২০১৬ শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের ইংল্যান্ড ও আয়ারল্যান্ড সফর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(Sri Lankan cricket team in England and Ireland in 2016 থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল পূর্ব-নির্ধারিত সময়সূচী মোতাবেক ৮ মে থেকে ৫ জুলাই, ২০১৬ তারিখ পর্যন্ত ইংল্যান্ড সফর করে। এ সফরে দলটি ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিনটি টেস্ট, পাঁচটি একদিনের আন্তর্জাতিক ও একটি টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে যথাক্রমে ২-০, ৩-০ ও ১-০ ব্যবধানে সিরিজ জয়লাভ করে। এছাড়াও, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ ও আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ওডিআই সিরিজে অংশগ্রহণের পূর্বে যথাক্রমে এসেক্সলিচেস্টারশায়ারের বিপক্ষে শ্রীলঙ্কা দল দুইটি তিনদিনের খেলায় অংশ নেয়।[১] প্রথম-শ্রেণীর দুটো খেলাই ড্র হয় ও আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ২-০ ব্যবধানে ওডিআই সিরিজ জয়লাভ করে।

এপ্রিল, ২০১৬ সালে ইসিবি সবগুলো সিরিজেই পয়েন্টভিত্তিক ব্যবস্থা প্রবর্তনের বিষয়ে প্রস্তাবনা দিলে উভয় দলই সম্মতি প্রকাশ করে।[২][৩]

ইংল্যান্ড[সম্পাদনা]

২০১৬ শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের ইংল্যান্ড সফর
Flag of England.svg
ইংল্যান্ড
Flag of Sri Lanka.svg
শ্রীলঙ্কা
তারিখ ৮ মে, ২০১৬ – ৫ জুলাই, ২০১৬
অধিনায়ক অ্যালাস্টেয়ার কুক (টেস্ট)
ইয়ন মর্গ্যান (ওডিআই, টি২০আই)
অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস (টেস্ট ও ওডিআই)
টেস্ট সিরিজ
ফলাফল ৩-ম্যাচের সিরিজ ইংল্যান্ড ২–০ তে জয়ী হয়
সর্বাধিক রান জনি বেয়ারস্টো (৩৮৭) কৌশল সিলভা (১৯৩)
সর্বাধিক উইকেট জেমস অ্যান্ডারসন (২১) নুয়ান প্রদীপ (১০)
সিরিজ সেরা জনি বেয়ারস্টো (ইংল্যান্ড)
কৌশল সিলভা (শ্রীলঙ্কা)
একদিনের আন্তর্জাতিক সিরিজ
ফলাফল ৫-ম্যাচের সিরিজ ইংল্যান্ড ৩–০ তে জয়ী হয়
সর্বাধিক রান জেসন রয় (৩১৬) দিনেশ চান্দিমাল (২৬৭)
সর্বাধিক উইকেট ডেভিড উইলি (১০)
লিয়াম প্লাঙ্কেট (১০)
সুরঙ্গা লকমল (৫)
নুয়ান প্রদীপ (৫)
সিরিজ সেরা জেসন রয় (ইংল্যান্ড)
টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক সিরিজ
ফলাফল ১-ম্যাচের সিরিজ ইংল্যান্ড ১–০ তে জয়ী হয়
সর্বাধিক রান জস বাটলার (৭৩) দানুষ্কা গুণতিলকা (২৬)
সর্বাধিক উইকেট লিয়াম ডসন (৩) অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস (২)
সুপার সিরিজ পয়েন্ট
ইংল্যান্ড ২০, শ্রীলঙ্কা ৪


দলীয় সদস্য[সম্পাদনা]

টেস্ট ওডিআই টি২০আই
 ইংল্যান্ড[৪]  শ্রীলঙ্কা[৫]  ইংল্যান্ড ইংল্যান্ড[৬]  শ্রীলঙ্কা[৭]  ইংল্যান্ড[৬]  শ্রীলঙ্কা[৮]

প্রস্তুতিমূলক খেলা[সম্পাদনা]

