ভ্যাটিকান সিটি

স্থানাঙ্ক: ৪১°৫৪′১৪″ উত্তর ১২°২৭′১১″ পূর্ব / ৪১.৯০৩৮৯° উত্তর ১২.৪৫৩০৬° পূর্ব / 41.90389; 12.45306
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ভ্যাটিকান সিটি রাষ্ট্র

Status Civitatis Vaticanae (লাতিন)
স্তাতুস্‌ চিভ়িতাতিস্‌ ভ়াতিকানে
Stato della Città del Vaticano (ইতালীয়)
স্তাতো দেল্লা চিত্তা দেল্‌ ভ়াতিকানো
ভ্যাটিকান সিটির জাতীয় পতাকা
পতাকা
ভ্যাটিকান সিটির জাতীয় প্রতীক
জাতীয় প্রতীক
জাতীয় সঙ্গীত: ইন্নো এ মার্চিয়া পন্তিফিকালে  (ইতালীয়)
ভ্যাটিকান সিটির অবস্থান
রাজধানী
ও বৃহত্তম নগরী বা বসতি
ভ্যাটিকান সিটি
সরকারি ভাষালাতিন, ইতালীয়
সরকারনিরঙ্কুশ নির্বাচিত রাজতন্ত্র
• পোপ
পোপ ফ্রান্সিস
• কার্ডিনাল সেক্রেটারি অফ স্টেট
পিয়েত্রো পারোলিন
ফার্নান্দো ভার্গেজ আলজেগা
আইন-সভাপন্টিফিকাল কমিশন
স্বাধীনতা 
ইতালিয় রাজত্ব থেকে
• লাটেরান চুক্তি
ফেব্রুয়ারি ১১ ১৯২৯
আয়তন
• মোট
[রূপান্তর: অকার্যকর সংখ্যা] (১৯৫তম)
জনসংখ্যা
• ২০১৯ আনুমানিক
৮২৩[২] (২৪০তম)
• ঘনত্ব
৯২৪ /কিমি (২,৩৯৩.১ /বর্গমাইল) (১২তম)
মুদ্রাইউরো (€)
সময় অঞ্চলইউটিসি+১ (সিইটি)
• গ্রীষ্মকালীন (ডিএসটি)
ইউটিসি+২ (সিইএসটি)
কলিং কোড+৩৭৯[৩]
ইন্টারনেট টিএলডি.va
ওয়েবসাইট
http://www.vaticanstate.va
[৩] ভ্যাটিকান সিটি একটি নগর রাষ্ট্র
দাপ্তরিক কাজে ব্যবহৃত হয়। দে ফ্যাক্ট ভাষাগুলো হলো ইতালীয়, জার্মান, স্পেনীয়, ফরাসি, এবং পর্তুগিজ, এর পাশাপাশি ইতালীয় ভাষা সর্বাধিক ব্যবহৃত। পোপের সুইস গার্ডদের ভাষা হলো জার্মানডিপ্লোম্যাটিক ভাষা হলো ফরাসি
২০০২ এর আগে, ভ্যাটিকান লিরা (ইতালিয়ান লিরার সাথে ১ঃ১ মানে মুল্যনির্ধারিত).
যদিও ভ্যাটিকান সিটি ইতালীয় টেলিফোন নাম্বারিং পরিকল্পনার অধীন এবং ইতালীর কান্ট্রি কোড 39-ই ব্যবহার করে, তবে ITU-T ভ্যাটিকান সিটিকে 379 কোডটি বরাদ্দ করেছে।

ভ্যাটিকান সিটি (/ˈvætɪkən/ (এই শব্দ সম্পর্কেশুনুন)), দাপ্তরিকভাবে ভ্যাটিকান নগর রাষ্ট্র (ইতালীয়: Stato della Città del Vaticano;[ক] লাতিন: Status Civitatis Vaticanae),[খ][গ] ইতালির রাজধানী রোম শহরের ভিতরে অবস্থিত স্বাধীন রাষ্ট্র ও ছিটমহল। ভ্যাটিকান নগর রাষ্ট্র, যা সাধারণত ভ্যাটিকান নামেই অধিক পরিচিত, ১৯২৯ সালে ল্যাটেরান সন্ধির মাধ্যমে ইতালি থেকে স্বাধীনতা লাভ করে, যা হলি সি এর একটি পূর্ণ মালিকানাধীন, সার্বভৌম বিচার বিভাগীয় ও প্রশাসনিক অঞ্চল। পোপ এখানকার রাষ্ট্রনেতা। এটি রোমান ক্যাথলিক গির্জার বিশ্ব সদর দফতর হিসেবে কাজ করে। সম্পূর্ণভাবে রোমের অভ্যন্তরে অবস্থিত ভ্যাটিকান সিটি বিশ্বের ক্ষুদ্রতম রাষ্ট্র, যার আয়তন ১২১ একর।[৬]

উত্তর-পশ্চিম রোমের ভ্যাটিকান পাহাড়ের উপর একটি ত্রিভুজাকৃতির এলাকায়, তিবের নদীর ঠিক পশ্চিমে, ভ্যাটিকান শহর অবস্থিত। দক্ষিণ-পশ্চিমের পিয়াৎসা সান পিয়েত্রো বা সেন্ট পিটার চত্বর বাদে বাকি সবদিকে ভ্যাটিকান শহর মধ্যযুগ ও রেনেসাঁর সময়ে নির্মিত প্রাচীর দিয়ে রোম শহর থেকে বিচ্ছিন্ন। প্রাচীরের ভেতরে আছে উদ্যান, বাহারী দালান ও চত্বরের সমাবেশ। সবচেয়ে বড় দালানটি হলো সেন্ট পিটারের ব্যাসিলিকা, যা রোমান ক্যাথলিকদের প্রধান গির্জা। ভ্যাটিকান সিটিতে রয়েছে একটি মহাকাশ পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র, লাইব্রেরি ভ্যাটিকানা

ভ্যাটিকান সিটির নিজস্ব সংবিধান, ডাকব্যবস্থা, সীলমোহর, পতাকা এবং অন্যান্য রাষ্ট্রীয় প্রতীক বিদ্যমান। ভ্যাটিকানের নিজস্ব সেনাবাহিনীও আছে, যার নাম সুইস গার্ড; এর সদস্যসংখ্যা প্রায় ১০০। ভ্যাটিকান রেডিও নামের সরকারি বেতার স্টেশন সারা বিশ্বে পোপের কণ্ঠ ছড়িয়ে দেয়। ২০০১ সালে ভ্যাটিকান শহরে জনসংখ্যা ছিল প্রায় ১০০০। এখানে স্থায়ীভাবে বসবাস করে ও পোপের দেয়া বিশেষ দায়িত্ব পালন করে এখানকার নাগরিকত্ব পাওয়া সম্ভব।

ভ্যাটিকান সিটি শেষ পোপীয় রাষ্ট্র। ক্যাথলিক গির্জা বহু শতাব্দী ধরে মধ্য ইতালির বেশ কিছু এলাকাতে এই রাষ্ট্রগুলি স্থাপন করেছিল, যার শাসনকর্তা ছিলেন পোপ। ইতালীয় সরকার ও পোপ সম্প্রদায়ের মধ্যে বহু বছর ধরে বিতর্কের পর ১৯২৯ সালে লাতেরান চুক্তির অধীনে ভ্যাটিকান সিটি প্রতিষ্ঠিত হয়। এই চুক্তির অধীনে ক্যাথলিক গির্জা ক্ষতিপূরণের বিনিময়ে অন্য সব পোপীয় রাষ্ট্র থেকে দাবী প্রত্যাহার করে নেয় এবং স্বাধীন ভ্যাটিকান সিটি হিসেবে সার্বভৌমত্ব অর্জন করে। এর বর্তমান প্রধান পোপ ফ্রান্সিস, ২০১৩ সালের ১৩ই মার্চ দায়িত্বভার গ্রহণ করেন।

নাম[সম্পাদনা]

ভ্যাটিকান সিটি নামটি প্রথম ল্যাটেরান সন্ধিতে ব্যাবহৃত হয় যা ১১ ফেব্রুয়ারি ১৯২৯ সালে স্বাক্ষরিত হয়। এই সন্ধির মাধ্যমে আধুনিক ভ্যাটিকান নগর রাষ্ট্র রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হয়, যার নামকরন হয় ভ্যাটিকান পর্বতের নামানুসারে। "ভ্যাটিকান" শব্দটির উৎপত্তি হয়েছে এট্রুস্টান বসতির নামানুসারে, রোমানদের কাছে এগার ভ্যাটিকানাস বা ভ্যাটিকান অঞ্চল নামে পরিচিত এলাকায় ভ্যাটিকা বা ভ্যাটিকাম নামের এই মানব বসতির অবস্থান ছিলো। দাপ্তরিক ভাবে ইতালিয়ান ভাষায় শহরটির নাম সিত্তা ডেল ভাটিকানো বা স্তাতো দেল্লা সিত্তা দেল ভাটিকানো। যার সরলার্থ "ভ্যাটিকান নগর রাষ্ট্র"। যদিও হোলি সি (যা ভ্যাটিকান থেকে পৃথক) দাপ্তরিক কাজে যাজকীয় লাতিন ব্যাবহার করে, ভ্যাটিকান নগরের দাপ্তরিক ভাষা ইতালীয়। নগরটির লাতিন নাম "স্ট্যাটাস সিভিয়াটিস ভাটিকানো", এই নামটিই হোলি সি, চার্চ এবং পোপ ব্যাবহার করে থাকেন।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

প্রাচীন ইতিহাস[সম্পাদনা]

লাটেরান চুক্তি অনুসারে ভ্যাটিকান সিটির অঞ্চলসমূহ

খ্রিস্ট ধর্মের প্রবর্তনের আগে থেকেই এই রাজ্যের স্থানটুকুকে পবিত্র বলে গণ্য করা হতো এবং রোমের এই অংশটুকুুতে এর আগে কখনই বসতি গড়ে উঠেনি বা কেউ এখানে বসতি স্থাপন করতে চায়নি। রোমান সাম্রাজ্যের সময় এই স্থানে ফ্রিজিয়ান দেবী সিবেল এবং তার স্বামী আটিসের উপাসনা করা হতো। খ্রিস্টপূর্ব প্রথম শতাব্দীর কোনো এক সময়ে আগ্রিপিনা দ্য এল্‌ডার (খ্রিস্টপূর্ব ১৪ - ৩৩ খ্রিষ্টাব্দ) এই অঞ্চলের একটি পাহাড় কেটে বিশাল উদ্যান তৈরি করেন। পরবর্তীতে সম্রাট ক্যালিগুলা এখানে একটি সারকাস তৈরির উদ্যোগ নেন যদিও তিনি তা সম্পূর্ণ তৈরি করে যেতে পারেননি। তার পরবর্তী সম্রাট নিরো এই সার্কাস সম্পন্ন করেন। এই সার্কাসটিকে তাই "নিরোর সার্কাস" (সার্কাস অফ নিরো) নামে আখ্যায়িত করা হয়। বর্তমানে সেই ভ্যাটিকানের একমাত্র দৃশ্যমান ভগ্নাবশেষ হচ্ছে ভ্যাটিকান ওবেলিস্ক। এই ওবেলিস্কটি সম্রাট ক্যালিগুলা হেলিওপলিস থেকে ভ্যাটিকানে নিয়ে এসেছিলেন তার সার্কাসের স্পিনা সাজানোর জন্য। ৬৪ খ্রিষ্টাব্দে রোমে বৃহৎ অগ্নিকাণ্ডে শহীদ খ্রিস্টানদের সমাধিস্থল হিসেবে এই স্থানটিকে ব্যবহার করা হয়েছিল। প্রাচীন প্রথাগত বিশ্বাস অনুসারে বলা হয় এই সার্কাসের প্রান্তরেই সেন্ট পিটারকে মাথা নিচে ও পা উপরে দিয়ে ক্রুশবিদ্ধ করা হয়েছিল। সার্কাসের বিপরীত দিকে ছিল একটি সমাধিসৌধ, যা ভিয়া করনেলিয়া দ্বারা সার্কাস থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে ছিল। এই ভ্যাটিকানেই বহুত্ববাদী ধর্মগুলোর (যেমন প্যাগান ধর্ম) উপাসনালয়, শেষকৃত্যের সৌধ এবং অন্যান্য সৌধ ও মিনার নির্মিত হয়েছিল। এই সবকিছু নির্মিত হয়েছিল ৪র্থ খ্রিষ্টাব্দের আগে। ৪র্থ খ্রিষ্টাব্দের প্রথমভাগে সম্রাট কন্‌স্টান্টাটাইন খ্রিস্টধর্ম গ্রহণ করেন এবং তিনিই ভ্যাটিকানের কেন্দ্রভূমিতে সেন্ট পিটারের ব্যাসিলিকা নির্মাণ করেন। তখন ভ্যাটিকানের প্যাগান স্থাপনাসমূহ ধ্বংস করে ফেলা হয়। এই ব্যাসিলিকাটি প্রায় ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল। পরবর্তীতে পোপদের সক্রিয় তত্ত্বাবধানে ব্যাসিলিকার মূল স্থাপনা সংরক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়। বিশেষত রেনেসাঁর সময় এর খননকাজ দ্রুত এগোতে থাকে। ১৯৩৯ থেকে ১৯৪১ সালের মধ্যে পোপ দ্বাদশ পিউস-এর নির্দেশে সম্পূর্ণ স্থাপনাটি ভূমি থেকে উত্তোলিত করা হয়।

