রঞ্জিত ফার্নান্দো

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
রঞ্জিত ফার্নান্দো
ক্রিকেট তথ্য
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
ভূমিকাউইকেট-কিপার
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই
ম্যাচ সংখ্যা -
রানের সংখ্যা - ৪৭
ব্যাটিং গড় - ১৫.৬৬
১০০/৫০ -/- -/-
সর্বোচ্চ রান - ২২
বল করেছে - -
উইকেট - -
বোলিং গড় - -
ইনিংসে ৫ উইকেট - -
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং - -
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং -/- -/-
উৎস: cricinfo, ১৮ জুলাই ২০১৫

এডওয়ার্ড রঞ্জিত ফার্নান্দো (জন্ম: ২২ ফেব্রুয়ারি, ১৯৪৪) কলম্বোয় জন্মগ্রহণকারী সাবেক শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটারশ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন রঞ্জিত ফার্নান্দো[১] দলে তিনি মূলতঃ উইকেট-কিপারের দায়িত্ব পালন করেছেন। পাশাপাশি ডানহাতে উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে ভূমিকা রাখেন।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৯৬০ সালে কলম্বোর সেন্ট বেনেডিক্ট’স কলেজে বিদ্যালয়ের প্রথম একাদশে খেলতে শুরু করেন। এ সময়ে তিনি বিদ্যালয়ের শীর্ষস্থানীয় ক্রিকেটারসহ সেরা উইকেট-কিপার ছিলেন। ১৯৬৪ সালে তিনি বর্ষসেরা স্কুলবয় ক্রিকেটার মনোনীত হন। ১৯৬৪ সালে মাইকেল তিসেরা’র অধিনায়কত্বে সিলন দলের সদস্য হিসেবে ভারত সফরে যান। অনানুষ্ঠানিক টেস্ট সিরিজে অংশ না নিলেও সিলন দল তৃতীয় টেস্টে ভারতকে পরাভূত করে যা দেশের প্রথম বৃহৎ জয় হিসেবে স্বীকৃত।

১৯৬৩ থেকে ১৯৭৯ সাল পর্যন্ত ঘরোয়া ক্রিকেটে নন্দেস্ক্রিপ্টস ক্রিকেট ক্লাবের পক্ষে খেলেন। প্রিমিয়ার বিভাগে নিরবিচ্ছিন্নভাবে ১৬ বছর খেলা চালিয়ে যান। দলের অধিনায়ক হিসেবে তিনি অনেকগুলো শিরোপা লাভে দলকে সহায়তা করেন।

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে তিনি তিনটি একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশ নিয়েছেন। সবগুলো ওডিআইই তিনি ১৯৭৫ সালের বিশ্বকাপে খেলেন। তিনি সর্বমোট ৪৭ রান সংগ্রহ করেছিলেন।[২]

কোচ[সম্পাদনা]

১৯৮২ সালে ইংল্যান্ডে ন্যাশনাল ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন কর্তৃক পরিচালিত অ্যাডভান্স কোচ হিসেবে উত্তীর্ণ হন। এরফলে শ্রীলঙ্কার জাতীয় কোচ হিসেবে আইসিসি’র পূর্ণাঙ্গ সদস্য লাভে ভূমিকা রাখেন। এছাড়াও, দেশের জাতীয় কোচিং পরিকল্পনার রূপরেখা বাস্তবায়নে সহায়তা করেন।

শ্রীলঙ্কা দলের প্রথম সফরে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রথম টেস্টে দলের সহকারী ম্যানেজারের দায়িত্ব পান। খেলোয়াড়ী জীবন থেকে অবসর নিয়ে স্বেচ্ছায় দলের কোচিংয়ে অংশ নেন। ধারাবাহিকভাবে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের নির্বাহী কমিটিতে সদস্য হন ও অধিকাংশ সময় কোচিং কমিটিতে অংশ নেন। শ্রীলঙ্কার ক্রমবর্ধমান উন্নয়নে ফিল্ডিংয়ের মান বৃদ্ধিতে অনবরত কাজ করে যান। এর ফলাফল হিসেবে ১৯৯৬ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে দল শিরোপা লাভ করে।

১৯৮৩ থেকে ১৯৮৮ এবং ২০১১ সালে দল নির্বাচকমণ্ডলীর সদস্য ছিলেন তিনি। এছাড়াও আইসিসি’র ক্রিকেট কমিটিতে শ্রীলঙ্কার প্রতিনিধিত্ব করেন। বর্তমানে তিনি শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের ক্রিকেট ও কোচিং কমিটির প্রধানের দায়িত্বে রয়েছেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Ranjit Fernando's Cricinfo Profile"Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ 2015-7-18  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  2. Mukherjee, Abhishek (2014-2-24)। "Ranjit Fernando: Sri Lanka's first international 'keeper"। cricketcountry। সংগ্রহের তারিখ 2015-7-18  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ=, |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]