লুকা মদরিচ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
লুকা মদরিচ
Luka Modric 2018.png
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম লুকা মদ্রিচ[১]
জন্ম (১৯৮৫-০৯-০৯) ৯ সেপ্টেম্বর ১৯৮৫ (বয়স ৩৩)[১]
জন্ম স্থান জাদার, সমাজতান্ত্রিক যুগোস্লাভিয়া
উচ্চতা ১.৭২ মিটার[২]
মাঠে অবস্থান মধ্যমাঠের খেলোয়াড়
ক্লাবের তথ্য
বর্তমান ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ
জার্সি নম্বর ১০
যুব পর্যায়ের খেলোয়াড়ী জীবন
১৯৯৬–২০০১ জাদার
২০০২–২০০৩ দিনামো জাগ্রেব
জ্যেষ্ঠ পর্যায়ের খেলোয়াড়ী জীবন*
বছর দল উপস্থিতি (গোল)
২০০৩–২০০৮ দিনামো জাগ্রেব ৯৪ (২৬)
২০০৩–২০০৪জ্রিনিস্কি (ধার) ২২ (৮)
২০০৪–২০০৫ইন্টার জাপ্রেসিচ (ধার) ১৮ (৪)
২০০৮–২০১২ টটেনহ্যাম হটস্পার ১২৭ (১৩)
২০১২– রিয়াল মাদ্রিদ ১৭৩ (৯)
জাতীয় দল
২০০১ ক্রোয়েশিয়া অনূর্ধ্ব-১৫ (০)
২০০১ ক্রোয়েশিয়া অনূর্ধ্ব-১৭ (০)
২০০৩ ক্রোয়েশিয়া অনূর্ধ্ব-১৮ (০)
২০০৩–২০০৪ ক্রোয়েশিয়া অনূর্ধ্ব-১৯ ১১ (২)
২০০৪–২০০৫ ক্রোয়েশিয়া অনূর্ধ্ব-২১ ১৪ (২)
২০০৬– ক্রোয়েশিয়া ১১৫ (১৪)
  • পেশাদারী ক্লাবের উপস্থিতি ও গোলসংখ্যা শুধুমাত্র ঘরোয়া লিগের জন্য গণনা করা হয়েছে এবং ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

† উপস্থিতি(গোল সংখ্যা)।

‡ জাতীয় দলের হয়ে খেলার সংখ্যা এবং গোল ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

লুকা মদরিচ (ক্রোয়েশীয় উচ্চারণ: [lûːka mǒːdritɕ];[৩][৪] জন্ম ৯ সেপ্টেম্বর ১৯৮৫) হলেন একজন ক্রোয়েশীয় পেশাদার ফুটবলার। তিনি স্পেনীয় ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে খেলেন এবং ক্রোয়েশিয়া জাতীয় দলের অধিনায়ক[৫] তিনি মূলত মধ্যমাঠের খেলোয়াড় হিসেবে খেলে থাকেন, পাশাপাশি তিনি আক্রমণভাগের মিডফিল্ডার বা রক্ষণভাগের মিডফিল্ডার, ও প্লেমেকার হিসেবেও খেলে থাকেন।[৬] মদরিচকে বিশ্বের অন্যতম শ্রেষ্ঠ মধ্যমাঠের খেলোয়াড় বলে গণ্য করা হয়।[nb ১]

আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ক্রোয়েশিয়া জাতীয় দলের হয়ে ২০০৬ সালের মার্চে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে মদরিচের অভিষেক হয়। তিনি তার প্রথম আন্তর্জাতিক গোল করেন ইতালির বিপক্ষে। উয়েফা ইউরো ২০০৮ আসরে তিনি আসরের সেরা দলে অন্তর্ভুক্ত হন। তিনি দ্বিতীয় ক্রোয়েশীয় হিসেবে এই সম্মান লাভ করেন। ২০১৫ সালে প্রথম ক্রোয়েশীয় খেলোয়াড় হিসেবে ফিফা বিশ্ব একাদশে অন্তর্ভুক্ত হন। ২০১৬ ও ২০১৭ সালেও এই একাদশে তার নাম অন্তর্ভুক্ত হয় এবং ২০১৬ ও ২০১৭ সালে উয়েফা বর্ষসেরা দলেও তার নাম অন্তর্ভুক্ত হয়। তিনি ছয়বার ক্রোয়েশীয় বর্ষসেরা ফুটবলারের খ্যাতি অর্জন করেন। তিনি ডেভর সুকারের সাথে যৌথভাবে এই পুরস্কারের সর্বাধিক বার বিজেতা। ইভান রাকিতিচমারিও মাঞ্জুকিচের সাথে তিনি ক্রোয়েশিয়ার "দ্বিতীয় সোনালি প্রজন্ম"-এর একজন এবং এই সময়ে তিনি ক্রোয়েশিয়ার হয়ে সবকয়টি বড় আসরে অংশগ্রহণ করেছেন, যার মধ্যে রয়েছে ২০০৬ ফিফা বিশ্বকাপ, উয়েফা ইউরো ২০০৮, উয়েফা ইউরো ২০১২, ২০১৪ ফিফা বিশ্বকাপ, উয়েফা ইউরো ২০১৬ এবং ২০১৮ ফিফা বিশ্বকাপ। তার প্রথম দুই বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্ব থেকে বাদ পড়ার পর তিনি ক্রোয়েশিয়া দলকে ২০১৮ বিশ্বকাপ ফাইনালে নিয়ে যাওয়ার পথে নেতৃত্ব দেন। ফাইনাল খেলায় ফ্রান্সের কাছে হেরে তার দল রানার-আপ হয় এবং তিনি আসরের সেরা খেলোয়াড় হিসেবে গোল্ডেন বল পুরস্কার লাভ করেন। ২০১৭-২০১৮ উয়েফা বর্ষসেরা পুরুষ খেলোয়াড় পুরস্কার লাভ করেন।[৭]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