পাপাল রাজ্য[সম্পাদনা]

ধীরে ধীরে পোপেরা রোমের পার্শ্ববর্তি অঞ্চলের ধর্মনিরপেক্ষ রাজ্যপালে পরিণত হন। তাঁরা পাপাল রাজ্য শাসন করতেন, যা ইতালীয় উপদ্বীপের অধিকাংশ অঞ্চলে বিস্তৃত ছিলো। তাদের এই শাসন প্রায় হাজার বছর (১৯শ শতাব্দীর মাঝ পর্যন্ত) কায়েম ছিলো। এরপর থেকে নব্য প্রতিষ্ঠিত ইতালীয় রাজ্য এলাকা গুলো নিজের অধীনস্ত করে নিতে থাকে।

অধিকাংশ সময়, পোপেরা ভ্যাটিকানে বসবাস করতেননা। রোমের বিপরীতে অবস্থিত "ল্যাটেরান প্রাসাদ" হাজার বছর ধরে পোপদের মূল নিবাস ছিলো। ১৩০৯ থেকে ১৩৭৭ পর্যন্ত তাঁরা ফ্রান্সের আভিগননে বসবাস করতেন। রোমে ফিরে, তাঁরা ভয়াটিকানে বসবাস করা স্থির করেন। ১৫৮৩ সালে, পোপ পঞ্চম পলের দ্বারা সংস্কার সম্পন্ন হলে, তাঁরা তাদের নিবাদ "কুইরিনাল প্রাসাদে" স্থানান্তরিত করেন। কিন্তু ১৯৭০ সালে রোমের পতন হলে তাঁরা ভ্যাটিকানে নির্বাসিত হন, এবং তাদের নিবাস গুলো ইতালির রাজার নিবাসে পরিণত হয়।

ইতালির একত্রিকরণ[সম্পাদনা]

১৮৭০ সালে পেদমোন্টের নেতৃত্বাধীন সেনারা (যারা বাকি ইতালি একত্রিত করেছিলেন) রোম দখল করলে পোপদের সম্পত্তি নিয়ে অনিশ্চয়তার সৃষ্টি হয়। ১৮৬১ থেকে ১৯২৯ পর্যন্ত পোপদের অবস্থান "রোমান প্রশ্ন" নামে পরিচিতি পায়। ভ্যাটিকানের দেওয়ালের মাঝে ইতালি কখনই হোলি সি-এর কার্যক্রমে হস্তক্ষেপ করেনি। কিন্তু ইতালি অনেক জায়গায় চার্চের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে। ১৮৭১ সালে কুইরিনাল প্রাসাদ বাজেয়াপ্ত করা হয় এবং এটি রাজকীয় প্রাসাদে পরিণত হয়। এরপর থেকে পোপেরা ভ্যাটিকানের দেওয়ালের মাঝে নির্ঝঞ্ঝাট জীবন যাপন করতে থাকেন, এবং "অবিভাবকত্ত্ব আইন" অনুসারে পোপদের বিশেষাধীকার দেওয়া হয়। যার অংশ ছিলো রাষ্ট্রদূত পাঠানোর অধিকার। কিন্তু পোপেরা ইতালির রাজার রোম শাসনকে বৈধতা দেননি এবং ১৯২৯ সালে সমঝোতার আগ পর্যন্ত তাঁরা ভ্যাটিকান ত্যাগে অসমর্থতা জ্ঞাপন করেন। পোপ নবম পায়াস-কে, যিনি পাপাল রাজ্যের শেষ শাসক ছিলেন, ভ্যাটিকানের বন্দি বলা হতো। পোপদের অ-ধর্মীয় ক্ষমতা ত্যাগে বাধ্য করা হয় এবং শুধুমাত্র আধ্যত্মিক ক্ষমতা তাদের কাছে ন্যাস্ত করা হয়।

ল্যাটেরান চুক্তি[সম্পাদনা]

অবশেষে ১১ ফেব্রুয়ারি ১৯২৯ সালে সমঝোতা হয়। এই সন্ধিতে ইতালির রাজা তৃতিয় ভিক্টর এমানুয়েলের পক্ষে ইটালির প্রধানমন্ত্রী ও সরকার প্রধান বেনিতো মুসোলিনি এবং হোলি সি ও পোপ নবম পায়াসের পক্ষে কার্ডিনাল পিয়েত্রো গাসপাররি সাক্ষর করেন। সন্ধিটি ৭ জুন থেকে কার্যকর হয় এবং ভ্যাতিকানকে সার্বভৌম রাজ্য হিসেবে স্বীকৃতি দেয় ও ক্যাথোলিক ধর্মবিশ্বাসের ইটালিতে বিশেষ মর্যাদা নিশ্চিত করে।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ[সম্পাদনা]

পোপ একাদশ পায়াসের নেতৃত্বে ভ্যাটিকান দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে নিরেপেক্ষতা নীতি গ্রহণ করে। ১৯৪৩ সালে জার্মান বাহিনী এবং ১৯৪৪ সালে মিত্র বাহিনী রোম দখল করলেও তাঁরা ভ্যাটিকানের নিরপেক্ষতাকে সম্মান করেছিলো। রোমের বিশপের প্রধান কূটনৈতিক প্রাধান্য ছিলো শহরকে বোমা হামলা থেকে রক্ষা করা। বিষয়টি এতই স্পর্শকাতর ছিলো যে তিনি ব্রিটিশ বাহিনীর বিমানের মাধ্যমে লিফলেট ছড়ানোর বিরোধীতা করেন।

বিশ্বযুদ্ধের পর[সম্পাদনা]

মাইকেলএঞ্জেলোর গম্বুজের উপর থেকে সেন্ট পিটার স্কয়ারের দৃশ্য

যুদ্ধকালীন পোপ কার্ডিনাল নিয়োগ দেওয়া বন্ধ রেখেছিলেন। যুদ্ধের পরে বিভিন্ন পদে শূন্যতা দেখা দেয়, যেমনঃ কার্ডিনাল সেক্রেটারি অব স্টেট, ক্যামেল্যাঞ্জো, চ্যান্সেলর এবং প্রিফেক্ট ফর দি কংরিগ্রেশন অব দি রিলিজিয়াস। একাদশ পায়াস ৩২ টি কার্ডিনাল পদ সৃষ্টি করেন, তিনি তাঁর তাঁর এই ইচ্ছার কথা বরদিনের বার্তায় জানান।

সুইস গার্ড ছাড়া বাকি পন্টিফিকাল কর্পকে পোপ ভঙ্গ করেন। গেন্ডামেরিন বাহিনীকে পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীতে পরিণত করা হয়।

১৯৮৪ সালে ইতালি আর হোলি স্যার মাঝে চুক্তি পুণঃনবায়ন করা হয় এবং এতে কিছু সংস্কার করা হয়। ১৮৪৭ সালে সার্ডিনিয়ার ক্যাথলিক ধর্মবিশ্বাসকে দেওয়া রাষ্ট্র ধর্মের মর্যাদা ইটালিতে পূনঃপ্রতিষ্ঠিত হয়।

১৯৯৫ সালে রাজনীতিবীদদের সমর্থনে ইতালিয় পরিবেশবাদীরা সেন্ট পিটার্স ব্যাসিলিকা সংলগ্ন ডোমাস সাংটে মার্টেতে নতুন অতিথিশালা নির্মান করেন। এতে কিছু সময়ের জন্য ইটালির সাথে ভ্যাটিকানের সম্পর্কে শীতলতা দেখা দেয়। কেউ কেউ ল্যেটেরান চুক্তিতে ভ্যাটিকানকে দেওয়া মর্যাদাকে বেআইনি বলে উল্লেখ করে থাকেন।

ভূগোল[সম্পাদনা]

ভ্যাটিকান সিটির ম্যাপে গুরুত্বপূর্ন ভবন ও ভ্যাটিকান গার্ডেনকে দেখানো হয়েছে।

ভ্যাটিকান সিটির আয়তন মাত্র ০.৪৪ বর্গকিলোমিটার। এটি ইতালির রোম শহরের মধ্যস্থলে প্রাচীর বেষ্টিত একটি এলাকা। ভ্যাটিকান সিটির অভ্যন্তরে কোন প্রাকৃতিক জলাশয়ই নেই। শহরটি মূলত একটি ছোট পাহাড়ের উপর অবস্থিত, যার নাম ভ্যাটিকান পাহাড়।

এই ক্ষুদ্র পরিসরের মাঝে সেন্ট পিটার্স ব্যাসিলিকা, সিস্টিন চ্যাপেল, অ্যাপোস্টালিক প্যালেস ও জাদুঘর স্থাপিত হয়েছে। অঞ্চলটি পূর্বে ১৯২৯ পর্যন্ত রোমের উপশহর ছিলো। এরপর টাইবার নদী দ্বারা শহরটিকে রোম থেকে আলাদা করা হয়। এই নতুন সীমানা ছিলো পূর্ববর্তি চতুর্থ লিও (৮৪৭-৮৫৫), তৃতীয় পল (১৫৩৪-১৫৪৯), চতুর্থ পায়াস (১৫৫৯-১৫৬৫) ও অষ্টম আর্বান (১৬২৩-১৬৪৪) এর সীমানা প্রাচীরের একটি ক্ষুদ্র সংস্করণ।

ল্যাটেরান সন্ধি অনুসারে ভ্যাটিকান সিটির সীমানা

ল্যাটেরান চুক্তির মাধ্যমেই মূলত ভ্যাটিকান আজকের আকার ধারণ করে। আগের দেওয়াল গুলোকেই সীমানা ধরে ১৯২৯ সালে সীমানা নির্ধারণ করা হয়। যেদিকে দেওয়াল ছিলোনা সেদিকে ভবনগুলোকেই সীমানা হিসেবে ধরা হয়েছিলো। আর ক্ষুদ্র একটি অংশ জুড়ে নতুন সীমানা প্রাচীর নির্মান করা হয়েছিলো।

ভ্যাটিকানের সীমানার মাঝে রয়েছে সেন্ট পিটার্স স্কয়ার, যা ইটালি থেকে চারিপাশে সাদা দাগ দিয়ে আলাদা করা, এখানে চত্ত্বরটি দ্বাসশ পিয়াজ্জা পিওতে যুক্ত হয়েছে। টাইবার থেকে শুরু হওয়া ভিয়া দেলা কনসিলিয়াজিয়িন দিয়ে সেন্ট পিটার্স স্কয়ারকে যুক্ত করা হয়েছে। ল্যাটেরান চুক্তির পর এই বিশাল নির্মানটি বেনিতো মুসোলিনি করেছিলেন।

