অশঙ্কা গুরুসিনহা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
অশঙ্কা গুরুসিনহা
ক্রিকেট তথ্য
ব্যাটিংয়ের ধরনবামহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি মিডিয়াম
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই
ম্যাচ সংখ্যা ৪১ ১৪৭
রানের সংখ্যা ২৪৫২ ৩৯০২
ব্যাটিং গড় ৩৮.৯২ ২৮.২৭
১০০/৫০ ৭/৮ ২/২২
সর্বোচ্চ রান ১৪৩ ১১৭*
বল করেছে ২৩৪ ২৬৪
উইকেট ২০ ২৬
বোলিং গড় ৩৪.০৪ ৫২.০৭
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট -
সেরা বোলিং ৪/৬৮ ২/২৫
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৩৩/০ ৪৯/০
উৎস: ক্রিকইনফো, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫

অশঙ্কা প্রদীপ গুরুসিনহা (তামিল: அசங்க குருசிங்க; জন্ম: ১৬ সেপ্টেম্বর, ১৯৬৬) শ্রীলঙ্কার কলম্বোয় জন্মগ্রহণকারী সাবেক ক্রিকেটার। বামহাতি ব্যাটিং ও ডানহাতি মিডিয়াম বোলিংয়ের অধিকারী অশঙ্কা গুরুসিনহা শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলে মূলতঃ বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান হিসেবেই অংশগ্রহণ করেছেন। ১৯৯৬ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপ জয়ী শ্রীলঙ্কা দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন। বর্তমানে তিনি অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে বসবাস করছেন।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

কলম্বোর ইসিপাথানা কলেজে অধ্যয়ন শেষে নালন্দা কলেজে অধ্যয়ন করেন। ১৯ বছর বয়সে তিনি জাতীয় দলে খেলার জন্য ডাক পান। শুরুতে তিনি উইকেট-রক্ষকের দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তীতে ৩ নম্বরে ব্যাটিংয়ে নিজ আসন পাকাপোক্ত করেন। ক্রিকইনফো’র প্রতিবেদক সায়মন ওয়াইল্ড তাঁকে শ্রীলঙ্কার ব্যাটিং স্তম্ভরূপে আখ্যায়িত করেন।

সুদীর্ঘ ১১ বছরের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অঙ্গনে তিনি ৪১ টেস্ট ও ১৪৭টি ওডিআইয়ে অংশগ্রহণ করেছেন। তন্মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ অর্জন ছিল ক্রিকেট বিশ্বকাপে দলকে শিরোপা এনে দেয়া। ১৯৯৬ সালের বিশ্বকাপ ফাইনালে অরবিন্দ ডি সিলভা’র সাথে ১২৫ রানের জুটি গড়েছিলেন। খেলায় তিনি ৬৫ রান করেছিলেন।

৩২তম খেলোয়াড় হিসেবে গুরুসিনহা শ্রীলঙ্কার টেস্ট ক্যাপ পরিধান করেন। ১৯৮৫/৮৬ মৌসুমে করাচিতে অনুষ্ঠিত পাকিস্তানের বিপক্ষে তিনি অভিষিক্ত হন। ১৯৯৬ সালে অবসর নেয়ার সময় কেবলমাত্র শ্রীলঙ্কার সাবেক অধিনায়ক অরবিন্দ ডি সিলভা তারচেয়ে অধিক টেস্ট সেঞ্চুরি করেছিলেন।[১] কার্যকরী অনিয়মিত বোলার হিসেবে মাইকেল অ্যাথারটন, সুনীল গাভাস্কার, ডিন জোন্স, স্টিভ ওয়াহ, ইনজামাম-উল-হকের ন্যায় তিনিও সফলকাম ছিলেন; যারা কমপক্ষে ২০টি টেস্ট উইকেট লাভ করেছেন।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]