লুকা মদরিচ ১৯৮৫ সালের ৯ই সেপ্টেম্বর সমাজতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্র ক্রোয়েশিয়ার জাদারে জন্মগ্রহণ করেন।[৮][৯] তার পিতা স্ত্রিপে মদরিচ এবং মাতা রাদোইকা দোপুদ, দুজনেই একটি নিটওয়্যার ফ্যাক্টরিতে কাজ করতেন। লুকা স্ত্রিপে ও রাদোইকা দম্পতির জ্যেষ্ঠ সন্তান।[১০][১১][১২][১৩] তিনি জাদারের উত্তরাংশের ভেলেবিট পর্বতের দক্ষিণে অবস্থিত জাতোন ওব্রোভাচকি গ্রামে বেড়ে ওঠেন।[১৪][১৫][১৬]

আন্তর্জাতিক কর্মজীবন[সম্পাদনা]

২০১৮ ফিফা বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

২০১৮ ফিফা বিশ্বকাপের একটি খেলায় শট নিচ্ছেন মদরিচ।

২০১৮ ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে মদরিচ বাছাইপর্বে দ্বিতীয় রাউন্ডে গ্রিসের বিপক্ষে পেনাল্টি থেকে একটি গোল করে ক্রোয়েশিয়াকে বিশ্বকাপের পথে এগিয়ে নিয়ে যান। ক্রোয়েশিয়া গ্রুপ পর্বে আর্জেন্টিনা, আইসল্যান্ডনাইজেরিয়ার সাথে গ্রুপ ডি-তে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে। বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ডে ক্রোয়েশিয়ার প্রথম খেলায় মদরিচ নাইজেরিয়ার বিপক্ষে আবারও পেনাল্টি থেকে একটি গোল করে তার দলকে জয় এনে দেন[১৭] এবং তিনি নিজে ম্যান অব দ্য ম্যাচ হন।[১৮] পরের খেলায় তিনি আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ২৫ গজ দূর থেকে একটি গোল করেন[১৯] এবং তার দল ৩-০ গোলের জয় পায় এবং তিনি আবার ম্যান অব দ্য ম্যাচ হন। আইসল্যান্ডের বিপক্ষেও তার ভালো খেলার জন্য ফোরফোরটু,[২০] দ্য ডেইলি টেলিগ্রাফ,[২১]ইএসপিএন[২২] তাকে গ্রুপ পর্বের সেরা খেলোয়াড় বলে উল্লেখ করে। দ্বিতীয় রাউন্ডে ডেনমার্কের বিপক্ষে অতিরিক্ত সময়ে পেনাল্টি বক্সের ভিতরে আন্তে রেবিচকে ফাউল করার জন্য ক্রোয়েশিয়া পেনাল্টি পায়, কিন্তু মদরিচের দুর্বল শট গোলকিপার কাসপার শ্মেইশেল ফিরিয়ে দেন।[২৩] যাই হোক, মদ্রিচ পেনাল্টি শুট-আউটে গোল করতে সমর্থ হন এবং ট্রাইব্রেকারে ৩-২ গোলে এগিয়ে থেকে ক্রোয়েশিয়ার কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত হয়।[২৪] ৭ই জুলাই কোয়ার্টার ফাইনালে রাশিয়ার বিপক্ষে তার করা কর্নার থেকে দোমগজ ভিদার গোল করেন। অতিরিক্ত সময়ে ২-২ গোলে ড্রয়ের পর তিনি পেনাল্টি শুট-আউটে গোল করেন এবং তৃতীয়বারের মত এই আসরে ম্যান অব দ্য ম্যাচ হন।[২৫] ১১ই জুলাই সেমি ফাইনালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অতিরিক্ত সময়ে গোল পেয়ে তার দল তাদের ইতিহাসের প্রথমবারের মত বিশ্বকাপের ফাইনালে ওঠে।[২৬][২৭] ফাইনাল খেলার দুই দিন পূর্বে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয় মদরিচ যে কোন খেলোয়াড়ের চেয়ে বেশি মাইল দৌড়েছেন এবং গোলের সুযোগ তৈরি করা খেলোয়াড়দের মধ্যে তৃতীয় ছিলেন; এছাড়া তিনি প্রতি ম্যাচে সবচেয়ে বেশি ড্রিবলিং করেছেন এবং বিপক্ষ দলের অর্ধেকের চেয়েও বেশি পাস দিয়েছেন।[২৮] ১৫ই জুলাই ফ্রান্সের সাথে ক্রোয়েশিয়া ৪-২ গোলে পরাজিত হয়,[২৯] কিন্তু আসরের সেরা খেলোয়াড় হিসেবে মদরিচ গোল্ডেন বল পুরস্কার লাভ করেন।[৩০]

