অলিভার হার্ট (অর্থনীতিবিদ)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
অলিভার হার্ট
Nobel Laureates 0852 (31341946822).jpg
জন্ম অলিভার সিমন ডি'আর্কি হার্ট
১৯৪৮
লন্ডন, যুক্তরাজ্য
বাসস্থান মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
নাগরিকত্ব মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
জাতীয়তা ব্রিটিশ
কর্মক্ষেত্র আইন এবং অর্থনীতি
প্রতিষ্ঠান হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়
ম্যাসাচুয়েটস ইন্সটিটিউট অফ টেকনোলজি
প্রাক্তন ছাত্র কিংস কলেজ, ক্যামব্রিজ বি.এ
ওয়ারউইক বিশ্ববিদ্যালয় এম.এ
প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয় পিএইচ.ডি
উল্লেখযোগ্য পুরস্কার নোবেল স্মারক পুরস্কার(অর্থনীতি) (২০১৬)

অলিভার সিমন ডি'আর্কি হার্ট (জন্ম ১৯৪৮) একজন ব্রিটিশ অর্থনীতিবিদ এবং হার্ভাড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক। অর্থনীতিতে অবদানের জন্য তিনি ২০১৬ তে অর্থনীতিতে নোবেল স্মারক পুরস্কার লাভ করেন।

গবেষনা[সম্পাদনা]

অর্থনীতির কন্ট্রাক্ট থিওরি নিয়ে অনন্যসাধারণ গবেষণার স্বীকৃতি হিসেবে এ সম্মাননা পেলেন এ দুই অর্থনীতিবিদ। তাদের গবেষণার আওতা এতটাই ব্যাপক যে, বীমা পলিসি, নির্বাহীদের বেতন থেকে শুরু করে জেলখানার ব্যবস্থাপনাও এর আওতার মধ্যে পড়ে। গবেষণার মাধ্যমে ব্রিটিশ-আমেরিকান অর্থনীতিবিদ অলিভার হার্ট ও ফিনল্যান্ডের বেঙ্কট হলস্ট্রম অর্থনীতির কন্ট্রাক্ট থিওরিকে এক নতুন উচ্চতায় নিয়ে গেছেন বলে মনে করছেন নোবেল জুরিরা। অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার ঘোষণা করে প্রকাশিক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘এ দুই অর্থনীতিবিদ তাদের গবেষণায় প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ নির্বাহীদের কার্যভিত্তিক বেতন, বীমা খাতে ডিডাকটিবলস (বীমা করার আগে গ্রহীতার অবশ্য প্রদেয় অর্থ) ও কোপেমেন্ট (স্বাস্থ্য বীমায় নির্দিষ্ট সেবার বিনিময়ে প্রদেয় অর্থ) এবং সরকারি খাতের বেসরকারীকরণসহ বহুমুখী বিভিন্ন চুক্তিভিত্তিক বিষয়াদি নিয়ে আলোচনা করেছেন। বিভিন্ন খাতের নীতিনির্ধারণ ও সাংগঠনিক রূপরেখা এবং তাত্ত্বিক ভিত্তি তৈরিতে তাদের গবেষণা নিশ্চিতভাবেই অগ্রসর ভূমিকা পালন করতে যাচ্ছে। এছাড়া আলাদা আলাদাভাবে কাজ করতে গিয়ে শিক্ষক, স্বাস্থ্যকর্মী ও জেলখানার প্রহরীদের বেতন-ভাতা নির্ধারণের পন্থা নিয়েও আলোচনা করেছেন তারা, যা এদের বেতন নির্দিষ্ট হবে না কার্যভিত্তিক— তা নির্ধারণে সহায়ক ভূমিকা রাখবে। একই সঙ্গে স্কুল, হাসপাতাল বা জেলখানা সরকারি না বেসরকারি খাতে পরিচালিত হওয়া উচিত; সে বিষয়েও আলোচনা করেছেন তারা। নোবেল জুরিদের বিবৃতিতে আরো বলা হয়, চুক্তি ও সংগঠনের রূপরেখা বোঝায় সহায়ক ভূমিকা পালন করবে হার্ট ও হলস্ট্রম আলোচিত তত্ত্বগত নতুন পদ্ধতি।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহি:সংযোগ[সম্পাদনা]