নাথান হারিৎজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
নাথান হারিৎজ
Nathan Hauritz 3.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামনাথান মাইকেল হারিৎজ
জন্ম (1981-10-18) ১৮ অক্টোবর ১৯৮১ (বয়স ৩৮)
ওন্দাই, কুইন্সল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া
ডাকনামরিৎজ
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি অফ ব্রেক
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৩৯০)
৩ নভেম্বর ২০০৪ বনাম ভারত
শেষ টেস্ট৯ অক্টোবর ২০১০ বনাম ভারত
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ১৪৭)
২২ মার্চ ২০০২ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
শেষ ওডিআই২১ জানুয়ারি ২০১১ বনাম ইংল্যান্ড
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০০১-২০০৬কুইন্সল্যান্ড
২০০৬-২০১২নিউ সাউথ ওয়েলস
২০১১-২০১৪ব্রিসবেন হিট
২০১২–কুইন্সল্যান্ড
২০১৪–সিডনি থান্ডার
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ১৭ ৫৮ ৭৯ ১৭২
রানের সংখ্যা ৪২৬ ৩৩৬ ১,৭৪৭ ১,২০৮
ব্যাটিং গড় ২৫.০৫ ২২.৪০ ২১.০৪ ১৯.১৭
১০০/৫০ ০/২ ০/১ ২/৪ ০/২
সর্বোচ্চ রান ৭৫ ৫৩* ১৪৬ ৫৩*
বল করেছে ৪,২০০ ২,৭২৪ ১৫,৭৬৮ ৮,২৯৯
উইকেট ৬৩ ৬৩ ১৮৭ ১৯৬
বোলিং গড় ৩৪.৯৮ ৩৪.১৫ ৪৩.০২ ৩২.৮৭
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৫/৫৩ ৪/২৯ ৫/৩৯ ৪/২৯
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৩/– ২৪/– ৪৫/– ৬০/–
উৎস: Cricinfo, ২৪ ডিসেম্বর ২০১৪

নাথান মাইকেল হারিৎজ (/ˈhɒrɪts/; জন্ম: ১৮ অক্টোবর, ১৯৮১) কুইন্সল্যান্ডের ওন্দাই এলাকায় জন্মগ্রহণকারী অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার[১] আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অঙ্গনে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের পক্ষে টেস্ট, একদিনের আন্তর্জাতিকটুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে প্রতিনিধিত্ব করছেন। নাথান হারিৎজ মূলতঃ অফ স্পিন বোলিং করে থাকেন। বিগ ব্যাশ লীগে [[সিডনি থান্ডার|সিডনি থান্ডারের অন্যতম সদস্য তিনি।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

কিশোর অবস্থায় হারিৎজ হার্ভে বে ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনে খেলেন। অনূর্ধ্ব-১২ থেকে অনূর্ধ্ব-১৫ পর্যায়ের ক্রিকেটে ওয়াইড বে দলে প্রতিনিধিত্ব করেন। তন্মধ্যে ১৯৯৬ সালে নিউজিল্যান্ড সফরে কুইন্সল্যান্ড ডেভেলপম্যান্টের অনূর্ধ্ব-১৪ দলে অধিনায়কত্ব করেন।[২] ১৯৯৬-৯৭ থেকে ২০০০-০১ মৌসুমে কুইন্সল্যান্ডের অনূর্ধ্ব-১৭ ও অনূর্ধ্ব-১৯ পর্যায়ের দলে খেলেন। এছাড়াও, ১৯৯৯ সালে অস্ট্রেলিয়া অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সদস্যরূপে ইংল্যান্ড এবং ১৯৯৯-২০০০ মৌসুমে শ্রীলঙ্কা সফরে যান।[২]

ঘরোয়া ক্রিকেট[সম্পাদনা]

২০০১ সালে কুইন্সল্যান্ড বুলসের পক্ষে তার অভিষেক ঘটে। এরপর তিনি ২০০৬ সালে নিউ সাউথ ওয়েলস ব্লুজ দলে স্থানান্তরিত হন। ঐ মৌসুমে ১৭ খেলায় অংশ নিয়ে ৪২ উইকেট দখল করেন। তন্মধ্যে নিজস্ব সেরা বোলিং ৫/৩৯ পান।[৩] টুয়েন্টি২০ প্রতিযোগিতায়ও তিনি সমান দক্ষতা প্রদর্শনে সক্ষমতা দেখান। ২০০৯ সালে ভারতে অনুষ্ঠিত চ্যাম্পিয়ন্স লীগের উদ্বোধনী আসরে দলকে শিরোপা বিজয়ী সহায়তা করেন। চূড়ান্ত খেলায় কিরণ পোলার্ডকে আউট করে নিউ সাউথ ওয়েলসকে স্মরণীয় জয় এনে দেন তিনি।