ল্যাটেরান চুক্তি অনুসারে, ভ্যাটিকানের বাইরে ইতালির সীমানার মাঝে অবস্থিত হলি সি-এর মালিকানাধীন বিভিন্ন ভবন, যেমনঃ গানডোলফোর পাপাল প্রাসাদ, আর গুরুত্বপূর্ণ ব্যাসিলিকা গুলোকে দূতাবাসের ন্যায় দেশের বাইরে থাকা অধীনস্থ অঞ্চলের মর্যাদা দেওয়া হয়েছে।[৭] এই ভবনগুলো পুরো ইটালি আর রোম জুড়ে ছড়িয়ে আছে, এগুলো হলি সি-এর গুরুত্বপূর্ণ প্রশাসনিক ভবন হিসেবে ব্যাবহৃত হয়।[৭]

গানডেলফো প্রাসাদ আর ব্যাসিলিকাগুলোতে ভ্যাটিকান পুলিশ টহল দেয় এবং সেখানে ইতালীয় আইন প্রযোজ্য নয়। ল্যাটেরান চুক্তি অনুসারে সেন্ট পিটার্স স্কয়ারে, ব্যাসিলিকার সিড়ি পর্যন্ত ইতালিয় পুলিশের অধীনে রাখা হয়েছে।

ইতালি থেকে ভ্যাটিকানে প্রবেশ করতে কোন পাসপোর্টের প্রয়োজন হয়না। পোপের জনসভা এবং সেন্ট পিটার্স স্কয়ার ও ব্যাসিলিকা গুলো সকলের জন্য উন্মুক্ত। যেকোন গুরুত্বপুর্ণ অয়োজনে যুক্ত হতে আগ্রহীদের আগে থেকেই "উন্মুক্ত" টিকিট সংগ্রহ করতে হয়। সিস্টিন চ্যাপেলের সাথে যুক্ত ভ্যাটিকান জাদুঘরে প্রবেশ মূল্য পরিশোধ করতে হয়। বাগানগুলো জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত নয়, তবে সীমীত পরিসরে গাইডের তত্ত্বাবধায়নে বাগানে ভ্রমনের অনুমতি দেওয়া হয়। অন্য জায়গা গুলোতে শুধুমাত্র যাদের জায়গা গুলোতে কাজ রয়েছে তাদেরই প্রবেশ করতে দেওয়া হয়।

St. Peter's Square, the basilica and obelisk, from Piazza Pio XII
অষ্টম পিজ্জা পিও থেকে সেন্ট পিটার্স স্কয়ার, ব্যাসিলিকা ও অবিলিঙ্ক

আবহাওয়া[সম্পাদনা]

ভ্যাটিকানের আবহাওয়া রোমের আবহাওয়ার মতোইঃ উষ্ণ, ভূ-মধ্যসাগরীয় আবহাওয়া দেখা যায়, অক্টোবর থেকে মে মাসের মাঝামাঝি বৃষ্টিস্নাত শীতকাল থাকে, মে থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত শুষ্ক গ্রীষ্মকাল থাকে। সমুদ্র পৃষ্ঠ থেকে উচ্চতার কারণে এবং ফাকা ব্যাসিলিকার কারণে কুয়াশা ও শিশিরপাত দেখা যায়, যা রোম থেকে অন্যন্য।

Vatican City (data of Aeroporto Roma-Ciampino "Giovan Battista Pastine")-এর আবহাওয়া সংক্রান্ত তথ্য
মাস জানু ফেব্রু মার্চ এপ্রিল মে জুন জুলাই আগস্ট সেপ্টে অক্টো নভে ডিসে বছর
সর্বোচ্চ রেকর্ড °সে (°ফা) ১৯.৮
(৬৭.৬)
২১.২
(৭০.২)
২৬.৬
(৭৯.৯)
২৭.২
(৮১.০)
৩৩.০
(৯১.৪)
৩৭.৮
(১০০.০)
৩৯.৪
(১০২.৯)
৪০.৬
(১০৫.১)
৩৮.৪
(১০১.১)
৩০.০
(৮৬.০)
২৫.০
(৭৭.০)
২০.২
(৬৮.৪)
৪০.৬
(১০৫.১)
সর্বোচ্চ গড় °সে (°ফা) ১১.৯
(৫৩.৪)
১৩.০
(৫৫.৪)
১৫.২
(৫৯.৪)
১৭.৭
(৬৩.৯)
২২.৮
(৭৩.০)
২৬.৯
(৮০.৪)
৩০.৩
(৮৬.৫)
৩০.৬
(৮৭.১)
২৬.৫
(৭৯.৭)
২১.৪
(৭০.৫)
১৫.৯
(৬০.৬)
১২.৬
(৫৪.৭)
২০.৪
(৬৮.৭)
দৈনিক গড় °সে (°ফা) ৭.৫
(৪৫.৫)
৮.২
(৪৬.৮)
১০.২
(৫০.৪)
১২.৬
(৫৪.৭)
১৭.২
(৬৩.০)
২১.১
(৭০.০)
২৪.১
(৭৫.৪)
২৪.৫
(৭৬.১)
২০.৮
(৬৯.৪)
১৬.৪
(৬১.৫)
১১.৪
(৫২.৫)
৮.৪
(৪৭.১)
১৫.২
(৫৯.৪)
সর্বনিম্ন গড় °সে (°ফা) ৩.১
(৩৭.৬)
৩.৫
(৩৮.৩)
৫.২
(৪১.৪)
৭.৫
(৪৫.৫)
১১.৬
(৫২.৯)
১৫.৩
(৫৯.৫)
১৮.০
(৬৪.৪)
১৮.৩
(৬৪.৯)
১৫.২
(৫৯.৪)
১১.৩
(৫২.৩)
৬.৯
(৪৪.৪)
৪.২
(৩৯.৬)
১০.০
(৫০.০)
সর্বনিম্ন রেকর্ড °সে (°ফা) −১১.০
(১২.২)
−৪.৪
(২৪.১)
−৫.৬
(২১.৯)
০.০
(৩২.০)
৩.৮
(৩৮.৮)
৭.৮
(৪৬.০)
১০.৬
(৫১.১)
১০.০
(৫০.০)
৫.৬
(৪২.১)
০.৮
(৩৩.৪)
−৫.২
(২২.৬)
−৪.৮
(২৩.৪)
−১১.০
(১২.২)
অধঃক্ষেপণের গড় মিমি (ইঞ্চি) ৬৭
(২.৬)
৭৩
(২.৯)
৫৮
(২.৩)
৮১
(৩.২)
৫৩
(২.১)
৩৪
(১.৩)
১৯
(০.৭)
৩৭
(১.৫)
৭৩
(২.৯)
১১৩
(৪.৪)
১১৫
(৪.৫)
৮১
(৩.২)
৮০৪
(৩১.৭)
অধঃক্ষেপণ দিনগুলির গড় (≥ ১ mm) ৭.০ ৭.৬ ৭.৬ ৯.২ ৬.২ ৪.৩ ২.১ ৩.৩ ৬.২ ৮.২ ৯.৭ ৮.০ ৭৯.৪
মাসিক সূর্যালোক ঘণ্টার গড় ১২০.৯ ১৩২.৮ ১৬৭.৪ ২০১.০ ২৬৩.৫ ২৮৫.০ ৩৩১.৭ ২৯৭.৬ ২৩৭.০ ১৯৫.৩ ১২৯.০ ১১১.৬ ২,৪৭২.৮
উৎস: Servizio Meteorologico,[৮] data of sunshine hours[৯]

২০০৮ সালে ষষ্ঠ পল অডিয়েন্স হলের ছাদকে পরিবেশ রক্ষায় সোলার প্যানেলে মুড়ে ফেলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিলো।

বাগান[সম্পাদনা]

ভ্যাটিকান সিটির ভেতরেই রয়েছে ভ্যাটিকান গার্ডেন (ইতালিয়ান ভাষায়: Giardini Vaticani)। বাগানগুলো ভ্যাটিকানের অয়তনের অর্ধেক দখল করেছে।[১০] বাগানগুলো রেনেসাঁ ও বার্কো যুগে স্থাপিত হয়েছে এবং বিভিন্ন ভাষ্কর্য ও ঝর্নাধারা দিয়ে সাজানো হয়েছে। বাগানগুলোর মোট এলাকা প্রায় ২৩ হেক্টর বা ৫৭ একর। গড় সমুদ্র সমতল থেকে বাগানের সর্বোচ্চ বিন্দু ৬০ মিটার বা ১৯৭ ফিট উচ্চতায় অবস্থিত। উত্তর, দক্ষিণ আর পশ্চিম দিক থেকে বাগানগুলো পাথুরে দেওয়াল দিয়ে ঘেরা।

A panorama of gardens and several buildings viewed from St. Peter's Basilica
সেন্ট পিটার্স ব্যাসিলিকা থেকে ভ্যাটিকান বাগান

সরকার ব্যাবস্থা[সম্পাদনা]

ভ্যাটিকানে নিরঙ্কুশ নির্বাচিত রাজতন্ত্র বর্তমান রয়েছে। যেখানে ক্যাথোলিক চার্চের প্রধান সর্বময় ক্ষমতার অধিকারী। পোপ ভ্যাটিকান নগর রাষ্ট্রের আইবিভাগীয়, বিচারবিভাগীয় এবং প্রসাশনিক ক্ষমতা উপভোগ করেন, যা পারিবারতান্ত্রীক নয় এমন রাজতন্ত্রের জন্য দুর্লভ উদাহরণ।

ভ্যাটিকান সিটি জাতীসংঘের সদস্য নয় এবং একটি সার্বভৌম রাষ্ট্র।[১১] হলি সি যা ভ্যাটিকান থেকে আলাদা জাতীসংঘে অসদস্য রাষ্ট্রের মর্যাদা লাভ করেছে, এবং ভোট দেওয়া ব্যাতিত সাধারণ পরিষদের সকল অধিকার উপভোগ করে।

হলি সি ও রাষ্ট্র[সম্পাদনা]

১৯২৯ সকালে ল্যাটেরান সমঝোতার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত ভ্যাটিকান নগররাষ্ট্র হলি সিকে একটি ক্ষুদ্রপরিসরের মাঝে প্রশাসনিক ক্ষমতা ও স্বতন্ত্রতা দিয়েছে। আইনত ভ্যাটিকান আর হলি সি দুটি ভিন্ন সত্ত্বা। তাই এই রাষ্ট্রটি হলি সি এর জন্য গুরুত্বপূর্ণ হলেও অপরিহার্য নয়। হলি সি-এর অস্বিত্ব একনাগাড়ে রোমান সম্রাজ্যের সময় থেকে আছে, প্রাচীন কাল থেকে বর্তমান অবধি এটি সার্বভৌম ও ক্ষমতাশালী একটি রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃত। এমনকি এর রাষ্ট্রীয় ক্ষ্মতা যখন ছিলো না তখনও কোন প্রকার বাইরের প্রভাব ছাড়াই এটি পরিচালিত হয়েছে (১৮৭০ থে ১৯২৯ সাল)।

ভ্যাটিকান সার্বজনিন স্বীকৃতি প্রাপ্ত একমাত্র দেশ যা জাতীসংঘের সদস্য নয়। হলি সি-এর, যা ভ্যাটিকান থেকে আলাদা, জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে স্বায়ী পর্যবেক্ষক মর্যাদা রয়েছে। এর ফলে এটি রাষ্ট্রের সকল সুবিধায় ভোগ করে, শুধুমাত্র সাধারণ পরিষদে ভোট দানের ক্ষমতা ব্যতীত।

কাঠামো[সম্পাদনা]

