শন অ্যাবট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
শন অ্যাবট
Sean Abbott.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম শন অ্যান্থনি অ্যাবট
জন্ম (১৯৯২-০২-২৯) ২৯ ফেব্রুয়ারি ১৯৯২ (বয়স ২৫)
উইন্ডসর, নিউ সাউথ ওয়েলস, অস্ট্রেলিয়া
উচ্চতা ১.৮৩ মিটার (৬ ফুট ০ ইঞ্চি)
ব্যাটিংয়ের ধরণ ডানহাতি
বোলিংয়ের ধরণ ডানহাতি মিডিয়াম
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
একমাত্র ওডিআই (ক্যাপ ২০৫) ৭ অক্টোবর ২০১৪ বনাম পাকিস্তান
টি২০আই অভিষেক (ক্যাপ ৬৮) ৫ অক্টোবর ২০১৪ বনাম পাকিস্তান
শেষ টি২০আই ৯ নভেম্বর ২০১৪ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছর দল
২০১০– নিউ সাউথ ওয়েলস (দল নং ৭৭)
২০১১-২০১৩ সিডনি থান্ডার (দল নং ৭৭)
২০১৩– সিডনি সিক্সার্স (দল নং ৭৭)
২০১৫- রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা ওডিআই টি২০আই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ১৬ ২৯
রানের সংখ্যা ৩১৯ ৩৮৬
ব্যাটিং গড় ৩.০০ ৫.০০ ১৪.৫০ ২১.৪৪
১০০/৫০ ০/০ ০/০ ০/১ ০/১
সর্বোচ্চ রান ৫৮ ৫০
বল করেছে ৩০ ৩৬ ২,১২৮ ১,২১৬
উইকেট ৪৬ ৪৫
বোলিং গড় ২৫.০০ ৪৭.০০ ২৯.৫০ ২৪.৩৫
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট - - -
সেরা বোলিং ১/২৫ ১/১৭ ৬/১৪ ৪/৩৬
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ০/– ২/– ৭/– ১২/–
উত্স: ক্রিকেট আর্কাইভ, ১২ ডিসেম্বর ২০১৪

শন এ্যান্থনি অ্যাবট (ইংরেজি ভাষায়: Sean Abbott; জন্ম: ২৯ ফেব্রুয়ারি, ১৯৯২) নিউ সাউথ ওয়েলস অঙ্গরাজ্যের উইন্ডসের জন্মগ্রহণকারী অস্ট্রেলিয়ার প্রথিতযশা ক্রিকেটার। বলখাম হিলস ক্রিকেট ক্লাবে চমকপ্রদ ক্রীড়ানৈপুণ্য প্রদর্শন করে পরমাত্মা জেলার পক্ষে গ্রেড ক্রিকেটে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেন। খেলায় তিনি মূলতঃ অল-রাউন্ডারের ভূমিকা পালন করেন। ডানহাতে ব্যাটিংসহ ডানহাতে মিডিয়াম পেস বোলিংয়ে পারদর্শী তিনি।[১] লিস্ট এ ক্রিকেটে নিউ সাউথ ওয়েলস দলে অভিষেক ঘটে তার। ১৭ অক্টোবর, ২০১০ তারিখে সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তার এ অভিষেক ঘটে। শন অ্যাবট এ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়া অনূর্ধ্ব-১৯, নিউ সাউথ ওয়েলস, নিউ সাউথ ওয়েলস অনূর্ধ্ব-১৭, নিউ সাউথ ওয়েলস অনূর্ধ্ব-১৯ দলে খেলেছেন। এছাড়াও, সিডনি গ্রেড ক্রিকেট প্রতিযোগিতায় সিডনি বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে মাঠে নেমেছেন।[২]

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

৫ অক্টোবর, ২০১৪ তারিখে সংযুক্ত আরব আমিরাতের নিরপেক্ষ মাঠে অনুষ্ঠিত খেলায় পাকিস্তানের বিপক্ষে তার টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে।[৩] এর দুইদিন পর একই দলের বিপক্ষে একদিনের আন্তর্জাতিকে অভিষেক ঘটে তার।[৪] তারপর তিনি নভেম্বর, ২০১৪ সালের প্রথমদিকে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আরও দু’টি টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ করেন।

ফিলিপ হিউজের মৃত্যু[সম্পাদনা]

মূল নিবন্ধ: ফিলিপ হিউজ

২৫ নভেম্বর, ২০১৪ তারিখে সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে অনুষ্ঠিত শেফিল্ড শিল্ডের একটি খেলায় সাউথ অস্ট্রেলিয়া ও নিউ সাউথ ওয়েলস প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছিল। এ সময় তার অপ্রত্যাশিত বাউন্সারে হেলমেট পরিহিত স্বদেশী উদীয়মান ক্রিকেটার ও সাউথ অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যান ফিলিপ হিউজের মাথায় আঘাত লাগে। এ সময় হিউজ ৬৫ রানে অপরাজিত ছিলেন। তাকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু সিডনি’র সেন্ট ভিনসেন্ট’স হাসপাতালে দুইদিন পর অসফল অস্ত্রোপচারে মাত্র ২৫-বছর বয়সী হিউজের অকালমৃত্যু ঘটে যা বেশ দূর্ভাগ্যজনক।[৫] এ প্রেক্ষিতে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া খেলাটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করে। দেশের অন্যত্র চলমান দু’টি খেলাও একই কারণে পরিত্যক্ত হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Sean Abbott"cricket.com.auCricket Australia। সংগৃহীত ২৯ মে ২০১৫ 
  2. "Sean Abbott"http://www.espncricinfo.com। সংগৃহীত ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ 
  3. "Australia tour of United Arab Emirates, Only T20I: Pakistan v Australia at Dubai (DSC), Oct 5, 2014"ESPN Cricinfo। সংগৃহীত ৫ অক্টোবর ২০১৪ 
  4. "Australia tour of United Arab Emirates, 1st ODI: Australia v Pakistan at Sharjah, Oct 7, 2014"ESPN Cricinfo। সংগৃহীত ৭ অক্টোবর ২০১৪ 
  5. "Australia batsman phillip hughes dies from head injury"IANS। Worldsnap। সংগৃহীত ২৭ নভেম্বর ২০১৪ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]