মারনাস লাবুশেন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(Marnus Labuschagne থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মারনাস লাবুশেন
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামমারনাস লাবুশেন
জন্ম (1994-06-22) ২২ জুন ১৯৯৪ (বয়স ২৫)
ক্লার্কসড্রপ, উত্তর-পশ্চিম প্রদেশ, দক্ষিণ আফ্রিকা
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি লেগ ব্রেক
ভূমিকাব্যাটসম্যান
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৪৫৫)
৭ অক্টোবর ২০১৮ বনাম পাকিস্তান
শেষ টেস্ট২২ আগস্ট ২০১৯ বনাম ইংল্যান্ড
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০১৪/১৫ - বর্তমানকুইন্সল্যান্ড (দল নং ৯)
২০১৬/১৭ - বর্তমানব্রিসবেন হিট (দল নং ৯)
২০১৯গ্ল্যামারগন (দল নং ৯৯)
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি এলএ টি২০
ম্যাচ সংখ্যা ৬২ ২৭
রানের সংখ্যা ২৬৯ ৪,০০৯ ৮০৯ ৪২
ব্যাটিং গড় ২৯.৮৮ ৩৭.৪৬ ৩২.৩৬ ৭.০০
১০০/৫০ ০/৩ ৯/২৩ ০/৯ ০/০
সর্বোচ্চ রান ৮১ ১৮২ ৯১ ২০
বল করেছে ৩৬০ ৩,২১৬ ৩৬৬ ৩০
উইকেট ৪৯
বোলিং গড় ২৭.১১ ৪২.৮৫ ৫১.৭১ ৫৯.০০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৩/৪৫ ৩/৪৫ ৩/৪৬ ১/২৫
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৮/– ৬৭/– ১১/– ৪/–
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২২ আগস্ট ২০১৯

মারনাস লাবুশেন (ইংরেজি: Marnus Labuschagne; উচ্চারণ [lʌbəˈskʌxni] বা [læbəˈʃæɪn]; জন্ম: ২২ জুন, ১৯৯৪) উত্তর-পশ্চিম প্রদেশের ক্লার্কসড্রপ এলাকায় জন্মগ্রহণকারী দক্ষিণ আফ্রিকান বংশোদ্ভূত প্রথিতযশা অস্ট্রেলীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার।[১] অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য তিনি। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটে কুইন্সল্যান্ডের প্রতিনিধিত্ব করছেন। দলে তিনি মূলতঃ ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলছেন। এছাড়াও, ডানহাতে লেগ ব্রেক বোলিং করে থাকেন তিনি।

২০১৪-১৫ মৌসুমের শেফিল্ড শিল্ডে কুইন্সল্যান্ডের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে আত্মপ্রকাশ ঘটে তার। এছাড়াও, ব্রিসবেন হিটের পক্ষে খেলছেন তিনি। অক্টোবর, ২০১৮ সালে অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে মারনাস লাবুশেনের।[২] আগস্ট, ২০১৯ সালে টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে স্থলাভিষিক্ত হবার রেকর্ড গড়েন। তিনি বিখ্যাত ক্রিকেটার স্টিভ স্মিথের পরিবর্তে ব্যাটিং করেছিলেন।[৩]

শৈশবকাল[সম্পাদনা]

দক্ষিণ আফ্রিকার উত্তর-পশ্চিম প্রদেশের ক্লার্কসড্রপ এলাকায় মারনাস লাবুশেনের জন্ম। ১০ বছর বয়স থাকাকালে তাকে নিয়ে ২০০৪ সালে তার পিতা-মাতা অস্ট্রেলিয়ায় অভিবাসিত হন। সেখানে তার পিতা খনিজ শিল্পে কাজ করেন ও তাকে ব্রিসবেনের স্কুলে ভর্তি করা হয়। আফ্রিকান্স ভাষায় কথা বলেন ও অস্ট্রেলিয়ায় আসার পরই কেবলমাত্র ইংরেজিতে সাবলীল ভঙ্গীমায় কথা বলতে থাকেন।[৪]

ডানহাতি ব্যাটসম্যান মারনাস লাবুশেন কুইন্সল্যান্ডের পক্ষে অনূর্ধ্ব-১২, অনূর্ধ্ব-১৫, অনূর্ধ্ব-১৭ ও অনূর্ধ্ব-১৯ পর্যায়ের বয়সভিত্তিক খেলায় অংশ নিতে থাকেন। ২০১২-১৩ মৌসুমে জাতীয় চ্যাম্পিয়নশীপের অধিনায়কত্ব করেন।[৫][৬]