কর্মজীবন পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

আন্তর্জাতিক[সম্পাদনা]

১৫ই জুলাই ২০১৮ পর্যন্ত হালনাগাদকৃত।
ক্রোয়েশিয়া জাতীয় দল[৩১]
বছর উপস্থিতি গোল
২০০৬ ১২
২০০৭ ১০
২০০৮ ১১
২০০৯
২০১০
২০১১
২০১২
২০১৩ ১০
২০১৪ ১১
২০১৫
২০১৬
২০১৭
২০১৮ ১০
সর্বমোট ১১৩ ১৪

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

ক্লাব[সম্পাদনা]

২০১৭-১৮ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ জেতার পর আলমুদেনা ক্যাথিড্রালের বিশপগণ মদ্রিচকে অভিনন্দন জানাচ্ছেন।
দিনামো জাগ্রেব[৩২]
  • ক্রোয়েশীয় প্রথম লিগ: ২০০৫-০৬, ২০০৬-০৭, ২০০৭-০৮
  • ক্রোয়েশীয় কাপ: ২০০৬-০৭, ২০০৭-০৮
  • ক্রোয়েশীয় সুপার কাপ: ২০০৬
রিয়াল মাদ্রিদ[৩২]

আন্তর্জাতিক[সম্পাদনা]

২০১৮ ফিফা বিশ্বকাপ ফাইনালের পর রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিনের হাত থেকে গোল্ডেন বল পুরস্কার নিচ্ছেন মদরিচ।
ক্রোয়েশিয়া

ব্যক্তিগত[সম্পাদনা]

