বুখারেস্ট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
বুখারেস্ট
București
রাজধানী শহর
বুখারেস্টের পতাকা
পতাকা
বুখারেস্টের প্রতীক
প্রতীক
বুখারেস্ট রোমানিয়া-এ অবস্থিত
বুখারেস্ট
বুখারেস্ট
বুখারেস্ট ইউরোপ-এ অবস্থিত
বুখারেস্ট
বুখারেস্ট
রোমানিয়ায় বুখারেস্ট এর অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ৪৪°২৫′৫৭″ উত্তর ২৬°৬′১৪″ পূর্ব / ৪৪.৪৩২৫০° উত্তর ২৬.১০৩৮৯° পূর্ব / 44.43250; 26.10389
দেশ রোমানিয়া
উন্নয়ন অঞ্চলবুকুরেটি – ইলফভ
কাউন্টিবুখারেস্ট পৌরসভা
প্রথম সত্যায়িত১৪৫৯
জেলা
আয়তন[১][২]
 • রাজধানী শহর২২৮ বর্গকিমি (৮৮ বর্গমাইল)
 • পৌর এলাকা২৮৫ বর্গকিমি (১১০ বর্গমাইল)
উচ্চতা৫৫.৮–৯১.৫ মিটার (১৮৩.১–৩০০.২ ফুট)
জনসংখ্যা (২০১১)[৪]
 • রাজধানী শহর১৮,৮৩,৪২৫
 • আনুমানিক (২০১৬)[৫]২১,০৬,১৪৪ বৃদ্ধি
 • ক্রমরোমানিয়ায় ১ম (ইউরোপিয় ইউনিয়নে ৬ষ্ঠ)
 • জনঘনত্ব৯,২৩৭/বর্গকিমি (২৩,৯২০/বর্গমাইল)
 • মহানগর২৪,১২,৫৩০ [৩]
সময় অঞ্চলইইটি (ইউটিসি+০২:০০)
 • গ্রীষ্মকালীন (দিসস)ইইএসটি (ইউটিসি+০৩:০০)
মাথাপিছু (২০১৮)€22,365 (Nominal) €43,200 (PPP)
মাউসূ (২০১৭)০.৯১৪ [৬]very high
ওয়েবসাইটpmb.ro

বুখারেস্ট পূর্ব ইউরোপের রাষ্ট্র রোমানিয়ার রাজধানী ও সবচেয়ে বৃহত্তম শহর। পাশাপাশি এটি রোমানিয়ার সাংস্কৃতিক, শিল্প ও অর্থনৈতিক কেন্দ্র। এটি দেশের দক্ষিণ-পূর্বে, বুলগেরিয়া সীমান্ত ও দানিয়ুব নদীর তীর থেকে ৬০ কিলোমিটার উত্তরে, দাম্বোভিতা নদীর তীরে, ৪৪°২৫'৫৭" উত্তর অক্ষাংশ এবং ২৬°০৬'১৪" পূর্ব দ্রাঘিমাংশে অবস্থিত। বুখারেস্টের নাম ১৪৫৯ সালে প্রথম নথিপত্রে উল্লেখ পাওয়া যায়। এটি ১৮৬২ সালে রোমানিয়ার রাজধানীর মর্যাদা পায় এবং মিডিয়া, সংস্কৃতি এবং শিল্পের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিনত হয়। এটি একটি সম্পদশালী শহর। দুই বিশ্বযুদ্ধের মাঝামাঝি সময়ে, শহরের মার্জিত স্থাপত্য এবং এর অভিজাতদের পরিশীলিততা বুখারেস্টকে 'প্রাচ্যের প্যারিস' (রোমানিয়ান: প্যারিসুল এস্তুলুই) বা 'লিটল প্যারিস' (রোমানিয়ান: মিকুল প্যারিস) ডাকনাম অর্জন করেছিল। ঐতিহাসিক নগর-কেন্দ্রের ভবন ও জেলাগুলো যুদ্ধ, ভূমিকম্প এমনকি নিকোলাই কৌসেস্কুর পদ্ধতিগতকরণের কর্মসূচির ফলে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ বা ধ্বংস হয়ে গেলেও, শেষপর্যন্ত অনেক স্থাপনা টিকে থাকে এবং পরবর্তীতে এগুলো সংস্কার করা হয়। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে, শহরটি একটি অর্থনৈতিক এবং সাংস্কৃতিক বুমের সম্মুখীন হয়েছে। ফিনান্সিয়াল টাইমস, সিবিআরই, টেকক্রাঞ্চ এবং অন্যান্যদের মতে এটি ইউরোপের সবচেয়ে দ্রুত বর্ধনশীল হাই-টেক শহরগুলোর মধ্যে একটি। [৭][৮][৯][১০][১১] উইপাথ, বুখারেস্টে প্রতিষ্ঠিত একটি গ্লোবাল স্টার্টআপ, $৩৫ বিলিয়ন মূল্যায়নে পৌঁছেছে। [১২] [১৩] ২০১৯ সাল থেকে, বুখারেস্ট দক্ষিণ-পূর্ব ইউরোপের বৃহত্তম উচ্চ প্রযুক্তির সম্মেলন (রোমানিয়া ব্লকচেইন সামিট) হোস্ট করে।

২০১৬ সালে, ওয়ার্ল্ড মনুমেন্টস ওয়াচ ঐতিহাসিক শহরের নগর-কেন্দ্রটিকে 'বিপন্ন' হিসাবে তালিকাভুক্ত করেছিল। [১৪] মাস্টারকার্ড গ্লোবাল ইনডেক্স অফ আরবান ডেস্টিনেশনস এর অনুসারে, ২০১৭ সালে, বুখারেস্ট একটি ইউরোপীয় শহর যেখানে রাত্রিযাপনকারী পর্যটকদের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। গত পরপর দুই বছর, ২০১৮ এবং ২০১৯, একই ধরনের সমীক্ষা অনুসারে বুখারেস্ট উন্নয়নের সর্বোচ্চ সম্ভাবনা সহ ইউরোপীয় গন্তব্য। আরেকটি সমীক্ষা অনুমান করে যে বুখারেস্ট ২০৫০ সালের মধ্যে ইউরোপের সবচেয়ে ধনী শহর হয়ে উঠবে। [১৫]

২০১১ সালের আদমশুমারি অনুসারে, ১,৮৮৩,৪২৫ জন বাসিন্দা শহরের সীমার মধ্যে বাস করে। শহুরে এলাকার আশেপাশে স্যাটেলাইট শহরগুলোকে যুক্ত করে, বুখারেস্টের প্রস্তাবিত মেট্রোপলিটন এলাকায় জনসংখ্যা ২.২৭ মিলিয়ন।

২০২০ সালে, সরকার মহামারী প্রতিবেদনের ভিত্তি হিসাবে জনসংখ্যা ২.৫ মিলিয়ন ব্যবহার করেছে। শহর সীমার মধ্যে জনসংখ্যার দিক থেকে বুখারেস্ট ইউরোপীয় ইউনিয়নের চতুর্থ বৃহত্তম শহর, বার্লিন, মাদ্রিদ এবং রোমের পরে আর প্যারিসের থেকে এগিয়ে।

অর্থনৈতিকভাবে, বুখারেস্ট রোমানিয়ার সবচেয়ে সমৃদ্ধ শহর। [১৬] এই শহরে অনেক বড় বড় সম্মেলনের সুবিধা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, সাংস্কৃতিক স্থান, ঐতিহ্যবাহী শপিং মল এবং অবসর যাপন ও বিনোদন কেন্দ্র রয়েছে।

বুখারেস্ট প্রশাসনিকভাবে বুখারেস্ট মিউনিসিপালিটি নামে পরিচিত, এবং এর প্রশাসনিক স্তরের মান একটি জাতীয় কাউন্টির সমান। এটি ছয়টি সেক্টরে বিভক্ত, প্রতিটি সেক্টর স্থানীয় মেয়র দ্বারা পরিচালিত হয়।

ব্যুৎপত্তি[সম্পাদনা]

রোমানিয়ান নাম București এর একটি অযাচাইকৃত উত্স রয়েছে। ঐতিহ্য ভাবে বুখারেস্টের সাথে বুকুরের নামের যোগাযোগ আছে, যিনি বিভিন্ন কিংবদন্তি অনুসারে একজন রাজপুত্র, একজন বহিরাগত, একজন জেলে, একজন রাখাল বা শিকারী ছিলেন। রোমানিয়ান ভাষায়, স্টেম বুকুরি শব্দের অর্থ হল 'আনন্দ' ('সুখ'), এবং এটি ডেসিয়ান বংশোদ্ভূত বলে মনে করা হয়, তাই বুখারেস্ট শহরটির অর্থ 'আনন্দের শহর'। [১৭]

অন্যান্য ব্যুৎপত্তিবিদ পণ্ডিতদের মতে ( যার মধ্যে একজন অটোমান ভ্রমণকারী, ইভলিয়া চেলেবি), বুখারেস্টের নামকরণ করা হয়েছে 'বানি-কুরিস' গোত্রের একজন 'আবু-কারিস'-এর নামে।

১৭৮১ সালে, অস্ট্রিয়ান ইতিহাসবিদ ফ্রাঞ্জ সুলজার দাবি করেছিলেন যে এটি বুকুরি (আনন্দ), বুকুরোস (আনন্দময়) বা সে বুকুরা (আনন্দিত হওয়া) এর সাথে সম্পর্কিত ছিল। ভিয়েনায় প্রকাশিত ১৯ শতকের প্রথম দিকের একটি বই এর নামটি 'বুকোভি', একটি বিচ বন থেকে উদ্ভূত বলে ধরে নেয়।

ইংরেজিতে, শহরটির নাম পূর্বে Bukarest ছিল। বুখারেস্টের একজন স্থানীয় বা বাসিন্দাকে বলা হয় 'বুখারেস্টার' (রোমানিয়ান: bucureștean)।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

বুখারেস্টের ইতিহাস প্রাচীনকালের প্রাথমিক বসতি থেকে ১৯ শতকের শেষের দিকে রোমানিয়ার জাতীয় রাজধানী হিসাবে একীভূত হওয়া পর্যন্ত অনেক উত্থান ও পতন আছে। ১৪৫৯ সালে 'বুকুরেস্টির দুর্গ' হিসাবে প্রথম উল্লেখ করা হয়েছিল। এটি ওয়ালাচিয়ার ভয়েভড, ভ্লাদ III দ্য ইম্প্যালারের বাসভবনে পরিণত হয়েছিল।

অটোমানরা ১৮ শতক থেকে শহরটি পরিচালনা করার জন্য গ্রীক প্রশাসক (ফানারিওটস) নিযুক্ত করেছিল। ১৮২১ সালে টিউডর ভ্লাদিমিরেস্কু দ্বারা সূচিত বিপ্লব বুখারেস্টে কনস্টান্টিনোপল গ্রীকদের শাসনের অবসান ঘটায়।

পুরাতন প্রিন্সলি কোর্ট (কার্টিয়া ভেচে) ১৬ শতকের মাঝামাঝি মিরসিয়া সিওবানুল দ্বারা নির্মিত হয়েছিল। পরবর্তী শাসকদের অধীনে, বুখারেস্ট রাজদরবারের গ্রীষ্মকালীন বাসস্থান হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। পরবর্তী বছরগুলোতে, অটোমান সাম্রাজ্যের সুজারেন ক্ষমতার দাবিতে দক্ষিণ মুনতেনিয়ার গুরুত্ব বৃদ্ধির পরে এটি রাজধানী শহরের মর্যাদা নিয়ে টার্গোভিস্টের সাথে প্রতিযোগিতা চলেছিল।

শেষ পর্যন্ত বুখারেস্ট ১৬৯৮ সালের পর ওয়ালাচিয়ান আদালতের স্থায়ী অবস্থানে পরিণত হয় (কনস্টান্টিন ব্রাঙ্কোভেনুর রাজত্ব থেকে শুরু করে)।

পরবর্তী ২০০ বছরে শহরটি বেশ কয়েকবার প্রাকৃতিক দুর্যোগে এবং ১৮১৩/১৪ সালে কারাগিয়া এর প্লেগের প্রকোপে আংশিকভাবে ধ্বংসপ্রাপ্ত এবং পুনর্নির্মিত হয়। শহরটি উসমানীয় নিয়ন্ত্রণ থেকে ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছিল এবং হ্যাবসবার্গ রাজতন্ত্র (১৭১৬, ১৭৩৭, ১৭৮৯) এবং ইম্পেরিয়াল রাশিয়া (১৭৬৮ এবং ১৮০৬ এর মধ্যে তিনবার) বেশ কিছু সময় দখল করেছিলো। এটি ১৮২৮ এবং ক্রিমিয়ান যুদ্ধের মধ্যের সময় রাশিয়ান প্রশাসনের অধীনে ছিল, বুখারেস্ট-কেন্দ্রিক ১৮৪৮ ওয়ালাচিয়ান বিপ্লবের সময় ব্যতিত। রাশিয়ানদের প্রস্থানের পর, একটি অস্ট্রিয়ান গ্যারিসন শহরটির দখল নেয় (মার্চ ১৮৫৭ পর্যন্ত শহরে ছিল)। ১৮৪৭ সালের ২৩ মার্চ, একটি আগুন শহরের এক তৃতীয়াংশ ধ্বংস করে এবং প্রায় ২,০০০ বিল্ডিং ভস্মীভূত হয়।

১৮৬২ সালে, ওয়ালাচিয়া এবং মোলদাভিয়া একত্রিত হয়ে রোমানিয়ার প্রিন্সিপ্যালিটি গঠন করে, বুখারেস্ট নতুন দেশের রাজধানী শহর হয়ে ওঠে। ১৮৮১ সালে, এটি রাজা ক্যারল I এর অধীনে রোমানিয়ার সদ্য ঘোষিত রাজ্যের রাজনৈতিক কেন্দ্র হয়ে ওঠে। ১৯ শতকের দ্বিতীয়ার্ধে, শহরের জনসংখ্যা নাটকীয়ভাবে বৃদ্ধি পায় এবং নগর উন্নয়নের একটি নতুন সময় শুরু হয়। এই সময়ের মধ্যে, গ্যাসের আলো, ঘোড়ায় টানা ট্রাম, এবং সীমিত বিদ্যুতায়ন চালু হয়। ১৮৮৩ সালে ডাম্বোভিয়া নদীতে ব্যাপকভাবে চ্যানেল তৈরী করা হয়েছিল, যাতে ১৮৬৫ সালের মতো বন্যার পুনরাবৃত্তি না ঘটে। বুখারেস্টের দুর্গ এই সময় নির্মিত হয়েছিল। অসামান্য স্থাপত্য এবং মহাজাগতিক উচ্চ সংস্কৃতি বুখারেস্টকে প্রাচ্যের 'লিটল প্যারিস' (মাইকুল প্যারিস) ডাকনাম মিলেছে, ক্যালিয়া ভিক্টোরিই এর চ্যাম্পস-এলিসিস হিসেবে।

৬ ডিসেম্বর ১৯১৬ এবং নভেম্বর ১৯১৮-এর মধ্যে, বুখারেস্টের যুদ্ধের ফলে শহরটি জার্মান বাহিনীর দখল করেছিল, এবং সরকারী রাজধানী সাময়িকভাবে মোল্ডাভিয়া অঞ্চলের ইয়াসি (বা জাসিও বলা হয়) তে স্থানান্তরিত করা হয়েছিল। প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পর বুখারেস্ট বৃহত্তর রোমানিয়ার রাজধানী হয়। আন্তঃযুদ্ধের বছরগুলোতে, বুখারেস্টের নগর উন্নয়ন অব্যাহত ছিল, শহরে প্রতি বছর গড়ে ৩০,০০০ নতুন বাসিন্দার আগমন ঘটে। এছাড়াও, শহরের কিছু প্রধান নিদর্শন এই সময়ের মধ্যে নির্মিত হয়েছিল, যার মধ্যে রয়েছে আর্কুল ডি ট্রায়াম্ফ এবং পালাতুল টেলিফোনেলর। যাইহোক, রোমানিয়ার গ্রেট ডিপ্রেশন বুখারেস্টের নাগরিকদের উপর এর প্রভাব ফেলে, যার পরিণতি ১৯৩৩ সালের গ্রিভিয়া ধর্মঘট।