পোপ ফ্রান্সিস

ভ্যাটিকানের রাজনৈনিক ব্যাবস্থা অন্যন্য, পোপ এখানের সার্বভৌম ক্ষমতার অধিকারী। এছাড়া আইবিভাগ হিসেবে রয়েছে পোপের দ্বারা ৫ বছরের জন্য নির্বাচিত পন্টিফিকাল কমিশন। কমিশনের সাধারন সম্পাদক ও সহ সাধারন সম্পাদকের সহায়তা নিয়ে কমিশনের সভাপতি নির্বাহী দায়ীত্ব পালন করেন। রাষ্ট্রীয় সচিবালয় ও কূটনৈতিক সার্ভিস বিদেশ বিষয়ক দায়ীত্ব পালন করে থাকে।[১২] যাইহোক পোপই সার্বময় ক্ষমতার অধিকারী। পোপ বর্তমান ইউরোপের একমাত্র নিরঙ্কুর শাসন ক্ষমতার অধিকারী।[১৩][১৪]

স্বাস্থ, নিরাপত্তা বিধান ও টেলিযোগাযোগের জন্য আলাদা বিভাগ রয়েছে।

সেডে ভ্যাকান্তে[সম্পাদনা]

পোপ পদ শুণ্য (লাতিনঃ Sede vacante, বাংলাঃ শুণ্য সিংহাসন) থাকলে কার্ডিনাল ক্লেমাঞ্জো অ্য়াপোস্টালিক ক্যামেরার প্রধানের দায়িত্ব পালন করেন, যা এমতাবস্থায় ভ্যাটিকান শাসনের দায়িত্ব পালন করে। একি সাথে এটি পাপাল ক্ষমতার সুরক্ষা নিশ্চিত করে। প্রবর্তিত দায়িত্বগুলো পন্টিফিকাল কমিসনের ওপরই থাকে। প্রতি ৩ দিন অন্তর নির্বাচিত তিনজন কার্ডিনালের (কার্দিনাল বিশপ, কার্ডিনাল প্রিস্ট, কার্ডিনাল ডেকন) সাথে তিনি খন্ডকালীন রাষ্ট্রপ্রধানের দায়ীত্ব পালন করেন। এই তিন কার্ডিনালের নেওয়া সিদ্ধান্ত সমুহের কলেজ অব কার্ডিনালের সম্মতির প্রয়োজন হয়।

পোপীয় আভিজাত্য[সম্পাদনা]

পাপাল রাজ্যের সময় ক্ষমতাশালী অভিজাত সম্প্রদায় রাজ্য হারানোর পরও পপের সভায় অংশ নেয়। তাঁরা কেবল নামমাত্র দায়িত্ব পালন করেন। তাদের নিয়ে আনুষ্ঠানিক অভিজাত রক্ষী বাহিনী গঠন করা হয়। ভ্যাটিকান রাষ্টের প্রথম দশকে, কোন কোন অভিজাত নির্বাহি দায়িত্ব পালন করতেন, যার মধ্যে ছিলো ভ্যাটিকান রাষ্ট্রের প্রতিনিধি (বর্তমানে ভ্যাটিকান কমিশনের সভাপতি এ দায়ীত্ব পালন করেন)। কিন্তু নিজ ক্ষমতাবলে ১৯৬৮ সালের ২৮ মার্চ পোপ ষষ্ঠ পল পন্টিফিকালিস ডোমুস নামের একটি মোটু প্রপিরিও এর মাধ্যমে সকল প্রতীকী পদ সমূহের সমাপ্তি ঘটান, যার মধ্যে ছিলো কোয়ার্তারমাস্টার জেনারেল এবং মাস্টার্স অব দ্যা হর্স।

রাষ্ট্র ও সরকার প্রধান[সম্পাদনা]

পোপের সরকারী বাসভবন দ্যা এপোস্টালিক প্যালেস। এখানে, ষোড়শ বেনেডিক্ট জানালার কাছে আছেন যা জানালার মাঝখানে ঝুলছে একটি মেরুন ব্যানার দ্বারা চিহ্নিত

১৯৬০ সাল থেকেই পোপ ভ্যাটিকানের দাপ্তরিক রাষ্ট্রপ্রধান,[১৫]রোমের ডায়োসিসের বিশপের ঐতিহ্যবাহী যে দায়িত্ব রয়েছে সে অনুসারে পোপের দায়িত্ব নির্ধারিত হয়। "হলি সি" শব্দটি শুধুমাত্র ভ্যাটিকান রাষ্ট্রকেই বোঝায় না বরং পোপের আধ্যাত্মিক এবং যাজকীয় শাসনকেও বোঝায়, যা মূলত রোমান কুরিয়ার মাধ্যমে অনুশীলন করা হয়।[১৬] ভ্যাটিকান সিটির বিষয়ে তার সরকারী উপাধি ভ্যাটিকান সিটি রাষ্ট্রের সার্বভৌম

পোপ ফ্রান্সিস (যিনি আর্জেন্টিনার বুয়েনস আইরেসে জন্মগ্রহণ করেছিলেন এবং জন্মকালীন নাম ছিলো জর্জ মারিও বার্গোগ্লিও) ২০১৩ সালের ১৩ মার্চ পোপ নির্বাচিত হন। ভ্যাটিকান সিটির জন্য তার প্রধান অধস্তন সরকারি কর্মকর্তা এবং সেইসাথে দেশের সরকার প্রধান হলেন ভ্যাটিকান সিটির পন্টিফিকাল কমিশনের সভাপতি, যিনি ১৯৫২ সাল থেকে প্রাক্তন ভ্যাটিকান সিটির গভর্নরের দায়িত্ব পালন করছেন। ২০০১ সাল থেকে, ভ্যাটিকান সিটির পন্টিফিক্যাল কমিশনের সভাপতির কাছে ভ্যাটিকান সিটি গভর্নরেটের সভাপতির পদও রয়েছে। বর্তমানে সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন স্প্যানিশ কার্ডিনাল ফার্নান্দো ভার্জেজ আলজাগা, যিনি ২০২১ সালে ১ অক্টোবর এ পদে নিযুক্ত হন।

প্রশাসন[সম্পাদনা]

ভ্যাটিকান সিটির পন্টিফিক্যাল কমিশনের সভাপতির নেতৃত্বে ভ্যাটিকান সিটির এককক্ষ বিশিষ্ট পন্টিফিক্যাল কমিশনের কাছে আইনী কার্যাবলী অর্পণ করা হয়েছে। এরমধ্যে সাতজন সদস্য পাঁচ বছরের মেয়াদে পোপ কর্তৃক কার্ডিনাল হিসেবে নিযুক্ত হন। কমিশনের আইনগুলি অবশ্যই হলি সি'স সেক্রেটারিয়েট অফ স্টেটের মাধ্যমে পোপ দ্বারা অনুমোদিত হতে হবে, এবং কার্যকর হওয়ার আগে অবশ্যই অ্যাক্টা অ্যাপোস্টোলিকা সেডিসের একটি বিশেষ পরিশিষ্টে প্রকাশ করতে হবে। এই পরিশিষ্টের বেশিরভাগ বিষয়বস্তুতেই নিয়মিত নির্বাহী ডিক্রি ঠাকে, যেমনঃ ডাকটিকিটের নতুন সেটের অনুমোদন।

কার্যনির্বাহী ক্ষমতা ভ্যাটিকান সিটির গভর্নরেটের ওপর অর্পণ করা হয়েছে। গভর্নরেট গঠিত হয় পন্টিফিকাল কমিশনের সভাপতি (যিনি ভ্যাটিকান সিটির গভর্নরেটের সভাপতি পদবি ব্যাবহার করেন), একজন সাধারণ সম্পাদক এবং একজন সহ-সাধারণ সম্পাদক নিয়ে, প্রত্যেকে পাঁচ বছরের জন্য পোপ দ্বারা নিযুক্ত হন। গভর্নরেটের গুরুত্বপূর্ণ কার্যাবলি অবশ্যই পন্টিফিকাল কমিশন এবং সচিবালয়ের মাধ্যমে পোপ দ্বারা অনুমোদিত হতে হবে।

গভর্নরেট বিভিন্ন অধিদপ্তর ও দপ্তরের মাধ্যমে কেন্দ্রীয় সরকারের কার্যাবলী তত্ত্বাবধান করে থাকে। এসব দপ্তরের পরিচালক ও কর্মকর্তারা পাঁচ বছরের জন্য পোপ কর্তৃক নিযুক্ত হন। রাষ্ট্রের এই অঙ্গগুলি স্থানীয় নিরাপত্তা, নথী, পরিবহন, এবং অর্থ সহ রাষ্ট্রীয় আভ্যন্তরীণ বিষয়ে কর্ম সম্পাদন করে থাকে। গভর্নরেট কর্পো ডেলা গেন্ডারমেরিয়া ডেলো স্ট্যাটো ডেলা সিট্টা দেল ভ্যাটিকানো নামের একটি আধুনিক নিরাপত্তা এবং পুলিশ বাহিনী তত্ত্বাবধান করে থাকে।

বিচারিক কার্যাবলী একটি সুপ্রিম কোর্ট, একটি আপীল আদালত, একটি ট্রাইব্যুনাল (ভ্যাটিকান সিটির ট্রাইব্যুনাল), এবং একজন বিচারিক বিচারপতির ওপর অর্পণ করা হয়। ভ্যাটিকানের অনুরোধে, আরোপিত সাজা ইতালিতে ভোগ করা যেতে পারে (নিচের অপরাধের বিভাগটি দেখুন)।

ভ্যাটিকানের আন্তর্জাতিক পোস্টাল কান্ট্রি কোড প্রিফিক্স হল SCV, এবং একমাত্র পোস্টাল কোড হল 00120 - দুটি মিলিয়ে SCV-00120।[১৭]

প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা[সম্পাদনা]

প্রহরা চৌকিতে অবস্থানরত একজন ভ্যাটিকান গার্ড

ভ্যাটিকান সিটি ইতালির মাঝে অবস্থিত একটি ছিটমহল হওয়াতে এর মূল প্রতিরক্ষা বিধানের দায়িত্ব ইতালীয় সশস্ত্র বাহিনী পালন করে থাকে। তবুও ভ্যাটিকানের সাথে ইতালির কোন আনুষ্ঠানিক চুক্তি নেই, কারণ ভ্যাটিকান সিটি নিরপেক্ষতার নীতি মেনে চলে। ভ্যাটিকান সিটির নিজস্ব কোন সশস্ত্রবাহিনী নেই, যদিও হলি সি-এর সামরিক বাহিনী সুইস গার্ডস পোপ ও ভ্যাটিকানের জনসাধারণের নিরাপত্তা দিয়ে থাকে। সুইস গার্ডসের সদস্যদের অবশ্যই ভ্যাটিকান সিতির পাসপোর্ট ও নাগরিকত্ব থাকতে হবে। ওইতিহাসিক ভাবে পোপগণ পাপাল রাজ্যের সেনাবাহিনী হিসেবে সুইস মার্সেনারিদের ভাড়া করতেন এবং পোপ দ্বিতীয় জুলিয়ার ১৫০৬ সালের ২২ জানুয়ারি পোপের ব্যক্তিগত নিরাপত্তা রক্ষী হিসেবে পন্টিফিকাল সুইস গার্ডস গঠন করেন, যারা এখনো পর্যন্ত একি দায়িত্ব পালন করে আসছে। এই বাহিনীটি হলি সি-এর এনুনারিও পন্টিফিকিও (হলি সি-এর বার্ষিক গেজেট)-এর অন্তর্ভুক্ত, ভ্যাটিকান সিটির নয়। ২০০৫ এর শেষের দিক পর্যন্ত বাহিনীটিতে ১৩৪ জন সদস্য ছিলো। সদস্য সংগ্রহের প্রক্রিয়াটি ভ্যাটিকান সিটি ও সুইজারল্যান্ড এর মাঝে স্বাক্ষরিত একটি বিশেষ চুক্তির মাধ্যমে হয়ে থাকে। প্রত্যেক সদস্যেকে অবস্যই কয়েকটি যোগ্যতা থাকতে হবে, যথাঃ অবশ্যই ক্যাথলিক খ্রিস্টান হতে হবে এবং একজন অবিবাহিত সুইজারল্যান্ডের নাগরিক হতে হবে, অবশ্যই সুইস সশস্ত্রবাহিনীর প্রাথমিক প্রশিক্ষণ ও ভালো আচরণের সনদ প্রাপ্ত হতে হবে, বয়স ১৯ বছর থেকে ৩০ বছর এর মাঝে হতে হবে এবং উচ্চতা অন্তত ১৭৪ সেঃমি বা ৫ ফিট ৯ ইঞ্চি হতে হবে। প্রতেক সদস্যকে একটি ক্ষুদ্র আগ্নেয়াস্ত্র বা ঐতিহ্যবাহি হালবার্ড (সুইস ভলগে নামেও পরিচিত) দেওয়া হয়, এবং দেহরক্ষীর প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। প্যালাটাইন গার্ড এবং নোবেল গার্ড ছিলো ভ্যাটিকানের শেশ সশস্ত্র বাহিনী, যা পোপ ষষ্ঠ পল ১৯৭০ সালে ভেঙ্গে দেন।[১৮] যেহেতু ভ্যাটিকানের সব ভবনগুলো আন্তর্জাতিক বিশেষ সংরক্ষণ ও সাংস্কৃতিক সম্পদের তালিকা ভুক্ত, হেগের যুদ্ধকালীন সময়ে সংস্কৃতিক সম্পদ রক্ষণ কনভেনশন তাত্ত্বিক ভাবে এই ভবনগুলোর নিরাপত্তা বিধানে বাধ্য।[১৯]

