ভূপেশ গুপ্ত

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ভূপেশ গুপ্ত
ভূপেশ গুপ্ত.jpg
ভূপেশ গুপ্ত
জন্ম২০ অক্টোবর, ১৯১৪
মৃত্যু৬ আগস্ট, ১৯৮১
নাগরিকত্ব ব্রিটিশ ভারত (১৯৪৭ সাল পর্যন্ত)
 ভারত
মাতৃশিক্ষায়তনস্কটিশ চার্চ কলেজ, কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়
পেশারাজনীতিবিদ
পরিচিতির কারণব্রিটিশ বিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলনের ব্যক্তি
রাজনৈতিক দলভারতের কমিউনিস্ট পার্টি,
আন্দোলনভারতের স্বাধীনতা আন্দোলন, কৃষক আন্দোলন,
পিতা-মাতা
  • মহেশ চন্দ্র গুপ্ত (পিতা)

ভূপেশ গুপ্ত (ইংরেজি: Bhupesh Gupta) (২০ অক্টোবর, ১৯১৪ - ৬ আগস্ট, ১৯৮১) ছিলেন কমিউনিস্ট আন্দোলনের অন্যতম নেতা এবং বিশিষ্ট সাংসদ।[১]

জন্ম ও শিক্ষাজীবন[সম্পাদনা]

ভূপেশ গুপ্তের জন্ম বর্তমান কিশোরগঞ্জ জেলার ইটনা উপজেলায়[১] তিনি বিখ্যাত স্কটিশ চার্চ কলেজ এবং কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছিলেন।[২]

রাজনৈতিক জীবন[সম্পাদনা]

তার রাজনৈতিক জীবন শুরু হয় বিপ্লবী আন্দোলনের মাধ্যমে। ১৯৩০-৩১ সালে বিপ্লবী কার্যকলাপের জন্য ধৃত হয়ে ১৯৩৭ সাল পর্যন্ত বন্দিজীবন কাটান। অন্তরীণ অবস্থায় আই.এ. ও বি.এ. পাস করেন। মুক্তি পেয়ে লন্ডনে যান। সেখানে এল.এল.বি. ডিগ্রি পান এবং মিডল টেম্পল থেকে ব্যারিস্টার হয়ে ১৯৪১ সালে ভারতে ফিরে ভারতের কমিউনিস্ট পার্টির সারাক্ষণের কর্মী হন।[১]

দেশভাগের পরের জীবন[সম্পাদনা]

পশ্চিমবঙ্গে পার্টি নিষিদ্ধ হলে ১৯৪৮ সালে আত্মগোপন করে পার্টির কাজ করতে থাকেন। ১৯৫১ সালে গ্রেপ্তার হয়ে দমদম জেলে বন্দি অবস্থায় রাজ্যসভায় নির্বাচিত হন। কমিউনিস্ট পার্টির জাতীয় পরিষদের ও কেন্দ্রীয় সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য ছিলেন। ১৯৫৭, ১৯৬০ ও ১৯৬৯ সালে মস্কোতে অনুষ্ঠিত কমিউনিস্ট এন্ড ওয়ার্কার্স পার্টিগুলির আন্তর্জাতিক অধিবেশনগুলির তিনটিতেই যোগ দেন। ১৯৬৬ সাল থেকে নিউ এজ পত্রিকার সম্পাদক এবং দৈনিক স্বাধীনতার সম্পাদকীয় বোর্ডের সদস্য ছিলেন। বাংলা ও ইংরেজিতে কয়েকটি পুস্তক রচনা করেছেন।[১]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

ভূপেশ গুপ্ত চিকিৎসার জন্য মস্কোতে যান এবং সেখানেই ৬ আগস্ট, ১৯৮১ তারিখে মৃত্যুবরণ করেন।[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. সুবোধ সেনগুপ্ত ও অঞ্জলি বসু সম্পাদিত, সংসদ বাঙালি চরিতাভিধান, প্রথম খণ্ড, সাহিত্য সংসদ, কলকাতা, নভেম্বর ২০১৩, পৃষ্ঠা ৫২৬, আইএসবিএন ৯৭৮-৮১-৭৯৫৫-১৩৫-৬
  2. Some Alumni of Scottish Church College in 175th Year Commemoration Volume. Scottish Church College, April 2008. page 592