ইসলামী বিশ্বকোষ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ইসলামী বিশ্বকোষ
দেশবাংলাদেশ
ভাষা বাংলা
বিষয়ইসলাম
ধরনবিশ্বকোষ
প্রকাশকইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ
পরবর্তী বইসিরাত বিশ্বকোষ 

ইসলামী বিশ্বকোষ হলো ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ থেকে প্রকাশিত বিশ্বকোষের গ্রন্থ। এটিতে ইসলাম সম্পর্কিত বিভিন্নমুখী জ্ঞানের ভান্ডার রয়েছে। ইসলামের ব্যাপক বিষয় ইসলামি বিশ্বকোষের অন্তর্ভুক্ত।[১] এটি ২৫ খণ্ডের একটি সংক্ষিপ্ত অর্থবহ সংস্করণ। এই বিশ্বকোষ প্রকল্পের শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন বাংলাদেশী শিক্ষাবিদ এবং পণ্ডিত আবদুল হক ফরিদী[২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

বাংলাদেশে প্রথম ইসলামী বিশ্বকোষের প্রণয়নের উদ্যোগ গ্রহণ করেন বাংলা একাডেমী। ডাঃ মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ কিছু সময়ের জন্য এই প্রকল্পের সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন।[৩][৪] ১৯৫৮ সালে বাংলা একাডেমী লাইডেন হতে প্রকাশিত শর্টার এনসাইক্লোপিডিয়া অফ ইসলাম শীর্ষক ইসলামি বিশ্বকোষর অনুবাদের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। পরিবর্তিতে তা বিভিন্ন কারণে ইসলামি ফাউন্ডেশন বাংলাদেশে এর কাছে তুলে দেয়। যেটি আরো সম্পদনা করে প্রকাশ করা হয়।[৫]

আবদুল হক ফরিদী বিশ্বকোষের সম্পাদকীয় বোর্ডের সভাপতি থাকাকালীন, তাঁর জীবদ্দশায় ১৮টি খণ্ডের কাজ সম্পন্ন হয়েছিল।

একাত্তরে বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর, প্রকাশিত তিনটি বিশেষায়িত বিশ্বকোষের একটি ছিল এটি।[৬] ডাঃ এ এফ এম খালিদ হুসেন বিশ্বকোষের দ্বিতীয় সংস্করণের ৩ থেকে ৯ খণ্ড পর্যন্ত সম্পাদনা করেছেন।[৭]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ২১ নভেম্বর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৪ অক্টোবর ২০১৬ 
  2. এ.কে.এম নূরুল আলম (২০১২)। "ফরিদী, আবদুল হক"। ইসলাম, সিরাজুল; মিয়া, সাজাহান; খানম, মাহফুজা; আহমেদ, সাব্বীর। বাংলাপিডিয়া: বাংলাদেশের জাতীয় বিশ্বকোষ (২য় সংস্করণ)। ঢাকা, বাংলাদেশ: বাংলাপিডিয়া ট্রাস্ট, বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটিআইএসবিএন 9843205901ওসিএলসি 883871743 
  3. মুহাম্মদ জাফর আলী (১০ জুলাই ২০২০)। "ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ্‌র কৃতিত্ব ভোলার মতো নয়"প্রথম আলো 
  4. শরীফ উদ্দিন পেশোয়ার (১৩ জুলাই ২০১৮)। "জ্ঞানতাপস ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ অকাতরে বিদ্যা বিলিয়েছেন"যুগান্তর 
  5. ইসলামি বিশ্বকোষ, প্রথম সংস্করণের ভূমিকা, পৃষ্ঠা-১১
  6. "ইসলামী বিশ্বকোষ"ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ 
  7. "বিশেষজ্ঞ আলেমের প্রয়োজন খুব বেশি: ড. আফম খালিদ হুসাইন"বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম। ২৬ সেপ্টে ২০১৯।