ফুরফুরা (গ্রাম)

স্থানাঙ্ক: ২২°৪৫′১৬″ উত্তর ৮৮°০৭′৪৮″ পূর্ব / ২২.৭৫৪৫° উত্তর ৮৮.১৩০১° পূর্ব / 22.7545; 88.1301
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(ফুরফুরা থেকে পুনর্নির্দেশিত)
ফুরফুরা, শ্রীরামপুর মহকুমা
গ্ৰাম
গ্রামের ফুরফুরা শরীফ নামে একটি মাজার
গ্রামের ফুরফুরা শরীফ নামে একটি মাজার
পশ্চিমবঙ্গ
স্থানাঙ্ক: ২২°৪৫′১৬″ উত্তর ৮৮°০৭′৪৮″ পূর্ব / ২২.৭৫৪৫° উত্তর ৮৮.১৩০১° পূর্ব / 22.7545; 88.1301
দেশ ভারত
রাজ‍্যপশ্চিমবঙ্গ
জেলাহুগলী
উচ্চতা১১ মিটার (৩৬ ফুট)
জনসংখ্যা (২০০১)
 • মোট৬,৭২০
ভাষা
 • সরকারিবাংলা
সময় অঞ্চলIST (ইউটিসি+5:30)
পিন৭১২৭০৬
টেলিফোন কোড+৯১
আইএসও ৩১৬৬ কোডIN-WB

ফুরফুরা ভারতের পশ্চিমবঙ্গের হুগলী জেলার শ্রীরামপুর মহকুমার জাঙ্গিপাড়া সমষ্টি উন্নয়ন ব্লকের একটি গ্রাম। গ্রামটি ফুরফুরা দরবার শরীফের জন্য পুরো উপমহাদেশে বিখ্যাত হয়ে আছে।[১] ধর্মীয় ও আত্নাধ্যিক কারণে এই গ্রামে বছরে বহু দর্শনার্থী আসে। বিশেষ করে যখন পীরের মেলা চলে, তখন বহু মানুষ এই গ্রামে যাতায়াত করে।[২] এই গ্রামে ৬০০০ এর বেশী মানুষ বসবাস করে, গ্রামে একটি সরকারি গ্রামীণ হাসপাতাল রয়েছে যেখানে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৩৭৫ সালে মুকলিশ খানের নির্মিত একটি মসজিদ থেকে গ্রামের ইতিহাস শুরু হয়।[৩] মৌখিক রীতি অনুসারে বাগদি বা বার্গা ক্ষত্রিয় রাজা এখানে সেইসময়ে রাজত্ব করত। রাজত্বকালে শাহ কবির হালিবি ও করমুদ্দিন নামে দুই মুসলিম সৈন্য এই ক্ষত্রিয় রাজার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে পরাজিত করে, উভয় দলনেতাই যুদ্ধে নিহত হয়েছিল।[৪] তাদের সমাধি আজও হিন্দু ও মুসলমান উভয় ধর্মের লোকের কাছে খুব পবিত্র।[৫]

বর্তমানে ১৮৪৫ সালে জন্ম নেওয়া পীর আবু বকর সিদ্দিকী ও তার পাঁচ ছেলে পাঁচ ছেলে আবদুল হাই সিদ্দিকী, আল্লামা আবু জাফর সিদ্দিকী, আবদুল কাদের সিদ্দিকী, নাজমুস সায়াদাত সিদ্দিকী ও জুলফিকার আলী সিদ্দিকীর মাজার রয়েছে।[৬] এসমস্ত মাজারের জন্য এই গ্রামটি ধর্মভিত্তিক পর্যটক ও পবিত্র স্থান বলে বিবেচিত হয়ে আসছে। এই পাঁচ পীর এই গ্রাম সহ অনন্য গ্রামে বহু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও দাতব্য প্রতিষ্ঠান নির্মাণ করেছেন।[৭] এই গ্রামে প্রতিবছর বাংলা বর্ষপঞ্জির ফালগুন মাসের ২১, ২২ ও ২৩ তারিখ দরবার শরীফের মেলা অনুষ্ঠিত হয়।[৮][৯]

ভূগোল[সম্পাদনা]

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

এই গ্রামে ৬০০০ এর বেশী মানুষ বসবাস করে। মুসলিম সংখ্যা বেশী হলেও এই গ্রামে হিন্দু সম্প্রদায়ের অস্তিত্ব রয়েছে।

শিক্ষা ব‍্যবস্থা[সম্পাদনা]

এই গ্রামে স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসা শিক্ষাব্যবস্থা বিদ্যমান আছে। আলিয়া ও কওমি মাদ্রাসা রয়েছে, এসব প্রতিষ্ঠানের কিছু স্থানীয় পীরেরা তৈরি করেছিলো।

স্বাস্থ্যসেবা[সম্পাদনা]

ফুরফুরা শরীফের একটি সরকারি গ্রামীণ হাসপাতাল রয়েছে যেখানে বিনামূল্যে চিকিৎসা করা হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. hindu, the (১৭ জানুয়ারি ২০২১)। "The Hindu e-Paper Today: ePaper replica of the print newspaper"epaper.thehindu.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-১৮ 
  2. "Hooghly District"Places of Interest। District administration। ২০০৯-০২-০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০২-০৬ 
  3. "West Bengal Tourism Policy, 2008"Fairs and Festivals Tourism। Government of West Bengal, Department of Tourism। ২৪ সেপ্টেম্বর ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ ফেব্রুয়ারি ২০০৯ 
  4. Crawford, D. G. (অক্টোবর ২০০৮)। A Brief History of the Hughli District By D. G. Crawfordআইএসবিএন 9781443766128। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০২-০৬ 
  5. Crawford, D. G. (অক্টোবর ২০০৮)। A Brief History of the Hughli District By D. G. Crawfordআইএসবিএন 9781443766128। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০২-০৬ 
  6. Choudhury, Dewan Nurul Anwar Hussain (২০১২)। "Siddiqi, Abdul Hai"Islam, Sirajul; Jamal, Ahmed A.। Banglapedia: National Encyclopedia of Bangladesh (Second সংস্করণ)। Asiatic Society of Bangladesh 
  7. ব্রহ্ম, তৃপ্তি (১৯৮৮)। বাংলার লৌকিক ধর্মসংগীত। কলকাতা। পৃষ্ঠা ৩৬২। 
  8. Qadri, M. Aqib Farid। "Conveying Rewards to the Deceased (Isaale Sawaab)"। Islamic Academy। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৫-১২ 
  9. "Dariapur Sharif's Isale Sawab on Jan 17"। Financial Express, 14 January 2008। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৫-১২