২০০০ সাল থেকে শহরটি ধারাবাহিকভাবে আধুনিকীকরণ করা হয়েছে। আবাসিক এবং বাণিজ্যিক উন্নয়ন চলছে বিশেষত উত্তরের জেলাগুলোতে; বুখারেস্টের পুরানো ঐতিহাসিক কেন্দ্রটি পুনরুদ্ধার করা হয়েছে। ২০১৫ সালে বুখারেস্ট, কালেকটিভ নাইটক্লাবের আগুন লেগে ৬৪ জন মারা গিয়েছিল। পরে ২০১৭-২০১৯ এ রোমানিয়ার রাজধানী জুডিশিয়াল সংস্কারের বিরুদ্ধে রোমানিয়ান বিক্ষোভের সামিল হয়েছিল। ২০১৮ সালের ১০ আগস্ট বুখারেস্টে "ডিস্পোরা এট হোম" শ্লোগানের আওতায় একটি প্রতিবাদ অনুষ্ঠিত হয় এবং তাতে উল্লেখযোগ্য সহিংসতা হয়েছিল, এতে ৪৫০ জন আহত হয়েছিল।

চুক্তি[সম্পাদনা]

বুখারেস্টে নিম্নলিখিত চুক্তিগুলো স্বাক্ষরিত হয়েছিল:

  • বুখারেস্টের চুক্তি, অটোমান সাম্রাজ্য এবং রাশিয়ান সাম্রাজ্যের মধ্যে রুশ-তুর্কি যুদ্ধের সমাপ্তি (১৮০৬-১৮১২)
  • বুখারেস্ট চুক্তি, সার্বিয়া এবং বুলগেরিয়ার মধ্যে সার্বো-বুলগেরিয়ান যুদ্ধের সমাপ্তি
  • বুখারেস্ট চুক্তি, বুলগেরিয়া, রোমানিয়া, সার্বিয়া, মন্টিনিগ্রো এবং গ্রীসের মধ্যে দ্বিতীয় বলকান যুদ্ধের সমাপ্তি
  • বুখারেস্টের চুক্তি, রোমানিয়া এবং এন্টেন্ত শক্তির মধ্যে জোটের একটি চুক্তি
  • বুখারেস্ট চুক্তি, রোমানিয়া এবং কেন্দ্রীয় শক্তির মধ্যে

ভূগোল[সম্পাদনা]

বুখারেস্টের স্যাটেলাইটের মানচিত্র ESA Sentinel-২ তে তোলা

বুখারেস্ট শহরটি দাম্বোভিতা নদীর তীরে অবস্থিত, যা দানিউব নদীর একটি উপ-নদী হিসেবে প্রবাহিত হয়েছে। বেশ কয়েকটি হ্রদ - যার মধ্যে সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ হ্রস্ট্রিউ লেক, ফ্লোরেসকা লেক, টেই লেক, এবং কোলেন্টিনা লেক - শহরের উত্তর অংশে দাম্বোভিতা নদীর উপ-নদী, কোলেন্টিনা নদীর তীর জুড়ে অবস্থিত। এছাড়াও, রাজধানীর কেন্দ্রে একটি ছোট কৃত্রিম হ্রদ - লেক সিমিগিউ রয়েছ, যা সিমিগিউ উদ্যান দ্বারা বেষ্টিত। এই উদ্যানটির একটি সমৃদ্ধ ইতিহাস রয়েছে, কবি এবং লেখকরা প্রায়শই এখানে সময় কাটাতে আসেন। ১৮৪৭ সালে জার্মান স্থপতি কার্ল এফ ডব্লিউ মায়ারের পরিকল্পনার ভিত্তিতে উদ্যানটি চালু করা হয়, যা শহরের কেন্দ্রস্থলে অবস্থিত বিনোদনের প্রধান আকর্ষণ।

বুখারেস্ট শহরের মোট আয়তন ২২৬ বর্গ কিলোমিটার বা ৮৭ বর্গমাইল। বুখারেস্টের উচ্চতা দক্ষিণ-পূর্ব বুখারেস্টের সেলুতে দাম্বোভিতা ব্রিজের ৫৫.৮ মিটার (১৮৩.১ ফুট) থেকে মিলিটারি চার্চের ৯১.৫ মিটার (৩০০.২ ফুট) অব্দি তারতম্য আছে। শহরটির মোটামুটি গোলাকার আকৃতি রয়েছে, যার কেন্দ্র ইউনিভার্সিটি স্কোয়ারে প্রধান উত্তর-দক্ষিণ/পূর্ব-পশ্চিম অক্ষের ক্রস-ওয়েতে অবস্থিত। রোমানিয়ার কিলোমিটার জিরোর মাইলফলকটি সেন্ট জর্জ স্কোয়ারে (Piața Sfântul Gheorghe) ইউনিভার্সিটি স্কোয়ারের ঠিক দক্ষিণে নিউ সেন্ট জর্জ চার্চের (Sfântul Gheorghe Nou) সামনে স্থাপন করা হয়েছে। বুখারেস্টের ব্যাসার্ধ, ইউনিভার্সিটি স্কয়ার থেকে শহরের সীমা পর্যন্ত যে কোন দিকে ১০ থেকে ১২ কিমি (৬ থেকে ৭ মাইল) পর্যন্ত।

লেক ভাকারেস্টি শহরের দক্ষিণ অংশে অবস্থিত। ৯০ হেক্টর জল সহ ১৯০ হেক্টরেরও বেশি, ৯৭ প্রজাতির পাখি, তাদের অর্ধেক আইন দ্বারা সুরক্ষিত এবং অন্তত সাত প্রজাতির স্তন্যপায়ী প্রাণী। হ্রদটি ফ্ল্যাটের বিল্ডিং দ্বারা বেষ্টিত এবং এটি মানুষের হস্তক্ষেপ এবং প্রকৃতির গতিপথ গ্রহণের একটি অদ্ভুত ফলাফল। এলাকাটি ছিল একটি ছোট গ্রাম যেটিকে চৌসেস্কু একটি হ্রদে রূপান্তরিত করার চেষ্টা করেছিল। বাড়িগুলো ভেঙে কংক্রিট বেসিন তৈরি করার পর, ১৯৮৯ সালের বিপ্লবের পর পরিকল্পনাটি পরিত্যক্ত হয়। প্রায় দুই দশক ধরে, এলাকাটি একটি পরিত্যক্ত সবুজ স্থান থেকে স্থানান্তরিত হয়েছে যেখানে শিশুরা খেলাধুলা করতে পারে এবং সূর্যস্নান করতে পারে, সেখানকার জমির পূর্ববর্তী মালিকদের দ্বারা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা হয়েছে এবং একটি ক্রীড়া কেন্দ্রে পুনর্বিকাশের জন্য বন্ধ হয়ে গেছে। পুনঃউন্নয়ন চুক্তি ব্যর্থ হয়, এবং পরবর্তী বছরগুলোতে, সবুজ স্থানটি একটি অনন্য আবাসস্থলে পরিণত হয়। মে ২০১৬ সালে, হ্রদটিকে একটি জাতীয় উদ্যান, ভাকারেস্টি প্রকৃতি উদ্যান ঘোষণা করা হয়। 'বুখারেস্টের ডেল্টা' নামে পরিচিত, এলাকাটি সুরক্ষিত।

বুখারেস্ট রোমানিয়ান সমভূমির মাঝখানে অবস্থিত, এমন একটি এলাকায় যা একসময় ভ্লাসিই বন দ্বারা আচ্ছাদিত ছিল, যা পরিষ্কার করার পরে, একটি উর্বর সমতল ভূমির জন্য পথ দিয়েছিল। অনেক শহরের মতো, বুখারেস্টকে ঐতিহ্যগতভাবে রোমের সাত পাহাড়ের মতো সাতটি পাহাড়ের উপর নির্মিত বলে মনে করা হয়। বুখারেস্টের সাতটি পাহাড় হল: মিহাই ভোদা, ডিলুল মিট্রোপলি, রাদু ভোদা, কোট্রোসেনি, দেলুল স্পিরি, ভ্যাকারেস্টি এবং স্ফান্টু গেওর্গে নউ।

কিছুদিন আগে অবধি, বুখারেস্টের আশেপাশের অঞ্চলগুলো মূলত গ্রামীণ ছিল, কিন্তু ১৯৮৯ সালের পর, বুখারেস্টের পার্শ্ববর্তী ইলফভ কাউন্টিতে শহরতলির নির্মাণ শুরু হয়। আরও শহুরে একত্রীকরণ ২০১০-এর দশকের শেষের দিকে ঘটবে বলে আশা করা হচ্ছে, যখন 'বুখারেস্ট মেট্রোপলিটন এরিয়া' পরিকল্পনা কার্যকর হবে, ইলফভ এবং অন্যান্য প্রতিবেশী কাউন্টিগুলোর অতিরিক্ত কমিউন এবং শহরগুলোকে অন্তর্ভুক্ত করবে।

জলবায়ু[সম্পাদনা]

বুখারেস্টের একটি আর্দ্র মহাদেশীয় জলবায়ু রয়েছে ( Dfa/Dfb-তে ০ °C আইসোথার্ম), বা একটি আর্দ্র উপক্রান্তীয় জলবায়ু ( কোপেন : Cfa-তে -৩ °C আইসোথার্ম), গরম, আর্দ্র গ্রীষ্ম এবং ঠান্ডা, তুষারময় শীত সহ। রোমানিয়ান সমভূমিতে অবস্থানের কারণে, শহরের শীতকালে বাতাস বইতে পারে, যদিও নগরায়নের কারণে কিছু বাতাস প্রশমিত হয়। শীতের তাপমাত্রা প্রায়শই ০ °সে (৩২ °ফা) -এর নিচে নেমে যায়, কখনও কখনও এমনকি −২০ °সে (−৪ °ফা) পর্যন্ত। গ্রীষ্মে, গড় তাপমাত্রা ২৩ °সে (৭৩ °ফা) (জুলাই এবং আগস্টের গড়)। তাপমাত্রা প্রায়শই ৩৫ থেকে ৪০ °সে (৯৫ থেকে ১০৪ °ফা) পর্যন্ত পৌঁছায় শহরের কেন্দ্রে গ্রীষ্মের মাঝামাঝি। যদিও গ্রীষ্মকালে গড় বৃষ্টিপাত এবং আর্দ্রতা কম থাকে, তবে মাঝে মাঝে ভারী ঝড় হয়। বসন্ত এবং শরতের সময়, দিনের তাপমাত্রা ১৭ এবং ২২ °সে (৬৩ এবং ৭২ °ফা) এর মধ্যে পরিবর্তিত হয়, এবং বসন্তকালে বৃষ্টিপাত গ্রীষ্মের তুলনায় বেশি হয়, আরও ঘন ঘন তবে হালকা বৃষ্টিপাত হয়। [১৮] [১৯]

বুখারেস্ট বনেয়াসা (১৯৮১–২০১০, চরম ১৯২৯–বর্ত‌মান)-এর আবহাওয়া সংক্রান্ত তথ্য
মাস জানু ফেব্রু মার্চ এপ্রিল মে জুন জুলাই আগস্ট সেপ্টে অক্টো নভে ডিসে বছর
সর্বোচ্চ রেকর্ড °সে (°ফা) ১৭.১
(৬২.৮)
২৪.১
(৭৫.৪)
২৯.০
(৮৪.২)
৩২.২
(৯০.০)
৩৬.৯
(৯৮.৪)
৩৯.০
(১০২.২)
৪২.২
(১০৮.০)
৪১.০
(১০৫.৮)
৩৮.৫
(১০১.৩)
৩৫.২
(৯৫.৪)
২৫.১
(৭৭.২)
১৮.৪
(৬৫.১)
৪২.২
(১০৮.০)
সর্বোচ্চ গড় °সে (°ফা) ২.৮
(৩৭.০)
৫.৫
(৪১.৯)
১১.৪
(৫২.৫)
১৮.০
(৬৪.৪)
২৪.০
(৭৫.২)
২৭.৭
(৮১.৯)
২৯.৮
(৮৫.৬)
২৯.৮
(৮৫.৬)
২৪.৬
(৭৬.৩)
১৭.৯
(৬৪.২)
৯.৮
(৪৯.৬)
৩.৮
(৩৮.৮)
১৭.১
(৬২.৮)
দৈনিক গড় °সে (°ফা) −১.৩
(২৯.৭)
০.৪
(৩২.৭)
৫.৪
(৪১.৭)
১১.২
(৫২.২)
১৬.৮
(৬২.২)
২০.৬
(৬৯.১)
২২.৫
(৭২.৫)
২২.০
(৭১.৬)
১৬.৯
(৬২.৪)
১১.০
(৫১.৮)
৪.৭
(৪০.৫)
০.২
(৩২.৪)
১০.৮
(৫১.৪)
সর্বনিম্ন গড় °সে (°ফা) −৪.৮
(২৩.৪)
−৪.০
(২৪.৮)
০.১
(৩২.২)
৪.৯
(৪০.৮)
৯.৬
(৪৯.৩)
১৩.৬
(৫৬.৫)
১৫.৪
(৫৯.৭)
১৪.৯
(৫৮.৮)
১০.৫
(৫০.৯)
৫.৪
(৪১.৭)
০.৬
(৩৩.১)
−৩.৪
(২৫.৯)
৫.২
(৪১.৪)
সর্বনিম্ন রেকর্ড °সে (°ফা) −৩২.২
(−২৬.০)
−২৯.০
(−২০.২)
−২১.৭
(−৭.১)
−৯.৫
(১৪.৯)
−১.১
(৩০.০)
৪.৫
(৪০.১)
৭.৪
(৪৫.৩)
৫.২
(৪১.৪)
−৩.১
(২৬.৪)
−৮.০
(১৭.৬)
−১৯.৪
(−২.৯)
−২৫.৬
(−১৪.১)
−৩২.২
(−২৬.০)
অধঃক্ষেপণের গড় মিমি (ইঞ্চি) ৩৭
(১.৫)
৩৭
(১.৫)
৪৪
(১.৭)
৫০
(২.০)
৫৬
(২.২)
৮৩
(৩.৩)
৭০
(২.৮)
৫৬
(২.২)
৬৪
(২.৫)
৫৩
(২.১)
৪৬
(১.৮)
৪৮
(১.৯)
৬৪৩
(২৫.৩)
তুষারপাতের গড় সেমি (ইঞ্চি) ১৩.৭
(৫.৪)
১১.০
(৪.৩)
১০.৫
(৪.১)
১.৫
(০.৬)
০.০
(০.০)
০.০
(০.০)
০.০
(০.০)
০.০
(০.০)
০.০
(০.০)
০.০
(০.০)
৮.৮
(৩.৫)
১০.৫
(৪.১)
৫৬.০
(২২.০)
বৃষ্টিবহুল দিনগুলির গড় ১১ ১২ ১১ ১০ ১০ ১০৯
তুষারময় দিনগুলির গড় ০.০৩ ০.৩ ৩১
আপেক্ষিক আদ্রতার গড় (%) ৮৯ ৮৩ ৭৫ ৭১ ৬৯ ৭০ ৬৮ ৬৮ ৭৩ ৭৯ ৮৫ ৮৮ ৭৬
মাসিক সূর্যালোক ঘণ্টার গড় ৭০.৬ ৮৪.৫ ১৩৮.০ ১৮৪.৮ ২৪৬.৩ ২৬৫.৮ ২৮৯.২ ২৮১.৪ ২২৪.১ ১৭৭.৪ ৮৭.৫ ৬২.৮ ২,১১২.৪
অতিবেগুনী সূচকের গড়
উৎস ১: Pogoda.ru.net (average temperatures, humidity, precipitation, and snowy days)[২০]
উৎস ২: NOAA (snowfall and sunshine, 1961–1990),[২১] Administrația Națională de Meteorologie (extremes)[২২] and Weather Atlas[২৩]

সরকার[সম্পাদনা]

প্রশাসন[সম্পাদনা]

রোমানিয়ান প্রশাসনে বুখারেস্টের একটি অনন্য মর্যাদা রয়েছে, কারণ এটিই একমাত্র পৌর এলাকা যা একটি কাউন্টির অংশ নয়। যদিও এর জনসংখ্যা অন্য যেকোন রোমানিয়ান কাউন্টির চেয়ে বেশি, তাই বুখারেস্ট জেনারেল মিউনিসিপ্যালিটির ( প্রিমেরিয়া জেনারেলা ) ক্ষমতা, যেটি রাজধানীর স্থানীয় সরকার সংস্থা, অন্য যেকোনো রোমানিয়ান কাউন্টি কাউন্সিলের মতোই।