প্রথম-শ্রেণী: এসেক্স ব শ্রীলঙ্কা একাদশ[সম্পাদনা]

৮-১০ মে, ২০১৬
স্কোরকার্ড
২৫৪ (৬৩ ওভার)
কুশল মেন্ডিস ৬৬ (১০৬)
আরন বিয়ার্ড ৪/৬২ (১৬ ওভার)
৪১২/৪ডি (১০০ ওভার)
জায়েক মিকলবার্গ ১০৯ (১৮৮)
ধাম্মিকা প্রসাদ ২/৭৮ (১৭.৩ ওভার)
৪২/২ (১৩ ওভার)
দিমুথ করুনারত্নে ১৬* (৩২)
ম্যাট ডিক্সন ১/১৭ (৪ ওভার)
খেলা ড্র
কাউন্টি গ্রাউন্ড, চেমসফোর্ড
আম্পায়ার: স্টিফেন গেল (ইংল্যান্ড) ও স্টিভ ও'শগনেসি (ইংল্যান্ড)
  • শ্রীলঙ্কা টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • বৃষ্টির কারণে ৩য় দিন খেলা হয়নি
  • অ্যারন বিয়ার্ড (এসেক্স), প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে।

প্রথম-শ্রেণী: লিচেস্টারশায়ার ব শ্রীলঙ্কা একাদশ[সম্পাদনা]

১৩-১৫ মে, ২০১৬
স্কোরকার্ড
৩৬৭ (৯৭.১ ওভার)
দাসুন শানাকা ১১২ (১৩২)
রব সায়ের ২/৪১ (১২ ওভার)
৩৭৫/৫ডি. (১০০ ওভার)
মাইকেল বার্গেস ৯৮ (১২৪)
রঙ্গনা হেরাথ ২/৩৯ (২৪ ওভার)
২০০/৪ডি. (৫০.২ ওভার)
দিমুথ করুনারত্নে ১০০ (১৩৪)
রবার্ট টেলর ১/২৯ (১১ ওভার)
খেলা ড্র
গ্রেস রোড, লিচেস্টার
আম্পায়ার: নিক কক (ইংল্যান্ড) ও অ্যালেক্স হোয়ার্ফ (ইংল্যান্ড)
  • শ্রীলঙ্কা একাদশ টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

টেস্ট সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম টেস্ট[সম্পাদনা]

১৯-২৩ মে, ২০১৬
স্কোরকার্ড
২৯৮ (৯০.৩ ওভার)
জনি বেয়ারস্টো ১৪০ (১৮৩)
দাসুন শানাকা ৩/৪৬ (১৩ ওভার)
৯১ (৩৬.৪ ওভার)
অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস ৩৪ (৬২)
জেমস অ্যান্ডারসন ৫/১৬ (১১.৪ ওভার)
১১৯ (এফ/ও) (৩৫.২ ওভার)
কুশল মেন্ডিস ৫৩ (৬৮)
জেমস অ্যান্ডারসন ৫/২৯ (১৩.৩ ওভার)
ইংল্যান্ড ইনিংস ও ৮৮ রানে বিজয়ী
হেডিংলি, লিডস
আম্পায়ার: আলীম দার (পাকিস্তান) ও রড টাকার (অস্ট্রেলিয়া)
ম্যাচসেরা: জনি বেয়ারস্টো (ইংল্যান্ড)
  • শ্রীলঙ্কা টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • ১ম দিন বৃষ্টির কারণে ৫৩ ওভার খেলা হয়।
  • ২য় দিন মন্দালোকে নির্ধারিত সময়ের পূর্বে খেলা শেষ হয়।
  • ৩য় দিন বৃষ্টির কারণে মধ্যাহ্নভোজনের পূর্বেই শেষ হয় ও ১৫:৩০-এ খেলা শুরু হয়।
  • ইংল্যান্ডের পক্ষে জেমস ভিন্স এবং শ্রীলঙ্কার পক্ষে দাসুন শানাকা'র টেস্ট অভিষেক ঘটে।
  • ইংল্যান্ডের পক্ষে জেমস অ্যান্ডারসন লিডসে তার প্রথম পাঁচ-উইকেট লাভ করেন।[৯]
  • জেমস অ্যান্ডারসন খেলায় ১০/৪৫ লাভ করে যে-কোন ইংরেজ বোলার হিসেবে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সেরা বোলিং পরিসংখ্যান করেন।[১০]
  • পয়েন্ট: ইংল্যান্ড - ৪, শ্রীলঙ্কা - ০

