬ এর ফেব্রুয়ারি তে মুক্তি পায় সিনেমাটি। যা তাকে এনে দেয় ফিল্মফেয়ার শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব চরিত্র এর মনোনয়ন।

২০১৬ সালে "ট্রাপড" চলচ্চিত্রের জন্য মাত্র ২২ দিনে সে ৭ কেজি ওজন কমায়। সে দিনে একটি গাঁজর এবং কফি খেতো।[১৩]  ২০১৭ সালে একতা কাপুর এবং হানসাল মেহতা এর ওয়েব সিরিজ "বোস: ডাই/এলাইভ"[১৪] এ সুভাষ চন্দ বোস এর চরিত্রে অভিনয় এর জন্য ১১ কেজি ওজন বাড়ায়।[১৫][তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

চলচ্চিত্রের তালিকা[সম্পাদনা]

Key
Film yet to release Denotes films that have not yet been released
Films
Year Film Role Notes
২০১০ লাভ সেক্স অর ধোকা আদর্শ
২০১১ ''রাগিনি এমএমএস
উদয়
২০১১
শয়তান মালোয়াঙ্কার পিন্টা
২০১২
গ্যাংস অফ ওয়াইসপুর - পার্ট ২ সামসাদ আলম
২০১২
চিটাগাং
লোকনাথ বল
২০১২
তালাশ দেবরাথ কুলকার্নিi
২০১৩
কাই পো চে! গোবিন্দ প্যাটেল
২০১৩
বয়েস তো বয়েস হে
২০১৩
ডি-ডে মইন(ভয়েস)) ক্যামিও
২০১৩
শহীদ শহীদ আজমী
২০১৪
কুইন বিজয়
২০১৪
সিটিলাইটস দীপক সিং
২০১৫
ডলি কি ডলি
২০১৫ হামারি আধুরি কাহানি হরি প্রসাদ
২০১৬ আলিগড় দীপু সেবাস্তিয়ান
২০১৭
ট্রাপড সউরিয়া
২০১৭
রাবতা মুয়াক্কিত স্পেশার এপিয়ারেন্স
২০১৭
ব্যাহেন হোগি তেরি শিব কুমার  নাতুয়াল(গাট্টু)
২০১৭
বারেলি কি বারফি প্রিতম বিদ্রোহী
২০১৭
নিউটন নিউটন কুমার
২০১৭
শাদি মে জরুর আনা সত্যেন্দ্র
২০১৭ ''বোসঃ ডেড/এলাইভ
সুভাষ চন্দ বোস
ওয়েব সিরিজ

পুরষ্কার এবং মনোনয়ন[সম্পাদনা]

বছর চলচ্চিত্র পুরষ্কার পুরস্কারের বিভাগ ফলাফল Ref.
২০১৪ কাই পো চে! স্ক্রিন পুরষ্কার শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব চরিত্র মনোনীত
জি সিনে পুরষ্কার শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব চরিত্র বিজয়ী
ফিল্ম ফেয়ার পুরস্কার শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব চরিত্র মনোনীত
শহীদ শ্রেষ্ঠ অভিনেতা (সমালোচক) বিজয়ী
জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কার শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিজয়ী
প্রযোজক গিল্ড চলচ্চিত্র পুরষ্কার শ্রেষ্ঠ অভিনেতা
মনোনীত
২০১৫ কুইন স্ক্রিন পুরস্কার শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব চরিত্র মনোনীত
সিটিলাইটস প্রযোজক গিল্ড চলচ্চিত্র পুরষ্কার শ্রেষ্ঠ অভিনেতা মনোনীত
2017 আলিগড়
ফিল্ম ফেয়ার পুরষ্কার শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব চরিত্র মনোনীত
জি সিনে পুরষ্কার শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব চরিত্র মনোনীত
প্রযোজ্য নয় পেটার হটেস্ট নিরামিষ ভুজি সেলেব্রেটি হটেস্ট নিরামিষ ভুজি  বিজয়ী [১৬]
প্রযোজ্য নয় CNN-IBN ইন্ডিয়ান অফ দ্যা ইয়ার বিনোদন বিজয়ী
প্রযোজ্য নয় জি কিউ পুরষ্কার বছরের সেরা অভিনেতা বিজয়ী
২০১৮ প্রযোজ্য নয় জি সিনে পুরষ্কার অসাধারন প্রভাব পুরষ্কার (পুরুষ) বিজয়ী [১৭]
ট্রাপড ভারতীয় চলচ্চিত্র উৎসব, মেলবোর্ন শ্রেষ্ঠ অভিনেতা (স্পেশাল মেনশন) বিজয়ী
এফ ও আই অনলাইন পুরষ্কার, ভারত প্রধান চরিত্রে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা মনোনীত
বারেলি কি বারফি পার্শ্ব চরিত্রে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা
বিজয়ী
ফিল্ম ফেয়ার পুরষ্কার শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব চরিত্র প্রক্রিয়াধীন [১৮]
জি সিনে পুরষ্কার শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব চরিত্র মনোনীত [১৯]
স্টার স্ক্রিন পুরষ্কার শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব চরিত্র বিজয়ী
নিউটন শ্রেষ্ঠ অভিনেতা(সমালোচক) বিজয়ী
এশিয়া প্যাসিফিক স্ক্রিন পুরষ্কার শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিজয়ী
জি সিনে পুরষ্কার শ্রেষ্ঠ অভিনেতা – পুরুষ (জুরির পছন্দ) মনোনীত
এফ ও আই অনলাইন পুরষ্কার, ভারত প্রধান চরিত্রে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিজয়ী [২০]

