বাংলাদেশের ভাষা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
বাংলাদেশ ভাষা
সরকারী ভাষা(সমূহ) বাংলা ভাষা
আঞ্চলিক ভাষা(সমূহ) চট্টগ্রামের বাংলা, সিলেটের বাংলা, চাকমা ভাষা
প্রধান অভিবাসী ভাষা(সমূহ) উর্দু ভাষা, হিন্দি ভাষা, বার্মিজ, রোহিঙ্গা

বাংলা ভাষা বাংলদেশের রাষ্ট্রভাষা। যদিও বাংলাদেশে আরও ২৮টি ভাষা প্রচলিত রয়েছে, তারপরও বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষ বাংলাভাষায় কথা বলে থাকে। প্রায় ৯৮ভাগ বাংলাদেশি বাংলা ভাষা তাদের প্রথম ভাষা হিসাবে ব্যবহার করে থাকে। পার্বত্য চট্টগ্রাম এবং অন্যান্য আদিবাসি এলাকাগুলোতে বসবাস করে এমন বাংলাদেশি আদিবাসিগণ তাদের নিজ নিজ আঞ্চলিকভাষা ব্যবহার করে থাকে।

এথ্‌নোলগ-এর ১৫শ সংস্করণ (২০০৫) অনুযায়ী বাংলাদেশে ৩৯টি ভাষা প্রচলিত। সবকটি ভাষাই জীবিত। নিচের সারণিতে এগুলির বিবরণ দেয়া হল।