ভ্যাটিকানের জাতীয় দমকল বাহিনী, ভ্যাটিকান সিটির অগ্নিনির্বাপক বাহিনীর ওপর অসামরিক নিরাপত্তার দায়িত্ব অর্পিত রয়েছে। ১৯শ শতকে প্রতিষ্ঠিত এই বাহিনীটি ১৯৪১ সালে বর্তমান রূপ লাভ করে। এই বাহিনী অগ্নিনির্বাপন সহ অসামরিক দূর্যোগ যেমনঃ বন্যা, প্রাকৃতিক দূর্যোগ, ব্যাপক হতাহতের মত পরিস্থিতি ব্যাবস্থাপনার দায়িত্ব পালন করে থাকে। ভ্যাটিকানে দমকল বাহিনী এবং গেন্ডামেরিন বাহিনী ডিরেক্টর অব সিকিউরিটি সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্সের অধীন।

গেন্ডামেরিন বাহিনী (ইতালীয়ঃCorpo della Gendarmeria) একটি গেন্ডামেরি যা হলো ভ্যাটিকান সিটি এবং এর সীমানার বাইরে অবস্থিত সম্পদের পুলিশ এবং নিরাপত্তা বাহিনী।[২০] এই বাহিনী গনশৃঙ্খলা, নিরাপত্তা, সীমান্ত প্রহরা, ট্রাফিক কন্ট্রোল, অপরাধ তদন্ত ও সাধারণ পুলিশি কার্যাবলি (যার মধ্যে আছে ভ্যাটিকানের বাইরে পোপের নিরাপত্তা দেওয়ার দায়িত্ব) পালন করে থাকে। এর ১৩০ জন সদস্য রয়েছে এবং এটি ভ্যাটিকান রাষ্ট্রের অঙ্গ ডিরেক্টর অব সিকিউরিটি সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্সের অধীন।[২১][২২]

অপরাধ সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

সেন্ট পিটার্স স্কয়ারে দর্শনার্থীদের জনসমাবেশ পকেটমারদের প্রধান লক্ষ্যবস্তু।

ভ্যাটিকান সিটির প্রধান অপরাধ গুলো হলো বহিরাগতদের দ্বারা ব্যাগ ছিনতাই, পকেটমার এবং দোকান লুট[২৩] সেন্ট পিটার্স স্কয়ারের পর্যটকেরা হলো পকেটমারদের প্রধান লক্ষবস্তু।[২৪] যদি সেন্ট পিটার্স স্কয়ারে কোন অপরাধ সংগঠিত হয়, তবে ইতালিয় পুলিশই তাদের ধর-পাকড় করে, যেহতু তারাই মূলত চত্ত্বরটিতে টহল দেয়।[২৫] ল্যাটেরান চুক্তির ২২ নম্বর ধারা অনুসারে,[২৬] হলি সি এর অনুরধে ইতালি ভ্যাটিকানের দেওয়ালের মাঝে সংঘটিত অপরাধের বিচার করতে পারবে, যদি অপরাধী ইতালিতে আশ্রয় নেয়। যেসকল অপরাধ ভ্যাটিকান ও ইতালির আইনে স্বীকৃত এবং তা ইতালির সীমানার মাঝে সংঘটিত হলে এবং অপরাধী ভ্যাটিকানের দেওয়ালের মাঝে অথবা ল্যাটেরান চুক্তি অনুসারে ভ্যাটিকানের ভবন গুলোতে অবস্থান করলে, এর বিচারিক দায়িত্ব ইতালির ওপর বর্তিত হবে।[২৬][২৭]

ভ্যাটিকান সিটিতে কন কারাগার নেই, কিছু সংখ্যক আটক কেন্দ্র ছাড়া যেগুলো অপরাধীকে বিচারের পূর্বে রাখার জন্য স্থাপন করা হয়েছে।[২৮] কেউ ভ্যাটিকান সিটিতে অপরাধ করলে ইতালির কারাগারে (ইতালীয় ভাষায়ঃPolizia Penitenziaria) সাজা খাটতে হয় এবং ভ্যাটিকান সিটি এই সাজার সমস্ত অর্থ বহন করে।[২৯]

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক[সম্পাদনা]

ইনগ্রেসো দি সান্ত'আন্না, ইতালি থেকে ভ্যাটিকান সিটিতে ঢোকার একটি প্রবেশ পথ।

ভ্যাটিকান সিটি আন্তর্জাতিক আইনে একটি জাতী অঞ্চল হিসেবে স্বীকৃত, তবে হলি সি নিজের কূটনৈতিক কার্যক্রমের সাথে সাথে ভ্যাটিকানের পক্ষে কূটনৈতিক কার্যাবলি সম্পাদন করে, এবং ভ্যাটিকানের পক্ষে আন্তর্জাতিক চুক্তি সম্পাদন করে থাকে। তাই ভ্যাটিকানের নিজস্ব কোন কূটনৈতিক কার্যক্রম নেই।

স্থান সঙ্কুলান না হওয়ায়, ভ্যাটিকান সেই স্বল্প কয়েকটি দেশের মধ্যে একটি যেখানে দূতাবাস স্থাপন করতে দেওয়া সম্ভব হয়না। ভ্যাটিকানে নিযুক্ত দূতাবাস গুলো রোমে অবস্থিত; শুধুমাত্র একটি ক্ষুদ্র সময়ের জন্য ভ্যাটিকান কিছু দূতাবাস কর্মিদের ভ্যাটিকানে থাকতে দিয়েছিলো, যেমনঃ ব্রিটিশদের থাকতে দিয়েছিলো যখন রোম অক্ষশক্তির দখলে ছিলো এবং জার্মান থাকতে দিয়েছিলো যখন রোম মিত্র শক্তিদের দখলে ছিলো। ভ্যাটিকান সিটির আকার এইভাবে হলি সি দ্বারা অনুশীলন করা রাষ্ট্র থেকে বেশ আলাদা একটি সত্তা হিসাবে কাজ করেছে তা বিশ্বের অন্য কোন অঞ্চলের সাথে সম্পর্কিত নয়।[৩০]

যাইহোক, ভ্যাটিকান সিটি নিজেই কিছু আন্তর্জাতিক সংস্থায় অংশগ্রহণ করে যাদের কার্যাবলি একটি ভৌগোলিক সত্তা হিসাবে রাষ্ট্রের সাথে সম্পর্কিত, হলি সি-এর অ-আঞ্চলিক কাঠামো থেকে যা আলাদা। এই সংস্থাগুলির সংখ্যা হলি সি যেসকল সংস্থার সদস্য বা পর্যবেক্ষক তাঁর সংখ্যার তুলনায় অনেক কম। তারা নিম্নলিখিত আটটি সংস্থার প্রতিটিতে ভ্যাটিকান সিটির সদস্যপদ রয়েছে:[৩১][৩২]

এছাও নীচের সংস্থা গুলিতে এর সদস্যপদ রয়েছে:[৩১]

অ-সদস্য, অ-স্বাক্ষরকারী রাষ্ট্র[সম্পাদনা]

ভ্যাটিকান সিটি আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (ICC) সদস্য নয়; ইউরোপে ভ্যাটিকান ছাড়া একমাত্র বেলারুশই অ-সদস্য, অ-স্বাক্ষরকারি রাষ্ট্র। উপরন্তু, ভ্যাটিকান সিটি ইউরোপীয় মানবাধিকার আদালতেরও সদস্য নয়। আবার, ইউরোপে একমাত্র বেলারুশই এর সদস্য নয়।

ভ্যাটিকান অর্থনৈতিক সহযোগিতা ও উন্নয়ন সংস্থার কর ফাকিমানি লন্ডারিং রোধের উদ্দেশ্যে প্রস্তাবিত কমন রিপোর্টিং স্ট্যান্ডার্ড বা CRS -এও স্বাক্ষর করেনি।[৩৪][৩৫][৩৬] ভ্যাটিকান সিটি গত কয়েক দশক ধরে মানি লন্ডারিং-এর জন্য সমালোচিত হয়ে আসছে।[৩৭][৩৮][৩৯] ইউরোপের একমাত্র অন্য যে দেশটি CRS স্বাক্ষর করতে রাজি হয়নি সেটি হল বেলারুশ।

ভ্যাটিকান সিটি বিশ্বের স্বল্প কয়েকটি দেশের মধ্যে একটি যেটি IMF-কে সর্বজনীনভাবে উপলব্ধ আর্থিক তথ্য সরবরাহ করে না।[৪০]

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

ভ্যাটিকান জাদুঘর এবং পোস্ট অফিস ভ্যাটিকান সিটির বাজেটের অন্তর্ভুক্ত, এবং এর মূল আয় আসে ডাকটিকেট, কয়েন, পদক এবং দর্শনার্থীদের কাছে বিক্রি করা স্বারকচিহ্ন এবং প্রকাশনাসত্ব বিক্রি থেকে।[ঘ] কর্মজীবীদের আয় ও জীবনযাত্রার মান রোমের কর্মজীবীদের সাথে তুলনীয়।[৪১] অন্যান্য শিল্পের মধ্যে রয়েছে মুদ্রণ, মোজাইক তৈরি এবং কর্মীদের ইউনিফর্ম তৈরি। ভ্যাটিকানে ভ্যাটিকান ফার্মেসি নামে একটি ফার্মেসিও আছে।