বুখারেস্ট পৌরসভা, আশেপাশের ইলফভ কাউন্টির সাথে, বুকুরেটি – ইলফভ উন্নয়ন অঞ্চল প্রকল্পের অংশ, যা ইউরোপীয় ইউনিয়নের NUTS-II অঞ্চলের সমতুল্য এবং পরিসংখ্যানগত বিশ্লেষণের জন্য EU এবং রোমানিয়ান সরকার উভয়ই ব্যবহার করে, এবং আঞ্চলিক উন্নয়ন প্রকল্পের সমন্বয় সাধন এবং ইইউ থেকে তহবিল পরিচালনা করা। তবে বুখারেস্ট-ইলফভ উন্নয়ন অঞ্চল এখনও একটি প্রশাসনিক সত্তা নয়।

নগর সরকার একজন সাধারণ মেয়র ( প্রাইমার জেনারেল ) দ্বারা পরিচালিত হয়। ২৯ অক্টোবর ২০২০ থেকে, বুখারেস্টে সাধারণ মেয়র নিকুসর ড্যান, বর্তমানে একজন স্বাধীন রাজনীতিবিদ। ৫৫ জন নির্বাচিত কাউন্সিলর নিয়ে গঠিত রাজধানীর জেনারেল কাউন্সিল ( কনসিলিউ জেনারেল ) এর সিদ্ধান্তগুলো অনুমোদিত এবং আলোচনা হয়। অধিকন্তু, শহরটিকে ছয়টি প্রশাসনিক সেক্টরে (sectoare) বিভক্ত করা হয়েছে, যার প্রত্যেকটির নিজস্ব ২৭-সিটের সেক্টরাল কাউন্সিল, টাউন হল এবং মেয়র রয়েছে। একটি নির্দিষ্ট এলাকার উপর স্থানীয় সরকারের ক্ষমতা, তাই, বুখারেস্ট পৌরসভা এবং স্থানীয় সেক্টরাল কাউন্সিল উভয়ই কর্তৃত্বের ভাগ করে নেয়। সাধারণ নিয়ম হল যে মূল রাজধানী পৌরসভা শহরব্যাপী উপযোগিতা যেমন জল এবং পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা, সামগ্রিক পরিবহন ব্যবস্থা এবং প্রধান বুলেভার্ডগুলোর জন্য দায়ী, যখন সেক্টরাল টাউন হলগুলো ব্যক্তি এবং স্থানীয় সরকার, গৌণ রাস্তা এবং পার্কগুলোর মধ্যে যোগাযোগ পরিচালনা করে। রক্ষণাবেক্ষণ, স্কুল প্রশাসন, এবং পরিচ্ছন্নতার পরিষেবা।

ছয়টি সেক্টরকে ঘড়ির কাঁটার মতো এক থেকে ছয় ভাগ করা, যাতে প্রত্যেকটির প্রশাসনের অধীনে শহরের কেন্দ্রের একটি নির্দিষ্ট এলাকা থাকে। এগুলো আরও সেক্টরাল কোয়ার্টারে বিভক্ত ( কারটিয়ার ) যা অফিসিয়াল প্রশাসনিক বিভাগের অংশ নয়:

  • সেক্টর ১ (জনসংখ্যা ২২৭, ৭১৭): ডোরোবান্টি, বানিয়াসা, আভিয়াটিয়েই, পিপেড়া, Aviatorilor, Primăverii, Romana, Victoriei, Herăstrău পার্ক, Bucureştii নোই থেকে, Dămăroaia, Străuleşti, Griviţa, ১ মাই, বানিয়াসা বন, Pajura, Domenii, Chibrit
  • সেক্টর ২ (জনসংখ্যা ৩৫৭,৩৩৮): Pantelimon, Colentina, Iancului, Tei, Floreasca, Moşilor, ওবড়, Vatra Luminoasă, Fundeni, Plumbuita, স্টিফান সেল মেয়ার, বাইকুলুই
  • সেক্টর ৩ (জনসংখ্যা ৩৯৯, ২৩১): Vitan, Dudeşti, টাইটান, সেন্ট্রুল সিভিক, Dristor, Lipscani, Muncii, Unirii
  • সেক্টর ৪ (জনসংখ্যা ৩০০,৩৩১): Berceni, Olteniţei, Giurgiului, Progresul, Vacaresti, Timpuri Noi, Tineretului
  • সেক্টর ৫ (জনসংখ্যা ২৮৮,৬৯০): Rahova, Ferentari, Giurgiului, Cotroceni, 13 Septembrie, Dealul Spirii
  • সেক্টর ৬ (জনসংখ্যা ৩৭১,০৬০): Giulesti, Crângaşi, Drumul Taberei, মিলিটারি, গ্ৰোজাভেস্টি ( রেগি নামেও পরিচিত), ঘেনকিয়া
২০১০ সালে বুখারেস্টের সিটি হল

প্রতিটি সেক্টর স্থানীয় মেয়র দ্বারা পরিচালিত হয়, নিম্নরূপ: সেক্টর ১ – ক্লোটিল্ড আরমান্ড ( ইউএসআর, ২০২০ সাল থেকে), সেক্টর ২ – রাদু মিহাইউ ( ইউএসআর, ২০২০ সাল থেকে), সেক্টর ৩ – রবার্ট নেগোই (প্রো বি, ২০১২ সাল থেকে), সেক্টর ৪ - ড্যানিয়েল বালুটা ( পিএসডি, ২০১৬ সাল থেকে), সেক্টর ৫ - ক্রিস্টিয়ান পপেস্কু পিএডোন ( পিপিইউ এসএল, ২০২০ সাল থেকে), [২৪] সেক্টর ৬ - সিপ্রিয়ান সিউকু ( পিএনএল, ২০২০ সাল থেকে)।

রোমানিয়ার অন্যান্য স্থানীয় কাউন্সিলের মতো, বুখারেস্ট সেক্টরাল কাউন্সিল, রাজধানীর সাধারণ পরিষদ এবং মেয়ররা প্রতি চার বছর পর পর জনতা দ্বারা নির্বাচিত হয়। উপরন্তু, বুখারেস্টের একজন প্রিফেক্ট আছে, যাকে রোমানিয়ার জাতীয় সরকার নিযুক্ত করে। প্রিফেক্টকে একটি রাজনৈতিক দলের সদস্য হওয়ার অনুমতি দেওয়া হয় না এবং তার ভূমিকা পৌর পর্যায়ে জাতীয় সরকারের প্রতিনিধিত্ব করা। প্রিফেক্ট স্থানীয় পর্যায়ে জাতীয় উন্নয়ন পরিকল্পনা এবং পরিচালনা কার্যক্রম বাস্তবায়নের সুবিধার্থে একজন যোগাযোগ কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করেন। বুখারেস্টের প্রিফেক্ট (২০২১ সালের হিসাবে) হলেন আলেকজান্দ্রা ভাকারু। [২৫]

বুখারেস্টের সাধারণ পরিষদ[সম্পাদনা]

২০২০ রোমানিয়ান স্থানীয় নির্বাচন এর ফলাফলের উপর ভিত্তি করে শহরের জেনারেল কাউন্সিল এর গঠন নিম্নরুপ:


দল আসন
সোশ্যাল ডেমোক্রেটিক পার্টি (পিএসডি) ২১
ইউএসআর প্লাস ১৭
ন্যাশনাল লিবারেল পার্টি (পিএনএল) ১২
পিওপেলস মুভমেন্ট পার্টি (পিএমপি)

বিচার পদ্ধতি[সম্পাদনা]

বুখারেস্টের বিচার ব্যবস্থা রোমানিয়ান কাউন্টির মতই। ছয়টি সেক্টরের প্রত্যেকটির প্রথম দৃষ্টান্ত নিজস্ব স্থানীয় আদালত (judecătorie), আর আরও গুরুতর মামলাগুলো শহরের পৌর আদালত বুখারেস্ট ট্রাইব্যুনালে (Tribunalul Bucuresti) নির্দেশিত হয়। বুখারেস্ট কোর্ট অফ আপিল (Curtea de Apel Bucuresti) বুখারেস্ট এবং আশেপাশের পাঁচটি কাউন্টিতে (Teleorman, Ialomița, Giurgiu, Călărași, এবং Ilfov) প্রথম দৃষ্টান্ত আদালত এবং ট্রাইব্যুনাল দ্বারা গৃহীত সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করে। বুখারেস্টে রোমানিয়ার সর্বোচ্চ আদালত, হাইকোর্ট অফ ক্যাসেশন অ্যান্ড জাস্টিস এবং সেইসাথে রোমানিয়ার সাংবিধানিক আদালতও রয়েছে।

বুখারেস্টের একটি পৌর পুলিশ বাহিনী রয়েছে, বুখারেস্ট পুলিশ (Poliția București), যা পুরো শহরের মধ্যে অপরাধ দমনের জন্য দায়ী, এবং বেশ কয়েকটি বিভাগ পরিচালনা করে। বুখারেস্ট পুলিশের সদর দফতর Ștefan cel Mare Blvd., শহরের কেন্দ্রে অবস্থিত এবং শহর জুড়ে এর প্রিন্সিক্টে। ২০০৪ সাল থেকে, প্রতিটি সেক্টর সিটি হলের প্রশাসনের অধীনে একটি কমিউনিটি পুলিশ ফোর্স (Poliția Comunitară), স্থানীয় সম্প্রদায়ের সমস্যাগুলো নিয়ে কাজ করে। বুখারেস্টে জেন্ডারমেরি এবং জাতীয় পুলিশের সাধারণ পরিদর্শকও রয়েছে।

অপরাধ[সম্পাদনা]

বুখারেস্টের অপরাধের হার অন্যান্য ইউরোপীয় রাজধানী শহরের তুলনায় তুলনামূলকভাবে কম, ২০০০ এবং ২০০৪ এর মধ্যে মোট অপরাধের সংখ্যা ৫১% হ্রাস পেয়েছে, এবং ২০১২ এবং ২০১৩ এর মধ্যে ৭%। ২০০৭ সালে ১১টি খুন এবং ৯৮৩টি অন্যান্য সহিংস অপরাধ সংঘটিত হওয়ার সাথে বুখারেস্টে সহিংস অপরাধের হার খুবই কম রয়েছে। যদিও হিংসাত্মক অপরাধ ২০১২সালের তুলনায় ২০১৩ সালে ১৩% কমেছে, ১৯টি খুনের ঘটনা (যার মধ্যে ১৮টি সন্দেহভাজনদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে) রেকর্ড করা হয়েছে।

যদিও ২০০০-এর দশকে, কামাতারু গোষ্ঠীর মতো সংগঠিত অপরাধ চক্রের বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি পুলিশ ক্র্যাকডাউন ঘটেছে, সংগঠিত অপরাধ সাধারণত জনজীবনে খুব কম প্রভাব ফেলে। ছোট অপরাধ, তবে, বেশি সাধারণ, বিশেষ করে পিকপকেটিংয়ের আকারে, যা প্রধানত শহরের পাবলিক ট্রান্সপোর্ট নেটওয়ার্কে ঘটে। ১৯৯০-এর দশকে আত্মবিশ্বাসের কৌশলগুলো সাধারণ ছিল, বিশেষ করে পর্যটকদের ক্ষেত্রে, কিন্তু এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হ্রাস পেয়েছে। যাইহোক, সাধারণভাবে, ২০১২ সালের তুলনায় ২০১৩ সালে চুরি ১৩.৬% হ্রাস পেয়েছে। শহরের দক্ষিণের জেলাগুলোতে, বিশেষ করে সামাজিকভাবে অনগ্রসর এলাকা ফেরেনটারিতে অপরাধের মাত্রা বেশি।

যদিও ১৯৯০-এর দশকে বুখারেস্টে পথশিশুদের উপস্থিতি একটি সমস্যা ছিল, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে তাদের সংখ্যা হ্রাস পেয়েছে, এখন প্রধান ইউরোপীয় রাজধানী শহরগুলোর গড় বা তার নীচে রয়েছে। [২৬]

জীবনের মান[সম্পাদনা]

সারা বিশ্বের শহরগুলোর জীবনযাত্রার মানের জন্য মারসার আন্তর্জাতিক সমীক্ষা অনুসারে, বুখারেস্ট ২০০১ সালে ৯৪ তম স্থান দখল করেছিল, [২৭] ২০০৯ সালে ১০৮তম স্থানে এবং ২০১০ সালে ১০৭তম স্থানে নেমে আসে। এর তুলনায়, ভিয়েনা ২০১১ এবং ২০০৯ সালে বিশ্বব্যাপী এক নম্বর স্থান দখল করেছিল। ওয়ারশ ৮৪ তম, ইস্তাম্বুল ১১২তম এবং প্রতিবেশী সোফিয়া ১১৪ তম এবং বেলগ্রেড ১৩৬ তম (২০১০ র‍্যাঙ্কিং)। [২৮]

মারসার হিউম্যান রিসোর্স কনসাল্টিং বার্ষিক ৩৯টি প্রধান জীবনমানের সমস্যার উপর ভিত্তি করে বিশ্বের সবচেয়ে বাসযোগ্য শহরগুলোর একটি বিশ্বব্যাপী র‌্যাঙ্কিং প্রকাশ করে। তাদের মধ্যে: রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা, মুদ্রা-বিনিময় প্রবিধান, রাজনৈতিক এবং মিডিয়া সেন্সরশিপ, স্কুলের মান, আবাসন, পরিবেশ এবং জননিরাপত্তা। মারসার বিশ্বব্যাপী ২১৫টি শহরে তথ্য সংগ্রহ করে। বুখারেস্টের জীবনযাত্রার মানের কঠিন পরিস্থিতিটি ইয়ন মিঙ্কু ইউনিভার্সিটি অফ আর্কিটেকচার অ্যান্ড আরবানিজমের দ্বারা করা একটি বিশাল নগরবাদ গবেষণাতেও একই ফল পেয়েছে।

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

২০১১ সালের আদমশুমারি অনুসারে, ১,৮৮৩,৪২৫ জন বাসিন্দা নগরীর সীমানার মধ্যে বসবাস করে, [৪] ২০০২ সালের আদমশুমারিতে যে চিত্রটি রেকর্ড করা হয়েছিল তা থেকে হ্রাস পেয়েছে। এই হ্রাস প্রাকৃতিক বৃদ্ধির কারণে হয়, তবে শহর থেকে পাশ্ববর্তী ছোট্ট উপগ্রহ শহরগুলোতে যেমন ভলান্টারি, বুফটিয়া এবং ওটোপেনিতে জনসংখ্যার স্থানান্তরের ফলে এ পরিবর্তন হতে পারে। জাতিসংঘ কর্তৃক প্রকাশিত এক সমীক্ষায় বুখারেস্ট ২৮ টি শহরের মধ্যে ১৯ তম স্থানে রয়েছে যাদের ১৯৯০ থেকে ২০১০-এর দশকের মাঝামাঝি সময়ে জনসংখ্যা তীব্রভোবে হ্রাস পেয়েছে। বিশেষত, জনসংখ্যা হ্রাস পেয়েছে ৩.৭৭% শতাংশ। [২৯]

২০০২ সালের আদমশুমারি অনুসারে নগরীর জনসংখ্যা ছিল ১,৯২৬,৩৩৪ জন, [১] যা রোমানিয়ার মোট জনসংখ্যার ৮.৯%। প্রতিদিন একটি উল্লেখযোগ্য সংখ্যক লোক শহরে আসা-যাওয়া করে, যাদের বেশিরভাগই পার্শ্ববর্তী কাউন্টিগুলো থেকে, তবে তাদের সংখ্যা সম্পর্কিত কোন সরকারি পরিসংখ্যান নেই। [৩০]

বুখারেস্টের জনসংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধির দুটি পর্যায় অনুভব করেছিল, প্রথমটি ১৯ শতকের শেষের দিকে যখন শহরটিকে জাতীয় রাজধানী হিসাবে একীভূত করা হয়েছিল এবং দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ পর্যন্ত স্থায়ী হয়েছিল এবং দ্বিতীয়টি চৌসেস্কু বছরগুলোতে (১৯৬৫-১৯৮৯), যখন একটি বিশাল নগরায়ন অভিযান শুরু হয় এবং বহু মানুষ গ্রামীণ এলাকা থেকে রাজধানীতে চলে আসেন। এই সময়ে, গর্ভপাত এবং গর্ভনিরোধক নিষিদ্ধ করার সিউসেস্কুর সিদ্ধান্তের কারণে, প্রাকৃতিক বৃদ্ধিও উল্লেখযোগ্য ছিল।