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

২০১৪-১৫ মৌসুমের শেফিল্ড শিল্ডের প্রথম রাউন্ডে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে। কুইন্সল্যান্ডের সদস্যরূপে অ্যাডিলেড ওভালে অনুষ্ঠিত খেলাটিতে প্রতিপক্ষীয় দল ছিল সাউথ অস্ট্রেলিয়া[৭] জো বার্নসের সাথে ব্যাটিং উদ্বোধনে নামেন তিনি। কুইন্সল্যান্ডের প্রথম ইনিংসে ৮৩ রান তুলেন। নিক স্টিভেন্সের সাথে চতুর্থ উইকেট জুটিতে ৯৯ রান করেন।

ব্রিসবেনের গ্রেড ক্রিকেট প্রতিযোগিতায় রেডল্যান্ডসের পক্ষে খেলেন।[৮] এছাড়াও, ইংল্যান্ডের ক্লাব ক্রিকেটে দুই মৌসুম অতিবাহিত করেন। ডেভন প্রিমিয়ার লীগে প্লাইমাউথ এবং কেন্ট প্রিমিয়ার লীগে স্যান্ডউইচের প্রতিনিধিত্ব করেছেন।[৯][১০]

২০১৬-১৭ মৌসুমের ম্যাটাডোর বিবিকিউজ ওয়ান-ডে কাপে ৪৫.১৬ গড়ে ২৭১ রান ও প্রতি ১০০ বলে ৯০.৬৩ রান তুলেন।[১১] এরফলে প্লেয়ার অব দ্য টুর্নামেন্টের পুরস্কার লাভ করেন তিনি।[১২] ২০১৭-১৮ মৌসুমের জেএলটি কাপে অংশ নেন। কুইন্সল্যান্ড ও ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া একাদশের মধ্যকার খেলায় নবপ্রবর্তিত লোকদেখানো ফিল্ডিংয়ের কারণে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে জরিমানার সম্মুখীন হন। তার দলকেও তজ্জন্যে পাঁচ রান জরিমানা গুণতে হয়।[১৩][১৪]

মার্চ, ২০১৮ সালে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া কর্তৃপক্ষ মারনাস লাবুশেনকে শেফিল্ড শিল্ডের জন্যে বর্ষসেরা খেলোয়াড় হিসাবে মনোনীত করে।[১৫]

কাউন্টি ক্রিকেট[সম্পাদনা]

এপ্রিল, ২০১৯ সালে ইংল্যান্ডের কাউন্টি দল গ্ল্যামারগনের পক্ষে খেলার জন্যে চুক্তিবদ্ধ হন।[১৬] কাউন্টি দলের পক্ষে প্রথমে চার খেলার তিনটি তেই তিনিও সেঞ্চুরি করেন। তন্মধ্যে সাসেক্সের বিপক্ষে ব্যক্তিগত সেরা ১৮২ রান তুলেন। তন্মধ্যে ২য় উইকেট জুটিতে রেকর্ডসংখ্যক ২৯১ রান তুলেন।[১৭] ২ জুলাই গ্ল্যামারগনের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ২০১৯ মৌসুমে প্রথম-শ্রেণীর সহস্র রান তুলেন।[১৮]

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

২০১৪-১৫ মৌসুমের শেষদিকে মারনাস লাবুশেনকে ভারতের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে অস্ট্রেলিয়া দলের অতিরিক্ত ফিল্ডারের ভূমিকায় অবতীর্ণ করানো হয়েছিল। গাব্বায় অনুষ্ঠিত ঐ টেস্টে ফিল্ডিংকালে শর্ট লেগ অঞ্চলে নাথান লায়নের বলে বরুণ আরনের নীচু ক্যাচ মুঠোয় পুড়েন।[১৯]

সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সালে সংযুক্ত আরব আমিরাতে পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট খেলায় অংশগ্রহণের জন্যে অস্ট্রেলিয়া দলে অন্তর্ভুক্ত করে।[২০][২১] ৭ অক্টোবর, ২০১৮ তারিখে দুবাইয়ে পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। তবে, দুই বল মোকাবেলান্তে শূন্য রানে তাকে বিদেয় নিতে হয়েছিল। অভিষেকের এ সফরে অবশ্য সাতটি উইকেট পেয়েছিলেন।[২২] মাইকেল হাসি তাকে ব্যাগি গ্রীন ক্যাপ উপহার দেন। ডিসেম্বর, ২০১৮ সালে ভারতের বিপক্ষে সিরিজের চতুর্থ টেস্ট খেলার জন্যে রাখা হয়।[২৩]