ভ্যাটিকান মিউজিয়ামের "নতুন উইং", রাফায়েল স্টার্ন (১৭৭৪-১৮২০) এটি স্থাপন করেন।

দ্য ইনস্টিটিউট ফর ওয়ার্কস অফ রিলিজিয়ন (IOR, Istituto per le Opere di Religione), যা ভ্যাটিকান ব্যাংক নামেও পরিচিত, ভ্যাটিকানে অবস্থিত একটি আর্থিক সংস্থা যা বিশ্বব্যাপী আর্থিক কার্যক্রম পরিচালনা করে। এটি ল্যাটিন ভাষায় নির্দেশাবলী সহ বহুভাষিক এটিএম পরিচালনা করে থাকে, সম্ভবত এই বৈশিষ্ট্য সহ বিশ্বের একমাত্র এটিএম এরাই পরিচালনা করে।[৪২] ভ্যাটিকান সিটির নিজস্ব মুদ্রা এবং স্ট্যাম্প রয়েছে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের সাথে একটি বিশেষ চুক্তির মাধ্যমে ১লা জানুয়ারী ১৯৯৯ সাল থেকে ভ্যাটিকান ইউরোকে তার মুদ্রা হিসাবে ব্যবহার করে আসছে (কাউন্সিল সিদ্ধান্ত ১৯৯৯-১৯৯৮)। ১লা জানুয়ারী ২০০২ সালে ইউরো কয়েন এবং নোট চালু করা হয়েছিল — ভ্যাটিকান ইউরো ব্যাঙ্কনোট ইস্যু করে না। ইউরো-ডিনোমিনেটেড কয়েন ইস্যু করা কঠোরভাবে চুক্তি দ্বারা সীমাবদ্ধ, যদিও একটি স্বাভাবিক বছরে চেয়ে যে বছর পোপ পদে পরিবর্তন হয় সে বছর কিছুটা বেশি অনুমোদিত হয়।[৪৩] বিরলতার কারণে, ভ্যাটিকানের ইউরো কয়েনের সংগ্রহকারীদের কাছে অনেক চাহিদা রয়েছে।[৪৪] ইউরো গ্রহণের আগ পর্যন্ত, ভ্যাটিকান মুদ্রায় এবং ডাকটিকিটে নিজস্ব ভ্যাটিকান লিরা মুদ্রা ব্যাবহৃত হত, যা ইতালীয় লিরার সমান ছিল।

ভ্যাটিকান সিটি প্রায় ২,০০০ লোক নিয়োগ করে থাকে, ২০০৭ সালে বাজেটের ৬.৭ মিলিয়ন ইউরোর উদ্বৃত্ত ছিল, কিন্তু ২০০৮ সালে ১৫ মিলিয়ন ইউরোর বেশি ঘাটতি দেখা দেয়।[৪৫]

২০১২ সালে, মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের আন্তর্জাতিক মাদক নিয়ন্ত্রণ কৌশল প্রতিবেদন ভ্যাটিকান সিটিকে প্রথমবারের মতো মানি লন্ডারিংয়ের জন্য উদ্বেগজনক দেশগুলির মধ্যে তালিকাভুক্ত করে, দেশটিকে মধ্যম ঝুকির শ্রেণীতে রাখাঁ হয়েছিলো, যার মধ্যে আয়ারল্যান্ডের মতো দেশ ছিলো, কিন্তু এটি সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলির তালিকাভুক্ত নয়। সবচেয়ে ঝুকিপূর্ণ দেশগুলির মধ্যে রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নিজেই, জার্মানি, ইতালি এবং রাশিয়া[৪৬]

২০১৪ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারী ভ্যাটিকান ঘোষণা করে তাঁরা অর্থনীতির জন্য একটি সচিবালয় প্রতিষ্ঠা করছে, কার্ডিনাল জর্জ পেলের নেতৃত্বে হলি সি এবং ভ্যাটিকান সিটি স্টেটের সমস্ত অর্থনৈতিক, আর্থিক এবং প্রশাসনিক কার্যক্রম এর মাধ্যমে পরিচালিত হবে। সংস্থাটি মানি লন্ডারিং অপরাধের জন্য একজন "মনসিগনোর" সহ দুই প্রবীণ যাযককে অভিযুক্ত করে। পোপ ফ্রান্সিস একজন মহাহিসাবরক্ষকেও নিযুক্ত করেছেন, যার যে কোনো সময়ে যে কোনো এজেন্সির অডিট করার জন্য অনুমোদন রয়েছে এবং তিনি আন্তর্জাতিক মানি লন্ডারিং-এর অভিযোগ তদন্ত করতে ভ্যাটিকানের ১৯,০০০ অ্যাকাউন্ট পর্যালোচনা করার জন্য একটি মার্কিন আর্থিক পরিষেবা সংস্থাকে নিযুক্ত করেছেন। পোনটিফ আরও আদেশ দিয়েছিলেন যে অ্যাডমিনিস্ট্রেশন অফ দ্য প্যাট্রিমনি অফ দ্য অ্যাপোস্টলিক সি হবে ভ্যাটিকানের কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ক, যার দায়িত্ব হবে বিশ্বের অন্যান্য কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্কগুলির মতোই।[৪৭]

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

২০১৯ এর হিসাবে ভ্যাটিকান সিতির মোট জনসংখ্যা ৮২৫, যার মধ্যে,
  • ৪৫৩ জন অধিবাসী (যেকোন দেশের নাগরিক)
  • ৩৭২ জন ভ্যাটিকান নাগরিক অন্যত্র বসবাস করছেন (হলি সি-এর কূটনীতিবিদ এবং রমে বসবাসকারী কার্ডিনালগণ)[২][৪৮]
যাযক সম্প্রদায়, অন্যান্য ধর্মীয় গোষ্ঠী এবং রাষ্ট্রীয় কর্মকর্তা (যেমনঃ সুইস গার্ড) এবং তাদের পরিবারবর্গ নিয়ে ভ্যাটিকানের জনসংখ্যা গঠিত।[৪৯] দেশের সকল নাগরিক, অধিবাসী এবং ধর্মীয় স্থাপনা ক্যাথলিক ধর্মবিশ্বাসের। এছাড়া শহরে প্রতিদিন পর্যটক এবং কর্মী হিসেবে হাজারো লোকের সমাগম হয়।
  • ২০১৯ সালের ১লা ফেব্রুয়ারিতে ভ্যাটিকান সিটির জনসংখ্যা[২]
    লিঙ্গ উভয়
    নাগরিকত্ব ভ্যাটিকান অন্যান্য
    আবাসস্থল অন্যান্য ভ্যাটিকান সিটি
    পোপ
    কার্ডিনাল ৫৩ ১৭
    কূটনীতিবিদ ৩১৯
    সুইস গার্ড ১০৪
    অন্যান্য ১২৪ ২০৭
    মোট ৬১৮ ২০৭
    ৩৭২ ২৪৬
    ৪৫৩
    ৮২৫
  • ২০১১ সালের ১লা মার্চে ভ্যাটিকান সিটির জনসংখ্যা[৪৯]
    লিঙ্গ উভয় পুরুষ নারী
    নাগরিকত্ব ভ্যাটিকান অন্যান্য ভ্যাটিকান অন্যান্য ভ্যাটিকান অন্যান্য
    আবাসস্থল অন্যান্য ভ্যাটিকান সিটি অন্যান্য ভ্যাটিকান সিটি অন্যান্য ভ্যাটিকান সিটি
    পোপ
    কার্ডিনাল ৪৩ ৩০ ৪৩ ৩০
    কূটনীতিবিদ ৩০৬ ৩০৬
    সুইস গার্ড ৮৬ ৮৬
    অন্য ধ্ররমাবলম্বী ৫০ ১৯৭ ৪৯ ১০২ ৯৫
    অন্যান্য ৫৬ ২৪ ২৫ ৩১ ২১
    মোট ৫৭২ 221 ৫৪০ 105 ৩২ ১১৬
    ৩৪৯ ২২৩ ৩৪৯ ১৯১ ৩২
    ৪৪৪ ২৯৬ ১৪৮
    ৭৯৩ ৬৪৫ ১৪৮
ভাষা[সম্পাদনা]
ভ্যাটিকান সিটির সিল মোহর, যাতে ইতালিয়ান ভাষায় লেখা রয়েছে

ভ্যাটিকান সিটির কোন সরকারি ভাষা নেই, তবে ইতালীয় ভাষা সর্বাধিক প্রচলিত ভাষা। রোমান ক্যাথলিক গির্জার দাপ্তরিক ভাষা হিসেবে লাতিন ভাষার বিশেষ মর্যাদা আছে। তাই হলি সি ল্যাটিন ভাষা ব্যাবহার করে। কিন্তু ভ্যাটিকান প্রসাশনিক থেকে সকল কর্মক্ষেত্রে ইতালিয়ান ভাষার ব্যাবহার করে থাকে।[৫০] অধিকাংশ কর্মজীবির নিত্যদিনের ভাষাও ইতালিয়ান। সুইস গার্ডদের সুইজারল্যান্ডের জার্মান ভাষায় কমান্ড করা হয়। তবে প্রত্যেক গার্ড নিজ নিজ ভাষা (যেমনঃ জার্মান, ফ্রেঞ্চ, ইতালিয়ান বা রোমান্স) ব্যাবহার করে থাকেন। যারা উচ্চপদে কাজ করে তারা নিয়মিত ইতালীয় ভাষায় কথা বলে। এছাড়া ধর্মীয় অনুষ্ঠানে লাতিন ভাষা ব্যবহার করে। হলি সি[৫১] এবং ভ্যাটিকান সিটির[৫২] ওয়েবসাইটে ইতালীয় ভাষার প্রাধান্য রয়েছে। যদি ও্যেব পাতাটিতে অনেকগুলো ভাষাও বিকল্প রয়েছে।

নাগরিকত্ব[সম্পাদনা]

অন্যান্য দেশে নাগরিকত্ব জন্মসূত্রে বা পৈতৃকসূত্রে দেওয়া হলেও, ভ্যাটিকানে নাগরিকত্ব কেবল হোলি সি এর নিয়োগকৃত কর্মকর্তাদের জন্য সীমাবদ্ধ। সাধারণত কর্মক্ষেত্রে নিয়োগের পরই কাউকে নাগরিকত্ব দেওয়া হয়। নাগরিকের স্ত্রী ও সন্তানদেরও নাগরিকত্ব দেওয়া হয়। এক্ষেত্রে শর্ত থাকে যে তাদেরও একসাথে শহরেই বসবাস করতে হবে।[৪৮] অনেককে আবার ভ্যাটিকান সিটিতে বসবাসের অনুমতি দেওয়া হলেও, নাগরিকত্ব দেওয়া হয়না বা তাঁরা নাগরিকত্ব গ্রহণের আগ্রহ দেখাননা।[৪৮] কেউ যদি ভ্যাটিকানের নাগরিকত্ব হারায় এবং অন্যকোন নাগরিক্তত্ব গ্রহণ না করে তবে সে ল্যাটেরান চুক্তি অনুসারে ইটালির নাগরিক হিসেবে গণ্য হয়। [৫৩]

হোলি সি কোন রাষ্ট্র না হওয়ায় শুধুমাত্র কূটনৈতিক এবং দাপ্তরিক পাসপোর্ট ইস্যু করে এবং ভ্যাটিকান নাগরিকদের জন্য সাধারন পাসপোর্ট ইস্যু করে।

পরিসংখ্যানগত অস্বাভাবিকতা[সম্পাদনা]

পরিসংখ্যানে বিভিন্ন দেশের মাথাপিছু বা এলাকা প্রতি হিসাবের তুলনা করা হয়, ভ্যাটিকান সিটির ক্ষেত্রে প্রায়শই অস্বাভাবিকতা দেখা যায়—এর জন্য রাষ্ট্রের ছোট আকার এবং ধর্মীয় চরিত্র দায়ী হতে পারে।[৫৪] উদাহরণস্বরূপ, যেহেতু নাগরিকত্বের শর্তের বেশিরভাগ ভূমিকা পুরুষদের জন্য সংরক্ষিত, লিঙ্গ অনুপাতে প্রতি জন মহিলার বিপরীতে বেশ কয়েকজন পুরুষ দেখা যায়।[৫৫] আরও অস্বাভাবিকতার সৃষ্টি হয় পর্যটকদের বিরুদ্ধে ক্ষুদ্র অপরাধ সংগঠিত হওয়ার ফলে মাথাপিছু অপরাধের হার অনেক বেশি,[৫৬] এবং নগর-রাষ্ট্রটি মাথাপিছু ওয়াইন সেবনে বিশ্বে প্রথম। এই অসামঞ্জস্যগুলির একটি মজার দৃষ্টান্ত কখনও কখনও প্রতি বর্গ কিলোমিটারে পোপের সংখ্যা শির্ষক জরিপ প্রকাশ করা হলে তাঁর মান হয় দুই থেকে বেশি, যার কারণ দেশটির আয়তন আধা বর্গ কিলোমিটারেরও কম।[৫৭]