বুখারেস্ট হল উচ্চ জনসংখ্যার ঘনত্বের একটি শহর: ৮, ২৬০/কিমি২ (২১,৪০০/বর্গ মা), কারণ জনসংখ্যার অধিকাংশই উচ্চ-ঘনত্ব কমিউনিস্ট যুগের অ্যাপার্টমেন্ট ব্লকে (ব্লকুরি) বাস করে। যাইহোক, এটি শহরের অংশের উপরও নির্ভর করে: উত্তরাঞ্চলের তুলনায় দক্ষিণ বরোগুলোর ঘনত্ব বেশি। ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশের রাজধানী-শহরগুলোর মধ্যে, শুধুমাত্র প্যারিস এবং এথেন্সের জনসংখ্যার ঘনত্ব বেশি। বুখারেস্টের জনসংখ্যার যাদের জন্য তথ্য পাওয়া যায়, তারা প্রায় ৯৭.৩% রোমানিয়ান। অন্যান্য উল্লেখযোগ্য জাতিগোষ্ঠী হল রোমানি, হাঙ্গেরিয়ান, তুর্কি, ইহুদি, জার্মান (বেশিরভাগই রেগাট জার্মান), চীনা, রাশিয়ান, ইউক্রেনীয় এবং ইতালীয়। তুলনামূলকভাবে অল্প সংখ্যক বুখারেস্টারও হলেন গ্রীক, আর্মেনিয়ান, বুলগেরিয়ান, আলবেনিয়ান, পোল, ফ্রেঞ্চ, আরব, আফ্রিকান (আফ্রো-রোমানিয়ান সহ), ভিয়েতনামী, ফিলিপিনো, নেপালি, আফগান, শ্রীলঙ্কান, বাংলাদেশি, পাকিস্তানি এবং ভারতীয়। ২২৬,৯৪৩ জন তাদের জাতিগততা ঘোষণা করেনি।

ধর্মীয় অনুষঙ্গের ক্ষেত্রে, জনসংখ্যার ৯৬.১% রোমানিয়ান অর্থোডক্স, ১.২% রোমান ক্যাথলিক, ০.৫% মুসলিম এবং ০.৪% রোমানিয়ান গ্রীক ক্যাথলিক। তা সত্ত্বেও, জনসংখ্যার মাত্র ১৮%, যে কোনও ধর্মের, সপ্তাহে একবার বা তার বেশিবার উপাসনালয়ে উপস্থিত হন। ২০১৫ সালে বুখারেস্টের বাসিন্দাদের আয়ু ছিল ৭৭.৮ বছর, যা জাতীয় গড় থেকে ২.৪ বছর বেশি।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

বুখারেস্ট হল রোমানিয়ান অর্থনীতি এবং শিল্পের কেন্দ্র, যা দেশের মোট জনসংখ্যার প্রায় ২৪% (২০১৭) এবং এর শিল্প উৎপাদনের প্রায় এক-চতুর্থাংশ, যেখানে দেশের জনসংখ্যার ৯% বসবাস করে। জাতীয় করের প্রায় এক-তৃতীয়াংশ বুখারেস্টের নাগরিক এবং কোম্পানিগুলো প্রদান করে। বুখারেস্ট-ইলফভ অঞ্চলে জীবনযাত্রার মান ছিল ২০১৭ সালে EU গড়ের ১৪৫%, ক্রয়ক্ষমতার সমতা মান (জাতীয় মূল্য স্তরের সাথে সামঞ্জস্য) এ মাথাপিছু জিডিপি অনুসারে।

তুলনামূলক ভাবে বুখারেস্ট এলাকা ইউরোপীয় মেট্রোপলিটন এলাকা ছাড়িয়ে গেছে, যেমন বুদাপেস্ট (১৩৯%), মাদ্রিদ (১২৫%), বার্লিন (১১৮%), রোম (১১০%), লিসবন (১০২%), বা সোফিয়া (৭৯%), এবং রোমানিয়ান গড়ের দ্বিগুণেরও বেশি। ১৯৯০ এর দশকে আপেক্ষিক স্থবিরতার পরে, শহরের শক্তিশালী অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অবকাঠামোকে পুনরুজ্জীবিত করেছে এবং শপিং মল, আবাসিক এস্টেট এবং উচ্চ-বৃদ্ধ অফিস ভবনগুলোর বিকাশের দিকে পরিচালিত করেছে। জানুয়ারী ২০১৩ সালে, বুখারেস্টের বেকারত্বের হার ছিল ২.১%, যা জাতীয় বেকারত্বের হার ৫.৮% থেকে উল্লেখযোগ্যভাবে কম।

বুখারেস্টের অর্থনীতি শিল্প এবং পরিষেবাগুলোর উপর কেন্দ্রীভূত, গত ১০ বছরে পরিষেবাগুলো বিশেষভাবে গুরুত্বের সাথে বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রায় সমস্ত বড় রোমানিয়ান কোম্পানি সহ ১৮৬,০০০ ফার্মের সদর দপ্তর বুখারেস্টে অবস্থিত। ২০০০ সাল থেকে বৃদ্ধির একটি গুরুত্বপূর্ণ উৎস হল শহরের দ্রুত সম্প্রসারিত সম্পত্তি এবং নির্মাণ খাত। বুখারেস্ট হল রোমানিয়ার তথ্য প্রযুক্তি এবং যোগাযোগের জন্য সবচেয়ে বড় কেন্দ্র এবং এখানে বেশ কয়েকটি সফ্টওয়্যার কোম্পানি রয়েছে যা অফশোর ডেলিভারি সেন্টার পরিচালনা করে। রোমানিয়ার বৃহত্তম স্টক এক্সচেঞ্জ, বুখারেস্ট স্টক এক্সচেঞ্জ, যা ডিসেম্বর ২০০৫ সালে বুখারেস্ট-ভিত্তিক ইলেকট্রনিক স্টক এক্সচেঞ্জ রাসডাকের সাথে একীভূত হয়েছিল, শহরের অর্থনীতিতে একটি প্রধান ভূমিকা পালন করে।

কাউফল্যান্ড, লিডল, মেট্রো, সেলগ্রোস, পেনি মার্কেট, ক্যারেফোর, আউচান, কোরা, প্রোফি এবং মেগা ইমেজের মতো আন্তর্জাতিক সুপারমার্কেট চেইনগুলো বুখারেস্টে কাজ করছে। শহর একটি খুচরো বুম মধ্য দিয়ে যাচ্ছে. বুখারেস্ট আরমানি, ভার্সেস, রালফ লরেন, ডিওর, প্রাদা, চ্যানেল, হার্মিস, লুই ভিটন এবং গুচির মতো বিলাসবহুল ব্র্যান্ডের আয়োজন করে। মল এবং বড় শপিং সেন্টারগুলো ১৯৯০-এর দশকের শেষের দিক থেকে তৈরি করা হয়েছে, যেমন বানেসা শপিং সিটি, এএফআই প্যালেস কোট্রোসেনি, মেগা মল, বুকুরেতি মল, পার্কলেক শপিং সেন্টার, সান প্লাজা, প্রোমেনাডা মল এবং দীর্ঘতম ইউনিরিয়া শপিং সেন্টার। ২০১৯ সালের হিসাবে বুখারেস্টে ২০টিরও বেশি মল রয়েছে।

কর্পোরেশন অ্যামাজন, মাইক্রোসফ্ট, ওরাকল কর্পোরেশন, বা আইবিএম সবই রোমানিয়ার রাজধানীতে উপস্থিত। শীর্ষ দশে স্বয়ংচালিত, তেল ও গ্যাস (যেমন পেট্রোম) এবং সেইসাথে টেলিকমিউনিকেশন এবং এফএমসিজি কোম্পানিগুলোর দ্বারাও আধিপত্য রয়েছে।

পরিবহন[সম্পাদনা]

বুখারেস্ট দুটি প্রধান আন্তর্জাতিক রুট অতিক্রম করেছে: প্যান-ইউরোপীয় পরিবহন করিডোর IV এবং IX।

গণপরিবহন[সম্পাদনা]

বুখারেস্টের পাবলিক ট্রান্সপোর্ট সিস্টেম রোমানিয়ার বৃহত্তম এবং ইউরোপের বৃহত্তম। এটি মেট্রোরেক্স দ্বারা চালিত বুখারেস্ট মেট্রো, সেইসাথে STB (Societatea de Transport București, পূর্বে RATB নামে পরিচিত) দ্বারা চালিত একটি সারফেস ট্রান্সপোর্ট সিস্টেমের সমন্বয়ে গঠিত যা বাস, ট্রাম, ট্রলিবাস এবং হালকা রেল নিয়ে গঠিত। এছাড়াও, একটি ব্যক্তিগত মিনিবাস ব্যবস্থা সেখানে কাজ করে। ২০০৭ সালে, ১০,০০০ ট্যাক্সিক্যাব লাইসেন্সের সীমা আরোপ করা হয়েছিল।

রেলওয়ে[সম্পাদনা]

এটি রোমানিয়ার ন্যাশনাল রেলওয়ে নেটওয়ার্কের হাব, যেটি কাইলে ফেরেট রোমান দ্বারা পরিচালিত হয়। প্রধান রেলওয়ে স্টেশন হল গারা দে নর্ড ('উত্তর স্টেশন'), যা রোমানিয়ার সমস্ত বড় শহরগুলোর পাশাপাশি আন্তর্জাতিক গন্তব্যগুলোর সাথে সংযোগ প্রদান করে: বেলগ্রেড, সোফিয়া, ভার্না, চিসিনাউ, কিইভ, চেরনিভতসি, লভিভ, থেসালোনিকি, ভিয়েনা, বুদাপেস্ট, ইস্তাম্বুল, মস্কো ইত্যাদি

শহরটিতে CFR দ্বারা চালিত আরও পাঁচটি রেলওয়ে স্টেশন রয়েছে, যার মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হল বাসরব (উত্তর স্টেশন সংলগ্ন), ওবোর, বানেসা এবং প্রগ্রেসুল। এগুলো বুখারেস্ট এবং পার্শ্ববর্তী ইলফভ কাউন্টিতে পরিষেবা প্রদানকারী একটি কমিউটার রেলওয়েতে একীভূত হওয়ার প্রক্রিয়াধীন। বুখারেস্ট থেকে সাতটি প্রধান লাইন বিকিরণ করে।

বুখারেস্টের প্রাচীনতম স্টেশন হল ফিলারেট। এটি ১৮৬৯ সালে উদ্বোধন করা হয়েছিল এবং ১৯৬০ সালে, কমিউনিস্ট সরকার এটিকে বাস টার্মিনালে পরিণত করে।

বিমান[সম্পাদনা]

বুখারেস্টের দুটি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর রয়েছে:

  • হেনরি কোন্ডা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (IATA: OTP, ICAO: LROP), বুখারেস্ট শহরের কেন্দ্র থেকে ১৬.৫ কিমি (১০.৩ মাইল) উত্তরে, ওটোপেনি, ইলফভ শহরে অবস্থিত। যাত্রী ট্রাফিকের দিক থেকে এটি রোমানিয়ার ব্যস্ততম বিমানবন্দর: ২০১৭ সালে ১২, ৮০৭, ০৩২।
  • Aurel Vlaicu আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (IATA: BBU, ICAO: LRBS) হল বুখারেস্টের ব্যবসায়িক এবং ভিআইপি বিমানবন্দর। এটি বুখারেস্ট শহরের কেন্দ্র থেকে মাত্র ৮ কিমি (৫.০ মাইল) উত্তরে শহরের সীমার মধ্যে অবস্থিত।

রাস্তা[সম্পাদনা]

বুখারেস্ট হল রোমানিয়ার জাতীয় সড়ক নেটওয়ার্কের একটি প্রধান সংযোগস্থল। কয়েকটি ব্যস্ততম জাতীয় সড়ক এবং মোটরওয়ে শহরটিকে রোমানিয়ার সমস্ত প্রধান শহরগুলোর সাথে সাথে হাঙ্গেরি, বুলগেরিয়া এবং ইউক্রেনের মতো প্রতিবেশী দেশগুলোর সাথে সংযুক্ত করে। A1 থেকে Pitești, A2 সান মোটরওয়ে ডোব্রোজিয়া অঞ্চল এবং কনস্টানস এবং A3 থেকে Ploiești সবই বুখারেস্ট থেকে শুরু হয়।

উচ্চ-ক্ষমতার বুলেভার্ডগুলোর একটি সিরিজ, যা সাধারণত শহরের কেন্দ্র থেকে উপকণ্ঠে বিকিরণ করে, পৌর সড়ক ব্যবস্থার জন্য একটি কাঠামো প্রদান করে। প্রধান অক্ষগুলো, যা উত্তর-দক্ষিণ, পূর্ব-পশ্চিম এবং উত্তর-পশ্চিম-দক্ষিণ-পূর্ব দিকে চলে, সেইসাথে একটি অভ্যন্তরীণ এবং একটি বহিরাগত রিং রোড, বেশিরভাগ ট্রাফিককে সমর্থন করে।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে গাড়ির মালিকানা বৃদ্ধির কারণে শহরের রাস্তায় সাধারণত ভিড়ের সময় খুব ভিড় থাকে। ২০১৩ সালে, বুখারেস্টে নিবন্ধিত গাড়ির সংখ্যা ছিল ১,১২১,৫৯১। এর ফলে ব্যস্ত রাস্তায়, বিশেষ করে গৌণ রাস্তাগুলোতে পরিধান এবং গর্ত দেখা দেয়, এটি বুখারেস্টের অন্যতম প্রধান অবকাঠামোগত সমস্যা হিসাবে চিহ্নিত। রাস্তার অবকাঠামো উন্নত করার জন্য সিটি হলের পক্ষ থেকে একটি ব্যাপক প্রচেষ্টা করা হয়েছিল, এবং সাধারণ উন্নয়ন পরিকল্পনা অনুযায়ী, 2008 সালের মধ্যে ২, ০০০টি রাস্তা মেরামত করা হয়েছে। শহরে নিবন্ধিত বিপুল সংখ্যক গাড়ি রোমানিয়ান অটো রেজিস্ট্রিকে ২০১০ সালে রেজিস্ট্রেশন প্লেটে 3-সংখ্যার নম্বরে স্যুইচ করতে বাধ্য করেছিল।

১৭ জুন ২০১১-এ, বাসরব ওভারপাসটি উদ্বোধন করা হয় এবং যানবাহনের জন্য উন্মুক্ত করা হয়, এইভাবে শহরের ভিতরের ট্রাফিক রিংটি সম্পূর্ণ হয়। ওভারপাসটি তৈরি করতে পাঁচ বছর সময় লেগেছিল এবং এটি রোমানিয়ার দীর্ঘতম কেবল-স্থায়ী সেতু এবং ইউরোপের সবচেয়ে প্রশস্ত সেতু; সমাপ্তির পরে, গ্রান্ট ব্রিজ এবং গারা দে নর্ড এলাকায় যানবাহন লক্ষণীয়ভাবে আরও তরল হয়ে ওঠে।

নদী[সম্পাদনা]

যদিও এটি একটি নদীর তীরে অবস্থিত, বুখারেস্ট কখনই একটি বন্দর শহর হিসাবে কাজ করেনি, অন্যান্য রোমানিয়ান শহর যেমন কনস্টানতা এবং গালাসি দেশের প্রধান বন্দর হিসাবে কাজ করে। অসমাপ্ত দানিউব-বুখারেস্ট খাল, যা ৭৩ কিমি (৪৫ মাইল) দীর্ঘ এবং প্রায় ৭০% সম্পন্ন, বুখারেস্টকে দানিউব নদীর সাথে এবং দানিউব-ব্ল্যাক সি খালের মাধ্যমে কৃষ্ণ সাগরের সাথে যুক্ত করতে পারে। খালটির কাজ ১৯৮৯ সালে স্থগিত করা হয়েছিল, তবে দানিউব অঞ্চলের জন্য ইউরোপীয় কৌশলের অংশ হিসাবে নির্মাণ পুনরায় শুরু করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

