প্রবেশদ্বার:সৌদি আরব

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

সৌদি আরব প্রবেশদ্বার – بوابة المملكة العربية السعودية

সৌদি আরবের জাতীয় পতাকা

সৌদি আরবের জাতীয় প্রতীক
সৌদি আরবের অবস্থান

সৌদি আরব, সরকারিভাবে সৌদি আরব সম্রাজ্য (আরবি: المملكة العربية السعودية‎, প্রতিবর্ণী. আল-মামলাকাতুল-আরাবীয়াতুস-সূঊদিয়া‎) মধ্যপ্রাচ্যের একটি সার্বভৌম আরব রাষ্ট্র। ২১,৫০,০০০ বর্গ কিমি আয়তনের এদেশটি এশিয়ার সবচেয়ে বড় আরব দেশ এবং আলজেরিয়ার পরে আরব বিশ্বে দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ। সৌদি আরবের উত্তরে জর্দানইরাক, উত্তরপূর্বে কুয়েত ,পূর্বে কাতার, বাহরাইন এবং সংযুক্ত আরব আমিরাত অবস্থিত, দক্ষিণপুর্বে ওমান ও দক্ষিণে ইয়েমেন অবস্থিত।

সৌদি আরব মূলত চারটি সতন্ত্র অঞ্চল হেজাজ, নজদ, আল হাসা পুর্বাঞ্চলীয় আরব এবং আসির দক্ষিণাঞ্চলীয় আরব নিয়ে গঠিত। আবদুল আজিজ ইবনে সৌদ ১৯৩২ সালে সৌদি আরব সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি ১৯০২ সালের শুরুতে রিয়াদ ও তার পুর্বপুরুষের রাজ্য দখলসহ ধারাবাহিক যুদ্ধের মাধ্যমে চারটি অঞ্চলকে একত্রিত করে একটি রাষ্ট্রে পরিণত করেন। দেশটি পুরোপুরি রাজতান্ত্রিক পদ্ধতিতে পরিচালিত হয় এবং আইনের ক্ষেত্রে ইসলামি আইনের অনুসরণ করা হয়। ইসলামের দুই পবিত্র মসজিদ মসজিদুল হারামমসজিদে নববীর কারণে সৌদি আরবকে দুই পবিত্র মসজিদের দেশ বলা হয়। দেশটিতে ২,৮৭,০০০০০ জন বাস করে যার মধ্যে দুই কোটি সৌদিয়ান আর ৮৭,০০,০০০ জন বিদেশী।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন] পৃথিবীর অন্যতম প্রধান সর্বোচ্চ তেল উৎপাদন ও রপ্তানিকারক এবং পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম হাইড্রোকার্বন মজুদকারি দেশ।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন] এই তেলের কারণে দেশটির অর্থনীতি যেমন বাড়ছে তেমনিভাবে এর মানব সম্পদ উন্নয়ন সূচকেও উপরের দিকে। তাছাড়াও একমাত্র আরব দেশ হিসেবে জি-২০ প্রধান অর্থনৈতিক শক্তির সদস্য। দেশটি তার অর্থনীতিকে কর্পোরেশন কাউন্সিল ফর দ্য আরব স্টেটস অব দ্য গালফ (জিসিসি) এর মধ্যে ডাইভারইসিফাইড করছে। পৃথিবীর চতুর্থ সর্বোচ্চ সামরিক খরচ বহনকারী দেশ সৌদি আরব।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন] দেশটিকে মধ্যপ্রাচ্যের ক্ষমতাধর দেশ হিসেবে ধরা হয়। সৌদি আরব জিসিসি, ওআইসি ও ওপেক এর সদস্য।