ভাষার নাম ভাষাভাষীর সংখ্যা অবস্থান উপভাষা শ্রেণীকরণ
অসমীয়া ইন্দো-ইউরোপীয়, ইন্দো-ইরানীয়, ইন্দো-আর্য, পূর্ব অঞ্চল, বাংলা-অসমীয়া
আরাকানীয় ২ লক্ষ দক্ষিণ-পূর্ব বাংলাদেশ; পার্বত্য চট্টগ্রাম মারমা (পাহাড়ি), রাখাইন (উপকূলীয়) চীনা-তিব্বতী, তিবতী-বর্মী, লোলো-বর্মী, বর্মী, দক্ষিণ বর্মী
আশো চিন ১৪২২ (১৯৮১ আদমশুমারি) পার্বত্য চট্টগ্রাম চট্টগ্রাম, লেমিয়ো, মিনবু, সাইংবাউন, সান্দোওয়ে, থায়েতমিয়ো চীনা-তিব্বতী, তিবতী-বর্মী, কুকি-চিন-নাগা, কুকি-চিন, দক্ষিণী, শো
উসুই ৪ হাজার পার্বত্য চট্টগ্রাম ইন্দো-ইউরোপীয়, ইন্দো-ইরানীয়, ইন্দো-আর্য, শ্রেণীকরণ নেই
ওয়ার ১৬ হাজার উত্তর-পূর্ব বাংলাদেশে ভারতের সাথে সীমান্তে অস্ট্রো-এশীয়, মন-খমের, উত্তর মন-খমের, খাসীয়
ওরাওঁ/সাদরি ১৬৫,৬৮৩ রাজশাহী বিভাগ, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ, ঝিনাইদহ, কুষ্টিয়া, মাগুরা বরাইল সাদরি, নুরপুর সাদরি, উচাই সাদরি, মকান টিলা সাদরি ইন্দো-ইউরোপীয়, ইন্দো-ইরানীয়, ইন্দো-আর্য, পূর্ব অঞ্চল, বিহারি
কক বরক ১ লক্ষ জামাতিয়া, নোয়াতিয়া, রিয়াং, হালাম, দেববর্ম চীনা-তিব্বতী, তিবতী-বর্মী, ঝিংপো-কোনিয়াক-বোডো, কোনিয়াক-বোডো-গারো, বোডো-গারো, বোডো
কুরুখ দ্রাবিড়, উত্তর
কোচ বানাই, হারিগায়া, সাতপারিয়া, তিনতেকিয়া, ওয়ানাং চীনা-তিব্বতী, তিবতী-বর্মী, ঝিংপো-কোনিয়াক-বোডো, কোনিয়াক-বোডো-গারো, বোডো-গারো, কোচ
খুমি চিন ১১৮৮ (১৯৮১ আদমশুমারি) খিমি, য়িন্দি, খামি, ন্গালা চীনা-তিব্বতী, তিবতী-বর্মী, কুকি-চিন-নাগা, কুকি-চিন, দক্ষিণী, খুমি
খাসি মৌলভীবাজার, সিলেট, হবিগঞ্জ খাসি (চেরাপুঞ্জি), লিঙন্গাম অস্ট্রো-এশীয়, মন-খমের, উত্তর মন-খমের, খাসীয়
গারো ১ লক্ষ ময়মনসিংহ, টাংগাইল, শ্রীপুর, জামালপুর, নেত্রকোণা, সিলেট, ঢাকা আবেং, আচিক চীনা-তিব্বতী, তিবতী-বর্মী, ঝিংপো-কোনিয়াক-বোডো, কোনিয়াক-বোডো-গারো, বোডো-গারো, গারো
চাক সাড়ে ৫ হাজার আরাকান নীল পাহাড়, বান্দরবন, ইত্যাদি নেই
চাকমা ৩ লক্ষের বেশি পার্বত্য চট্টগ্রাম, চট্টগ্রাম শহর ৬টি উপভাষা আছে ইন্দো-ইউরোপীয়, ইন্দো-ইরানীয়, ইন্দো-আর্য, পূর্ব অঞ্চল, বাংলা-অসমীয়া
চাটগাঁইয়া ১ কোটি ৪০ লক্ষ চট্টগ্রাম অঞ্চল রোহিঙ্গা ইন্দো-ইউরোপীয়, ইন্দো-ইরানীয়, ইন্দো-আর্য, পূর্ব অঞ্চল, বাংলা-অসমীয়া
তঞ্চঙ্গ্যা ১৭,৬৯৫ পার্বত্য চট্টগ্রাম ইন্দো-ইউরোপীয়, ইন্দো-ইরানীয়, ইন্দো-আর্য, পূর্ব অঞ্চল, বাংলা-অসমীয়া
তিপ্পেরা ১ লক্ষ পার্বত্য চট্টগ্রাম ৩৬টি উপভাষা ইন্দো-ইউরোপীয়, ইন্দো-ইরানীয়, ইন্দো-আর্য, শ্রেণীকরণ নেই
দারলং ৯০০০ চীনা-তিব্বতী, তিবতী-বর্মী, কুকি-চিন-নাগা, কুকি-চিন, মধ্য
প্নার ৪ হাজার উত্তর-পূর্বে ভারতের সাথে সীমান্তে; জাফলং, তামাবিল, জৈন্তাপুর অস্ট্রো-এশীয়, মন-খমের, উত্তর মন-খমের, খাসীয়
