পেনাল্টি বাক্স

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পেনাল্টি অঞ্চল চিহ্নিতকারী রেখাসহ পেনাল্টি বাক্স এবং গোলপোস্টের সাথে সমান্তরালে অংকিত পেনাল্টি বৃত্তচাপের চিত্র। ক্ষুদ্রতর রেখাঙ্কিত বাক্সটিকে প্রায়শই ৬-গজ বাক্স নামে অভিহিত করা হয়ে থাকে।

পেনাল্টি অঞ্চল বা ১৮-গজ বাক্স (সচরাচর পেনাল্টি বাক্স বা শুধুমাত্র বক্স/বাক্স নামেও অভিহিত) হচ্ছে ফুটবল মাঠের একটি সুনির্দিষ্ট এলাকা। এটি আয়তাকার ও উভয় প্রান্তের গোল হতে দুই পাশে এবং সামনের দিকে ১৮ গজ (১৬.৪৬ মি) পর্যন্ত বিস্তৃত থাকে। পেনাল্টি অঞ্চলের ভেতর, গোলের রেখার কেন্দ্রবিন্দু থেকে ১২ গজ (১০.৯৭ মি) দূরত্বে, একটি পেনাল্টি স্পট বা বিন্দু থাকে। একটি পেনাল্টি বৃত্তচাপ পেনাল্টি অঞ্চলের সাথে সংযুক্ত থাকে, যা পেনাল্টি বিন্দু থেকে ১০ গজ (৯.১৪ মি) পর্যন্ত এলাকাকে পরিবেষ্টিত করে রাখে। এই বৃত্তচাপ অবশ্য পেনাল্টি অঞ্চলের অন্তর্ভুক্ত নয়; শুধুমাত্র পেনাল্টি কিক নেওয়ার সময়ই এর গুরুত্ব থাকে।[১]

পেনাল্টি বাক্সের মধ্যে আরেকটি ক্ষুদ্রতর আয়তাকার অঞ্চল বিদ্যমান থাকে, যা গোল অঞ্চল (চলিত ভাষায় "৬-গজ বাক্স" নামে পরিচিত) হিসেবে পরিচিত। এটি উভয় গোলপোস্ট থেকে ৬ গজ (৫.৪৯ মি) দূরে, গোল-লাইনের ওপর লম্বভাবে অংকিত দুটি রেখা, এবং গোল-লাইন থেকে পিচের ভেতরের দিকে ৬-গজ দূরে, সমান্তরালভাবে অংকিত আরেকটি রেখা দ্বারা সীমাবদ্ধ এলাকা। গোল-কিক ও রক্ষণভাগের অনুকূলে প্রদত্ত যে কোন ফ্রি-কিক গোল অঞ্চলের ভেতরের যেকোন বিন্দু থেকে নেওয়া যায়। গোল অঞ্চলের ভেতর আক্রমণকারী দলের অনুকূলে কোন পরোক্ষ ফ্রি-কিক প্রদান করা হলে, যেখানে ফাউল করা হয়েছে তার নিকটতম যে বিন্দু গোল-লাইনের ("৬-গজ রেখা") সাথে সমান্তরাল রেখায় অবস্থিত থাকে, সেখানে থেকে নেওয়া হয়; তার চেয়ে নিকটতর কোন বিন্দু থেকে নেওয়া নিয়ম বহির্ভূত। একইভাবে, ৬-গজ রেখা থেকে গোল-লাইনের আরও কাছে থেকে যেসব ড্রপ-বল ঘটার কথা, সেগুলোও এই বিন্দুতে নেওয়া হয়।

পূর্বে, পেনাল্টি অঞ্চলগুলো মাঠের প্রস্থের সমান প্রশস্ত ছিল, কিন্তু ১৯০১ সাল থেকে তা বর্তমান মাপে কমিয়ে আনা হয়।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

পেনাল্টি বাক্সের ভূমিকা[সম্পাদনা]

একটি ফুটবল মাঠের রেখাচিত্র; মাঠের উভয় প্রান্তে, গোলপোস্ট পরিবেষ্টনকারী বৃহত্তর আয়তক্ষেত্রটি হচ্ছে পেনাল্টি বাক্স
পেনাল্টি বাক্সের ভেতর, পেনাল্টি বিন্দু থেকে একজন খেলোয়াড় পেনাল্টি কিক নিচ্ছেন