নির্বাচিত নিবন্ধ - আরেকটি দেখান

Saudi Arabia map.png

সৌদি আরবের একত্রীকরণ ছিল আল সৌদ কর্তৃক পরিচালিত একটি সামরিক ও রাজনৈতিক অভিযান। সৌদ পরিবার এতে আরব উপদ্বীপের অধিকাংশ অঞ্চলের বিভিন্ন গোত্র, শেখ শাসনাধীন এলাকা, আমিরাতরাজ্যকে জয় করে নেয়। ১৯০২ থেকে ১৯৩২ খ্রিষ্টাব্দের মধ্যে এই একত্রীকরণ সম্পন্ন হয় এবং এর মাধ্যমে আধুনিক সৌদি আরব জন্মলাভ করে। এতে নেতৃত্ব দেন আবদুল আজিজ ইবনে সৌদ। সৌদি আরবকে কখনো কখনো তৃতীয় সৌদি রাষ্ট্র বলে উল্লেখ করা হয়। এর পূর্বে প্রথমদ্বিতীয় সৌদি রাষ্ট্র গঠিত হয়েছিল। তবে সেগুলো পরবর্তীতে ভেঙে যায়।

দ্বিতীয় সৌদি রাষ্ট্রের পতনের পর ১৮৯৩ সাল থেকে সৌদ পরিবার উসমানীয় ইরাকে নির্বাসিত ছিল। এসময় আল রশিদদের অধীনে জাবাল শামার আমিরাত বৃদ্ধি পায়। ১৯০২ সালে আবদুল আজিজ ইবনে সৌদ রিয়াদ পুনর্দখল করেন। এটি আল সৌদ রাজবংশের প্রাক্তন রাজধানী ছিল। ১৯১৩ থেকে ১৯২৬ সালের মধ্যে তিনি বাকি নজদ, হাসা, জাবাল শামার আমিরাত, আসিরহেজাজ (ইসলামের পবিত্র শহর মক্কামদিনা এসময় হেজাজের অন্তর্ভুক্ত ছিল) জয় করতে অগ্রসর হন। ১৯২৭ সালে এসময় বিজিত অঞ্চল নিয়ে নজদ ও হেজাজ রাজতন্ত্র গঠিত হয়। পরবর্তীতে তা আল হাসা ও কাতিফের সাথে যুক্ত হয়ে ১৯৩২ সালে সৌদি আরব হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। (সম্পূর্ণ নিবন্ধ...)
নির্বাচিত নিবন্ধসমূহের তালিকা

সম্পর্কিত প্রবেশদ্বার

উইকিপ্রকল্পসমূহ

আপনি যা করতে পারেন

Appunti architetto franc 01.svg

Symbol support vote.svg ভালো নিবন্ধ - আরেকটি দেখান

এটি একটি ভালো নিবন্ধ, একটি নিবন্ধ যা উচ্চ সম্পাদকীয় মানদণ্ডের একটি মূল শর্তগুলো পূরণ করে।

মুহাম্মাদ, আল্লাহর রাসুল
মদিনায় মসজিদে নববী এর দরজায় খোদাই করা

মুহাম্মাদ (আরবি: مُحَمَّد‎‎; মোহাম্মদ এবং মুহম্মদ নামেও পরিচিত) ছিলেন একজন আরবের ধর্মীয়, সামাজিক এবং রাজনৈতিক নেতা এবং ইসলাম ধর্মের প্রতিষ্ঠাতা। ইসলামি মতবাদ অনুসারে, তিনি হলেন ঐশ্বরিকভাবে প্রেরিত ইসলামের সর্বশেষ নবী (আরবি: النبي‎‎; আন-নাবিয়্যু) তথা ‘বার্তাবাহক’ ও রাসুল (আরবি: الرسول‎‎; আল-রাসুল), যার উপর ইসলামের প্রধান ধর্মগ্রন্থ কুরআন অবতীর্ণ হয়। আদম, ইব্রাহিম, মূসা, ইসা (যিশু) এবং অন্যান্য নবিদের মতোই মুহাম্মদ একেশ্বরবাদী শিক্ষা প্রচার করার জন্য প্রেরিত। অমুসলিমদের মতে, তিনি ইসলামি জীবনব্যবস্থার প্রবর্তক। অধিকাংশ ইতিহাসবেত্তা ও বিশেষজ্ঞদের মতে, মুহাম্মাদ ছিলেন পৃথিবীর ইতিহাসে অন্যতম প্রভাবশালী রাজনৈতিক, সামাজিক ও ধর্মীয় নেতা। তার এই বিশেষত্বের অন্যতম কারণ হচ্ছে আধ্যাত্মিক ও জাগতিক উভয় জগতেই চূড়ান্ত সফলতা অর্জন। তিনি ধর্মীয় জীবনে যেমন সফল ছিলেন, তেমনই রাজনৈতিক জীবনেও। সমগ্র আরব বিশ্বের জাগরণের পথিকৃৎ হিসেবে তিনি অগ্রগণ্য; বিবাদমান আরব জনতাকে একীভূতকরণ তার জীবনের অন্যতম সাফল্য। কুরআনের পাশাপাশি তার শিক্ষা এবং অনুশীলনগুলো ইসলামি ধর্মীয় বিশ্বাসের ভিত্তি স্থাপন করে।

