জাটিভাঙ্গা বধ্যভূমি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জাটিভাঙ্গা বধ্যভূমি
সাধারণ তথ্য
ঠিকানাজাটিভাঙ্গা গ্রাম, শুখানপুখুরী, ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা, ঠাকুরগাঁও, বাংলাদেশ

জাটিভাঙ্গা বধ্যভূমি বাংলাদেশের ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার শুখানপুখুরী ইউনিয়নের জাটিভাঙ্গা গ্রামে অবস্থিত ।

জাটিভাঙ্গা বধ্যভূমি ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কর্তৃক স্বাধীনতা ঘোষণার পর রাজাকার, আলবদর ও আল শামসের সহায়তায় হানাদার বাহিনী মুক্তিকামী জনগণের ওপর অমানবিক নির্যাতন ও হত্যাযজ্ঞ চালাতে শুরু করে। ১৯৭১ সালের ২৩ এপ্রিল ভোরে পাকিস্তানি বাহিনীর ভয়ে জগন্নাথপুর, চকহলদি, সিঙ্গিয়া, চন্ডিপুর, আলমপুর, বাসুদেবপুর, গৌরিপুর, মিলনপুর, খামারভোপলা, শুখানপুখুরীসহ বিভিন্ন গ্রামের কয়েক হাজার বাঙালি নর-নারী ও শিশু ভারতের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়।

পথিমধ্যে তারা জাটিভাঙ্গা গ্রামে বিশ্রামের জন্য অবস্থান করার সময় রাজাকার, আলবদর ও আল শামস বাহিনী পাকিস্তানি আর্মিদের খবর দেয় । পাকিস্তানি বাহিনীর দুই ট্রাক সৈন্য এসে ৩০০০-৩৫০০ জন নিরীহ মানুষকে হত্যা করে পাথরাজ নদীতে ফেলে দেয়।

স্মৃতিসৌধ[সম্পাদনা]

নিহতদের স্মরণে ১৯৯৬ সালে পাথরাজ নদীর তীরে একটি স্মৃতিসৌধ নির্মাণ করা হয় ।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

[১],The Daily Star [২],প্রথম আলো [৩],Ekushey-tv [৪][স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ],NTV