সুরিনামে ইসলাম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

সরকারী তথ্য অনুসারে, ২০১২ সালের হিসাবমতে সুরিনামের মুসলিম জনসংখ্যা দেশটির মোট জনসংখ্যার প্রায় ১৩.৯ শতাংশকে প্রতিনিধিত্ব করে, যা শতকরা হিসাবে দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের মধ্যে সর্বোচ্চ। যদিও তাদের সিংহভাগই ইসলামের সুন্নী সম্প্রদায় এবং সুফিবাদ ও জাভানিজ কেজাওয়ানের মতো কিছু সংশ্লেষীয় গোষ্ঠীর অন্তর্ভুক্ত।

কেউ কেউ অনুমান করেন যে, মুসলমানরা প্রথমে পশ্চিম আফ্রিকা থেকে দাস হয়ে সুরিনামে এসেছিল এবং পরে সময়ের সাথে সাথে খ্রিস্টান ধর্মে ধর্মান্তরিত হয়েছিল; যদিও এই অনুমানের খুব কম প্রমাণ রয়েছে। প্রকৃত মুসলিম জনগোষ্ঠীর পূর্বপুরুষরা দক্ষিণ এশিয়া এবং ইন্দোনেশিয়া থেকে আগত শ্রমিক হিসাবে এদেশে এসেছিলেন, যাদের থেকেই আজকের সুরিনামের বেশিরভাগ মুসলমান বংশোদ্ভূত।

যেহেতু ইন্দোনেশিয়া (জাভা) এবং দক্ষিণ এশিয়া (আজকের ভারত, পাকিস্তান এবং বাংলাদেশ) থেকে আগত অভিবাসীদের মাধ্যমেই সুরিনামে ইসলাম পৌঁছেছিল ও তারা তাদের ইসলামের স্থানীয় রূপকে সুরিনামে নিয়ে এসেছিল, তাই এই অঞ্চলগুলি শক্তিশালীভাবে সেটির মাধ্যমে প্রভাবিত হয়েছিল। বংশোদ্ভূত ছাড়াও, বেশিরভাগ সুরিনামি মুসলমান একই সংস্কৃতির এবং একই ভাষায় কথা বলে। সুরিনামে অল্প সংখ্যক আফগান মুসলমান এবং তাদের জন্মগত শিশু রয়েছে।[১]

জনমিতি[সম্পাদনা]

২০১২ সালের আদমশুমারি অনুসারে সুরিনামে ৭৫,০৫৩ জন মুসলমান রয়েছেন।[২] এই সংখ্যা ২০০৪ সালের ৬৬,৩০৭ জন মুসলমান থেকে বেশি। তবে, গত অর্ধ শতাব্দীতে মুসলমানদের হার ১৯.৬% থেকে কমে ১৩.৯% এ দাঁড়িয়েছে। সুরিনামে মুসলমানদের অংশীদারত্ব হ্রাস পাওয়ার মূল কারণ হল জাভানিজ বংশোদ্ভূত আহমাদীয়া মুসলমানদের সর্বশেষ বছরগুলিতে খ্রিস্টধর্মে ব্যাপকভাবে রূপান্তরিত হওয়া।[৩] ১৯৭১ থেকে ২০১২ সালের মধ্যে জাতিগত জাভানীয়দের মধ্যে খ্রিস্টধর্মের হার ৯% থেকে বেড়ে ২১% (+ ১২%) হয়ে দাঁড়িয়েছে, আর জাভানিজ মুসলমানদের হার ৮৫% থেকে হ্রাস পেয়ে ৬৭% (-১৮%) হয়েছে। মূলত নেদারল্যান্ডসে বাসস্থান পরিবর্তন এবং উর্বরতার হার হ্রাস পাওয়ার কারণে, একই সময়ে ইন্দো-সুরিনামিজ বংশোদ্ভূত মুসলমানদের হার ১৭% থেকে ১৩% এ কমেছে (-৪%)। মারুন জাতির মধ্যে মুসলমানদের হার দ্বিগুণ হয়ে ০.১% থেকে ০.২% হয়েছে।