References[সম্পাদনা]

  1. Jagannathan, Sahithya (১৮ জুন ২০১১)। "'I would love to be born as Marlon Brando'"Tehelka Magazine, Vol 8, Issue 24। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ১৩, ২০১৭ 
  2. "Shaitan is more SprayTan than Satan"। Rediff। সংগ্রহের তারিখ ১০ জুন ২০১১ 
  3. "Movie Review: Shahid by Anupama Chopra"Hindustan Times। সংগ্রহের তারিখ ১৯ অক্টোবর ২০১৩ 
  4. "Filmfare Awards 2014: The complete list of winners"। IBNLive। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জানু ২০১৪ 
  5. "Heart slowed down when I heard that I won National Award: Rajkumar Rao"Firstpost। ১৬ এপ্রিল ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৬ এপ্রিল ২০১৪ 
  6. Mehta, Ankita (৬ মার্চ ২০১৪)। "'Queen' Review Roundup: Watch it for Kangana's Superb Performance"International Business Times। সংগ্রহের তারিখ ১০ মার্চ ২০১৪ 
  7. "Box Office: Bewakoofiyaan does below average business"। Rediff.com। সংগ্রহের তারিখ ২৭ মার্চ ২০১৪ 
  8. "Queen Closes In On 60 Crore"Box Office India। ১১ এপ্রিল ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৪ 
  9. Jha, Subhash K. (১৭ এপ্রিল ২০১৪)। ""It's been a long hard struggle" - Hansal Mehta"। Bollywood Hungama। সংগ্রহের তারিখ ১৭ এপ্রিল ২০১৪ 
  10. Goyal. Divya (৬ এপ্রিল ২০১৪)। "Sonam Kapoor shoots 16 hours non stop for 'Dolly Ki Doli', despite high fever"The Indian Express। সংগ্রহের তারিখ ১৭ এপ্রিল ২০১৪ 
  11. Singh, Apurva (১২ এপ্রিল ২০১৪)। "Mahesh Bhatt: 'Humari Adhuri Kahani' to be completed with Vidya Balan"The Indian Express। সংগ্রহের তারিখ ১৭ এপ্রিল ২০১৪ 
  12. Shetty-Saha, Shubha (জুন ১২, ২০১৫)। "'Hamari Adhuri Kahani' - Movie Review"Mid-Day। সংগ্রহের তারিখ ১২ জুন ২০১৫ 
  13. "Raj Kummar Rao survived on daily diet of a carrot and a coffee for next film"Hindustan Times (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৬-১১-০৩। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৯-১১ 
  14. "Rajkummar Rao to play Bose in Ekta Kapoor-Hansal Mehta's web series"Celebs & Cinema। এপ্রিল ১৪, ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ১৩, ২০১৭ 
  15. "Rajkummar undergoes jaw dropping physical transformation for Bose-Dead/Alive"Deccan Chronicle (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০৯-০৭। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৯-১১ 
  16. "Rajkummar Rao, Alia Bhatt crowned as PETA's Hottest Vegetarians"Indian Express। ২৩ ডিসেম্বর ২০১৭। 
  17. "Zee Cine Awards 2018 complete winners list: Secret Superstar, Golmaal Again and Toilet Ek Prem Katha win big"The Indian Express (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-১২-২০। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১২-৩১ 
  18. "Nominations for the 63rd Jio Filmfare Awards 2018"filmfare.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০১-১৮ 
  19. "2018 Archives - Zee Cine Awards"Zee Cine Awards (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১২-৩১ 
  20. "Winners & Nominations: 3rd FOI Online Awards, 2018"। FOI Online Awards।