২য় টেস্ট[সম্পাদনা]

২৭-৩১ মে, ২০১৬
স্কোরকার্ড
৪৯৮/৯ডি. (১৩২ ওভার)
মঈন আলী ১৫৫* (২০৭)
নুয়ান প্রদীপ ৪/১০৭ (৩৩ ওভার)
১০১ (৪৩.৩ ওভার)
কুশল মেন্ডিস ৩৫ (৬২)
স্টুয়ার্ট ব্রড ৪/৪০ (১৩ ওভার)
৮০/১ (২৩.২ ওভার)
অ্যালাস্টেয়ার কুক ৪৭* (৬৫)
মিলিন্ডা শ্রীবর্ধনা ১/৩৭ (৭.২ ওভার)
৪৭৫ (এফ/ও) (১২৮.২ ওভার)
দিনেশ চান্দিমাল ১২৬ (২০৭)
জেমস অ্যান্ডারসন ৫/৫৮ (২৭ ওভার)
ইংল্যান্ড ৯ উইকেটে বিজয়ী
রিভারসাইড গ্রাউন্ড, চেস্টার-লি-স্ট্রিট
আম্পায়ার: আলীম দার (পাকিস্তান) ও সুন্দরাম রবি (ভারত)
ম্যাচসেরা: জেমস অ্যান্ডারসন (ইংল্যান্ড)
  • ইংল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • শ্রীলঙ্কার পক্ষে রঙ্গনা হেরাথ তার ৩০০তম টেস্ট উইকেট লাভ করেন।[১১]
  • ইংল্যান্ডের পক্ষে জেমস অ্যান্ডারসন তার ৪৫০তম উইকেট পান।[১২]
  • ইংল্যান্ডের পক্ষে অ্যালাস্টেয়ার কুক সর্বকনিষ্ঠ ও প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে টেস্ট ক্রিকেটে ১০,০০০ রান তোলেন।[১৩]
  • ৪র্থ দিন বৈকালিক অধিবেশনে আম্পায়ার আলীম দার অসুস্থ হয়ে পড়েন ও তাঁর স্থলাভিষিক্ত হন রড টাকার। টেলিভিশনের দায়িত্বে টাকারের পরিবর্তে দায়িত্ব পালন করেন ডেভিড মিলেন্স
  • পয়েন্ট: ইংল্যান্ড - ৪, শ্রীলঙ্কা - ০

৩য় টেস্ট[সম্পাদনা]

৯-১৩ জুন, ২০১৬
স্কোরকার্ড
৪১৬ (১২৮.৪ ওভার)
জনি বেয়ারস্টো ১৬৭* (২৩২)
রঙ্গনা হেরাথ ৪/৮১ (৩৬ ওভার)
২৮৮ (৯৫.১ ওভার)
কৌশল সিলভা ৭৯ (১৫২)
ক্রিস উকস ৩/৩১ (১৭.১ ওভার)
২৩৩/৭ডি. (৭১ ওভার)
অ্যালেক্স হেলস ৯৪ (১৭৯)
নুয়ান প্রদীপ ৩/৩৭ (১৫ ওভার)
৭৮/১ (২৪.২ ওভার)
দিমুথ করুনারত্নে ৩৭* (৬৬)
জেমস অ্যান্ডারসন ১/২৭ (৯ ওভার)
খেলা ড্র
লর্ডস, লন্ডন
আম্পায়ার: সুন্দরাম রবি (ভারত) ও রড টাকার (অস্ট্রেলিয়া)
ম্যাচসেরা: জনি বেয়ারস্টো (ইংল্যান্ড)
  • ইংল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • ৪র্থ দিন বৃষ্টির কারণে ১৪:৪০ পর্যন্ত খেলা হয়নি।
  • ৫ম দিন বৃষ্টির কারণে ১৩:২০ পর্যন্ত খেলা হয়নি। ১৩:৩৫-এ পুণরায় বৃষ্টি নামে।
  • নিজ দেশে ও লর্ডসের টেস্টে ইংরেজ উইকেট-কিপার হিসেবে জনি বেয়ারস্টো সর্বোচ্চ অপরাজিত ১৬৭ রান তোলেন।[১৪]
  • পয়েন্ট: ইংল্যান্ড - ২, শ্রীলঙ্কা - ২