আনুমানিক ৫৭০ খ্রিষ্টাব্দে (হস্তিবর্ষ) মক্কা নগরীতে জন্ম নেওয়া মুহাম্মাদ মাতৃগর্ভে থাকাকালীন পিতা হারা হন। শৈশবে মাতাকে হারিয়ে এতিম হন এবং প্রথমে তার পিতামহ আবদুল মুত্তালিব ও পরে পিতৃব্য আবু তালিবের নিকট লালিত-পালিত হন। হেরা পর্বতের গুহায় ৪০ বছর বয়সে তিনি নবুয়ত লাভ করেন। জিবরাঈল ফেরেশতা এই পর্বতের গুহায় আল্লাহর তরফ থেকে তার নিকট ওহী নিয়ে আসেন। ৬১০ খ্রিষ্টাব্দে মুহাম্মাদ প্রকাশ্যে ওহী প্রচার করেন এবং ঘোষণা দেন, "আল্লাহ্ এক" ও তার নিকট নিজেকে সমর্পিত করে দেওয়ার মধ্যেই জাগতিক কল্যাণ নিহিত। (সম্পূর্ণ নিবন্ধ...)
ভালো নিবন্ধসমূহের তালিকা

আপনি জানেন কি

বিষয়সমূহ

বিষয়শ্রেণী

বিষয়শ্রেণী ধাঁধা
উপবিষয়শ্রেণী দেখার জন্য [►] সিলেক্ট করুন

সাধারণ চিত্রাবলী

উল্লেখযোগ্য বিষয়বস্তু

মনোনীত নিবন্ধসমূহ

ভালো নিবন্ধসমূহ

সম্পর্কিত উইকিপিডিয়া

Wikinews-logo.svg
উইকিসংবাদে সৌদি আরব
উন্মুক্ত সংবাদ উৎস

Wikiquote-logo.svg
উইকিউক্তিতে সৌদি আরব
উক্তি-উদ্ধৃতির সংকলন

Wikisource-logo.svg
উইকিসংকলনে সৌদি আরব
উন্মুক্ত পাঠাগার

Wikibooks-logo.png
উইকিবইয়ে সৌদি আরব
উন্মুক্ত পাঠ্যপুস্তক ও ম্যানুয়াল

Wikiversity-logo.svg
উইকিবিশ্ববিদ্যালয়ে সৌদি আরব
উন্মুক্ত শিক্ষা মাধ্যম

Commons-logo.svg
উইকিমিডিয়া কমন্সে সৌদি আরব
মুক্ত মিডিয়া ভাণ্ডার

Wiktprintable without text.svg
উইকিঅভিধানে সৌদি আরব
অভিধান ও সমার্থশব্দকোষ

Wikidata-logo.svg
উইকিউপাত্তে সৌদি আরব
উন্মুক্ত জ্ঞানভান্ডার

Wikivoyage-Logo-v3-icon.svg
উইকিভ্রমণে সৌদি আরব
উন্মুক্ত ভ্রমণ নির্দেশিকা

উৎসসমূহ

প্রবেশদ্বার

সার্ভার ক্যাশ খালি করুন