পেনাল্টি বাক্সের ভেতর রক্ষণভাগের যে সব ফাউলের শাস্তি হিসেবে প্রত্যক্ষ ফ্রি-কিক দেওয়া যায় (যেমন- হাত দিয়ে বল ধরা ও অধিকাংশ শারীরিক ফাউল), সেসব ফাউলের জন্য শাস্তি হিসেবে পেনাল্টি কিক দেওয়ার বিধান রয়েছে।[২] পেনাল্টি বিন্দু থেকে পেনাল্টি কিক নেওয়া হয়। পেনাল্টি বিন্দুটি গোল-লাইন থেকে ১২ গজ (১০.৯৭ মি) দূরে অবস্থিত।

পেনাল্টি বাক্সের অন্যান্য প্রয়োজনীয়তার মধ্যে রয়েছে:

  • গোলরক্ষক: কেবলমাত্র পেনাল্টি বাক্সের মধ্যেই একজন গোলরক্ষক বৈধভাবে হাত হিয়ে বল ধরতে পারেন।
  • গোল-কিক এবং রক্ষণাত্মক ফ্রি-কিক: বলে লাথি দিয়ে পরিষ্কারভাবে বলের গতিপরিবর্তন না হওয়া পর্যন্ত, প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়দেরকে পেনাল্টি বাক্সের বাইরে এবং বল থেকে অন্তত ১০ গজ (৯.১৪ মি) দূরত্বে অবস্থান করতে হয়।
  • পেনাল্টি কিক: পেনাল্টি কিক নেওয়ার আগ পর্যন্ত, কিক গ্রহণকারী এবং গোলরক্ষক ব্যতিরেকে বাকি সবাইকে পেনাল্টি বাক্সের (এবং পেনাল্টি বৃত্তচাপের) বাইরে অবস্থান করতে হয়।

খেলা চলাকালীন[সম্পাদনা]

কোন খেলার অধিকাংশ সময়জুড়েই, শুধুমাত্র গোলরক্ষক পেনাল্টি বাক্সে অবস্থান করেন। আক্রমণকারী দলের লক্ষ্য থাকে নিজ দলের খেলোয়াড় সহ বল নিয়ে প্রতিপক্ষের পেনাল্টি অঞ্চলে ঢুকে পড়া। পেশাদার ফুটবলের অধিকাংশ গোলই হয় পেনাল্টি বাক্সের ভেতর থেকে।[৩] সাধারণত, কোন সেট-পিস যেমন- কর্নার কিক নেওয়ার সময়, আক্রমণ ও রক্ষণভাগের অনেক খেলোয়াড় একত্রে পেনাল্টি অঞ্চলে অবস্থান নেয়, এবং অবৈধ হওয়া স্বত্বেও, প্রায়শই খেলোয়াড়দের ধস্তাধস্তি করতে দেখা যায়।[৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Laws of the Game 2017-2018" (PDF)FIFA। পৃষ্ঠা 36। ১৩ নভেম্বর ২০১৭ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ ডিসেম্বর ২০২০ 
  2. "LAW 12: FOULS AND MISCONDUCT"। The FA। সংগ্রহের তারিখ ২৮ অক্টোবর ২০১৪ 
  3. Mitrotasios, Michalis; Armatas, Vasilis (১৬ জানুয়ারি ২০১৪)। "Analysis of Goal Scoring Patterns in the 2012 European Football Championship"The Sport Journal। United States Sports Academy। সংগ্রহের তারিখ ২৮ অক্টোবর ২০১৪Other research has examined the position on the pitch from which goals are scored. In a recent study Wright et al. (50) showed that from 167 goals from English Premier League, 87% of goals were scored inside the penalty area which is similar to the 90% observed by Olsen (36) for the 1986 World Cup whereas Dufour (14) reported 80% for the 1990 World Cup. Yiannakos and Armatas (51) reported that 44.4% of goals scored were inside the penalty area, 35.2% inside the goal area, and 20.4% outside the penalty area, for the 2004 European Championship in Portugal. Finally, Hughes et al. (22) showed that successful teams in the 1986 Football World Cup made more attempts inside the penalty area in comparison to unsuccessful teams. 
  4. Singh, Amit (২৭ অক্টোবর ২০১৪)। "Should referees take a tougher stance on penalty box holding at set-pieces?"Think Football। সংগ্রহের তারিখ ২৮ অক্টোবর ২০১৪ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]