বুখারেস্টের একটি ক্রমবর্ধমান সাংস্কৃতিক প্রেখাপট রয়েছে, ভিজ্যুয়াল আর্টস, পারফর্মিং আর্টস এবং নাইটলাইফ সহ ক্ষেত্রগুলোতে। রোমানিয়ার অন্যান্য অংশের বিপরীতে, যেমন কৃষ্ণ সাগর উপকূল বা ট্রান্সিলভানিয়া, বুখারেস্টের সাংস্কৃতিক দৃশ্যের কোন সংজ্ঞায়িত শৈলী নেই এবং এর পরিবর্তে রোমানিয়ান এবং আন্তর্জাতিক সংস্কৃতির উপাদানগুলোকে অন্তর্ভুক্ত করে।

ভূ-চিহ্ন[সম্পাদনা]

বুখারেস্টে ল্যান্ডমার্ক ভবন এবং স্মৃতিস্তম্ভ রয়েছে। সম্ভবত এর মধ্যে সবচেয়ে বিশিষ্ট হল সংসদের প্রাসাদ, যা ১৯৮০-এর দশকে কমিউনিস্ট স্বৈরশাসক নিকোলাই কৌসেস্কুর শাসনামলে নির্মিত হয়েছিল। বিশ্বের বৃহত্তম পার্লামেন্ট ভবন, প্রাসাদে রোমানিয়ান পার্লামেন্ট (চেম্বার অফ ডেপুটিস এবং সিনেট) এবং সেইসাথে সমসাময়িক শিল্পের জাতীয় জাদুঘর রয়েছে। বিল্ডিংটি বিশ্বের বৃহত্তম সম্মেলন কেন্দ্রগুলোর মধ্যে একটি নিয়ে গর্ব করে।

বুখারেস্টের আরেকটি ল্যান্ডমার্ক হল আর্কুল ডি ট্রায়ম্ফ (দ্য ট্রায়াম্ফাল আর্চ), এটির বর্তমান আকারে .১৯৩৫ সালে নির্মিত এবং প্যারিসের আর্ক ডি ট্রায়ম্ফের পরে মডেল করা হয়েছিল। শহরের একটি নতুন ল্যান্ডমার্ক হল পুনর্জন্মের স্মৃতিসৌধ, একটি স্টাইলাইজড মার্বেল স্তম্ভ যা ২০০৫ সালে ১৯৮৯ সালের রোমানিয়ান বিপ্লবের শিকারদের স্মরণে উন্মোচন করা হয়েছিল, যা কমিউনিজমকে উৎখাত করেছিল। বিমূর্ত স্মৃতিস্তম্ভটি বিতর্কের জন্ম দেয় যখন এটি উন্মোচন করা হয়, 'দ্য অলিভ অন দ্য টুথপিক' (ম্যাসলিনা-এন স্কোবিটোয়ার) এর মতো নাম দিয়ে ডাব করা হয়েছিল, কারণ অনেকেই যুক্তি দিয়েছিলেন যে এটি তার আশেপাশের সাথে খাপ খায় না এবং বিশ্বাস করেছিল যে এটির পছন্দ ছিল।

রোমানিয়ান অ্যাথেনিয়াম ভবনটিকে রোমানিয়ান সংস্কৃতির প্রতীক হিসেবে বিবেচনা করা হয় এবং ২০০৭ সাল থেকে এটি ইউরোপীয় ঐতিহ্যবাহী স্থানগুলোর লেবেলের তালিকায় রয়েছে। এটি ১৮৮৬ এবং ১৮৮৮ সালের মধ্যে স্থপতি পল লুই অ্যালবার্ট গ্যালারন দ্বারা জনসাধারণের অর্থায়নের মাধ্যমে নির্মিত হয়েছিল।

ইন্টারকন্টিনেন্টাল বুখারেস্ট হল ইউনিভার্সিটি স্কোয়ারের কাছে একটি উঁচু ফাইভ-স্টার হোটেল এবং এটি শহরের একটি ল্যান্ডমার্কও। বিল্ডিংটি এমনভাবে ডিজাইন করা হয়েছে যাতে প্রতিটি ঘরে শহরের একটি অনন্য প্যানোরামা থাকে।

হাউস অফ দ্য স্পার্ক (Casa Scânteii) বিখ্যাত 'লোমোনোসভ' মস্কো স্টেট ইউনিভার্সিটির একটি প্রতিরূপ। বৃহৎ আকারের সোভিয়েত প্রকল্পগুলোর বৈশিষ্ট্যগত শৈলীতে নির্মিত এই ভবনটির উদ্দেশ্য ছিল নতুন রাজনৈতিক শাসনের প্রতিনিধিত্ব করা এবং কমিউনিস্ট মতবাদের শ্রেষ্ঠত্ব জাহির করা। ১৯৫২ সালে নির্মাণ শুরু হয় এবং ১৯৫৩ সালে স্ট্যালিনের মৃত্যুর কয়েক বছর পরে ১৯৫৭ সালে শেষ হয়। রোমানিয়ান কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির অফিসিয়াল গেজেটের নাম অনুসারে জনপ্রিয়ভাবে Casa Scânteii ('হাউস অফ দ্য স্পার্ক') নামে পরিচিত, Scanteia, এটি বুখারেস্টের সমস্ত অফিসিয়াল প্রেস এবং প্রকাশনা সংস্থাকে এক ছাদের নীচে একত্রিত করার উদ্দেশ্যে তৈরি করা হয়েছিল। এটি বুখারেস্টের একমাত্র বিল্ডিং যেখানে হ্যামার এবং সিকেল, রেড স্টার এবং অন্যান্য কমিউনিস্ট চিহ্ন সম্বলিত মেডেলিয়নে খোদাই করা হয়েছে যা সম্মুখভাগে শোভা পাচ্ছে।

অন্যান্য সাংস্কৃতিক স্থানের মধ্যে রয়েছে ন্যাশনাল মিউজিয়াম অফ আর্ট অফ রোমানিয়া, গ্রিগোর অ্যান্টিপা ন্যাশনাল মিউজিয়াম অফ ন্যাচারাল হিস্ট্রি, মিউজিয়াম অফ দ্য রোমানিয়ান পিজেন্ট, ন্যাশনাল হিস্ট্রি মিউজিয়াম এবং মিলিটারি মিউজিয়াম।

দৃশ্যমান অংকন[সম্পাদনা]

চাক্ষুষ শিল্পের পরিপ্রেক্ষিতে, শহরে ক্লাসিক্যাল এবং সমসাময়িক রোমানিয়ান শিল্পের পাশাপাশি নির্বাচিত আন্তর্জাতিক শিল্পকর্মগুলো সমন্বিত জাদুঘর রয়েছে। রোমানিয়ার ন্যাশনাল মিউজিয়াম অফ আর্ট সম্ভবত বুখারেস্ট জাদুঘরগুলোর মধ্যে সবচেয়ে পরিচিত। এটি রাজপ্রাসাদে অবস্থিত এবং এখানে মধ্যযুগীয় এবং আধুনিক রোমানিয়ান শিল্পের সংগ্রহ রয়েছে, যার মধ্যে রয়েছে ভাস্কর কনস্টান্টিন ব্রাঙ্কুসি-এর কাজ, সেইসাথে রোমানিয়ান রাজপরিবার দ্বারা একত্রিত একটি আন্তর্জাতিক সংগ্রহ।

অন্যান্য, ছোট, জাদুঘরে বিশেষ সংগ্রহ রয়েছে। জাম্বাকসিয়ান মিউজিয়াম, যা শিল্প সংগ্রাহক ক্রিকর এইচ. জাম্বাকসিয়ানের প্রাক্তন বাড়িতে অবস্থিত, এতে সুপরিচিত রোমানিয়ান শিল্পী এবং পল সেজান, ইউজিন ডেলাক্রোইক্স, হেনরি ম্যাটিস, ক্যামিল পিসারো এবং পাবলো পিকাসোর মতো আন্তর্জাতিক শিল্পীদের কাজ রয়েছে।

ঘেরঘে তাতারেস্কু মিউজিয়ামে রয়েছে নির্বাসনে থাকা রোমানিয়ান বিপ্লবীদের প্রতিকৃতি যেমন ঘেওরহে মাগেরু, তেফান গোলেস্কু এবং নিকোলাই বালসেস্কু, এবং বিপ্লবী (রোমানিয়ার পুনর্জন্ম, 1849) এবং দেশপ্রেমিক (The Principalities'175) সঙ্গে রূপক রচনা। গুরুত্বপূর্ণ রোমানিয়ান চিত্রশিল্পীদের জড়ো করা আরেকটি চিত্তাকর্ষক শিল্প সংগ্রহ, লিগিয়া এবং পম্পিলিউ ম্যাকোওয়ের বাসভবনে পাওয়া যাবে, যা দর্শকদের জন্য উন্মুক্ত কারণ এটি এখন বুখারেস্ট মিউজিয়ামের পিতৃত্বের অংশ।


স্থাপত্য[সম্পাদনা]

শহরের কেন্দ্রস্থল হল মধ্যযুগীয়, নিওক্ল্যাসিকাল, আর্ট ডেকো এবং আর্ট নুওয়াউ ভবনের মিশ্রণ, সেইসাথে ২০ শতকের শুরু থেকে 'নব্য-রোমানিয়ান' ভবন এবং ১৯২০ এবং ১৯৩০ এর দশকের আধুনিক ভবনগুলোর একটি সংগ্রহ। বেশিরভাগ উপযোগী কমিউনিস্ট যুগের স্থাপত্য বেশিরভাগ দক্ষিণের বরোগুলোতে আধিপত্য বিস্তার করে। সম্প্রতি নির্মিত সমসাময়িক কাঠামো যেমন আকাশচুম্বী ভবন এবং অফিস ভবনগুলো ল্যান্ডস্কেপ সম্পূর্ণ করে।

ঐতিহাসিক স্থাপত্য[সম্পাদনা]

২০১৩ সালে ভ্লাদ দ্য ইমপালার ক্যাসেল (ভ্লাদ Țepeș দুর্গ)

শহরের মধ্যযুগীয় স্থাপত্যের মধ্যে, আধুনিক সময়ে যা টিকে ছিল তার বেশিরভাগই কমিউনিস্ট পদ্ধতিগতকরণ, আগুন এবং সামরিক অনুপ্রবেশের দ্বারা ধ্বংস হয়ে গেছে। কিছু মধ্যযুগীয় এবং রেনেসাঁ ভবন রয়ে গেছে, সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য লিপস্কানি এলাকায়। এই এলাকায় মানুক'স ইন ( হানুল লুই মানুক ) এবং পুরাতন আদালতের ধ্বংসাবশেষ ( কার্টিয়া ভেচে ) এর মতো উল্লেখযোগ্য ভবন রয়েছে; মধ্যযুগের শেষের দিকে, এই এলাকাটি বুখারেস্টের বাণিজ্যের কেন্দ্রস্থল ছিল। ১৯৭০ এর দশক থেকে, এলাকাটি শহুরে পতনের মধ্য দিয়ে যায়, এবং অনেক ঐতিহাসিক ইমারত জরাজীর্ণ হয়ে পড়ে। ২০০৫ সালে, লিপস্কানি অঞ্চলটি পুনরুদ্ধার করা হয়েছিল। [৩১]

নিকোলাই সিউসেস্কুর শাসনামলে একটি বিশাল পুনঃউন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য, সরকার রোমানিয়ার গীর্জা এবং অন্যান্য অনেক ঐতিহাসিক স্থাপনা ব্যাপকভাবে ধ্বংস করে। বুখারেস্টের প্রাক্তন প্রধান স্থপতি আলেকজান্দ্রু বুদিস্তেনুর মতে, 'একটি চার্চের দৃশ্য চৌসেস্কুকে বিরক্ত করেছিল। তারা এটিকে ভেঙ্গে ফেলল বা সরিয়ে ফেলল তাতে কিছু যায় আসে না, যতক্ষণ না এটি আর চোখে পড়ে না'। তা সত্ত্বেও, রোমানিয়ান প্রকৌশলী ইউজেনিউ ইওর্দচেস্কু দ্বারা সংগঠিত একটি প্রকল্প অনেক ঐতিহাসিক স্থাপনাকে কম বিশিষ্ট স্থানে স্থানান্তর করতে এবং সেগুলোকে সংরক্ষণ করতে সক্ষম হয়েছিল। [৩২]

শহরের কেন্দ্রটি ১৯ শতকের শেষের দিকে এবং ২০ শতকের শুরু থেকে স্থাপত্যকে ধরে রেখেছে, বিশেষ করে আন্তঃযুদ্ধের সময়, যাকে প্রায়ই বুখারেস্ট স্থাপত্যের 'স্বর্ণযুগ' হিসেবে দেখা হয়। এই সময়ে, শহরটি আয়তন এবং সম্পদে বৃদ্ধি পায়, তাই প্যারিসের মতো অন্যান্য বৃহৎ ইউরোপীয় রাজধানীগুলোকে অনুকরণ করতে চায়। সেই সময়ের স্থাপত্যের বেশিরভাগ অংশই আধুনিক (যুক্তিবাদী) স্থাপত্য কারেন্টের অন্তর্গত, যার নেতৃত্বে হোরিয়া ক্রেঙ্গা এবং মার্সেল ইয়ানকু।

রোমানিয়াতে, স্থাপত্য ভাষায় উদ্ভাবনের প্রবণতা জাতীয় সাংস্কৃতিক পরিচয়ের মূল্যায়ন এবং নিশ্চিতকরণের প্রয়োজনীয়তা পূরণ করেছে। আর্ট নুওয়াউ আন্দোলন নতুন স্থাপত্য শৈলীর মাধ্যমে অভিব্যক্তি খুঁজে পায় যা ইয়ন মিঙ্কু দ্বারা সূচিত হয়েছিল এবং অন্যান্য মর্যাদাপূর্ণ স্থপতিদের দ্বারা নেওয়া হয়েছিল যারা রোমানিয়ান ল্যাইক এবং মধ্যযুগীয় ধর্মীয় স্থাপত্যের (উদাহরণস্বরূপ মোগোসোয়াইয়া প্রাসাদ, স্ট্যাভ্রোপলিওস চার্চ বা অদৃশ্য হয়ে যাওয়া মনখারাচাস্টের চার্চ) এর গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখগুলোকে পুঁজি করে। এবং রোমানিয়ান লোক মোটিফ। [৩৩]

এই সময়ের দুটি উল্লেখযোগ্য ভবন হল ক্রেউলেস্কু প্রাসাদ, ইউনেস্কোর উচ্চ শিক্ষার জন্য ইউরোপীয় কেন্দ্র সহ সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান এবং রোমানিয়ার রাষ্ট্রপতির বাসভবন কোট্রোসেনি প্রাসাদ। গারা দে নর্ড, শহরের ব্যস্ততম রেলওয়ে স্টেশন, ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক অফ রোমানিয়ার সদর দপ্তর এবং টেলিফোন প্রাসাদ -এর মতো অনেক বড় মাপের নির্মাণ এই সময়ের থেকে। ২০০০ এর দশকে, শহরের কেন্দ্রে ঐতিহাসিক ভবনগুলো পুনরুদ্ধার করা হয়েছিল। শহরের কিছু আবাসিক এলাকায়, বিশেষ করে উচ্চ আয়ের মধ্য ও উত্তর জেলায়, বিংশ শতাব্দীর ভিলাগুলো বেশিরভাগই ১৯৯০ এর দশকের শেষের দিকে পুনরুদ্ধার করা হয়েছিল।

কমিউনিস্ট যুগের স্থাপত্য[সম্পাদনা]

বুখারেস্টের স্থাপত্যের একটি বড় অংশ কমিউনিস্ট যুগে নির্মিত ভবনগুলোর সমন্বয়ে গঠিত যা ঐতিহাসিক স্থাপত্যকে উচ্চ-ঘনত্বের অ্যাপার্টমেন্ট ব্লক দিয়ে প্রতিস্থাপন করে - বুখারেস্টের ঐতিহাসিক কেন্দ্রের উল্লেখযোগ্য অংশগুলো বিশ্বের বৃহত্তম ভবনগুলোর একটি, প্রাসাদ নির্মাণের জন্য ভেঙে ফেলা হয়েছিল। সংসদের (তখন আনুষ্ঠানিকভাবে প্রজাতন্ত্রের হাউস বলা হয়)। নিকোলাই কৌসেস্কুর পদ্ধতিগতকরণের প্রকল্পে, পূর্ববর্তী ঐতিহাসিক এলাকায় নতুন ভবন তৈরি করা হয়েছিল, যেগুলোকে ভেঙে ফেলা হয়েছিল এবং তারপরে নির্মাণ করা হয়েছিল।

এই ধরনের স্থাপত্যের একক উদাহরণ হল Centrul Civic, একটি উন্নয়ন যা বুখারেস্টের ঐতিহাসিক শহরের কেন্দ্রের একটি বড় অংশকে বিশাল উপযোগী ভবন দিয়ে প্রতিস্থাপিত করেছে, প্রধানত মার্বেল বা ট্রাভার্টাইন ফ্যাসাড দিয়ে, উত্তর কোরিয়ার স্থাপত্য দ্বারা অনুপ্রাণিত। ১৯৮০-এর দশকে ঘটে যাওয়া ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ, যার অধীনে বুখারেস্টের ঐতিহাসিক কেন্দ্রের আট বর্গকিলোমিটারের সামগ্রিক এলাকা সমতল করা হয়েছিল, যার মধ্যে মঠ, গীর্জা, উপাসনালয়, একটি হাসপাতাল এবং একটি বিখ্যাত আর্ট ডেকো স্পোর্টস স্টেডিয়াম রয়েছে, এর চেহারা ব্যাপকভাবে পরিবর্তিত হয়েছিল। শহর.

