বেলারুশে ইসলাম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ইউরোপে ইসলাম
দেশের জনসংখ্যা অনুযায়ী শতকরা হার[১]
  ৯০–১০০%
  ৭০–৮০%
কাজাখস্তান
  ৫০–৭০%
  ৩০–৫০%
উত্তর মেসেডোনিয়া
  ১০–২০%
  ৫–১০%
  ৪–৫%
  ২–৪%
  ১–২%
  < ১%
নাভাহরুদক এ অবস্থিত মসজিদ।

 

বেলারুশের ইসলামের দীর্ঘ ইতিহাস রয়েছে। এটি চতুর্দশ থেকে ষোড়শ শতাব্দীতে লিপকা তাতারদের মাধ্যমে বর্তমান বেলারুশকে গঠনকারী ভূখণ্ডগুলিতে প্রবর্তিত হয়। ২০০৭ সালের হিসাবে, বেলারুশে ৪৫,০০০ জন মুসলমান আছে, যারা মোট জনসংখ্যার ০.৫% কে প্রতিনিধিত্ব করে।[২]

আধুনিক যুগে[সম্পাদনা]

১৯৯৪ সালে, প্রথম অল-বেলারুশিয়ান কংগ্রেস অব মুসলিমস অনুষ্ঠিত হয়। ফলস্বরূপ, বেলারুশ প্রজাতন্ত্রের মুসলিম ধর্মীয় সম্প্রদায় প্রতিষ্ঠিত হয়।সেই থেকে ডঃ ইসমাইল আলেকসান্দ্রোভিচের এটির নেতৃত্বে আছেন।

১৯৯৭ সালে বেলারুশের পশ্চিমাঞ্চলের অঞ্চলগুলির ১৯ টি সহ ২৩ টি সম্প্রদায় ছিল।

২০০৭ সালে, আহমদিয়া মুসলমানদের বেলারুশ রাজ্যে প্রকাশ্যে তাদের বিশ্বাস অনুশীলন করতে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছিল এবং দেশের অন্যান্য নিষিদ্ধ ধর্মীয় গোষ্ঠীগুলিকে অনুরূপ অবস্থা অর্পিত করা হয়। রাষ্ট্রীয় নিবন্ধন পেতে অক্ষম হওয়ায়, দেশটিতে ১০ জন স্থানীয় বেলারুশিয়ান সহ প্রায় ৩০ জন আহমদীয়া মুসলমান, তাদের শিক্ষা আনয়ন বা বিতরণ, প্রার্থনা বা সভার জন্য সমষ্টিগতভাবে একত্রিত হওয়া এবং সরকারী কোন প্রতিনিধি থাকার মতো কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে পরিচালনা করতে পারেন না।[৩]

বেলারুশ হ'ল ইউরোপের একমাত্র দেশ যা ইসলামের নবী মুহাম্মদের ডেনিশ কার্টুন প্রকাশের জন্য একটি সংবাদপত্রের সম্পাদককে জেলে বন্দি করে। ১৮ ই জানুয়ারী, ২০০৮ এ, আলেকজান্ডার এসডভিজকভকে 'ধর্মীয় বিদ্বেষের উস্কানি' দেওয়ার জন্য তিন বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছিল।[৪]

বর্তমানে গ্রোডনো অঞ্চলের এসমিলোভচি আইভে, স্লোনিম এবং নভোগ্রুডক; মিনস্ক অঞ্চলের ক্লেটস্কে; এবং ভিটেমস্ক অঞ্চলের ভিডিজিতে মসজিদ রয়েছে।[৫] ১৯০০ থেকে ১৯০২ সাল পর্যন্ত মিনস্কে একটি মসজিদ নির্মিত হয়। ষাট বছর পরে এটি কমিউনিস্টরা ধ্বংস করে দেয়। ১১ নভেম্বর, ২০১৬-এ মিনস্কে মসজিদটির একটি অবিকল প্রতিরুপ খোলা হয়।[৬]

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Religious Composition by Country, 2010-2050"পিউ রিসার্চ সেন্টার। ১২ এপ্রিল ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২২ অক্টোবর ২০১৭ 
  2. "BELARUS with VNESHINTOURIST Travel Agency -> MOHAMMEDANISM"। ১২ মার্চ ২০০৭। ১২ মার্চ ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  3. "Belarus: Ahmadiyya Muslims among banned religious organisations"। Forum18.org। ২২ এপ্রিল ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৫-২০ 
  4. Norris, Harry (2009). Islam in the Baltic. I.B. Tauris: London. p. 130. আইএসবিএন ৯৭৮-১-৮৪৫১১-৫৮৭-৬
  5. Moslems in Belarus Prepare to Celebrate Muhammad's Birthday ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২০১৪-০৬-০৫ তারিখে
  6. "7 Facts About Minsk Mosque To Be Open By Belarus, Turkey Presidents"। ১০ নভেম্বর ২০১৬। ১৪ নভেম্বর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ মে ২০২১ 

 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]