ওডিআই সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম ওডিআই[সম্পাদনা]

২১ জুন, ২০১৬ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
শ্রীলঙ্কা 
২৮৬/৯ (৫০ ওভার)
 ইংল্যান্ড
২৮৬/৮ (৫০ ওভার)
অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস ৭৩ (১০৯)
ক্রিস উকস ২/৫৬ (১০ ওভার)
ডেভিড উইলি ২/৫৬ (১০ ওভার)
খেলা টাই
ট্রেন্ট ব্রিজ, নটিংহাম
আম্পায়ার: রব বেইলি (ইংল্যান্ড) ও পল রেইফেল (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: ক্রিস উকস (ইংল্যান্ড)
  • ইংল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • ওডিআইয়ে ৮নং ব্যাটসম্যান হিসেবে ক্রিস উকস সর্বোচ্চ অপরাজিত ৯৫ রান তোলেন।[১৫]
  • প্রথমবারের মতো ইংল্যান্ড-শ্রীলঙ্কার মধ্যকার ওডিআই টাইয়ে পরিণত হয়।[১৬]
  • পয়েন্ট: ইংল্যান্ড - ১, শ্রীলঙ্কা - ১

২য় ওডিআই[সম্পাদনা]

২৪ জুন, ২০১৬ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
শ্রীলঙ্কা 
২৫৪/৭ (৫০ ওভার)
 ইংল্যান্ড
২৫৬/০ (৩৪.১ ওভার)
উপুল থারাঙ্গা ৫৩* (৪৯)
আদিল রশীদ ২/৩৪ (১০ ওভার)
ইংল্যান্ড ১০ উইকেটে বিজয়ী
এজবাস্টন, বার্মিংহাম
আম্পায়ার: মাইকেল গফ (ইংল্যান্ড) ও ব্রুস অক্সেনফোর্ড (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: জেসন রয় (ইংল্যান্ড)
  • শ্রীলঙ্কা টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • একদিনের আন্তর্জাতিকে ইংল্যান্ডের পক্ষে অ্যালেক্স হেলসজেসন রয় ১ম উইকেটে সর্বোচ্চ রানের জুটি গড়েন (২৫৬)।[১৭]
  • ওডিআইয়ে ১ম উইকেটে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ইংল্যান্ড প্রথমবারের মতো ২০০ রান তোলে।
  • ওডিআইয়ে যে-কোন উইকেট জুটিতে ইংল্যান্ড সর্বাধিক রান করে।[১৭]
  • ওডিআইয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ১০ উইকেটের সর্বাধিক ব্যবধানে জয়ী।[১৭]
  • পয়েন্ট: ইংল্যান্ড - ২, শ্রীলঙ্কা - ০

৩য় ওডিআই[সম্পাদনা]

২৬ জুন, ২০১৬
স্কোরকার্ড
শ্রীলঙ্কা 
২৪৮/৯ (৫০ ওভার)
 ইংল্যান্ড
১৬/১ (৪ ওভার)
দিনেশ চান্দিমাল ৬২ (৭৭)
ক্রিস উকস ৩/৩৪ (১০ ওভার)
জো রুট ১১* (১৬)
সুরঙ্গা লকমল ১/৮ (২ ওভার)
ফলাফল হয়নি
কাউন্টি গ্রাউন্ড, ব্রিস্টল
আম্পায়ার: পল রেইফেল (অস্ট্রেলিয়া) ও টিম রবিনসন (ইংল্যান্ড)
  • ইংল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • ইনিংস বিরতির পর বৃষ্টির কারণে প্রায় একঘন্টা দেরীতে শুরু হয়।
  • ১৬:২৮-এ বৃষ্টির কারণে খেলা বন্ধ হয় ও পরবর্তীতে আর শুরু করা যায়নি।
  • ইংল্যান্ডের পক্ষে লিয়াম প্লাঙ্কেট তার ৫০তম ওডিআই উইকেট লাভ করেন।[১৮]
  • পয়েন্ট: ইংল্যান্ড - ১, শ্রীলঙ্কা - ১

