বিষয়বস্তুতে চলুন

পিংনা ইউনিয়ন

স্থানাঙ্ক: ২৪°৫৫′১৭″ উত্তর ৮৯°৫৭′২৯″ পূর্ব / ২৪.৯২১৩৯° উত্তর ৮৯.৯৫৮০৬° পূর্ব / 24.92139; 89.95806
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পিংনা
ইউনিয়ন
৫নং পিংনা ইউনিয়ন পরিষদ।
পিংনা ময়মনসিংহ বিভাগ-এ অবস্থিত
পিংনা
পিংনা
পিংনা বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
পিংনা
পিংনা
বাংলাদেশে পিংনা ইউনিয়নের অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৪°৫৫′১৭″ উত্তর ৮৯°৫৭′২৯″ পূর্ব / ২৪.৯২১৩৯° উত্তর ৮৯.৯৫৮০৬° পূর্ব / 24.92139; 89.95806 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশবাংলাদেশ
বিভাগময়মনসিংহ বিভাগ
জেলাজামালপুর জেলা
উপজেলাসরিষাবাড়ী উপজেলা উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
ওয়েবসাইটদাপ্তরিক ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
মানচিত্র
মানচিত্র

পিংনা (পুরাতন নামঃ ইদলপুর) ইউনিয়ন বাংলাদেশের ময়মনসিংহ বিভাগের জামালপুর জেলার সরিষাবাড়ী উপজেলার অন্তর্গত একটি ইউনিয়ন।[১][২]

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

গ্রাম সমূহের তালিকাঃ ১. পিংনা (উওর, দক্ষিণ পাড়া, ঘোনাপাড়া, এবং আরএম পাড়া), ২. গোপালগঞ্জ হাট, ৩. চিতুলিয়াপাড়া, ৪. রসপাল, ৫. নলসোন্দা, ৬. মীরকুটিয়া, ৭. বারইপটল, ৮. ফুল দহের পাড়া, ৯. কাওয়ামারা, ১০. মেদুর, ১১. দড়ি মেইয়া (বাঘ আছরা), ১২. মেইয়া, ১৩. পদ্মপুর, ১৪. চর বাসুরিয়া,১৫. চর কুবলিবাড়ী,১৬. পানিবাড়ী, ১৭. বাসুরিয়া, ১৮. নরপাড়া, ১৯.রাধানগর, ২০.খাস বালিয়া মেন্দা,২১. ডাকাতিয়া মেন্দা, ২২.বালিয়া মেন্দা, ২৩.নতুন পানিবাড়ী।

আয়তন ও জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তালিকা[সম্পাদনা]

১. সুজাত আলী অনার্স কলেজ, সরিষাবাড়ি,জামালপুর

২. পিংনা উচ্চ বিদ্যালয়।

৩. পিংনা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়।

৪. শামসুন্নাহার উচ্চ বিদ্যালয়, বাশুরিয়া

এছাড়াও ৭ টি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ৩ টি মাদ্রাসা রয়েছে।

দর্শনীয় স্থান

১) বারই পটল ( শহীদ নগর)ঃ বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ –পিংনা ইউনিয়ন কমান্ডের বর্তমান আহব্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব কামরুল আবেদীনের নিকট থেকে প্রাপ্ত তথ্য থেকে জানা গেল, ১৯৭১ সালের ২৪ শে সেপ্টেম্বর বারই পটল ও ফুলদহেরপাড়া (কিছু অংশ) গ্রামে এক কোম্পানি মুক্তিযোদ্ধা অবস্থান গ্রহণ করেন। ঐ এলাকার পাক বাহিনী দোসররা ৫ কিলোমিটার দূরে জগন্নাথগঞ্জ ঘাটে পাক বাহীনির ক্যাম্পে মুক্তি বাহিনির অবস্থান সম্পর্কে অবহিত করে। ২৫ শে সেপ্টেম্বর সকাল আনুমানিক ১০ ঘটিকায় অতর্কিতভাবে পাক বাহিনী মুক্তিযোদ্ধাদের উপর হামলা করে। পাক বাহিনির সাথে মুক্তিবাহিনীর রক্তাক্ষয়ি যুদ্ধে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা আমিনুল ইসলাম (ইতিম আলী) সহ ১০ জন মুক্তিযোদ্ধা সাহাদত বরণ করেন। ঐ যুদ্ধে এলাকার আরও ৩৪ জন সাধারণ নাগরিক শহিদ হন। বর্তমানে ঐ স্থানটির (বারই পটল গ্রামের) নামকরণ করা হয় শহীদ নগর। “শহীদ নগর” নামে ঐ এলাকাটিতে (বারই পটল গ্রামে) একটি ডাকঘর স্থাপিত হয়েছে এবং এলাকাবাসির দাবির প্রেক্ষিতে মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের স্মরণে জামালপুর জেলা পরিষদ ৫ লক্ষ টাকা ব্যয়ে একটি স্মৃতি স্তম্ভ নির্মাণ এর কাজ হাতে নেয়া হয়েছে। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রী, স্বাধীনতা যুদ্ধের উপ অধিনায়ক এয়ার ভাইস মার্শাল (অব) এ কে খন্দকারসহ দেশ সহ দেশ বরেণ্য মুক্তিযোদ্ধা লেখক সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিগণ শহীদ নগর (বারই পটল গ্রামের) পরিদর্শন করেছেন। মুক্তিযোদ্ধা ও এলাকার জনগণ প্রতি বছর যথাযোগ্য মর্যাদায় ঐদিনটি উদ্‌যাপন করে থাকে।

জনপ্রতিনিধি[সম্পাদনা]

বর্তমান চেয়ারম্যান- নজরুল ইসলাম

প্রাক্তন চেয়ারম্যানগণের তালিকা
ক্রমিক নং চেয়ারম্যানগণের নাম মেয়াদকাল
০১ হাফিজুর রহমান হাফিজ ১৯৭৬
০২
০৩

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "পিংনা ইউনিয়ন"বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন। ২১ মার্চ ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ মার্চ ২০২০ 
  2. "সরিষাবাড়ী উপজেলা"বাংলাপিডিয়া। ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৭ মার্চ ২০২০