টীকা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. হাগম্যান, ব্যারি জে., সম্পাদক (২০১০)। The PFA Footballers' Who's Who 2010–11। Mainstream Publishing। পৃষ্ঠা ২৯০। আইএসবিএন 978-1-84596-601-0 
  2. "Player Profile"। realmadrid.com। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জুন ২০১৮ 
  3. "Lȗka"Hrvatski jezični portal (সার্বো-ক্রোয়েশিয় ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জুন ২০১৮Lȗka 
  4. "mȍdar"Hrvatski jezični portal (সার্বো-ক্রোয়েশিয় ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জুন ২০১৮Módrić 
  5. "Luka Modrić named as new Croatia captain"। Croatia Week। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জুন ২০১৮ 
  6. Wilson, Jonathan (২৭ মে ২০১৬)। "Luka Modric: The elegant maestro dictating from deep"Eurosport। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জুন ২০১৮ 
  7. "মদ্রিচের হাতে 'গোল্ডেন বল'"বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম (ইংরেজি ভাষায়)। ১৬ জুলাই ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জুলাই ২০১৮ 
  8. আজপিতার্তে ও পুয়ের্তাস ২০১৬, পৃ. ২০।
  9. কোপ ২০১৪, পৃ. ১৫।
  10. আজপিতার্তে ও পুয়ের্তাস ২০১৬, পৃ. ১৭, ২০, ২২।
  11. "Otac Luke Modrića serviser zrakoplova HRZ-a" [Father of Luka Modrić service aircraft of the Croatian Air Force] (ক্রোয়েশীয় ভাষায়)। Jutarnji list। ১৪ আগস্ট ২০০৭। ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ 
  12. সিনোভচিচ, ডিন (১৪ আগস্ট ২০০৬)। "Nogometna zvijezda iz obitelji prognanika" [Football star from family of exiles]। Nacional (ক্রোয়েশীয় ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ 
  13. Radoš, Ivica (৯ মার্চ ২০১৩)। "Luka Modrić, odrastanje i karijera" [Luka Modrić, rising up and career]। Večernji list (ক্রোয়েশীয় ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ 
  14. "Kako je stvaran Luka Modrić" [Development of Luka Modrić] (ক্রোয়েশীয় ভাষায়)। Nogometni-magazin। ৩০ ডিসেম্বর ২০০৭। সংগ্রহের তারিখ ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ 
  15. অরলিচ, আলেন (২৬ মে ২০১৪)। "Filmska Priča Put od Zatona Obrovačkog do europskog trona... Modrić je dokaz da je sve moguće" [Film story path from Zaton Obrovački to the European throne... Modrić is proof that anything is possible] (ক্রোয়েশীয় ভাষায়)। Jutarnji list। সংগ্রহের তারিখ ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ 
  16. হোলিগা, আলেকসান্দার (৪ অক্টোবর ২০১২)। "Real Madrid's Luka Modric: from Balkan warzone to the Bernabéu"দ্য গার্ডিয়ান। সংগ্রহের তারিখ ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ 
  17. হোয়ালি, মাইক (১৬ জুন ২০১৮)। "World Cup 2018: Luka Modric penalty secures 2-0 win for Croatia against Nigeria"বিবিসি নিউজ (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০১৮ 
  18. "2018 FIFA World Cup Russia™ - Matches - Croatia - Nigeria - FIFA.com"ফিফা.কম (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০১৮ 
  19. কে, অলিভার (২২ জুন ২০১৮)। "Mesmerising Luka Modric makes it a nightmare for misfiring Lionel Messi"দ্য টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০১৮ 
  20. মিলার, নিক (২৯ জুন ২০১৮)। "Ranked! The 10 best players of the 2018 World Cup group stage"ফোরফোরটু (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০১৮ 
  21. উইলসন, জেরিমি (২৯ জুন ২০১৮)। "Top 10 best players of the World Cup group stages - but who has made the biggest impact in Russia so far?"দ্য টেলিগ্রাফ (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০১৮ 
  22. "Power Rankings: Modric beats Ronaldo to top spot"ইএসপিএন। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০১৮ 
  23. "Modric vanquishes ghosts of penalties past"ইএসপিএন। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০১৮ 
  24. ফ্লেচার, পল (১ জুলাই ২০১৮)। "World Cup 2018: Croatia beat Denmark on penalties to reach quarter-finals"বিবিসি নিউজ (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০১৮ 
  25. জেনিংস, প্যাট্রিক (৭ জুলাই ২০১৮)। "World Cup 2018: Croatia beat hosts Russia 4-3 on penalties to reach semi-final"বিবিসি নিউজ (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ জুলাই ২০১৮ 
  26. "ইংলিশদের থামিয়ে প্রথমবারের মতো স্বপ্নের ফাইনালে ক্রোয়েশিয়া"দ্য ডেইলি স্টার। ১২ জুলাই ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১২ জুলাই ২০১৮ 
  27. "ইংলিশদের স্বপ্নভঙ্গ, স্বপ্নের ফাইনালে ক্রোয়েশিয়া"বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম। ১২ জুলাই ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১২ জুলাই ২০১৮ 
  28. ওহ্যানলন, রায়ান (১৩ জুলাই ২০১৮)। "Who Is the Defining Player of the 2018 World Cup?"দ্য রিঙ্গার। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জুলাই ২০১৮ 
  29. "ক্রোয়েশিয়াকে ৪-২ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স"দ্য ডেইলি সান। ১৫ জুলাই ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জুলাই ২০১৮ 
  30. "হারলেও গোল্ডেন বল জিতলেন মদ্রিচ, বুট কেইনের"দ্য ডেইলি স্টার। ১৫ জুলাই ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জুলাই ২০১৮ 
  31. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; NFT নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  32. "Luka Modric | Official Website | Real Madrid CF"রিয়াল মাদ্রিদ ফুটবল ক্লাব (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জুলাই ২০১৮ 
  33. "ক্রোয়েশিয়ার স্বপ্ন ভেঙে চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স"বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম। ১৫ জুলাই ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জুলাই ২০১৮ 
  34. "গোল্ডেন বল জিতলেন লুকা মদ্রিচ"দৈনিক কালের কণ্ঠ। ১৬ জুলাই ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জুলাই ২০১৮ 

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

  • Azpitarte, Vicente; Puertas, José Manuel (২০১৬)। Luka Modric: El hijo de la guerra (Spanish ভাষায়)। Al Poste Ediciones। আইএসবিএন 978-84-15726-61-6 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]