দিলীপ মেন্ডিস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
দিলীপ মেন্ডিস
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম লুইস রোহন দিলীপ মেন্ডিস
জন্ম (১৯৫২-০৮-২৫) ২৫ আগস্ট ১৯৫২ (বয়স ৬৬)
মোরাতুয়া, শ্রীলঙ্কা
ব্যাটিংয়ের ধরন ডানহাতি
বোলিংয়ের ধরন ডানহাতি মিডিয়াম পেস
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ )
১৭ ফেব্রুয়ারি ১৯৮২ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট ২৫ আগস্ট ১৯৮৮ বনাম ইংল্যান্ড
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ )
৭ জুন ১৯৭৫ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
শেষ ওডিআই ২৪ মার্চ ১৯৮৯ বনাম পাকিস্তান
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ২৪ ৭৯ ১২১ ১১০
রানের সংখ্যা ১,৩২৯ ১,৫২৭ ৬,২৩৩ ২,৪৬৭
ব্যাটিং গড় ৩১.৬৪ ২৩.৪৯ ৩৫.৮২ ২৭.৪১
১০০/৫০ ৪/৮ ০/৭ ১২/৩৫ ১/১৩
সর্বোচ্চ রান ১২৪ ৮০ ১৯৪ ১০৫*
বল করেছে ৯০ ১২
উইকেট
বোলিং গড় ৫২.০০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ১/৪
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৯/০ ১৪/০ ৪৯/১ ২৪/০
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো, সেপ্টেম্বর ২০১৬

লুইস রোহন দিলীপ মেন্ডিস (তামিল: துலிப் மென்டிஸ்; জন্ম: ২৫ আগস্ট, ১৯৫২) মোরাতুয়ায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটার[১] শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের অধিনায়কের দায়িত্বে ছিলেন। ১৯৮২ থেকে ১৯৮৫ সালের মধ্যবর্তী সময়কালে শ্রীলঙ্কা দলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান দিলীপ মেন্ডিস বর্তমানে ওমান ক্রিকেট দলের কোচের দায়িত্বে রয়েছেন।[২]

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৯৭২ সালে সফরকারী তামিলনাড়ু দলের বিপক্ষে আন্তর্জাতিক মর্যাদাবিহীন খেলায় তাঁর অভিষেক ঘটে। প্রথম ইনিংসে সর্বোচ্চ ৫২ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৩৪ করলেও তাঁর দল ইনিংস পরাজয় এড়াতে পারেনি।

১৯৭৫ সালে প্রথম একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ করেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে অনুষ্ঠিত ঐ খেলায় তিনি মাত্র ৮ রান সংগ্রহ করেন। এর সাত বছর পর ১৭ ফেব্রুয়ারি, ১৯৮২ তারিখে অন্যান্য শ্রীলঙ্কানদের সাথে তাঁরও টেস্ট অভিষেক হয়। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অনুষ্ঠিত টেস্টে চার নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে ১৭ ও ২৭ রান করেন। খেলায় তাঁর দল সাত উইকেটে পরাভূত হয়। পরবর্তী আট ইনিংসে তিনি একটিমাত্র অর্ধ-শতকের দেখা পান। পাকিস্তানের বিপক্ষে তিন টেস্ট সিরিজের প্রথমটিতে এই অর্ধ-শতক সংগ্রহ করেন।

১৯৮২ সালের শরতে ভারত সফরে মেন্ডিস তাঁর স্বরূপ মেলে ধরেন। ১১ রানে ২ উইকেটের পতনের পর রয় ডায়াসের সাথে তৃতীয় উইকেটে ১৫৩ রান তোলেন। মেন্ডিস তাঁর অভিষেক সেঞ্চুরি পান ও শ্রীলঙ্কাকে প্রথম দিন অতিবাহিত করতে সহায়তা করেন। তারপর ভারতীয় দল ৫৬৬/৬ ডিক্লেয়ার করলে শ্রীলঙ্কা ড্রয়ের চেষ্টা চালায়। উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানদ্বয় দ্রুত প্যাভিলিয়নে ফিরে আসলে মেন্ডিস পুণরায় ১০৫ রান সংগ্রহ করে দলকে পঞ্চম দিনের চা-বিরতি পর্যন্ত নিয়ে যান। তাঁর সাহসী পদক্ষেপে দল প্রথমবারের মতো টেস্ট ড্র করতে সক্ষম হয়।

১৯৮৩ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে মেন্ডিস তাঁর তৃতীয় ওডিআই অর্ধ-শতক করেন। কিন্তু সম্মানজনক রান তোলার পরও দল হেরে যায়। অথচ, শূন্য রান তোলেও শ্রীলঙ্কা দল একমাত্র জয়ের সন্ধান পেয়েছিল।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "profile of Duleep Mendis"espncricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৩ জানুয়ারি ২০১৪ 
  2. "Oman in Asian Cricket Council"। asiancricket। সংগ্রহের তারিখ 2015-7-29  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]