৪র্থ ওডিআই[সম্পাদনা]

২৯ জুন, ২০১৬ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
শ্রীলঙ্কা 
৩০৫/৫ (৪২ ওভার)
 ইংল্যান্ড
৩০৯/৪ (৪০.১ ওভার)
কুশল মেন্ডিস ৭৭ (৬৪)
আদিল রশীদ ২/৫৭ (৯ ওভার)
জেসন রয় ১৬২ (১১৮)
নুয়ান প্রদীপ ২/৭৮ (৯ ওভার)
ইংল্যান্ড ৬ উইকেটে বিজয়ী (ডি/এল)
দি ওভাল, লন্ডন
আম্পায়ার: রব বেইলি (ইংল্যান্ড) ও ব্রুস অক্সেনফোর্ড (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: জেসন রয় (ইংল্যান্ড)
  • ইংল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • শ্রীলঙ্কা ইনিংস চলাকালে বৃষ্টি নামে ও ৪২ ওভারে জয়ের জন্য ইংল্যান্ডের লক্ষ্যমাত্রা ৩০৮ নির্ধারণ করা হয়।
  • জেসন রয়ের গড়া ১৬২ রান ওডিআইয়ে ইংরেজ খেলোয়াড়দের মধ্যে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত সংগ্রহ।[১৯]
  • ওভালে একদিনের আন্তর্জাতিকে যে-কোন ব্যাটসম্যানদের মধ্যে রয়ের ১৬২ রান সর্বোচ্চ সংগ্রহ।[১৯]
  • ওডিআইয়ে ইংল্যান্ড সফলতমভাবে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ লক্ষ্যমাত্রা অতিক্রম করে।[১৯]
  • পয়েন্ট: ইংল্যান্ড - ২, শ্রীলঙ্কা - ০

৫ম ওডিআই[সম্পাদনা]

২ জুলাই, ২০১৬
স্কোরকার্ড
ইংল্যান্ড 
৩২৪/৭ (৫০ ওভার)
 শ্রীলঙ্কা
২০২ (৪২.৪ ওভার)
জো রুট ৯৩ (১০৬)
দানুষ্কা গুণতিলকা ৩/৪৮ (১০ ওভার)
দিনেশ চান্দিমাল ৫৩ (৬৬)
ডেভিড উইলি ৪/৩৪ (৯.৪ ওভার)
ইংল্যান্ড ১২২ রানে বিজয়ী
সোফিয়া গার্ডেন্স, কার্ডিফ
আম্পায়ার: মাইকেল গফ (ইংল্যান্ড) ও পল রেইফেল (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: জস বাটলার (ইংল্যান্ড)
  • শ্রীলঙ্কা টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • শ্রীলঙ্কার পক্ষে চামিন্দা বান্দারা'র ওডিআই অভিষেক ঘটে।
  • পয়েন্ট: ইংল্যান্ড - ২, শ্রীলঙ্কা - ০

টি২০আই সিরিজ[সম্পাদনা]

একমাত্র টি২০আই[সম্পাদনা]

৫ জুলাই, ২০১৬
স্কোরকার্ড
শ্রীলঙ্কা 
১৪০ (২০ ওভার)
 ইংল্যান্ড
১৪৪/২ (১৭.৩ ওভার)
ইংল্যান্ড ৮ উইকেটে বিজয়ী
রোজ বোল, সাউদাম্পটন
আম্পায়ার: রব বেইলি (ইংল্যান্ড) ও মাইকেল গফ (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: জোস বাটলার (ইংল্যান্ড)

পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

টেস্ট
ব্যাটিং[২০]
খেলোয়াড় দল ম্যাচ ইনিংস রান গড় সর্বোচ্চ ১০০ ৫০
জনি বেয়ারস্টো  ইংল্যান্ড ৩৮৭ ১২৯.০০ ১৬৭*
অ্যালেক্স হেলস  ইংল্যান্ড ২৯২ ৫৮.৪০ ৯৪
অ্যালাস্টেয়ার কুক  ইংল্যান্ড ২১২ ৭০.৬৬ ৮৫
কৌশল সিলভা  শ্রীলঙ্কা ১৯৩ ৩২.১৬ ৭৯
মঈন আলী  ইংল্যান্ড ১৮৯ ৬৩.০০ ১৫৫*
বোলিং[২১]
খেলোয়াড় দল ম্যাচ ওভার উইকেট গড় সেরা ৫ উই ১০ উই
জেমস অ্যান্ডারসন  ইংল্যান্ড ৯৬.৪ ২১ ১০.৮০ ৫/১৬
ব্রড  ইংল্যান্ড ৯৪ ১২ ২৪.৫৮ ৪/২১
নুয়ান প্রদীপ  শ্রীলঙ্কা ৯৬ ১০ ৩১.৬০ ৪/১০৭
ক্রিস উকস  ইংল্যান্ড ৫৩.৩ ১৮.৭৫ ৩/৯
স্টিভেন ফিন  ইংল্যান্ড ৫৯ ২৮.১৪ ৩/২৬
ওডিআই
ব্যাটিং[২২]
খেলোয়াড় দল ম্যাচ ইনিংস রান গড় সর্বোচ্চ ১০০ ৫০
জেসন রয়  ইংল্যান্ড ৩১৬ ১০৫.৩৩ ১৬২
দিনেশ চান্ডিমাল  শ্রীলঙ্কা ২৬৭ ৫৩.৪০ ৬৩
অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস  শ্রীলঙ্কা ২৫৩ ৬৩.২৫ ৭৩
জস বাটলার  ইংল্যান্ড ১৮০ ৯০.০০ ৯৩
জো রুট  ইংল্যান্ড ১৭১ ৫৭.০০ ৯৩
বোলিং[২৩]
খেলোয়াড় দল ম্যাচ ওভার উইকেট গড় সেরা ৫ উই ১০ উই
ডেভিড উইলি  ইংল্যান্ড ৪৬.৪ ১০ ২৬.৮০ ৪/৩৪
লিয়াম প্লাঙ্কেট  ইংল্যান্ড ৪৬ ১০ ২৭.১০ ৩/৪৪
আদিল রশিদ  ইংল্যান্ড ৪৯ ৩৮.০০ ২/৩৪
সুরঙ্গা লকমল  শ্রীলঙ্কা ৩৪ ৪১.৪০ ২/৬৫
ক্রিস উকস  ইংল্যান্ড ৪৬ ৪৫.৪০ ৩/৩৪
টুয়েন্টি২০
ব্যাটিং[২৪]
খেলোয়াড় দল ম্যাচ ইনিংস রান গড় সর্বোচ্চ ১০০ ৫০
জস বাটলার  ইংল্যান্ড ৭৩ ৭৩*
মর্গ্যান  ইংল্যান্ড ৪৭ ৪৭*
দানুষ্কা গুণতিলকা  শ্রীলঙ্কা ২৬ ২৬.০০ ২৬
দিনেশ চান্ডিমাল  শ্রীলঙ্কা ২৩ ২৩.০০ ২৩
কুশল মেন্ডিস  শ্রীলঙ্কা ২১ ২১.০০ ২১
বোলিং[২৫]
খেলোয়াড় দল ম্যাচ ওভার উইকেট গড় সেরা ৫ উই ১০ উই
লিয়াম ডসন  ইংল্যান্ড ৯.০০ ৩/২৭
ক্রিস জর্দান  ইংল্যান্ড ৯.৬৬ ৩/২৯
অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস  শ্রীলঙ্কা ১৩.৫০ ২/২৭
লিয়াম প্লাঙ্কেট  ইংল্যান্ড ১৩.৫০ ২/২৭