২০১২ সালে কুইন্সল্যান্ড বুলসে ফিরে আসেন। বিগ ব্যাশ লীগের প্রথম তিন আসরে ব্রিসবেন হিটের পক্ষে খেলেন। তন্মধ্যে, দ্বিতীয় আসরে চূড়ান্ত খেলায় তিনি ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার পেয়েছিলেন।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে ১৭ টেস্ট ও ৫৮টি একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশ নিয়েছেন তিনি। ২২ মার্চ, ২০০২ তারিখে জোহানেসবার্গের ওয়ান্ডেরার্স স্টেডিয়ামে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে অনুষ্ঠিত একদিনের আন্তর্জাতিকের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অঙ্গনে পদার্পণ করেন। এরপর মে, ২০০৩ সাল পর্যন্ত অস্ট্রেলীয় নির্বাচকমণ্ডলীর সুপারিশক্রমে ধারাবাহিকভাবে তিনি আরও ৭ খেলায় অংশগ্রহণ করেন।[৪]

নভেম্বর, ২০০৪ সালে ভারত সফরের জন্য স্টুয়ার্ট ম্যাকগিলের পরিবর্তে হারিৎজ ও লেগ স্পিনার ক্যামেরন হোয়াইট অন্তর্ভুক্ত হন। এর কারণ হিসেবে দলে একমাত্র স্পিনার শেন ওয়ার্নের অন্তর্ভুক্তি ও ম্যাকগিলের খেলতে যাওয়ার অস্বীকৃতিকে নির্বাচকমণ্ডলী উল্লেখ করেন।

কিন্তু মুম্বাইয়ে অনুষ্ঠিত ৪র্থ টেস্টের প্রাক্কালে ওয়ার্ন আহত হওয়ায় হারিৎজ খেলার সুযোগ পান। পরবর্তীতে অবশ্য ম্যাকগিল দলে অন্তর্ভুক্ত হন। শচীন তেন্ডুলকরভিভিএস লক্ষ্মণের উইকেটসহ প্রথম ইনিংসে ৩/১৬ সহ খেলায় ১০৩ রানে ৫ উইকেট পান।[১] অস্ট্রেলিয়া ফিরে ঘরোয়া ক্রিকেটে সুবিধা করতে না পারায় এরপর কোন টেস্টে খেলার সুযোগ পাননি। অবশেষে চার বছর পর নভেম্বর, ২০০৮ সালে সফরকারী নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে অ্যাডিলেড ওভালে জেসন ক্রেজা'র গোড়ালির আঘাতজনিত কারণে অন্তর্ভুক্ত হন।[৫][৬] খেলায় তিনি চার উইকেট পেলেও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে পার্থে অনুষ্ঠিত পরের টেস্টে ক্রেজার সুস্থতায় তাকে নেয়া হয়নি। কিন্তু অস্ট্রেলিয়া পরাজিত হলে ক্রেজা বাদ পড়েন ও পরের দুই টেস্টে তাকে আবারো দলে নেয়া হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Player Profile: Nathan Hauritiz"। Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৭-২৪ 
  2. "Player Profile: Nathan Hauritz"। Hervey Bay Cricket Association। ২০১১-০৭-০৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৭-২৪ 
  3. "Nathan Hauritz's Cricinfo Profile"sydneythunder। ২০১৫-০৫-২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ 2015-7-19  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  4. "StatsGuru Search: Nathan Hauritz One-day Internationals"। Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৭-২৪ 
  5. "Hilfenhaus in for MCG as Krejza dropped"। Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৭-২৪ 
  6. Brown, Alex (২০০৮-১১-২৮)। "Tweak in, tweak out—Hauritz gets his turn"। The Sydney Morning Herald। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১২-০৩ 
ক্রীড়া অবস্থান
পূর্বসূরী
ক্যামেরন কাফি
পেশাদার নেলসন ক্রিকেট ক্লাব
২০০৫
উত্তরসূরী
রবিন পিটারসন