কমিউনিস্ট যুগের স্থাপত্য বুখারেস্টের আবাসিক জেলাগুলোতেও পাওয়া যেতে পারে, প্রধানত ব্লকুরিতে, যেগুলো উচ্চ-ঘনত্বের অ্যাপার্টমেন্ট ব্লক যা শহরের অধিকাংশ জনসংখ্যার বাস করে। প্রাথমিকভাবে, এই অ্যাপার্টমেন্ট ব্লকগুলো ১৯৬০-এর দশকে তুলনামূলকভাবে ফাঁকা জায়গা এবং ক্ষেত্রগুলোতে নির্মাণ করা শুরু হয়েছিল (ভাল উদাহরণগুলো হল পাজুরা, ড্রুমুল তাবেরেই, বারসেনি এবং টাইটান), তবে ১৯৭০-এর দশকে, তারা বেশিরভাগ পেরিফেরাল পাড়াগুলো যেমন কোলেন্টিনা, প্যানটেলিমন, মিলিটারিকে লক্ষ্য করে। এবং রাহোভা। এই অ্যাপার্টমেন্ট ব্লকগুলোর নির্মাণও প্রায়শই এলোমেলো করা হয়েছিল, উদাহরণস্বরূপ কিছু ছোট রাস্তা ভেঙে ফেলা হয়েছিল এবং পরে তাদের পাশের ব্লকগুলো তৈরি করে প্রশস্ত করা হয়েছিল, কিন্তু অন্যান্য পার্শ্ববর্তী রাস্তাগুলো অক্ষত রাখা হয়েছিল (যেমন ১৯৭৮ থেকে ১৯৮২ সাল পর্যন্ত ক্যালিয়া মোসিলরের উদাহরণে), অথবা ১৯৬২ থেকে ১৯৬৩ পর্যন্ত Piața Iancului-Lizeanu অ্যাপার্টমেন্ট ভবনের মতো বিভিন্ন প্যাটার্নে নির্মিত।

এছাড়াও কমিউনিস্ট স্থাপত্য রয়েছে যা ১৯৪০ এবং ১৯৫০ এর দশকের শেষের দিকে সিস্টেমের প্রথম দিকে নির্মিত হয়েছিল। এই যুগে নির্মিত ভবনগুলো সোভিয়েত স্টালিনবাদী সমাজতান্ত্রিক বাস্তববাদের ধারা অনুসরণ করে, এবং হাউস অফ দ্য ফ্রি প্রেস (যা কমিউনিজমের সময় Casa Scînteii নামে পরিচিত ছিল) অন্তর্ভুক্ত করে।

সমসাময়িক স্থাপত্য[সম্পাদনা]

১৯৮৯ সালে কমিউনিজমের পতনের পর থেকে, বেশ কিছু কমিউনিস্ট-যুগের ভবন সংস্কার, আধুনিকীকরণ এবং অন্যান্য উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা হয়েছে। [৩৪]সম্ভবত এর সর্বোত্তম উদাহরণ হল অপ্রচলিত খুচরা কমপ্লেক্সকে শপিং মল এবং বাণিজ্যিক কেন্দ্রে রূপান্তর করা। এই বিশালাকার, বৃত্তাকার হলগুলো, যেগুলোকে অনানুষ্ঠানিকভাবে ক্ষুধা সার্কাস বলা হত ১৯৮০-এর দশকে খাদ্য ঘাটতির কারণে, Ceaușescu যুগে উৎপাদন বাজার এবং রিফেক্টরি হিসাবে কাজ করার জন্য নির্মিত হয়েছিল, যদিও বিপ্লবের সময় বেশিরভাগই অসমাপ্ত ছিল।

ইউনিরিয়া শপিং সেন্টার, বুখারেস্ট মল, প্লাজা রোমানিয়া এবং সিটি মলের মতো আধুনিক শপিং মলগুলো প্রাক্তন হাঙ্গার সার্কাসের প্রাক-অস্তিত্বশীল কাঠামোর উপর আবির্ভূত হয়েছিল। আরেকটি উদাহরণ হল সেন্ট্রুল সিভিকের একটি বৃহৎ উপযোগী নির্মাণকে ম্যারিয়ট হোটেলে রূপান্তর করা। এই প্রক্রিয়াটি ২০০০ এর পরে ত্বরান্বিত হয়েছিল, যখন শহরটি একটি সম্পত্তি বুম করে, এবং শহরের কেন্দ্রস্থলে অনেক কমিউনিস্ট যুগের ভবনগুলো তাদের অবস্থানের কারণে প্রধান রিয়েল এস্টেট হয়ে ওঠে। শহুরে চেহারা উন্নত করার জন্য অনেক কমিউনিস্ট যুগের অ্যাপার্টমেন্ট ব্লকগুলোও সংস্কার করা হয়েছে।

বুখারেস্টের স্থাপত্যে নতুন অবদান কমিউনিজমের পতনের পরে, বিশেষ করে ২০০০ এর পরে, যখন শহরটি শহুরে পুনর্নবীকরণের সময়কালের মধ্য দিয়ে যায়।  – এবং স্থাপত্য পুনরুজ্জীবন – রোমানিয়ার অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির পিছনে। এই সময়ের বিল্ডিংগুলো বেশিরভাগই কাঁচ এবং ইস্পাত দিয়ে তৈরি এবং প্রায়শই 10 টিরও বেশি তলা বিশিষ্ট। উদাহরণগুলোর মধ্যে রয়েছে শপিং মল (বিশেষত বুখারেস্ট মল, একটি পরিত্যক্ত ভবনের রূপান্তর এবং সম্প্রসারণ), অফিস ভবন, ব্যাংক সদর দপ্তর ইত্যাদি।

গত দশ বছরে, বিশেষ করে শহরের উত্তর ও পূর্ব অংশে বেশ কয়েকটি উচ্চ ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। উপরন্তু, ঐতিহাসিক ভবনগুলোতে আধুনিক ডানা এবং সম্মুখভাগ যুক্ত করার একটি প্রবণতা দেখা দিয়েছে, যার সবচেয়ে বিশিষ্ট উদাহরণ হল বুখারেস্ট আর্কিটেক্টস অ্যাসোসিয়েশন বিল্ডিং, যা একটি ঐতিহাসিক পাথরের সম্মুখভাগের ভিতরে নির্মিত একটি আধুনিক কাচ-এবং-ইস্পাত নির্মাণ। ২০১৩ সালে, বুখারেস্ট স্কাইলাইন একটি ১৩৭-মি-উচ্চ অফিস বিল্ডিং (ফ্লোরেসকা সিটি সেন্টারের স্কাইটাওয়ার) দ্বারা সমৃদ্ধ হয়েছে, যা রোমানিয়ার সবচেয়ে উঁচু ভবন। ২১ শতকে নির্মিত আধুনিক আকাশচুম্বী ভবনগুলোর উদাহরণগুলোর মধ্যে রয়েছে বুখারেস্ট টাওয়ার সেন্টার, ইউরো টাওয়ার, নুস্কো টাওয়ার, ক্যাথিড্রাল প্লাজা, সিটি গেট টাওয়ার, রিন গ্র্যান্ড হোটেল, প্রিমিয়াম প্লাজা, বুখারেস্ট কর্পোরেট সেন্টার, মিলেনিয়াম বিজনেস সেন্টার, পিজিভি টাওয়ার, প্লা চার্লস ডি গাউল, বিজনেস ডেভেলপমেন্ট সেন্টার বুখারেস্ট, বিআরডি টাওয়ার এবং বুখারেস্ট ফাইন্যান্সিয়াল প্লাজা। এই উল্লম্ব উন্নয়ন সত্ত্বেও, রোমানিয়ান স্থপতিরা ভূমিকম্পের ঝুঁকির কারণে খুব উঁচু ভবনের নকশা করা এড়িয়ে যান। [৩৫]

ব্যবসা এবং প্রতিষ্ঠানের জন্য ব্যবহৃত বিল্ডিংগুলো ছাড়াও, আবাসিক উন্নয়নগুলোও তৈরি করা হয়েছে, যার মধ্যে অনেকগুলো উঁচু অফিস ভবন এবং শহরতলির আবাসিক সম্প্রদায়গুলো নিয়ে গঠিত৷একটি নতুন উঁচু আবাসিক কমপ্লেক্সের উদাহরণ হল অস্মিতা গার্ডেন। এই উন্নয়নগুলো উত্তর বুখারেস্টে ক্রমবর্ধমানভাবে বিশিষ্ট হয়ে উঠছে, যা কম ঘনবসতিপূর্ণ এবং মৃদুকরণের প্রক্রিয়ার কারণে মধ্য ও উচ্চ-বিত্ত বুখারেস্টের আবাসস্থল।

শিক্ষা[সম্পাদনা]

সামগ্রিকভাবে, ৩৪টি বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৫৯টি অনুষদ রয়েছে। বুখারেস্টে ষোলটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে, যার মধ্যে সবচেয়ে বড় হল বুখারেস্ট বিশ্ববিদ্যালয়, বুখারেস্টের পলিথিনিকা বিশ্ববিদ্যালয়, বুখারেস্ট ইউনিভার্সিটি অফ ইকোনমিক স্টাডিজ, ক্যারল ডেভিলা ইউনিভার্সিটি অফ মেডিসিন অ্যান্ড ফার্মেসি, টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটি অফ সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং, ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অফ পলিটিক্যাল। স্টাডিজ অ্যান্ড পাবলিক অ্যাডমিনিস্ট্রেশন এবং ইউনিভার্সিটি অফ এগ্রোনমিক সায়েন্সেস অ্যান্ড ভেটেরিনারি মেডিসিন অফ বুখারেস্ট।

এগুলো রোমানিয়ান-আমেরিকান ইউনিভার্সিটির মতো উনিশটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় দ্বারা পরিপূরক। [৩৬]বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অবশ্য অনিয়মের কারণে মিশ্র সুনাম রয়েছে। [৩৭] [৩৮]

২০২০ QS ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি র‌্যাঙ্কিংয়ে, বুখারেস্ট থেকে, শুধুমাত্র বুখারেস্ট বিশ্ববিদ্যালয় বিশ্বের শীর্ষ বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে অন্তর্ভুক্ত ছিল। পলিথিনিকা ইউনিভার্সিটি র‌্যাঙ্কিং থেকে হারিয়ে গেছে। [৩৯]এছাড়াও, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে, শহরের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ভর্তি হওয়া বিদেশী ছাত্রদের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। [৪০]

প্রথম আধুনিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছিল বুখারেস্টের প্রিন্সলি একাডেমি, যা ১৬৯৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় এবং ১৮৬৪ সালে বিভক্ত হয়ে বর্তমান বুখারেস্ট বিশ্ববিদ্যালয় এবং সেন্ট সাভা ন্যাশনাল কলেজ গঠন করে, উভয়ই রোমানিয়াতে তাদের ধরণের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ। [৪১] [৪২]

৪৫০টিরও বেশি সরকারি প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় শহরে রয়েছে, যার সবকটিই বুখারেস্ট মিউনিসিপ্যাল স্কুলিং ইন্সপেক্টরেট দ্বারা পরিচালিত হয়। প্রতিটি সেক্টরের নিজস্ব স্কুলিং ইন্সপেক্টরেট রয়েছে, যা পৌরসভার অধীনস্থ।

মিডিয়া[সম্পাদনা]

শহরটি একটি আধুনিক ল্যান্ডলাইন এবং মোবাইল নেটওয়ার্ক দ্বারা ভালভাবে পরিবেশিত। Poșta Română, জাতীয় ডাক অপারেটর, কেন্দ্রীয় পোস্ট অফিস সহ সারা শহরে ছড়িয়ে আছে ( রোমানীয়: Oficiul Poștal București 1 ) ১২ মাতেই মিলো স্ট্রিটে অবস্থিত। পাবলিক টেলিফোন অনেক জায়গায় অবস্থিত এবং টেলিকম রোমানিয়া দ্বারা পরিচালিত হয়, ডয়েচে টেলিকমের একটি সহযোগী এবং প্রাক্তন একচেটিয়া রমটেলিকমের উত্তরসূরি৷

বুখারেস্ট হল বেশিরভাগ জাতীয় টেলিভিশন নেটওয়ার্ক এবং জাতীয় সংবাদপত্র, রেডিও স্টেশন এবং অনলাইন সংবাদ ওয়েবসাইটগুলোর সদর দফতর। বুখারেস্টের বৃহত্তর দৈনিক সংবাদপত্রের মধ্যে রয়েছে Evenimentul Zilei, Jurnalul Național, Cotidianul, România Liberă, এবং Adevărul, যখন সবচেয়ে বড় সংবাদ ওয়েবসাইট হল HotNews (ইংরেজি এবং স্প্যানিশ সংস্করণ সহ), Ziare.com এবং Gândul। ভিড়ের সময়, ট্যাবলয়েড সংবাদপত্রে ক্লিক করুন!, Libertatea এবং Cancan যাত্রীদের কাছে জনপ্রিয়।

হাউস অফ দ্য ফ্রি প্রেস ( Casa Presei Libere ) ভিত্তিক বেশ কয়েকটি সংবাদপত্র এবং মিডিয়া প্রকাশনা ), উত্তর বুখারেস্টের একটি ল্যান্ডমার্ক, মূলত কমিউনিস্ট রোমানিয়া যুগের সরকারী সংবাদপত্র সিনটিয়া -এর নামানুসারে কাসা স্ক্যান্টেই নামকরণ করা হয়েছিল। হাউস অফ দ্য ফ্রি প্রেসই একমাত্র বুখারেস্ট ল্যান্ডমার্ক নয় যা মিডিয়া এবং যোগাযোগ শিল্প থেকে বেড়েছে। পালাতুল টেলিফোনেলর ('দ্য টেলিফোন প্যালেস') ছিল শহরের কেন্দ্রস্থলে ক্যালিয়া ভিক্টোরিতে প্রথম প্রধান আধুনিকতাবাদী বিল্ডিং এবং অপেরা থেকে এক ব্লক দূরে একটি পার্কের উপরে বিশাল, অসমাপ্ত কমিউনিস্ট যুগের কাসা রেডিও রয়েছে।

ইংরেজি ভাষার সংবাদপত্রগুলো প্রথম ১৯৩০-এর দশকের গোড়ার দিকে পাওয়া যায় এবং ১৯৯০-এর দশকে পুনরায় প্রকাশিত হয়। দুটি দৈনিক ইংরেজি ভাষার সংবাদপত্র হল বুখারেস্ট ডেইলি নিউজ এবং নাইন ও' ক্লক ; হাঙ্গেরিয়ান ভাষার দৈনিক Új Magyar Szó- এর মতো অন্যান্য ভাষায় বেশ কিছু পত্রিকা এবং প্রকাশনা পাওয়া যায়।

অবজারভেটর কালচারাল শহরের শিল্পকলাকে কভার করে এবং বিনামূল্যের সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন Șapte Seri ('সেভেন ইভিনিংস') এবং B24FUN, বিনোদন অনুষ্ঠানের তালিকা করে। এই শহরে বুদ্ধিজীবী জার্নাল Dilema veche এবং স্যাটায়ার ম্যাগাজিন Academia Cațavencu এর বাড়ি।

স্বাস্থ্যসেবা[সম্পাদনা]