জুলাই, ২০১৯ সালে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত অ্যাশেজ সিরিজ খেলার জন্যে আমন্ত্রিত হন।[২৪][২৫] ১৮ আগস্ট, ২০১৯ তারিখে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের পঞ্চম দিন পূর্বদিনে আহত স্টিভ স্মিথের পরিবর্তে ব্যাটিং করতে নামেন।[২৬] আইসিসি’র গঠনতন্ত্রের পরিবর্তনের পর প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে টেস্ট খেলায় স্থলাভিষিক্ত হয়েছিলেন তিনি।[২৭] ঐ ইনিংসে তিনি ৫৯ রান তুলেছিলেন। এরপর স্মিথের অনুপস্থিতির কারণে তৃতীয় টেস্টের উভয় ইনিংসে অংশ নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হন।

টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে পঞ্চম ব্যাটসম্যান হিসেবে প্রতিপক্ষের এক ইনিংসে সংগৃহীত রানের চেয়ে উভয় ইনিংসে দুইবার সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হন।[২৮] দ্বিতীয় টেস্ট ড্র হলেও তৃতীয় টেস্টে তার দল নাটকীয়ভাবে এক উইকেটে ইংরেজ ব্যাটসম্যান বেন স্টোকসের অপরাজিত ১৩৫ রানের কারণে পরাভূত হয়েছিল হয়েছিল।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Smith, Martin (১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮)। "Meet Australia's newest Test batsman"। সংগ্রহের তারিখ ৯ অক্টোবর ২০১৮ 
  2. "Bolter Labuschagne impresses for Australia on Test debut"। ৮ অক্টোবর ২০১৮। 
  3. "Smith withdrawn from second Test, Labuschagne comes in as concussion replacement, replacing Steve Smith"International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ১৮ আগস্ট ২০১৯ 
  4. Robert Craddock (27 October 2014). "Former South African Marnus Labuschagne well-schooled for Sheffield Shield debut"The Daily Telegraph. Retrieved 1 November 2014.
  5. Miscellaneous matches played by Marnus Labuschagne – CricketArchive. Retrieved 1 November 2014.
  6. — (13 December 2012). "Redland cricket stars in state team"Redland City Bulletin. Retrieved 1 November 2014.
  7. First-class matches played by Marnus Labuschagne – CricketArchive. Retrieved 1 November 2014.
  8. — (27 October 2014). "Blues, Bulls call on debutants" – Cricket Australia. Retrieved 1 November 2014.
  9. Devon Premier League matches played by Marnus Labuschagne – CricketArchive. Retrieved 1 November 2014.
  10. Kent Premier League matches played by Marnus Labuschagne – CricketArchive. Retrieved 1 November 2014.
  11. "Matador BBQs One-Day Cup, 2016/17/Records/Most runs"Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৫ অক্টোবর ২০১৬ 
  12. "New South Wales v Queensland 2016-17"Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৫ অক্টোবর ২০১৬ 
  13. "Labuschagne penalised under new 'fake fielding' rule"ESPN Cricinfo। ২১ আগস্ট ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  14. "Renshaw endorses new 'fake fielding' rule"Cricket Australia। ২১ আগস্ট ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  15. "Our Sheffield Shield team of the year"Cricket Australia। সংগ্রহের তারিখ ১৮ মার্চ ২০১৮ 
  16. "Marnus Labuschagne: Glamorgan sign Australia batsman"BBC Sport। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৯ 
  17. "Marnus Labuschagne knock keeps Glamorgan unbeaten as match with Sussex is drawn"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৫ জুন ২০১৯ 
  18. "Stat attack - Marnus wins the race to 1000 runs"Glamorgan CCC। ২ জুলাই ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ৪ জুলাই ২০১৯ 
  19. Live ABC text commentary by Dean Bilton - ABC news. Retrieved 18 Dec 2014.
  20. "Maxwell out as Bulls, Finch bolt into Test squad"Cricket Australia। সংগ্রহের তারিখ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ 
  21. "Australia Test squad for UAE: The newcomers"International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ 
  22. "1st Test, Australia tour of United Arab Emirates at Dubai, Oct 7-11 2018"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৭ অক্টোবর ২০১৮ 
  23. [১][স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  24. "Australia name 17-man Ashes squad"cricket.com.au (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জুলাই ২০১৯ 
  25. "Bancroft, Wade and Mitchell Marsh earn Ashes call-ups"ESPNcricinfo (ইংরেজি ভাষায়)। ২৬ জুলাই ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জুলাই ২০১৯ 
  26. "Steven Smith withdrawn from Lord's Test due to concussion"ESPN Cricinfo। ১৮ আগস্ট ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১৮ আগস্ট ২০১৯ 
  27. "Smith out, Marnus in under new concussion rules"Cricket Australia। সংগ্রহের তারিখ ১৮ আগস্ট ২০১৯ 
  28. "Australia Labuschagne joins elite Test batting club"News24। সংগ্রহের তারিখ ২৪ আগস্ট ২০১৯ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]