আমতলী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আমতলী
পৌরশহরউপজেলা সদর
আমতলী বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
আমতলী
আমতলী
বাংলাদেশে আমতলী শহরের অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২২°০৮′০৩″ উত্তর ৯০°১৪′১২″ পূর্ব / ২২.১৩৪০৬৮° উত্তর ৯০.২৩৬৫৩৬° পূর্ব / 22.134068; 90.236536স্থানাঙ্ক: ২২°০৮′০৩″ উত্তর ৯০°১৪′১২″ পূর্ব / ২২.১৩৪০৬৮° উত্তর ৯০.২৩৬৫৩৬° পূর্ব / 22.134068; 90.236536
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগবরিশাল বিভাগ
জেলাবরগুনা জেলা
উপজেলাআমতলী উপজেলা
সরকার
 • ধরনপৌরসভা
 • শাসকআমতলী পৌরসভা
 • পৌরমেয়রমো: মতিয়ার রহমান[১]
আয়তন
 • মোট২০.০ বর্গকিমি (৭.৭ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা
 • মোট২১,৮০৮
 • জনঘনত্ব১,১০০/বর্গকিমি (২,৮০০/বর্গমাইল)
সময় অঞ্চলবাংলাদেশ সময় (ইউটিসি+৬)

আমতলী বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের একটি ছোট শহর। এটি বরিশাল বিভাগের অন্তর্গত বরগুনা জেলায় অবস্থিত আমতলী উপজেলার প্রধান শহর। প্রশাসনিকভাবে শহরটি আমতলী উপজেলার প্রশাসনিক সদর দফতর। এটি জনসংখ্যার বিচারে বরগুনা জেলার তৃতীয় বৃহত্তম শহর।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৮২ সালে আমতলী থানা উপজেলায় উন্নীত হলে আমতলী উপজেলা শহর হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়।১৯৯৮ সালের ২৩শে আগস্ট আমতলী পৌরসভা স্থাপিত হলে আমতলী পৌরশহরের মর্যাদা লাভ করে।[২]

ভৌগোলিক উপাত্ত[সম্পাদনা]

আমতলী শহরের অবস্থানের অক্ষাংশ ও দ্রাঘিমাংশ হল ২২°০৮′০৩″ উত্তর ৯০°১৪′১২″ পূর্ব / ২২.১৩৪০৬৮° উত্তর ৯০.২৩৬৫৩৬° পূর্ব / 22.134068; 90.236536। সমুদ্র সমতল থেকে শহরটির গড় উচ্চতা ২ মিটার

প্রশাসন[সম্পাদনা]

আমতলী শহরটি আমতলী পৌরসভা দ্বারা পরিচালিত হয় যা ৯টি ওয়ার্ড এবং ১৪টি মহল্লায় বিভক্ত । ২০ বর্গ কি.মি. আয়তনের আমতলী শহরের ৭.৭৯ বর্গ কি.মি. আমতলী পৌরসভা দ্বারা পরিচালিত হয়।[৩]

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

বাংলাদেশের আদমশুমারি ও গৃহগণনা-২০১১ অনুযায়ী আমতলী শহরের মোট জনসংখ্যা ২১,৮০৮ জন যার মধ্যে ১০,৯০৫ জন পুরুষ এবং ১০,৯০৩ জন নারী। এ শহরের পুরুষ এবং নারী অনুপাত ১০১:১০০৷ [৪]

সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

সংগীত, নাচ এবং চিত্র কর্মের ব্যাপক চর্চা ও প্রচলন রয়েছে। বসবাসকারী করে বেশ কিছু উপজাতীয় নৃগোষ্ঠী যার মধ্যে মগচাকমা উল্লেখযোগ্য। এরা বিভিন্ন ধরনের পোশাক যেমন তাঁতের কাপড়, কামিজ, শাড়ী, লুঙ্গী, গামছা ইত্যাদি তৈরি করে থাকে।

খেলাধুলা[সম্পাদনা]

ঐতিহ্যগত কারণে এখানে খেলাধুলা ও বিনোদনে বৈচিত্র্য লক্ষ্য করা যায়। ফুটবল, হাডুডু, কুস্তি খেলার পাশাপাশি স্থানীয় খেলার প্রচলন আছে। এছাড়া নদী প্রধান অঞ্চল হওয়ায় নৌকা বাইচ খুবই জনপ্রিয় খেলায় পরিণত হয়েছে।[৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "আমতলী পৌরসভার মেয়র"। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১১-২৬ 
  2. "আমতলীর ইতিহাস"। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১১-২৬ 
  3. "পৌরসভা"। bdmayor.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১১-২৬ 
  4. "Urban Centers in Bangladesh"। Population & Housing Census-2011 [আদমশুমারি ও গৃহগণনা-২০১১] (PDF) (প্রতিবেদন)। জাতীয় প্রতিবেদন (ইংরেজি ভাষায়)। ভলিউম ৫: Urban Area Rport, 2011। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো। মার্চ ২০১৪। পৃষ্ঠা ১৭০। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১১-১০ 
  5. "খেলাধুলা ও বিনোদন"। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১১-২৬