বছর[৪] সুরিনাম (জনসংখ্যা) মুসলিম জনসংখ্যা হার (%)
১৯৬৪ ৩২৪,৮৯৩ ৬৩,৮০৯ ১৯.৬%
১৯৭১ ৩৭৯,৬০৭ ৭৪,১৭০ ১৯.৫%
১৯৮০ ৩৫৫,২৪০ ৬৯,৭১৩ ১৯.৬%
২০০৪ ৪৯২,৮২৯ ৬৬,৩০৭ ১৩.৫%
২০১২ ৫৪১,৬৩৮ ৭৫,০৫৩ ১৩.৯%

সুরিনামের বেশিরভাগ মুসলিমদের মধ্যে আহলুল হাদিস (৫৩%), তারপরে সুন্নি (২৮%) এবং আহমদিয়া (১৯%) রয়েছেন।

জাতিগত গোষ্ঠী[সম্পাদনা]

জাভানিজ সুরিনামির (৬৭%) জনগণের মধ্যে ইসলাম প্রধান ধর্ম এবং ইন্দো-সুরিনামিজ (১৩%) এবং বহু জাতির (৮%) মধ্যে দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্ম।

২০১২ পর্যন্ত জাতিগত গোষ্ঠী অনুসারে ইসলাম
জাতিগত গোষ্ঠী জনসংখ্যা মুসলমানরা %
জাভানিজ সুরিনামেস ৭৩,৯৭৫ ৪৯,৫৩৩ ৬৭.০%
ইন্দো-সুরিনামিজ ১৪৮,৪৪৩ ১৮,৭৩৪ ১২.৬%
বহু জাতির লোক ৭২,৩৪০ ৫,৪৭১ ৭.৬%
সমস্ত আফ্রো-সুরিনামিজ ২০৬,৪২৩ ৬২১ ০.৩%
আমেরিন্ডিয়ানরা ২০,৩৪৪ ১৩৮ ০.৭%
চাইনিজ সুরিনামিজ ৭,৮৮৫ ১১২ ১.৪%
সাদা সুরিনামেস ১,৬৬৫ ৩২ ১.৯%
অন্য এবং অনির্বচনীয় ১০,৫৬১ ৪১২ ৩.৯%

ভৌগোলিক বিন্যাস[সম্পাদনা]

পারমারিবোর মসজিদ

মুসলমানদের (বেশিরভাগ জাভানি সুরিনামিজ ) সিংহভাগ কমেউইজনে জেলাতে থাকেন, তারপরে আছে নিকেরি জেলা এবং ওয়ানিকা জেলা (বেশিরভাগ ইন্দো-সুরিনামিজ )।

২০০৪ সালের আদমশুমারি অনুসারে জেলাতে মুসলমানদের ভাগ্য
জেলা মুসলমানদের শতকরা হার
কমেউইজনে জেলা ৪০.৪%
নিকেরি ২২.৫%
ওয়ানিকা ২১.৭%
সরমাক্কা ১৮.৮%
প্যারা ১১.৩%
করনি ১১.০%
পারমারিবো ৯.৪%
মারোইজনে ৬.৮%
ব্রুকোপন্ডো ০.২%
সিপালিনী ০.১%
সুরিনাম ১৩.৫%

আন্তর্জাতিক[সম্পাদনা]

সুরিনাম (১৯৯৬ সাল থেকে) এবং গায়ানা (১৯৯৮ সাল থেকে) যুক্তরাষ্ট্রে অঞ্চলের একমাত্র দেশ যারা ইসলামিক সহযোগিতা সংস্থার সদস্য দেশ।[৫]

উল্লেখযোগ্য মুসলমান[সম্পাদনা]

  • রাশিদ দোখী, রাজনীতিবিদ
  • পল সোমোহারডজো, রাজনীতিবিদ

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. The Afghan muslims of Guyana and Suriname
  2. [১]
  3. (Dutch ভাষায়) MOZAÏEK VAN HET SURINAAMSE VOLK: VOLKSTELLINGEN IN DEMOGRAFISCH, ECONOMISCH EN SOCIAAL PERSPECTIEF "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ২০১৭-০৯-০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৫-০৯  page 118
  4. Muslim Population in the Americas: 1950 – 2020 page 7
  5. Member States of the Organisation of Islamic Cooperation ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২০১৩-১২-০৯ তারিখে

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]