বাউরিডি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

বাউরিডি ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের পুরুলিয়া জেলার অন্তর্গত একটি প্রত্নস্থল। এই স্থানটি পুরুলিয়া-বাঁকুড়া সড়কের ওপর অবস্থিত লধুড়কা গ্রাম থেকে চার কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।

মূর্তি[সম্পাদনা]

বাউরিডি গ্রামে যে সমস্ত মূর্তি পাওয়া গেছে, তাঁদের শিল্পকলা দেখে অনুমান করা হয় যে, সেগুলি নবম ও দশম শতাব্দীতে নির্মিত হয়েছিল। মূর্তিগুলির সংক্ষিপ্ত বর্ণনা নিম্নে দেওয়া হল[১]:১৯১, ১৯২

মূর্তি বৈশিষ্ট্য
চন্দ্রপ্রভ পদ্মের ওপর কায়োৎসর্গ মুদ্রায় দন্ডায়মান বক্ষদেশ হতে উর্দ্ধাংশ পর্যন্ত খন্ডিত মূর্তি, খন্ডিত অংশ ব্যতীত পরিমাপ ৭৩ সেন্টিমিটার x ১৫ সেন্টিমিটার x ১৮ সেন্টিমিটার। মূর্তির বাহু আজানুলম্বিত। দুইপাশে দুইজন চামরধারীর মূর্তি ও চব্বিশজন তীর্থঙ্করের মূর্তি বর্তমান। ভাস্কর্যটি পঞ্চরথ শ্রেণীর শিল্পকর্ম। পঞ্চরথের প্রথমটিতে উপাসনারত নারীমূর্তি, দ্বিতীয়টিতে এক উর্দ্ধলাঙ্গুল হর্য্যক্ষ মূর্তি, তৃতীয় তথা কেন্দ্রীয় ভাগে পদ্মে অধিষ্ঠিত নায়কের মূর্তি বিদ্যমান। মূর্তির ওপরের অংশ ভেঙ্গে যাওয়া পঞ্চরথের বাকি দুই অংশ বিলুপ্ত হয়েছে।
আদিনাথ পদ্মের ওপর কায়োৎসর্গ মুদ্রায় দন্ডায়মান বক্ষদেশ হতে উর্দ্ধাংশ পর্যন্ত খন্ডিত মূর্তি, খন্ডিত অংশ ব্যতীত পরিমাপ ৮৫ সেন্টিমিটার x ৬৬ সেন্টিমিটার x ১৮ সেন্টিমিটার। দুইপাশে দুইজন চামরধারীর মূর্তি ও চব্বিশজন তীর্থঙ্করের মূর্তি বর্তমান। ভাস্কর্যটি পঞ্চরথ শ্রেণীর শিল্পকর্ম।
আদিনাথ মস্তকবিহীন ভগ্নমূর্তি। খন্ডিত অংশ ব্যতীত পরিমাপ ৮০ সেন্টিমিটার x ৫০ সেন্টিমিটার x ১৫ সেন্টিমিটার। দুইপাশে দুইজন চামরধারীর মূর্তি ও চব্বিশজন তীর্থঙ্করের মূর্তি বর্তমান।
আদিনাথ কিরীটবিহীন ভগ্নমূর্তি। খন্ডিত অংশ ব্যতীত পরিমাপ ৯০ সেন্টিমিটার x ৬০ সেন্টিমিটার x ২০ সেন্টিমিটার। দুইপাশে দুইজন চামরধারীর মূর্তি ও তিন জন করে ছয়জন তীর্থঙ্করের মূর্তি বর্তমান।
নারীমূর্তি ৭৫ সেন্টিমিটার x ৫৩ সেন্টিমিটার x ১৮ সেন্টিমিটার মাপের এক পাথরের ফলকের ওপর খোদিত ভগ্নমূর্তি, পরিধানে কোমরবন্ধ অলঙ্কার, বাম হস্তে এক উলঙ্গ শিশুর ডান হস্ত ধারণ করে আছেন, মূর্তির ডানদিকে ত্রিভঙ্গ মুদ্রায় সালঙ্করা নারীমূর্তি ও বামদিকে নৃত্যরতা নারীমূর্তি বর্তমান। লাঞ্ছনচিহ্ন সিংহ।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. অনিল কুমার চৌধুরী, পুরুলিয়ার গ্রামে গঞ্জে, পুরুলিয়ার কয়েকটি প্রত্নস্থল, সম্পাদনা সুভাষ রায়, অনৃজু প্রকাশনী, চেলিয়ামা, পুরুলিয়া, ৭২৩১৪৬, প্রথম প্রকাশ, আশ্বিন ১৪১৯