সুরঙ্গা লকমল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সুরঙ্গা লকমল
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামরানাসিংহে আরাচ্চিগ সুরঙ্গা লকমল
জন্ম (1987-03-10) ১০ মার্চ ১৯৮৭ (বয়স ৩২)
মাতারা, শ্রীলঙ্কা
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি ব্যাটসম্যান
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি মিডিয়াম-ফাস্ট
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক২৩ নভেম্বর ২০১০ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
শেষ টেস্ট১৬ মার্চ ২০১৩ বনাম বাংলাদেশ
ওডিআই অভিষেক১৮ ডিসেম্বর ২০০৯ বনাম ভারত
শেষ ওডিআই২৭ ডিসেম্বর ২০১৩ বনাম পাকিস্তান
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০০৭–বর্তমানতামিল ইউনিয়ন
২০০৭–বর্তমানবাসনাহিরা সাউথ
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি লিস্ট এ
ম্যাচ সংখ্যা ১৪ ১৭ ৬২ ৭৮
রানের সংখ্যা ৭৭ ৫০২ ১৩৮
ব্যাটিং গড় ৬.৪১ ০.৫০ ৯.৮৪ ৭.২৬
১০০/৫০ ০/০ ০/০ ০/১ ০/০
সর্বোচ্চ রান ১৮ ১* ৫৮* ৩৮*
বল করেছে ২,১৬৫ ৭৩১ ৮,২২২ ৩,৫২০
উইকেট ২০ ২১ ১৫৩ ১১৮
বোলিং গড় ৬৫.৭৫ ৩৪.৬১ ৩৪.৪৪ ২৬.৪৮
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৪/৭৮ ৩/২৪ ৬/৬৮ ৫/৩১
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৩/– ৫/– ২১/– ২২/–

রানাসিংহে আরাচ্চিগ সুরঙ্গা লকমল (সিংহলি: සුරංග ලක්මාල්; জন্ম: ১০ মার্চ, ১৯৮৭) আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার হিসেবে শ্রীলঙ্কা জাতীয় ক্রিকেট দলে খেলছেন। শ্রীলঙ্কার মাতারা এলাকায় জন্মগ্রহণকারী লকমল ডানহাতি মিডিয়াম ফাস্ট বোলার ও ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবেই শ্রীলঙ্কা দলের অন্যতম সদস্যরূপে চিহ্নিত হয়ে আছেন। পাশাপাশি বর্তমানে তিনি তামিল ইউনিয়ন ক্রিকেট ও অ্যাথলেটিক ক্লাবের হয়ে ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলছেন।[১][২] ২০০৮-০৯ মৌসুমে পাকিস্তান সফরের সময় তিনি সর্বপ্রথম জাতীয় দলে ডাক পান। জানা যায় যে, তিনি সন্ত্রাসীদের দ্বারা শ্রীলঙ্কা দলের উপর আক্রমণে আঘাত পেয়েছিলেন।[১]

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

সুরঙ্গা লকমল হাম্বানতোতা জেলার দেবারাউইয়া মধ্য মহাবিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেন। এরপর তিনি গলের রিচমন্ড কলেজে স্থানান্তরিত হন।

২০০৯ সালের ডিসেম্বরে দিলহারা ফার্নান্দো’র অনুপস্থিতিতে ভারত সফরে শ্রীলঙ্কা দলে ডাক পান। নাগপুরে অনুষ্ঠিত একদিনের আন্তর্জাতিকের দ্বিতীয় খেলায় ভারত দলের বিপক্ষে তার অভিষেক ঘটে। ঐ খেলায় তিনি ৮ ওভার বোলিং করে ৫৮ রান প্রদান করলেও কোন উইকেট লাভে ব্যর্থ হন। তারপরও তার দল তিন উইকেটের ব্যবধানে জয়লাভ করেছিল।[৩]

২৩ নভেম্বর, ২০১০ তারিখে তার টেস্ট অভিষেক ঘটে। আর. প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে অনুষ্ঠিত ২য় টেস্টে শ্রীলঙ্কার ১১৪তম টেস্ট খেলোয়াড় হিসেবে তিনি অংশগ্রহণ করেন।[৪] ১ ডিসেম্বর, ২০১০ তারিখে বিশ্বের ৩য় বোলাররূপে সুরঙ্গা লকমল নতুন মাঠ হিসেবে পরিচিত পাল্লেকেলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত টেস্ট ক্রিকেট খেলায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিস গেইলকে প্রথম বলে আউট করে রেকর্ড বহিতে নাম লেখান। এরফলে তিনি ভারতের কপিল দেব এবং পাকিস্তানের ইমরান খানের সমকক্ষ হন।[৫] এছাড়াও, তিনি হাম্বানতোতা জেলার প্রথম ক্রিকেটার হিসেবেও শ্রীলঙ্কা জাতীয় ক্রিকেট দলের প্রতিনিধিত্বকারী।[৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Sri Lanka name two newcomers for Pakistan Tests"Cricinfo। ২০০৯-০২-০৩। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৩-২৬ 
  2. "Suranga Lakmal"। Cricinfo। ২০০৯-০২-০৩। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৩-২৬ 
  3. "India v Sri Lanka in 2009/10"CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ১৯ ডিসেম্বর ২০০৯ 
  4. "Suranga Lakmal makes his Test debut"Island Cricket। সংগ্রহের তারিখ ১ ডিসেম্বর ২০১০ 
  5. "Bravo’s 50 lifts WI to 134–2". BangaloreMirror.com. 2010-12-01. Retrieved 2010-12-05[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  6. "Suranga Lakmal 1st national cricketer from Hambantota"। The Nation। ২০০৯-০২-১৫। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৮-২১ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]