রক্তধারা স্মৃতিসৌধ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
রক্তধারা স্মৃতিসৌধ
Roktodhara Chandpur.jpg
চাঁদপুর ত্রিনদী মোহনা বড়স্টেশন মোলহেডে রক্তধারা স্মৃতিসৌধ (২০১৮)
সাধারণ তথ্য
অবস্থাস্মৃতিসৌধ
ধরনস্মৃতিসৌধ
অবস্থানবড় স্টেশন, চাঁদপুর
ঠিকানামোলহেড, বড় স্টেশন, চাঁদপুর
শহরচাঁদপুর, চট্টগ্রাম
দেশবাংলাদেশ
সম্পূর্ণ২০১১
স্বত্বাধিকারীবাংলাদেশ সরকার

রক্তধারা স্মৃতিসৌধ হলো বাংলাদেশের চাঁদপুর জেলার মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের স্মরণে তৈরি করা একটি স্থাপনা বা স্মৃতিসৌধ। মুক্তিযুদ্ধে চাঁদপুরে অনেক স্বাধীনতাকামী গণহত্যার শিকার হন। তাদের স্মরণে ২০১১ সালে নির্মিত হয় এ স্মৃতিসৌধ। [১]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

বাংলাদেশের ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী চাঁদপুর জেলার পদ্মা, মেঘনাডাকাতিয়া নদীর মোহনায়, চাঁদপুর পুরাণ বাজার এবং চাঁদপুর বড় স্টেশনে কয়েকটি নির্যাতন কেন্দ্র বা টর্চার শেল তৈরি করে। যেগুলোতে চাঁদপুর জেলার স্বাধীনতাকামী মানুষদের ধরে নিয়ে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী তাদের উপর নির্মম নির্যাতন ও অত্যাচার করত। স্বাধীনতাকামী নারী পুরুষকে হাত-পা বেঁধে জীবন্ত ও মৃত মেঘনা ও ডাকাতিয়া নদীর স্রোতে ফেলে দিতো। রাজাকাররা পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীদেরকে এই নির্মম হত্যাযজ্ঞ চালাতে সাহায্য করে। এই হত্যাযজ্ঞে যারা শহীদ হোন, তাদের স্মরনেই ২০১১ সালে এই রক্তধারা স্মৃতিসৌধটি তৈরি করা হয়। [২]

নির্মাণ[সম্পাদনা]

পদ্মা, মেঘনা ও ডাকাতিয়ার মিলনস্থল চাঁদপুর বড় স্টেশনের মোলহেডে বধ্যভূমিতে অবস্থান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিস্তম্ভ ’রক্তধারা’। স্বাধীনতার চল্লিশ বছর পর ২০১১ সালে স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তরুণ প্রজন্মের দাবিতে প্রশাসনের উদ্যোগে নির্মিত হয় ‘রক্তধারা’। একাত্তরে মুক্তিকামী বাঙালিকে এখানে এনে নির্যাতনের মাধ্যমে হত্যা করা হতো এ বধ্যভূমিতে। তাদের স্মরণে স্তম্ভ নির্মাণ করা হয়, যার নাম রাখা হয় রক্তধারা। রক্তধারা'র স্থপতি চঞ্চল কর্মকার। এ স্মৃতিসৌধটি উদ্বোধন করেন তৎকালিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা[৩] ২০১৯ সালে ৩১ অক্টোব এর নামফলক সংস্কার করেন মাহমুদুল হাসান খান।[৪]

তাৎপর্য[সম্পাদনা]

রক্তধারা এক স্তম্ভ বিশিষ্ট এতে ৩টি রক্তের ফোঁটার প্রতিকৃতি দিয়ে বোঝানো হয়েছে রক্তের ধারা। টেরাকোটার মুর‍্যালে আঁকা হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাষণসহ মুক্তিযুদ্ধের কয়েকটি ঘটনাবলীর চিত্র।[৫]


এই স্মৃতিস্তম্ভে লেখা আছে-

'নরপশুদের হিংস্র থাবায় মৃত্যুকে তুচ্ছ করেছে যারা

এখানে ইতিহাস হয়ে আছে তাঁদের রক্তধারা

এ শুধুই স্মরণ নয়

নয় ঋণ পরিশোধ

এখানে অবনত শ্রদ্ধায়

নরপশুদের জানিও ঘৃণা আর ক্রোধ।'

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "রক্তধারা : চাঁদপুরে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধ -"জাগো নিউজ 
  2. রক্তধারা - চাঁদপুর জেলা তথ্য বাতায়ন
  3. "রক্তধারা স্মৃতিসৌধ"onushilon.org। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১১-০৫ 
  4. Room, News (২০১৯-১১-০৫)। "চাঁদপুরে রক্তধারা নামফলকের যৌবন ফিরিয়ে দিলো 'নানা ভাই'"Chandpur Times | চাঁদপুর টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১১-০৫ 
  5. "রক্তধারা!"প্রিয়.কম (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১১-০৫ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]