পাংখু ২২৭৮ (১৯৮১ আদমশুমারি) বান্দরবান, রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি চীনা-তিব্বতী, তিবতী-বর্মী, কুকি-চিন-নাগা, কুকি-চিন, মধ্য
ফালাম চিন চোরেই, জান্নিয়াত চীনা-তিব্বতী, তিবতী-বর্মী, কুকি-চিন-নাগা, কুকি-চিন, উত্তর
বর্মী ৩ লক্ষ মায়ানমার সীমান্তে বোমাং চীনা-তিব্বতী, তিবতী-বর্মী, লোলো-বর্মী, বর্মী, দক্ষিণ বর্মী
বাংলা ১০ কোটির বেশি কেন্দ্রীয়, পশ্চিমী (খারিয়া ঠার, মাল পাহাড়িয়া, সারাকি), দক্ষিণ-পশ্চিমী বাংলা, উত্তর বাংলা (কোচ, শ্রীপুরী), রাজবংশী, বাহে, পূর্ব বাংলা (পূর্ব কেন্দ্রীয়, সিলেটি), হাইজং, দক্ষিণ-পূর্বী বাংলা (চাকমা), গান্ডা, ভাঙ্গা, চাটগাঁইয়া ইন্দো-ইউরোপীয়, ইন্দো-ইরানীয়, ইন্দো-আর্য, পূর্ব অঞ্চল, বাংলা-অসমীয়া
বাওম চিন ৫৭৩৩ (১৯৮১ আদমশুমারি) পার্বত্য চট্টগ্রাম চীনা-তিব্বতী, তিবতী-বর্মী, কুকি-চিন-নাগা, কুকি-চিন, মধ্য
বিষ্ণুপ্রিয়া মণিপুরী ৪০ হাজার রাজার গাং, মাদই গাং ইন্দো-ইউরোপীয়, ইন্দো-ইরানীয়, ইন্দো-আর্য, পূর্ব অঞ্চল, বাংলা-অসমীয়া
ভারতীয় প্রতীকী ভাষা বধিরদের প্রতীকী ভাষা
মুন্ডারি হাসাদা, লাতার, নাগুরি, কেরা অস্ট্রো-এশীয়, মুন্ডা, উত্তর মুন্ডা, খেরওয়ারি, মুন্ডারি
ম্রু ৮০ হাজার পার্বত্য চট্টগ্রামের ২০০টি গ্রামে চীনা-তিব্বতী, তিবতী-বর্মী, ম্রু
মিজো ১ হাজার মিজো পাহাড়, চট্টগ্রাম, সিলেট রালতে, দুলিয়েন, নগেলতে, মিজো, লে চীনা-তিব্বতী, তিবতী-বর্মী, কুকি-চিন-নাগা, কুকি-চিন, মধ্য
মেগাম ৬৮৭২ উত্তর-পূর্ব বাংলাদেশ চীনা-তিব্বতী, তিবতী-বর্মী, ঝিংপো-কোনিয়াক-বোডো, কোনিয়াক-বোডো-গারো, বোডো-গারো, গারো
মৈতৈ ১৫ হাজার সিলেট চীনা-তিব্বতী, তিবতী-বর্মী, মৈতৈ
রাজবংশী ১৩ হাজার বাহে ইন্দো-ইউরোপীয়, ইন্দো-ইরানীয়, ইন্দো-আর্য, পূর্ব অঞ্চল, বাংলা-অসমীয়া
শেন্দু ১ হাজার চীনা-তিব্বতী, তিবতী-বর্মী, কুকি-চিন-নাগা, কুকি-চিন, দক্ষিণী, শো
সাঁওতালি দেড় লক্ষ কারমালি, কমরি-সাঁওতালি, লোহারি-সাঁওতালি, পাহারিয়া, মাহালি মাঁঝি অস্ট্রো-এশীয়, মুন্ডা, উত্তর মুন্ডা, খেরওয়ারি, সাঁওতালি
সিলেটি ৭০ লক্ষ সিলেট বিভাগ ইন্দো-ইউরোপীয়, ইন্দো-ইরানীয়, ইন্দো-আর্য, পূর্ব অঞ্চল, বাংলা-অসমীয়া
হাকা চিন ১২৬৪ ক্লাংক্লাং, জোখুয়া, শোনশে চীনা-তিব্বতী, তিবতী-বর্মী, কুকি-চিন-নাগা, কুকি-চিন, মধ্য
হাজং ইন্দো-ইউরোপীয়, ইন্দো-ইরানীয়, ইন্দো-আর্য, পূর্ব অঞ্চল, বাংলা-অসমীয়া
হো অস্ট্রো-এশীয়, মুন্ডা, উত্তর মুন্ডা, খেরওয়ারি, মুন্ডারি

মানচিত্র[সম্পাদনা]

Languages of Bangladesh - Bangla.svg

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  • Gordon, Raymond G., Jr. (ed.), 2005. Ethnologue: Languages of the World, Fifteenth edition. Dallas, Tex.: SIL International. Online version: http://www.ethnologue.com/.

আরও দেখুন[সম্পাদনা]