আয়ারল্যান্ড[সম্পাদনা]

২০১৬ শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের আয়ারল্যান্ড সফর
Cricket Ireland flag.svg
আয়ারল্যান্ড
Flag of Sri Lanka.svg
শ্রীলঙ্কা
তারিখ ১৬ জুন, ২০১৬ – ১৮ জুন, ২০১৬
অধিনায়ক উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস
একদিনের আন্তর্জাতিক সিরিজ
ফলাফল ২-ম্যাচের সিরিজ শ্রীলঙ্কা ২–০ তে জয়ী হয়
সর্বাধিক রান কুশল পেরেরা (১৬৭) উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড (৮১)
সর্বাধিক উইকেট দাসুন শানাকা (৬) ব্যারি ম্যাকার্থি (৪)
টিম মারতাগ (৪)
সিরিজ সেরা দাসুন শানাকা (শ্রীলঙ্কা)

দলীয় সদস্য[সম্পাদনা]

ওডিআই
 আয়ারল্যান্ড[২৬]  শ্রীলঙ্কা[২৭]

ওডিআই সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম ওডিআই[সম্পাদনা]

১৬ জুন, ২০১৬
স্কোরকার্ড
শ্রীলঙ্কা 
৩০৩/৭ (৫০ ওভার)
 আয়ারল্যান্ড
২১৬ (৪০.৪ ওভার)
শ্রীলঙ্কা ৭৬ রানে বিজয়ী (ডি/এল)
মালাহাইড ক্লাব গ্রাউন্ড, ডাবলিন
আম্পায়ার: মার্ক হথর্ন (আয়ারল্যান্ড) ও পল রেইফেল (অস্ট্রেলিয়া)

২য় ওডিআই[সম্পাদনা]

