খতমে নবুয়ত

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

খতমে নবুয়ত ইসলামী শরীয়তে একটি বিষয়। ইসলামি পরিভাষায় মুহাম্মদ সর্বশেষ নবীরাসূল এরূপ বিশ্বাসকে খতমে নবুয়ত বলা হয়।

ধারণা[সম্পাদনা]

খতমে নবুয়ত শব্দটি আরবি শব্দ ‎ﺧَﺗَﻢَ‏‎(শেষ,সমাপ্তি) ও ‎ﻨَّﺒِﻭَ‏‎(নবুয়ত,পয়গম্বরী,নবীত্ব) এর সমন্বয়ে গঠিত। সুতরাং খতমে নবুয়ত অর্থ নবীগণের সমাপ্তি। ইসলামি শরীয়তানুযায়ী মুহাম্মদ শেষ নবী এরূপ বিশ্বাসকে বা মুহাম্মদ শেষ নবী এরূপ মেনে নেওয়াকে খতমে নবুয়ত বলে।

কুরআনে সংঘটন[সম্পাদনা]

খতমে নবুয়ত একটি প্রমাণিত বিশ্বাস। নিচে এর দলিল দেওয়া হল:

আল্লাহ কুরআনে উল্লেখ করছেন,

তাফসীর কারক আল্লামা ইমাম ইবনে কাসীর বলেন,

মুহাম্মাদ বলেন,

সাহাবী আবু হুরাইরা হতে বর্ণিত, মুহাম্মাদ বলেন: "আমি এবং পূর্ববর্তী অন্যান্য নবীদের উদাহরণ হল, এক লোক একটি ঘর অত্যন্ত সুন্দর করে তৈরী করল। কিন্তু ঘরের এক কোনে একটা ইট ফাঁকা রেখে দিল। লোকজন চর্তুদিকে ঘুরে ঘরে তার সৌন্দর্য্য দেখে বিমোহিত হচ্ছে কিন্তু বলছে, এ ফাঁকা জায়গায় একটি ইট বসালে কতই না সুন্দর হত!" তিনি আরো বলেন, "আমি হলাম সেই ইট এবং আমি হলাম সর্বশেষ নবী।"[২]

যৌক্তিক প্রমাণ[সম্পাদনা]

যুক্তি থেকে বিচার করলে দেখা যায় নবীরা আসতেন তিনটি কারণে:

  1. পূর্ববর্তী নবীর ধর্মের আইন বিকৃত হয়ে গেলেটী৩
  2. পূর্ববর্তী নবী কোনো নির্দিষ্ট কাল বা স্থানের জন্য প্রেরিত হলে,টী৪
  3. পূর্ববর্তী নবীর শরিয়তে সংযোজন বা বিয়োজন প্রয়োজন হলে

কিন্তু মুহাম্মদের জন্য এদের একটিরও প্রয়োজন নেই। তাই আর নবী আসার প্রয়োজন নেই।টী৫

টীকা[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. (তিরমিযী ৮/১৫৬ হাদীস নং ৩৭১০)
  2. (বুখারী, হাদীস নং ৩২৭১ মুসলিম হাদীস নং ৪২৩৯)