সেন্ট পিটার্স ব্যাসিলিকার ৩৬০ ডিগ্রি ছবি, এখান থেকে সেইন্ট পিটার্স স্কয়ার থেকে রম পর্যন্ত ভ্যাটিকান সিটির পুরোটা দেখা যায়।
সেন্ট পিটার্স ব্যাসিলিকার ৩৬০ ডিগ্রি ছবি, এখান থেকে সেইন্ট পিটার্স স্কয়ার থেকে রম পর্যন্ত ভ্যাটিকান সিটির পুরোটা দেখা যায়।

সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

ভাটিকান মিউজিয়ামে (Musei Vaticani) ক্যাথলিক চার্চের দারুন সব সংগ্রহ প্রদর্শন করা হয়।

ভ্যাটিকান সিটিতে রয়েছে পৃথিবীর অন্যতম বিখ্যাত কিছু শিল্পের সংগ্রহ। যথাক্রমে ব্রামান্তে, মাইকেলেঞ্জেলো, গিয়াকোমো দেলা পোর্তা, মাডের্নো এবং বার্নিনির অধীনে নির্মিত সেন্ট পিটার্স ব্যাসিলিকা রেনেসাঁ যুগের অন্যত্ম বিখ্যাত স্থাপত্য। সিস্টিন চ্যাপেল এর ফ্রেস্কোর জন্য বিখ্যাত, এর ফ্রেস্কতে পুরুগিনো, গিরল্যান্ডিও, বাত্তেচেল্লির মত বিখ্যাত শিল্পীগণ কাজ করেছেন এবং এর সিলিং-এ থাকা বিখ্যাত চিত্রকর্ম দ্যা লাস্ট জাজমেন্ট মাইকেলেঞ্জেলোর চিত্রকর্ম। ভ্যাটিকানের ইন্টেরিয়র নকশায় কাজ করেছেন এমন বিখ্যাত শিল্পীদের মধ্যে রয়েছেন রাফায়েল এবং ফ্রা আংগেলিকো

ভ্যাটিকান লাইব্রেরি এবং ভ্যাটিকান মিউজিয়ামের সংগ্রহের অসামান্য ঐতিহাসিক, বৈজ্ঞানিক ও সাংস্কৃতিক গুরুত্ব রয়েছে। ১৯৮৪ সালে ইউনেস্কো সমগ্র ভ্যাটিকান সিটিকে বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান (ওয়াল্ড হেরিটেজ সাইট) ঘোষণা করে। এটা একমাত্র দেশ যেখানে সমগ্র দেশটিকেও এই মর্যাদা দেওয়া হয়েছে।[৫৮] অধিকন্তু, এটিই একমাত্র স্থান যা ইউনেস্কোর সাথে সাথে ১৯৫৪ সালের হেগ কনভেনশন ফর দ্য প্রটেকশন অফ কালচারাল প্রপার্টি অনুসারে "বিশেষ সুরক্ষার অধীনে সাংস্কৃতিক সম্পত্তির আন্তর্জাতিক নিবন্ধন"-এ নিবন্ধিত হয়েছে যেখানে সশস্ত্র সংঘাতের ঘটনায় একে সুরক্ষা দেওয়ার অঙ্গিকার করা হয়েছে।[৫৮]

এখানে ভ্যাটিকান সিটি চ্যাম্পিয়নশিপ নামে একটি প্রতিযোগিতা মূলক ফুটবল টুর্নামেন্ট আয়োজন করা হয়। এতে আটটি দল অংশ নেয়, যার মধ্যে রয়েছেঃ সুইস গার্ডসদের দল এফ.সি. গার্ডিয়ান এবং পুলিশ ও জাদুঘর রক্ষীদের দল।[৫৯]

অবকাঠামো[সম্পাদনা]

পরিবহন ব্যাবস্থা[সম্পাদনা]

পৃথিবীর ক্ষুদ্রতম জাতীয় রেল যোগাযোগ ব্যাবস্থা

ভ্যাটিকান সিটির আকার বিবেচনায় এর পর্যাপ্ত এবং উন্নত পরিবহন ব্যাবস্থা রয়েছে (যা বেশিরভাগই পিয়াজা এবং হাঁটার পথ নিয়ে গঠিত)। এই দেশটির দৈর্ঘ্য মাত্র ১.০৫ কিলোমিটার (১,১৫০ গজ) এবং প্রস্থ মাত্র ০.৮৫ কিমি (৯৩০ গজ,[৬০] দেশটির একটি ছোট পরিবহন ব্যবস্থা রয়েছে যেখানে কোনো বিমানবন্দর বা মহাসড়ক নেই। ভ্যাটিকান সিটির একমাত্র উড়াল পথে চলাচলের ব্যাবস্থা হল ভ্যাটিকান সিটি হেলিপোর্ট। যেসকল স্বাধিন দেশের বিমানবন্দর নেই ভ্যাটিকান সিটি তাদের মধ্যে একটি, রোম, লিওনার্দো দ্য ভিঞ্চি-ফিউমিসিনো বিমানবন্দর এবং স্বল্পমাত্রায় সিয়াম্পিনো বিমানবন্দর ব্যাবহার করে এখানের অধিবাসীদের বিমান পরিষেবা প্রদান করা হয়।[৬১]

ভ্যাটিকানে একটি স্ট্যান্ডার্ড গেজ রেলপথ রয়েছে, যা প্রধানত মাল পরিবহনের জন্য ব্যবহৃত হয়, রোমের সেন্ট পিটার স্টেশনে ইতালির নেটওয়ার্কের সাথে ৮৫২-মিটার-লম্বা (৯৩২ ইয়ার্ড) স্পার দ্বারা যেটি সংযুক্ত, যার ৩০০ মিটার (৩৩০ ইয়ার্ড) ভ্যাটিকান অঞ্চলের মধ্যে রয়েছে।[৬১] পোপ তেরোবিংশ জন ছিলেন প্রথম পোপ যিনি রেলওয়ে ব্যবহার করেছিলেন; পোপ জন পল দ্বিতীয় এটি খুব কমই ব্যবহার করেছেন।[৬১]

ভ্যাটিকানের নিকটতম মেট্রো স্টেশন হল ওটাভিয়ানো - সান পিয়েত্রো - মুসেই ভ্যাটিকানি[৬২]

যোগাযোগ[সম্পাদনা]

১৯২৯ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি ভ্যাটিকান পোস্ত অফিস প্রতিষ্ঠিত হয়।

শহরের ভ্যাটিকান টেলিফোন সার্ভিস নামে একটি সতন্ত্র, আধুনিক টেলিফোন সিস্টেম রয়েছে,[৬৩] এবং ১৩ ফেব্রুয়ারি ১৯২৯ সালে চালু হওয়া ডাক ব্যাবস্থা রয়েছে। ১লা আগস্ট থেকে ভ্যাটিকান সিটি ফিলাটেলিক এবং নিউমিসম্যাটিক অফিসের তত্ত্বাবধায়নে নিজস্ব ডাকটিকিট প্রকাশ করতে শুরু করে।[৬৪] শহটির ডাক পরিষেবাকে কখনও কখনও "বিশ্বের সেরা" ডাক পরিষেবা বলা হয়,[৬৫] এবং রোমের ডাক পরিষেবার চেয়েও এটি দ্রুত কাজ করে।[৬৫]

ভ্যাটিকান নিজস্ব ইন্টারনেট টপ-লেভেল ডোমেনও নিয়ন্ত্রণ করে, যা (.va) হিসাবে নিবন্ধিত। ভ্যাটিকান সিটির ব্রডব্যান্ড পরিষেবা সুবিস্তৃত। ভ্যাটিকান সিটিকে একটি রেডিও আইটিইউ প্রিফিক্স, এইচভিও দেওয়া হয়েছে এবং এটি কখনও কখনও সৌখিন রেডিও অপারেটরেরা ব্যবহার করে থাকেন।

ভ্যাটিকান রেডিও, যা গুগলিয়েলমো মার্কোনি প্রতিষ্ঠা করে ছিলেন, শর্ট-ওয়েভ, মিডিয়াম-ওয়েভ এবং এফএম ফ্রিকোয়েন্সি এবং ইন্টারনেটে সম্প্রচার করে থাকে।[৬৬] এর প্রধান প্রেরক অ্যান্টেনা ইতালীয় সিমানায় অবস্থিত এবং ইতালীয় পরিবেশগত সুরক্ষা নির্গমনের মাত্রা অতিক্রম করে। এ কারণে ভ্যাটিকান রেডিওর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। টেলিভিশন পরিষেবাগুলি অন্য আরেকটি সংস্থা, ভ্যাটিকান টেলিভিশন সেন্টারের মাধ্যমে সম্প্রচার করা হয়।[৬৭]

লা অবজারভেটর রোমানো হলি সি এর বহুভাষিক আধা-সরকারি সংবাদপত্র। এটি ক্যাথলিক চার্চের নির্দেশনা অনুসারে একটি বেসরকারী কর্পোরেশন দ্বারা প্রকাশিত হয়, তবে শুধুমাত্র সরকারী তথ্যের উপর প্রতিবেদন করে। সরকারী নথি পাঠ্যগুলো এক্তা এপোস্ত্যালিকা সেডিস-এ প্রকাশিত হয়, যা হলি সি-এর সরকারী গেজেট, যাতে ভ্যাটিকান সিটি নথির জন্য একটি পরিশিষ্ট রয়েছে৷

ভ্যাটিকান রেডিও, ভ্যাটিকান টেলিভিশন সেন্টার, এবং লা অবজারভেটর রোমানো এর মালিকানা ভ্যাটিকান সিতির নয় বরং হলি সি-এর অধীন, এবং আন্নুনারিও পন্টিফিকিও-তে তালিকাভুক্ত। তালিকায় প্রতিষ্ঠান গুলোর অবস্থান হলি সি-এর কূটনৈতিক পরিষেবা এবং হলি সি-তে স্বীকৃত কূটনৈতিক কর্পস-এর বিভাগগুলির ওপরে, যার পরে রয়েছে ভ্যাটিকান সিটির বিভাগ।

নবায়ন[সম্পাদনা]

২০০৮ সালে, ভ্যাটিকান নবায়নযোগ্য বর্জ্যের জন্য একটি "পরিবেশগত দ্বীপ" প্রকল্প শুরু করে এবং ফ্রান্সিস তাঁর পুরো শাসনকাল জুড়ে এই উদ্যোগটি অব্যাহত রেখেছেন। এই প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে ষষ্ঠ পল অডিয়েন্স হলের ছাদে সৌরবিদ্যুৎ ব্যবস্থা স্থাপন। ২০১৯ সালের জুলাই মাসে, ভ্যাটিকানে ঘোষণা করা হয়েছিল যে ভ্যাটিকান সিটি ইউরোপীয় ইউনিয়ন দ্বারা নির্ধারিত ২০২১ সময়সীমার আগেই, সরবরাহ বন্ধ হয়ে যাওয়ার সাথে সাথে একক-ব্যবহারের প্লাস্টিকের ব্যবহার এবং বিক্রয় নিষিদ্ধ করবে। অনুমান করা হয় যে ভ্যাটিকান সিটির পৌরসভার কঠিন বর্জ্যের ৫০-৫৫% সঠিকভাবে বাছাই করা হয় এবং পুনর্ব্যবহার করা হয়, এবং তাঁরা ইউরোপীয় ৭০-৭৫% এর মানদণ্ডে পৌঁছানোর ব্যাপারে আশাবাদী।[৬৮]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. Stato della Città del Vaticano[৪][৫] (ইতালীয় উচ্চারণ: [ˈstaːto della tʃitˈtaddel vatiˈkaːno]) is the name used in the text of the state's Fundamental Law and in the state's official website.
  2. The ecclesiastical, and therefore official, pronunciation is [ˈstatus tʃiviˈtatis vatiˈkane]; the classical one is [ˈstatʊs kiːwɪˈtaːtɪs waːtɪˈkaːnae̯].
  3. In the languages used by the Secretariat of State of the Holy See (except English and Italian as already mentioned above):
  4. The Holy See's budget, which is distinct from that of Vatican City State, is supported financially by a variety of sources, including investments, real estate income, and donations from Catholic individuals, dioceses, and institutions; these help fund the Roman Curia (Vatican bureaucracy), diplomatic missions, and media outlets. Moreover, an annual collection taken up in dioceses and direct donations go to a non-budgetary fund known as Peter's Pence, which is used directly by the Pope for charity, disaster relief and aid to churches in developing nations.

