মাইকেল কস্টারলিৎজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
জন মাইকেল কস্টারলিৎজ
Jkosterl.jpg
জন্ম মাইকেল কস্টারলিৎজ
(১৯৪৩-০৬-২২) ২২ জুন ১৯৪৩ (বয়স ৭৪)
অ্যাবরদিন, স্কটল্যান্ড
জাতীয়তা ব্রিটিশ
প্রতিষ্ঠান ব্রাউন বিশ্ববিদ্যালয়
প্রাক্তন ছাত্র কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়
অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়
সন্দর্ভসমূহ সুগঠিত আন্তঃক্রীয়াশীল পদার্থবিজ্ঞানের সমস্যাসমূহ (১৯৬৯)
শিক্ষায়তনিক উপদেষ্টারা ডেভিড জে. থলেস (postdoc)
উল্লেখযোগ্য পুরস্কার Nobel prize medal.svg পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার (২০১৬)[১]
লারস অনস্যাজার পুরস্কার (২০০০)
ওয়েবসাইট
vivo.brown.edu/display/jkosterl

জন মাইকেল কস্টারলিৎজ (ইংরেজি: Michael Kosterlitz; জন্ম: ১৯৪২) স্কটল্যান্ডের অ্যাবরদিনে জন্মগ্রহণকারী বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ।[২] ইতোমধ্যেই মাইকেল কস্টারলিৎজ ম্যাক্সওয়েল পদক ও পুরস্কারসহ পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার বিজয়ী। বর্তমানে তিনি ব্রাউন বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত।

শিক্ষাজীবন[সম্পাদনা]

বিখ্যাত জৈবরসায়নবিদ হান্স কস্টারলিৎজের সন্তান তিনি। জার্মান ইহুদি অভিবাসিত পরিবারের সন্তান তিনি।

স্নাতক ডিগ্রি অর্জনশেষে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন কেমব্রিজের গনভিল ও কাইয়াস কলেজ থেকে।[২] এরপর ১৯৬৯ সালে অক্সফোর্ডের ব্রেজনোজ কলেজ ডক্টর অব ফিলোসফি লাভ করেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

ডেভিড থলেসের সাথে বার্মিংহাম বিশ্ববিদ্যালয়ে পোস্টডক্টরাল করার সুযোগ পান। ১৯৭৪ সালে কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বার্মিংহাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষদে নিযুক্ত হন।[২] শুরুতে প্রভাষক ও পরবর্তীতে রিডার ছিলেন তিনি। এরপর ১৯৮২সাল থেকে ব্রাউন বিশ্ববিদ্যালয়ে পদার্থবিজ্ঞানের অধ্যাপকের দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। বর্তমানে তিনি ফিনল্যান্ডের আলতো বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিজিটিং রিসার্চ ফেলো হিসেবে রয়েছেন।

কস্টারলিৎজ ঘনীভূত বিষয়ে তাত্ত্বিকভাবে গবেষণা করছেন।

সম্মাননা[সম্পাদনা]

১৯৮১ সালে ব্রিটিশ পদার্থবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট থেকে ম্যাক্সওয়েল পদক ও পুরস্কার পান। ২০০০ সালে কস্টারলিৎজ-থলেস ট্রানজিশনের জন্য আমেরিকান ফিজিক্যাল সোসাইটি থেকে লার্স অনস্যাজার পুরস্কার লাভ করেন।

২০১৬ সালে ডানকান হল্ডেনডেভিড জে. থলেসের সাথে পদার্থবিজ্ঞানে যৌথভাবে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন তিনি।[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Devlin, Hannah; Sample, Ian (২০১৬-১০-০৪)। "British trio win Nobel prize in physics 2016 for work on exotic states of matter – live"the Guardian। সংগৃহীত ২০১৬-১০-০৪ 
  2. "Two former Birmingham scientists awarded Nobel Prize for Physics"University of Birmingham। ৪ অক্টোবর ২০১৬। সংগৃহীত ৪ অক্টোবর ২০১৬ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]