১৮ জুন, ২০১৬
স্কোরকার্ড
শ্রীলঙ্কা 
৩৭৭/৮ (৫০ ওভার)
 আয়ারল্যান্ড
২৪১ (৪৫ ওভার)
কুশল পেরেরা ১৩৫ (১২৮)
টিম মারতাগ ৩/৬৬ (১০ ওভার)
শ্রীলঙ্কা ১৩৬ রানে বিজয়ী
মালাহাইড ক্লাব গ্রাউন্ড, ডাবলিন
আম্পায়ার: মার্ক হথর্ন (আয়ারল্যান্ড) ও ব্রুস অক্সেনফোর্ড (অস্ট্রেলিয়া)
  • আয়ারল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • আয়ারল্যান্ডে শ্রীলঙ্কা ওডিআইয়ে তাদের সর্বোচ্চ সংগ্রহ ৩৭৭ তোলে।[২৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ECB announces dates for 2016 international summer"ecb.co.uk (ইংরেজি ভাষায়)। England and Wales Cricket Board। ২৫ আগস্ট ২০১৫। ২৭ আগস্ট ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৫ আগস্ট ২০১৫ 
  2. "ECB moots points-based system for SL series"ESPN Cricinfo (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৭ এপ্রিল ২০১৬ 
  3. "Pakistan and Sri Lanka agree in principle to points system for England tour"ESPN Cricinfo (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৪ মে ২০১৬ 
  4. "England v Sri Lanka: Uncapped James Vince & Jake Ball called up" (ইংরেজি ভাষায়)। BBC Sport (British Broadcasting Corporation)। ১২ মে ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১২ মে ২০১৬ 
  5. Fernando, Andrew Fidel (২৭ এপ্রিল ২০১৬)। "Dasun Shanaka, Dhananjaya de Silva in Test squad"ইএসপিএন ক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৭ এপ্রিল ২০১৬ 
  6. "Mills and Malan earn England T20 call-up"ইএসপিএন ক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। ইএসপিএন স্পোর্টস মিডিয়া। ১৩ জুন ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জুন ২০১৬ 
  7. "Sri Lanka recall Maharoof for England, Ireland ODIs"ইএসপিএন ক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। ইএসপিএন স্পোর্টস মিডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুন ২০১৬ 
  8. "Rambukwella called into Sri Lanka's T20 squad"ইএসপিএন ক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। ইএসপিএন স্পোর্টস মিডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ৪ জুলাই ২০১৬ 
  9. Jayaraman, Shiva (২০ মে ২০১৬)। "Anderson passes Kapil; Bairstow's Leeds form"ইএসপিএন ক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। ইএসপিএন স্পোর্টস মিডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ২০ মে ২০১৬ 
  10. Jayaraman, Shiva (২১ মে ২০১৬)। "First since Trueman; an average of 4.5"ইএসপিএন ক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। ইএসপিএন স্পোর্টস মিডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ২২ মে ২০১৬ 
  11. McGlashan, Andrew (২৮ মে ২০১৬)। "Sri Lanka fold again after Moeen's unbeaten century"ইএসপিএন ক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। ইএসপিএন স্পোর্টস মিডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ২৮ মে ২০১৬ 
  12. Seervi, Bharath (৩০ মে ২০১৬)। "Cook's 10k, Anderson's 450, Sri Lanka's four defeats in a row"ইএসপিএন ক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। ইএসপিএন স্পোর্টস মিডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মে ২০১৬ 
  13. "Cook crosses 10,000 Test runs mark"ইএসপিএন ক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। ইএসপিএন স্পোর্টস মিডিয়া। ৩০ মে ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মে ২০১৬ 
  14. "Bairstow and England breeze along" (ইংরেজি ভাষায়)। ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১০ জুন ২০১৬ 
  15. "Records tumble in dramatic tie"ESPNcricinfo (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২২ জুন ২০১৬ 
  16. Dawkes, Phil। "England v Sri Lanka: Liam Plunkett hits last ball for six to tie game"BBC Sport (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২২ জুন ২০১৬ 
  17. "Hales and Roy power England to record-breaking ten-wicket victory"ESPNcricinfo (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৪ জুন ২০১৬ 
  18. "England v Sri Lanka: Third ODI at Bristol abandoned after rain"BBC Sport (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৭ জুন ২০১৬ 
  19. "Roy's 162 and England's second-highest successful chase"ESPNcricinfo (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৩০ জুন ২০১৬ 
  20. "Records / Sri Lanka in England Test Series, 2016 / Most runs" (ইংরেজি ভাষায়)। ক্রিকইনফো। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৭-২৩ 
  21. "Records / Sri Lanka in England Test Series, 2016 / Most wickets" (ইংরেজি ভাষায়)। ক্রিকইনফো। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৭-২৩ 
  22. "Records / Sri Lanka in England ODI Series, 2016 / Most runs" (ইংরেজি ভাষায়)। ক্রিকইনফো। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৭-২৩ 
  23. "Records / Sri Lanka in England ODI Series, 2016 / Most wickets" (ইংরেজি ভাষায়)। ক্রিকইনফো। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৭-২৩ 
  24. "Records / Sri Lanka in England T20I Match, 2016 / Most runs" (ইংরেজি ভাষায়)। ক্রিকইনফো। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৭-২৩ 
  25. "Records / Sri Lanka in England T20I Match, 2016 / Most wickets" (ইংরেজি ভাষায়)। ক্রিকইনফো। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৭-২৩ 
  26. "McCarthy Earns Ireland Call Up"Cricket Ireland (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৫ জুন ২০১৬ 
  27. "Sri Lanka recall Maharoof for England, Ireland ODIs"Cricinfo (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১০ জুন ২০১৬ 
  28. "Statistics / Statsguru / One-Day Internationals / Bowling records / Career debut / Wickets taken between 5 and 10 / Ordered by start date (ascending)" (ইংরেজি ভাষায়)। ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জুন ২০১৬ 
  29. "Ireland well beaten by Sri Lanka in second ODI at Malahide" (ইংরেজি ভাষায়)। BBC Sport। সংগ্রহের তারিখ ১৯ জুন ২০১৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]