উদ্ধৃতি[সম্পাদনা]

  1. Copley, Susan J.। "Lower lobes-Alpha-1 antiprotease deficiency"Radiology Intelligent Assistant। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৩-১০ 
  2. "Population" (ইতালীয় ভাষায়)। Vatican City State। ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১১ এপ্রিল ২০২০ 
  3. ভ্যাটিকেন সিটিকে দিয়েছে কিন্তু ব্যবহার করেনি। ইতালির রোম থেকে প্রকৃত সংখ্যা সক্রিয় করা হয়েছে টেলিকম ইতালি মাধ্যমে এবং ইতালির টেলিফোন সংযোগ নিয়ন্ত্রণ অফিস থেকে আসা শেষ ৪ অথবা ৫ সংখ্যা ভ্যাটিকেন সিটি থেকে সুলভ। অনেক ইতালিয়াদের যারা সান মারিনোতে থাকে তাদের ফোন নাম্বার ০৬৬৯৮২ অথবা ০৬৬৯৮x + এক্সটেনশন। অন্য সমস্ত অবস্থাতে +৩৯০৬৬৯৮২ অথবা +৩৯০৬৬৯৮ এক্সটেনশন।
  4. "STATO DELLA CITTÀ DEL VATICANO" 
  5. "La Santa Sede"Vatican.va 
  6. dissertant., Doane, Michael P.,। Insights into the shark 'holobiont' through the skin microbiome and host geneticsআইএসবিএন 978-0-438-29105-8ওসিএলসি 1055419004 
  7. Lateran Treaty of 1929, Articles 13–16
  8. Tabelle climatiche 1971–2000 della stazione meteorologica di Roma-Ciampino Ponente dall'Atlante Climatico 1971–2000 – Servizio Meteorologico dell'Aeronautica Militare
  9. "Visualizzazione tabella CLINO della stazione / CLINO Averages Listed for the station Roma Ciampino"। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জুন ২০১১ 
  10. "Map of Vatican City"। saintpetersbasilica.org। সংগ্রহের তারিখ ১১ অক্টোবর ২০০৯ 
  11. Section, United Nations News Service (৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭)। "UN News - FEATURE: Diplomacy of the conscience – The Holy See at the United Nations"UN News Service Section (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  12. [httsp://www.catholic-pages.com/vatican/vatican_city.asp "Vatican City"]। Catholic-Pages.com। সংগ্রহের তারিখ ৪ মার্চ ২০০৭ 
  13. Etehad, Melissa “Not all monarchs have lost power. Here are a few countries where royals really rule” www.google.com/amp/s/www.latimes.com/world/la-fg-countries-where-monarchs-still-rule-20190503-story.html%3f_amp=true Published 4 May 2019, Retrieved 27 December 2020.
  14. Learning with the Times: 7 Nation Still Under Absolute Monarchy”, The Times of India, Published 10 November 2008. m.timesofindia.com/india/Learning-with-the-Times-7-nations-still-under-absolute-monarchy/articleshow/3692953.cms. Retrieved 27 December 2020.
  15. One of the titles of the Pope listed in the Annuario Pontificio is "Sovereign of Vatican City State" (page 23* in recent editions).
  16. "Code of Canon Law: text – IntraText CT" 
  17. "International postal code: SCV-00120." www.vatican.va Holy See Press Office – General Information. Retrieved 23 October 2009.
  18. "Vatican City Today"। Vatican City Government। ১১ ডিসেম্বর ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ নভেম্বর ২০০৭ 
  19. Duursma, Jorri C. (১৯৯৬)। Fragmentation and the International Relations of Micro-states: Self-determination and Statehood। Cambridge University Press। পৃষ্ঠা 396। আইএসবিএন 9780521563604 
  20. "Corpo della Gendarmeria" (ইতালীয় ভাষায়)। Stato della Città del Vaticano। ২৫ ডিসেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ জানুয়ারি ২০১৩ 
  21. "Gendarme Corps"। Office of the President of Vatican City State। ২০০৭। ২৩ অক্টোবর ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ অক্টোবর ২০০৭ 
  22. "Administrations and Central Offices"। Office of the President of Vatican City State। ২০০৭। ২৩ অক্টোবর ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ অক্টোবর ২০০৭ 
  23. "Vatican crime rate 'soars'"। BBC। ৮ জানুয়ারি ২০০৩। সংগ্রহের তারিখ ২৮ নভেম্বর ২০০৭ 
  24. "Vatican surpasses all nations... in pickpockets?" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১৫ নভেম্বর ২০১২ তারিখে. Rome Reports, 14 February 2011.
  25. Glatz, Carol (19 December 2013) "Man seriously injured after setting self on fire in St. Peter's Square". Catholic News Service
  26. "INTER SANCTAM SEDEM ET ITALIAE REGNUM CONVENTIONES* INITAE DIE 11 FEBRUARII 1929" (ইতালীয় ভাষায়)। Vatican.va। সংগ্রহের তারিখ ১২ জুলাই ২০১৩ 
  27. Shea, Alison (২০০৯)। "Researching the Law of the Vatican City State"Hauser Global Law School ProgramNew York University School of Law। ১৭ অক্টোবর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  28. How Does Vatican City Deal With Criminals? Slate. 30 May 2012. Retrieved 18 April 2013.
  29. "Is the Vatican a Rogue State?" Spiegel Online. 19 January 2007. Retrieved 25 August 2010.
  30. "The Holy See and Diplomacy", Foreign and Commonwealth Office ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২১ মে ২০০৯ তারিখে
  31. "Vatican City State: Participation in International Organizations". Vatican City State. ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১০ জুলাই ২০১০ তারিখে
  32. See also appendix at end of "Bilateral Relations of the Holy See". vatican.va
  33. "Membership Vatican City State"Interpol। ১০ অক্টোবর ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ জুন ২০১২ 
  34. "AEOI: STATUS OF COMMITMENTS" (PDF) 
  35. "JURISDICTIONS PARTICIPATING IN THE CONVENTION ON MUTUAL ADMINISTRATIVE ASSISTANCE IN TAX MATTERS" (PDF) 
  36. "SIGNATORIES OF THE MULTILATERAL COMPETENT AUTHORITY AGREEMENT ON AUTOMATIC EXCHANGE OF FINANCIAL ACCOUNT INFORMATION AND INTENDED FIRST INFORMATION EXCHANGE DATE" (PDF) 
  37. "Vatican should bring money-laundering cases to trial, watchdog..."Reuters (ইংরেজি ভাষায়)। ৮ ডিসেম্বর ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জুন ২০১৯ 
  38. "Top 5 financial transgressions committed by the Vatican"www.europeanceo.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জুন ২০১৯ 
  39. Willey, David (১৮ জুলাই ২০১৩)। "The Vatican Bank is rocked by scandal again" (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জুন ২০১৯ 
  40. " "data.imf.org। সংগ্রহের তারিখ ১৮ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  41. "Holy See (Vatican City): Economy"CIA – The World Factbook। সংগ্রহের তারিখ ১০ অক্টোবর ২০১০ 
  42. O'Malley, Seán P. (২৮ সেপ্টেম্বর ২০০৬)। "A Glimpse Inside the Vatican & Msgr. Robert Deeley's Guest Post"। সংগ্রহের তারিখ ৩০ জানুয়ারি ২০০৮ 
  43. "Agreements on monetary relations (Monaco, San Marino, the Vatican and Andorra)"Activities of the European Union: Summaries of legislation। সংগ্রহের তারিখ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০০৭ 
  44. "Benedict Vatican euros set for release"Catholic News। ২১ এপ্রিল ২০০৬। সংগ্রহের তারিখ ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৪ 
  45. Holy See's budget shortfall shrinks in 2008 ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২২ জুলাই ২০১১ তারিখে. Christian Telegraph. The report quoted deals mainly with the revenues and expenses of the Holy See and mentions only briefly the finances of Vatican City.
  46. Pullella, Philip (8 March 2012). "U.S. adds Vatican to money-laundering 'concern' list." Reuters.
  47. "Vatican financial system restructuring begins with new secretariat"। The Italy News.Net। ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৪। ২০ জুলাই ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ 
  48. "Law on citizenship, residence and access" (ইতালীয় ভাষায়)। Vatican City State। ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ১১ এপ্রিল ২০২০ 
  49. "Population" (ইতালীয় ভাষায়)। Vatican City State। ১৪ এপ্রিল ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  50. Vatican City State appendix to the Acta Apostolicae Sedis is entirely in Italian.
  51. "Vatican"www.vatican.va 
  52. Vatican City State (ইতালীয় ভাষায়)
  53. "Patti Lateranensi"। vatican.va। সংগ্রহের তারিখ ৬ নভেম্বর ২০১৩ 
  54. "Vatican City drinks more wine per person than anywhere else in the world"The Independent। ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ২৭ জুলাই ২০১৮ 
  55. Mrowińska, Alina. "Behind The Walls: What It's Like To Live Inside The Vatican, For A Woman" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১ জানুয়ারি ২০১৬ তারিখে, Gazeta Wyborcza/Worldcrunch, 26 February 2013.
  56. "Vatican crime rate 'soars'" (ইংরেজি ভাষায়)। ৮ জানুয়ারি ২০০৩। সংগ্রহের তারিখ ৬ মার্চ ২০১৯ 
  57. Miller, Anne; Mitchinson, John (১৪ মার্চ ২০১৩)। "QI: some quite interesting facts about Popes"The Daily Telegraph (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0307-1235। ১০ জানুয়ারি ২০২২ তারিখে মূলঅর্থের বিনিময়ে সদস্যতা প্রয়োজন থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ মার্চ ২০১৯ 
  58. "Vatican City – UNESCO World Heritage Centre"। UNESCO। সংগ্রহের তারিখ ১০ অক্টোবর ২০০৯ 
  59. "Life in the Guard"Pontifical Swiss Guard। ৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৬ 
  60. "Holy See – State of the Vatican City"। Vatican Papal Conclave। সংগ্রহের তারিখ ২৮ নভেম্বর ২০০৭ 
  61. "Railways of the World"। Sinfin.net। সংগ্রহের তারিখ ৮ আগস্ট ২০০৬ 
  62. "The Vatican Museums & St Peter's, Rome; getting there -"www.rometoolkit.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মার্চ ২০১৮ 
  63. On call 24/7: Vatican phone system directs thousands of call each day ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১৯ ডিসেম্বর ২০১২ তারিখে, 24 July 2006.
  64. "The Early Definitives"। Vatican Philatelic Society। ১১ ডিসেম্বর ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ নভেম্বর ২০০৭ 
  65. Baker, Al (২৭ জুন ২০০৪)। "Hail Marys Not Needed: Vatican Mail Will Deliver"The New York Times। সংগ্রহের তারিখ ২৮ নভেম্বর ২০০৭ 
  66. "Vatican Radio – Index"। Vatican.va। ২ সেপ্টেম্বর ২০০৫। সংগ্রহের তারিখ ৬ মে ২০০৯ 
  67. "Vatican Television Center – Index"। Vatican.va। সংগ্রহের তারিখ ৬ মে ২০০৯ 
  68. Glatz, Carol। "Vatican City State set to end sale of single-use plastics"। Crus। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জুলাই ২০১৯ 

গ্রন্থপঞ্জি[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

প্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট[সম্পাদনা]

অন্যান্য ওয়েবসাইট[সম্পাদনা]