২০১৮ সালের জুনে কোল্টিয়া হাসপাতাল

রাজধানীর সবচেয়ে আধুনিক হাসপাতালগুলোর মধ্যে একটি হল কোল্টিয়া ২০১১ সালে ৯০-মিলিয়ন-ইউরো বিনিয়োগের পরে পুনরায় সজ্জিত করা হয়েছে। এটি অনকোলজিকাল এবং কার্ডিয়াক ডিসঅর্ডারে বিশেষজ্ঞ।

এটি ১৭০১ এবং ১৭০৪ সালের মধ্যে মিহাই ক্যান্টাকুজিনো দ্বারা নির্মিত হয়েছিল, অনেকগুলো ভবনের সমন্বয়ে গঠিত, প্রতিটিতে ১২ থেকে ৩০ শয্যা, একটি গির্জা, তিনটি চ্যাপেল, একটি স্কুল এবং ডাক্তার এবং শিক্ষকদের ঘর। [৪৩]

আরেকটি প্রচলিত হাসপাতাল হল প্যানটেলিমন, যা ১৭৩৩ সালে গ্রিগোর II ঘিকা দ্বারা প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। হাসপাতালের জমির ভূ-পৃষ্ঠের আয়তন ছিল ৪,০০,০০০ মি (৪৩,০৫,৫৬৪ ফু) । হাসপাতালের তালিকায় সংক্রামক রোগের জন্য একটি ঘর এবং প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য একটি ঘর ছিল।

অন্যান্য হাসপাতাল বা ক্লিনিকগুলো হল বুখারেস্ট ইমার্জেন্সি হাসপাতাল, ফ্লোরেসকা ইমার্জেন্সি ক্লিনিক হাসপাতাল, বুখারেস্ট ইউনিভার্সিটি ইমার্জেন্সি হাসপাতাল, এবং ফান্ডেনি ক্লিনিক্যাল ইনস্টিটিউট বা বায়োমেডিকা ইন্টারন্যাশনাল এবং ইউরোক্লিনিক, যেগুলো ব্যক্তিগত।


খেলাধুলা[সম্পাদনা]

আ্যরেনা ন্যাশেনালা ২০২১ সালে বেশ কয়েকটি উয়েফা ইউরো ২০২০ ম্যাচ আয়োজন করেছে।

ফুটবল হল বুখারেস্টে সর্বাধিক অনুসরণ করা খেলা, যেখানে শহরের অসংখ্য ক্লাব দল রয়েছে, যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল, স্টুয়া বুকুরেতি, দিনামো বুকুরেতি, এবং র‍্যাপিড বুকুরেতি।

আ্যরেনা ন্যাশেনালা, একটি নতুন স্টেডিয়াম যা ৬ সেপ্টেম্বর ২০১১ তারিখে উদ্বোধন করা হয়েছিল, ২০১২ উয়েফা ইউরোপা লিগ ফাইনালের আয়োজন করেছিল [৪৪] এবং এটির ৫১,৬০০ আসনের ধারণক্ষমতা রয়েছে, যা এটিকে দক্ষিণ-পূর্ব ইউরোপের বৃহত্তম স্টেডিয়ামগুলোর একটি এবং ছাদ সহ কয়েকটি স্টেডিয়ামের একটি তৈরি করেছে। [৪৫]

হ্যান্ডবল, ওয়াটার পোলো, ভলিবল, রাগবি ইউনিয়ন, বাস্কেটবল এবং আইস হকির জন্য স্পোর্টস ক্লাব গঠিত হয়েছে। বেশিরভাগ রোমানিয়ান ট্র্যাক এবং ফিল্ড অ্যাথলেট এবং বেশিরভাগ জিমন্যাস্ট বুখারেস্টের ক্লাবগুলোর সাথে অধিভুক্ত। বুখারেস্টের বৃহত্তম ইনডোর এরিনা হল রোমেক্সপো ডোম যার বসার ক্ষমতা ৪০,০০০। এটি বক্সিং, কিকবক্সিং, হ্যান্ডবল এবং টেনিসের জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে।

২০১৮ সালের জুনে রোমেক্সপো ডোম

২০০৭ থেকে শুরু করে, বুখারেস্ট সংসদের প্রাসাদকে ঘিরে একটি অস্থায়ী শহুরে ট্র্যাক বরাবর বার্ষিক রেসের আয়োজন করেছে, যার নাম বুখারেস্ট রিং। প্রতিযোগিতাটিকে বুখারেস্ট সিটি চ্যালেঞ্জ বলা হয়, এবং এটি ২০০৭ এবং ২০০৮ সালে FIA GT, FIA GT3, ব্রিটিশ F3 এবং লোগান কাপ রেসের আয়োজন করেছে। ২০০৯ এবং ২০১০ সংস্করণ একটি মামলার কারণে বুখারেস্টে অনুষ্ঠিত হয়নি। বুখারেস্ট জিপি যে মামলাটি জেতে এবং অটো জিপির সাথে ২০১১ থেকে সিটি রেস আয়োজন করছে সংসদের চারপাশে । [৪৬] ২০০৯ সাল থেকে, বুখারেস্টে পূর্ব ইউরোপের বৃহত্তম ফেরারি দোকান রয়েছে এবং মিলান শপের পরে ইউরোপে দ্বিতীয় বৃহত্তম। [৪৭] [৪৮]

প্রতি বছর, বুখারেস্ট বুখারেস্ট ওপেন আন্তর্জাতিক টেনিস টুর্নামেন্টের আয়োজন করে, যা WTA ট্যুরের অন্তর্ভুক্ত। আউটডোর টুর্নামেন্টটি টেনিস কমপ্লেক্স BNR Arenas দ্বারা আয়োজিত হয়। আইস হকি গেমগুলো মিহাই ফ্ল্যামারোপল অ্যারেনায় অনুষ্ঠিত হয়, যেখানে ৮,০০০ দর্শক খেলা দেখতে পারেন। রাগবি গেমগুলো বিভিন্ন স্থানে অনুষ্ঠিত হয়, তবে সবচেয়ে আধুনিক স্টেডিয়ামটি হল আর্কুল ডি ট্রায়াম্ফ স্টেডিয়াম, যেটি রোমানিয়ান জাতীয় রাগবি দলেরও আবাসস্থল।

বুখারেস্ট Arena Națională বা বুখারেস্ট ন্যাশনাল অ্যারেনায় উয়েফা ইউরো ২০২০ চ্যাম্পিয়নশিপের আয়োজন করেছে। [৪৯] চ্যাম্পিয়নশিপটি ২০২১ সালে অনুষ্ঠিত হয়েছিল, কোভিড-১৯ মহামারীর প্রাদুর্ভাবের কারণে স্থগিত করা হয়েছিল।

উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

  • কোস্টাচে অ্যারিস্টিয়া (১৮০০-১৮৮০), অভিনেতা, লেখক, স্কুল শিক্ষক, বিপ্লবী এবং সমাজসেবী
  • নিকোলাই ক্রেউলেস্কু (১৮১২-১৯০০), চিকিত্সক এবং রাজনীতিবিদ, বারবু কাতারগিউকে হত্যার পর রোমানিয়ার দ্বিতীয় প্রধানমন্ত্রী ; রোমানিয়ান একাডেমির প্রথম প্রেসিডেন্টদের একজন
  • কনস্ট্যান্টিন বোসিয়ানু (১৮১৫-১৮৮২), আইন অধ্যাপক এবং সিনেটের প্রধান, রোমানিয়ার প্রধানমন্ত্রী এবং বুখারেস্টের আইন অনুষদের প্রথম ডিন
  • সিএ রোসেটি (১৮১৬-১৮৮৫), লেখক, রাজনীতিবিদ এবং ১৮৪৮ সালের ওয়ালাচিয়ান বিপ্লবের নেতা; রোমানিয়ান একাডেমী তার উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল
  • আয়ন ঘিকা (১৮১৬-১৮৯৭), অর্থনীতিবিদ, প্রকৌশলী, গণিতবিদ, লেখক, বিপ্লবী, কূটনীতিক এবং রোমানিয়ার প্রধানমন্ত্রী
  • দিমিত্রি ঘিকা (১৮১৬-১৮৯৭), সেনা কর্মকর্তা, পুলিশ প্রিফেক্ট, রাজনীতিবিদ, বুখারেস্টের মেয়র এবং রোমানিয়ার প্রধানমন্ত্রী
  • নিকোলাই বালসেস্কু (১৮১৯-১৮৫২), ইতিহাসবিদ, লেখক, সৈনিক এবং ১৮৪৮ সালের ওয়ালাচিয়ান বিপ্লবের নেতা
  • নিকোলা ফিলিমন (১৮১৯-১৮৬৫), ঔপন্যাসিক এবং ছোটগল্প লেখক, রোমানিয়ান সাহিত্যের প্রথম বাস্তববাদী উপন্যাসের লেখক
  • ডোরা ডি'ইস্ট্রিয়া (১৮২৮-১৮৮৮), লেখক
  • পেত্রে ইসপিরেস্কু (১৮৩০-১৮৮৭), লোকসাহিত্যিক এবং প্রচারক
  • আলেকজান্দ্রু ওডোবেস্কু (১৮৩৪-১৮৯৫), প্রত্নতত্ত্ববিদ, লেখক এবং রাজনীতিবিদ
  • Ștefan Fălcoianu (১৮৩৫-১৯০৫), সেনা জেনারেল যিনি রোমানিয়ান জেনারেল স্টাফ এবং যুদ্ধ মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন।
  • আয়ান কালিন্ডারু (১৮৪০-১৯১৩), আইন অধ্যাপক, লেখক, সিলভিকালচারিস্ট, রাজা ক্যারল I এর আস্থাভাজন এবং রোমানিয়ান একাডেমির প্রধান
  • Ion I. Câmpineanu (১৮৪১-১৮৮৮), রাজনীতিবিদ, বুখারেস্টের মেয়র এবং ন্যাশনাল ব্যাংক অফ রোমানিয়ার প্রথম প্রধান
  • ইমানাইল প্রোটোপোপেস্কু-পাকে (১৮৪৫-১৮৯৩), আইন অধ্যাপক, পুলিশ প্রিফেক্ট এবং রাজনীতিবিদ, বুখারেস্টের মেয়র
  • আলেকজান্দ্রু ম্যাসেডোনস্কি (১৮৫৪-১৯২০), কবি, লেখক এবং সাহিত্য সমালোচক
  • বারবু স্টেফানেস্কু ডেলাভরান্সা (১৮৫৮-১৯১৮), লেখক, কবি, আইনজীবী এবং বুখারেস্টের মেয়র
  • নিকোলা ফিলিপেস্কু (১৮৬২-১৯১৬), রাজনীতিবিদ, বুখারেস্টের মেয়র
  • ঘিওরহে মেরিনেস্কু (১৮৬৩-১৯৩৮), রোমানিয়ান স্কুল অফ নিউরোলজির প্রতিষ্ঠাতা
  • এলেনা ভ্যাকারেস্কু (1864-1947), লেখক এবং ফরাসি একাডেমির দুইবার বিজয়ী
  • ড্রাগোমির হুরমুজেস্কু (1865-1954), পদার্থবিদ এবং উদ্ভাবক
  • ভিনটিলা ব্রাতিয়ানু (1867-1930), নির্মাণ প্রকৌশলী, বুখারেস্টের মেয়র এবং রোমানিয়ার প্রধানমন্ত্রী
  • নিকোলা পাওলেস্কু (1869-1931), মেডিকেল ডাক্তার, ফিজিওলজিস্ট এবং ইনসুলিনের আবিষ্কারক
  • ইয়ন ঘেরঘে ডুকা (1879-1933), রাজনীতিবিদ এবং রোমানিয়ার প্রধানমন্ত্রী
  • টিউডর আরগেজি (1880-1967), কবি এবং লেখক
  • ট্রায়ান লালেস্কু (1882-1929), গণিতবিদ
  • মাতেইউ কারাগিয়েল (1885-1936), কবি এবং গদ্য লেখক, ইয়ন লুকা কারাগিয়েলের অবৈধ সন্তান
  • Viorica Agarici (1886-1979), নার্স এবং জনহিতৈষী, জাতির মধ্যে ধার্মিক
  • জর্জ টপিরসিয়েনু (1886-1937), কবি, ছোট গল্প লেখক এবং হাস্যরসাত্মক।
  • Henri Coanda (1886-1972), বিমান চালনার অগ্রদূত, উদ্ভাবক, বিশ্বের প্রথম জেট চালিত বিমানের নির্মাতা ( Coanda-1910 ) এবং Coanda প্রভাবের আবিষ্কারক
  • জ্যাকব এল. মোরেনো (1889-1974), মনোরোগ বিশেষজ্ঞ, নেতৃস্থানীয় সমাজ বিজ্ঞানী, সাইকোড্রামার প্রতিষ্ঠাতা এবং গ্রুপ সাইকোথেরাপির অগ্রদূত
  • এডওয়ার্ড জি. রবিনসন (1893-1973), হলিউডের স্বর্ণযুগে মঞ্চ ও পর্দার অভিনেতা
  • ক্যাথরিন কারাদজা (1893-1993), অভিজাত এবং সমাজসেবী
  • মিহেল আন্দ্রিকু (1894-1974), সুরকার, বেহালাবাদক এবং পিয়ানোবাদক
  • ক্যামিল পেট্রেস্কু (1894-1957), লেখক, কবি এবং দার্শনিক
  • মার্সেল জানকো (1895-1984), ভিজ্যুয়াল শিল্পী, স্থপতি এবং শিল্প তত্ত্ববিদ, দাদাবাদের সহ-আবিষ্কারক
  • ক্লারা হাসকিল (1895-1960), শাস্ত্রীয় পিয়ানোবাদক
  • মার্থে, প্রিন্সেস বিবেস্কো (1886-1973), লেখক এবং কবি
  • জর্জ ক্যালিনেস্কু (1899-1965), সাহিত্য সমালোচক
  • Mircea Eliade (১৯০৭-১৯৮৬), ধর্মের ইতিহাসবিদ, লেখক এবং দার্শনিক
  • হারালাম এইচ জর্জস্কু (১৯০৮-১৯৭৭), আধুনিকতাবাদী স্থপতি
  • Șerban Țițeica (1908-1985), পদার্থবিদ, Gheorghe Țițeica- এর সন্তান; রোমানিয়ান একাডেমির প্রধান
  • বুখারেস্টের ভাজকেন I (1908-1994), ক্যাথলিকোস অফ অল আর্মেনিয়ান, আর্মেনিয়ার জাতীয় বীর
  • রিচার্ড ওয়ারমব্র্যান্ড (১৯০৯-২০০১), খ্রিস্টান মন্ত্রী
  • মারিয়া তানাসে (১৯১৩-১৯৬৩), গায়িকা এবং অভিনেত্রী
  • কর্নেলিউ কোপোসু (১৯১৪-১৯৯৫), রাজনীতিবিদ এবং কমিউনিস্ট বন্দী
  • Gica Petrescu (১৯১৫-২০০৬), গায়ক এবং সুরকার
  • গেলু নাউম (1915-2001), পরাবাস্তববাদী লেখক
  • নিয়াগু জুভারা (1916-2018), ইতিহাসবিদ, কূটনীতিক, আইন অধ্যাপক, লেখক এবং দার্শনিক, আলেকজান্দ্রু জুভারার ভাগ্নে
  • দিনু লিপাট্টি (1917-1950), পিয়ানোবাদক এবং সুরকার
  • অ্যাঞ্জেলিকা রোজেয়ানু (1921-2006), খেলাধুলার ইতিহাসে সবচেয়ে সফল মহিলা টেবিল টেনিস খেলোয়াড়দের একজন
  • হোরিয়া ড্যামিয়ান (1922-2012), চিত্রশিল্পী এবং ভাস্কর
  • লিভিউ সিউলি (1923-2011), থিয়েটার এবং চলচ্চিত্র পরিচালক, চলচ্চিত্র লেখক, অভিনেতা, শিক্ষাবিদ এবং পোশাক এবং সেট ডিজাইনার
  • দিনু সি. গিউরেস্কু (1927-2018), ইতিহাসবিদ এবং রাজনীতিবিদ, কনস্ট্যান্টিন সি. গিউরেস্কুর পুত্র
  • নিকোলা হের্লিয়া (1927-2014), অপেরা গায়ক, ব্যারিটোন
  • ড্রাগা ওলতেনু মাতেই (জন্ম 1933), চলচ্চিত্র এবং মঞ্চ অভিনেত্রী
  • ভিক্টর রেবেনজিউক (জন্ম ১৯৩৩), চলচ্চিত্র এবং মঞ্চ অভিনেতা, কর্মী
  • গেওরহে দিনিকা (১৯৩৪-২০০৯), অভিনেতা
  • মিরসিয়া আলবুলেস্কু (1934-2016), চলচ্চিত্র এবং মঞ্চ অভিনেতা, অধ্যাপক, সাংবাদিক, কবি এবং লেখক
  • ক্রিশ্চিয়ান ওপেস্কু (1937-2018), ক্রীড়া ভাষ্যকার, সাংবাদিক এবং রাজনীতিবিদ
  • Gheorghe Gruia (1940-2015), হ্যান্ডবল খেলোয়াড় এবং দুইবার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন, আন্তর্জাতিক হ্যান্ডবল ফেডারেশন (IHF) দ্বারা সর্বকালের সেরা হ্যান্ডবল খেলোয়াড় নির্বাচিত
  • মার্গারেটা পাসলারু (জন্ম 1943), অভিনেত্রী এবং গায়িকা
  • ক্রিশ্চিয়ান গাসু (জন্ম 1945), প্রাক্তন হ্যান্ডবল খেলোয়াড়, রোমানিয়ার সাথে দুবার বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের বিজয়ী এবং স্টুয়া বুকুরেস্টির সাথে দুবার ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়ন্স কাপের বিজয়ী
  • মিরসিয়া লুসেস্কু (জন্ম 1945), প্রাক্তন ফুটবল খেলোয়াড় এবং কোচ, বর্ষসেরা ইউরোপীয় কোচ
  • ইলি নাস্তাসে (জন্ম 1946), টেনিস খেলোয়াড় এবং প্রথম বিশ্ব ১নং আন্তর্জাতিক টেনিস হল অফ ফেমার
  • ফ্লোরিয়া দুমিত্রচে (1948-2007), ফুটবল খেলোয়াড় এবং দুবার রোমানিয়ান ফুটবলারের বর্ষসেরা পুরস্কার বিজয়ী
  • আন্দ্রেই প্লেসু (জন্ম 1948), দার্শনিক এবং প্রাবন্ধিক
  • কর্নেলিউ ভাদিম টিউডর (1949-2015), কবি, লেখক, সাংবাদিক এবং রাজনীতিবিদ
  • দুদু জর্জস্কু (জন্ম ১৯৫০), ফুটবল খেলোয়াড় এবং দুবার ইউরোপীয় গোল্ডেন শু বিজয়ী
  • অ্যাঙ্গেল ইওর্দানেস্কু (জন্ম ১৯৫০), প্রাক্তন ফুটবল খেলোয়াড় এবং কোচ এবং ইউরোপিয়ান কাপের বিজয়ী
  • মিরসিয়া কার্তারেস্কু (জন্ম ১৯৫৬), লেখক, কবি এবং সাহিত্য সমালোচক
  • মাইকেল ক্রেতু (জন্ম ১৯৫৭), গায়ক, গীতিকার এবং প্রযোজক, এনিগমার প্রতিষ্ঠাতা
  • মিরসিয়া জিওনা (জন্ম ১৯৫৮), প্রাক্তন রাজনীতিবিদ এবং ন্যাটোর ডেপুটি সেক্রেটারি জেনারেল
  • ক্রিস্টিয়ান ডায়াকোনেস্কু (জন্ম ১৯৫৯), কূটনীতিক
  • অক্টাভিয়ান মোরারিউ (জন্ম 1961), রাগবি ইউরোপের প্রেসিডেন্ট
  • মাইয়া মরজেনস্টার (জন্ম ১৯৬২), চলচ্চিত্র এবং মঞ্চ অভিনেত্রী
  • লরা বাদিয়া-কারলেস্কু (জন্ম ১৯৭০), ফেন্সার, অলিম্পিক, ফয়েলে বিশ্ব এবং ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়ন, ইন্টারন্যাশনাল ফেন্সিং হল অফ ফেমার
  • বোগদান অরেস্কু (জন্ম ১৯৭৩), আইনজীবী, কূটনীতিক এবং রাজনীতিবিদ
  • রুক্মিণী কালিমাচি (জন্ম ১৯৭৩), নিউ ইয়র্ক টাইমস সাংবাদিক
  • থিওডর প্যালিওলোগু (জন্ম ১৯৭৩), ইতিহাসবিদ, কূটনীতিক এবং রাজনীতিবিদ, আলেকজান্দ্রু প্যালিওলোগুর পুত্র
  • রোকসানা মারসিনিয়েনু (জন্ম ১৯৭৫), প্রাক্তন সাঁতারু, প্রথম ফরাসি বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন, রাজনীতিবিদ এবং ফ্রান্সের যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রী
  • আয়ন ওনসেস্কু (জন্ম ১৯৭৮), বিশিষ্ট আর্ম রেসলার, হল অফ ফেমার
  • আলেকজান্দ্রা মারিয়া লারা (জন্ম ১৯৭৮), অভিনেত্রী
  • আনা মারিয়া পোপেস্কু (জন্ম 1984), ফেন্সার, অলিম্পিক, বিশ্ব এবং ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়ন, এপেতে সাবেক বিশ্ব নং ১
  • ক্রিস্টিনা নেগু (জন্ম 1988), হ্যান্ডবল খেলোয়াড়, রেকর্ড চারটি আইএইচএফ ওয়ার্ল্ড প্লেয়ার অফ দ্য ইয়ার পুরস্কার পেয়েছেন
  • ড্যান পেট্রেস্কু (১৯৫৩-২০২১), রোমানিয়ান ব্যবসায়ী এবং বিলিয়নেয়ার, রোমানিয়ার অন্যতম ধনী ব্যক্তি

