বোড়ো ভাষা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
Bodo
Mech
बड़ो
দেশোদ্ভব India, with a few small communities in Nepal
নৃতাত্ত্বিক Bodo, Mech
স্থানীয় ভাষাভাষী
1300000 (2001 census)[১]
ভাষা কোডসমূহ
আইএসও ৬৩৯-৩ brx
গ্লোটোলগ bodo1269[২]

বোড়ো ভাষা (বোড়ো ভাষায়: बोड़ो একটি তিব্বতি-বর্মী ভাষা যাতে উত্তর-পূর্ব ভারত, নেপাল ও বাংলাদেশে বসবাসরত বোড় জাতির লোকেরা কথা বলে থাকেন। ভাষাটি ভারতের অসম অঙ্গরাজ্যের একটি সরকারী ভাষা এবং ভারতের সংবিধান অনুসারে দেশটির ২২টি জাতীয় ভাষার একটি।

বংশানুক্রম[সম্পাদনা]

বোড়ো ভাষা তিব্বতি-বর্মী পরিবারের একটি ভাষা। এটি বংশগতভাবে অসমের দিমাসা ভাষা এবং মেঘালয়ের গারো ভাষার সাথে সম্পর্কিত। এছাড়াও ত্রিপুরার ককবরক ভাষার সাথেও এর ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক আছে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯১৩ সাল থকে বোড়ো সংগঠনগুলি রাজনৈতিক ও সামাজিক আত্মপরিচয়ের ব্যাপারে সচেতন হয়ে ওঠে/ ১৯৬৩ সালে অসমের বোড়োপ্রধান এলাকাগুলির প্রাথমিক স্কুলগুলিতে শিক্ষার মাধ্যম হিসেবে বোড়োর প্রচলন হয়। বর্তমানে ভাষাটি মাধ্যমিক স্তর পর্যন্ত প্রচলিত এবং অসম অঙ্গরাজ্যের একটি সরকারী ভাষা। গৌহাটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৯৯৬ সাল থেকে বোড়ো ভাষা ও সাহিত্যের উপর একটি স্নাতকোত্তর কোর্স প্রদান করা হচ্ছে। যদিও ইদানীং ভাষাটির উপর বাংলা ভাষার প্রভাব বৃদ্ধি পেয়েছে, তা সত্ত্বেও উদালগুরি জেলা ও তার আশেপাশে ভাষাটি স্বরূপে এখনও বিরাজমান।

উপভাষা[সম্পাদনা]

ছোটে, মেচ উপভাষাগুলি বোড়ো ভাষার উপভাষা।

লিখন পদ্ধতি[সম্পাদনা]

বোড়ো ভাষা বর্তমানে দেবনাগরী লিপি ব্যবহার করে লেখা হয়। তবে অতীতে বহুদিন যাবৎ এটি রোমান লিপিতে লেখা হত।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

  1. "এথ্‌নোলগে" Bodo (১৭তম সংস্করণ, ২০১৩)
  2. নোরধোফ, সেবাস্টিয়ান; হামারস্ট্রাম, হারাল্ড; ফোস্কেল, রবার্ট; হাস্পেলম্যার্থ, মার্টিন, সম্পাদকগণ (২০১৩)। "Bodo (India)"গ্লোটোলগ। লিপজিগ: বিবর্তনীয় নৃতত্ত্বে ম্যাক্স প্লাংক ইনস্টিটিউট।