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক[সম্পাদনা]

বুখারেস্টের যমজ শহর এবং বোন শহরগুলো হল:

অংশীদারিত্ব:

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. INS"Romanian Statistical Yearbook" (PDF)। ২৩ জুন ২০১৩ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ ফেব্রুয়ারি ২০০৯ 
  2. "Demographia World Urban Areas & Population Projections" (PDF)। সংগ্রহের তারিখ ১৪ এপ্রিল ২০১১ 
  3. "Population on 1 January by age groups and sex - functional urban areas"। Eurostat। সংগ্রহের তারিখ ৩ নভেম্বর ২০১৭ 
  4. "Official data for 2011 census" (PDF) (Romanian ভাষায়)। INSSE। ৪ জুলাই ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ৪ জুলাই ২০১৩ 
  5. "Populaţia României pe localitati la 1 ianuarie 2016" (Romanian ভাষায়)। INSSE। ৬ জুন ২০১৬। ২৭ অক্টোবর ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ অক্টোবর ২০১৭ 
  6. https://hdi.globaldatalab.org/areadata/shdi/
  7. "High-Tech Cities: Have You Ever Tried Coffee in Bucharest?"Pentalog। ১৭ এপ্রিল ২০১৯। ২০ মে ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ নভেম্বর ২০১৯ 
  8. "How Romania became a popular tech destination"Financial Times। ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯। ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ নভেম্বর ২০১৯ 
  9. "Bucharest, In The Top Of Cities With The Most Experts In High-Tech Industry"Romania Journal। ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯। ২৯ মে ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ নভেম্বর ২০১৯ 
  10. "10 Romanian startups to look out for in 2019 and beyond"eu-startups.com। ২৯ মে ২০১৯। ১৩ নভেম্বর ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ নভেম্বর ২০১৯ 
  11. "The Silicon Valley of Transylvania"TechCrunch। ৬ এপ্রিল ২০১৬। ১৩ এপ্রিল ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ নভেম্বর ২০১৯ 
  12. "Software Maker UiPath Raises Funds at $35 Billion Valuation"। Bloomberg। ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ২ ফেব্রুয়ারি ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  13. "Bucureştiul găzduieşte România Blockchain Summit"Antena 3 (রোমানীয় ভাষায়)। ২০ জুন ২০১৯। ২০ জুন ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ নভেম্বর ২০১৯ 
  14. "- World Monuments Fund"Wmf.org। ২ অক্টোবর ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ অক্টোবর ২০১৭ 
  15. Mallinson, Harriet (জুলাই ৯, ২০১৯)। "Richest cities in Europe revealed and Germany & Netherlands are top - but how rich is UK?"express.co.uk। ২৩ মে ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ২৩, ২০২১ 
  16. PriceWaterhouseCoopers Global Regional Attractiveness Report Romania ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১৩ মার্চ ২০০৬ তারিখে
  17. Cutler, Nellie (২০১১)। "Southeastern Europe"। Time for Kids World Atlas (Rev. and updated সংস্করণ)। New York, NY: Time for Kids Books। পৃষ্ঠা 68। আইএসবিএন 978-1-60320-884-0 
  18. Sfetcu, Nicolae (২০১৫-১১-১৪)। Bucharest Tourist Guide (Ghid turistic București): Pocket Edition (Ediția de buzunar) (ইংরেজি ভাষায়)। Nicolae Sfetcu। ২৯ মে ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মে ২০২১ 
  19. "Bucharest, Romania Köppen Climate Classification (Weatherbase)"Weatherbase। ২ ডিসেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২৪ 
  20. "The Climate of Bucharest 1981–2010 (Average Temperatures, Humidity)" (রুশ ভাষায়)। Weather and Climate (Погода и климат)। ১৩ অক্টোবর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৩ নভেম্বর ২০১৬ 
  21. "București Băneasa Climate Normals 1961–1990"National Oceanic and Atmospheric Administration। সংগ্রহের তারিখ ২১ মার্চ ২০১৫ 
  22. "București Băneasa: Record mensili dal 1929" (ইতালীয় ভাষায়)। Administrația Națională de Meteorologie। ১ এপ্রিল ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ 
  23. d.o.o, Yu Media Group। "Bucharest, Romania – Detailed climate information and monthly weather forecast"Weather Atlas (ইংরেজি ভাষায়)। ৩ জুলাই ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ জুলাই ২০১৯ 
  24. "Marian Vanghelie, suspendat din funcția de primar al sectorului 5. Cine îi va prelua atribuțiile"Jurnalul Național (রোমানীয় ভাষায়)। ৬ এপ্রিল ২০১৫। ১৭ জুন ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জুন ২০১৫ 
  25. "Prefectul Municipiului București"https://b.prefectura.mai.gov.ro/acasa/despre-noi/conducere/ (রোমানীয় ভাষায়)। ২০২০। ৩১ অক্টোবর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ অক্টোবর ২০২১  |ওয়েবসাইট= এ বহিঃসংযোগ দেয়া (সাহায্য)
  26. "Worldwide Street Children statistics" (PDF)। ৮ ডিসেম্বর ২০১১ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা।  (20.5 KB), Conrad N. Hilton Humanitarian Prize/Council of Europe
  27. "Worldwide Quality of Living Survey"। Expat.or.id। ১১ মার্চ ২০০২। ১৫ এপ্রিল ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ এপ্রিল ২০১১ 
  28. "2010 Quality of Living global city rankings – Mercer survey" (PDF)। ২৮ জানুয়ারি ২০১২ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। 
  29. "Orașele care își pierd locuitorii. Bucureștiul, în topul localitatilor lumii cu cea mai mare rată de scădere a populației"inCont.ro। ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৪। 
  30. "One out of three Bucharest employees is a commuter"। ২৫ আগস্ট ২০০৮। ২৯ জুন ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  31. "Lipscani, zonă protejată" (PDF)। ৩১ আগস্ট ২০১৫ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। 
  32. Smith, Harrison.
  33. "Stilul arhitectural național romantic și Art Nouveau în București"Unknown Bucharest। ২০ জুন ২০১০। ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ মে ২০১৪ 
  34. Economy, Redactia Great (১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫)। "Fabrici comuniste, transformate in mall-uri sau apartamente"Greateconomy.ro। ২৭ অক্টোবর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ অক্টোবর ২০১৭ 
  35. "Bucureștiul nu este un oraș pentru zgârie-nori, e mai degrabă un oraș pe orizontală"Știrile TVR। ৭ মে ২০১৪। ২০ মে ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ মে ২০১৪ 
  36. "Cum a ajuns "Spiru Haret" cea mai mare universitate din lume | Financiarul"। Financiarul.ro। ১৩ জুলাই ২০০৯। ৩ সেপ্টেম্বর ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১১ 
  37. "EXCLUSIV Universitățile "Spiru Haret" și "Petre Andrei" au fost scoase în afara legii. 56.000 de absolvenți, în aer. Andronescu, pentru Gândul: "Aceste diplome nu respectă legea" – Gandul"। Gandul.info। ১১ জুলাই ২০০৯। ২৪ সেপ্টেম্বর ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জানুয়ারি ২০১০ 
  38. "Andrei Marga: "Universitățile din țară, cele mai corupte din UE""। Adevarul.ro। ১৯ জানুয়ারি ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জানুয়ারি ২০১০ 
  39. "Trei universități din România dispar din Clasamentul internațional al universităților QS. Babeș-Bolyai și Universitatea din București rămân în categoria 801+" (রোমানীয় ভাষায়)। G4Media। ২১ জুন ২০১৯। ২৪ আগস্ট ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৪ আগস্ট ২০১৯ 
  40. "Numărul studenților străini din România s-a dublat – Cotidianul"। Cotidianul.ro। ২৮ এপ্রিল ২০০৮। ৩ মে ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জানুয়ারি ২০১০ 
  41. "Cele mai bune universități și specializări din România"। Realitatea.Net। ২০ সেপ্টেম্বর ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১১ 
  42. ""Sf. Sava" din București, cel mai bun liceu din țară / 9.93 ultima medie de intrare la liceu"। Adevarul.ro। ১ জুলাই ২০১০। ১১ সেপ্টেম্বর ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১১ 
  43. "Coltea H."। ২০ জানুয়ারি ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  44. Adi Dobre। "Mircea Sandu: "Facem inaugurarea stadionului Național cu Franța" – Naționala"। EVZ.ro। ১৮ মে ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১১ 
  45. "Oprescu: "Stadionul Național va fi gata în decembrie 2010!" | ProSport"। Prosport.ro। ২৬ আগস্ট ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১১ 
  46. "Bucharest GP în iulie 2011"। Motorsportnews.ro। ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১০। ৮ ডিসেম্বর ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ এপ্রিল ২০১১ 
  47. "Ferrari Store Opened in Bucharest, Romania"। autoevolution.com। ৭ ডিসেম্বর ২০০৯। ২৪ আগস্ট ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৪ আগস্ট ২০১৯ 
  48. "Cel mai mare magazin Ferrari pe Calea Victoriei" (রোমানীয় ভাষায়)। bucuresti.tourneo.ro। ২৫ নভেম্বর ২০০৯। ২৪ আগস্ট ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৪ আগস্ট ২০১৯ 
  49. "Bucharest | UEFA Euro 2020 Hospitality"euro2020.hospitality.uefa.com। ১৭ মার্চ ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ এপ্রিল ২০২০ 
  50. "Cu cine este înfrățit Bucureștiul?"Adevărul (রোমানীয় ভাষায়)। ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১১। ১৮ নভেম্বর ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ মে ২০১৪ 
  51. "Academy of Economic Studies – Short History of Bucharest"। Ase.edu.ro। ১১ মে ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জানুয়ারি ২০১০ 
  52. "Sister Cities"। Beijing Municipal Government। ১৭ জানুয়ারি ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৩ জুন ২০০৯ 
  53. "Pesquisa de Legislação Municipal – No 14471" [Research Municipal Legislation – No 14471]। Prefeitura da Cidade de São Paulo [Municipality of the City of São Paulo] (পর্তুগিজ ভাষায়)। ১৮ অক্টোবর ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৩ আগস্ট ২০১৩ 
  54. "Videanu, primarul care dă în gropi"Gândul (রোমানীয় ভাষায়)। ২৬ আগস্ট ২০০৬। ২৮ অক্টোবর ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মে ২০১৭ 
  55. "About Manila: Sister Cities"। City of Manila। ১১ জুন ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৪ নভেম্বর ২০১৬ 
  56. "Orașe înfrățite (Twin cities of Minsk) [via WaybackMachine.com]" (রোমানীয় ভাষায়)। Primăria Municipiului Chişinău। ৩ সেপ্টেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ জুলাই ২০১৩ 
  57. "Yerevan.am: Partner Cities"। Yerevan Municipal Government। ৫ নভেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৮ এপ্রিল ২০১৮