ইভো ব্লাই

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
ইভো ব্লাই
Ivo Bligh Vanity Fair 7 April 1904.jpg
ইভো ফ্রান্সিস ওয়াল্টার ব্লাই, পরবর্তীতে ডার্নলির ৮ম আর্লের ১৯০৪ সালে স্পাই অঙ্কিত ভ্যানিটি ফেয়ারে প্রতিকৃতি
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম ইভো ফ্রান্সিস ওয়াল্টার ব্লাই,
ডার্নলির ৮ম আর্ল
জন্ম (১৮৫৯-০৩-১৩)১৩ মার্চ ১৮৫৯
ওয়েস্টমিনস্টার, লন্ডন
মৃত্যু ১০ এপ্রিল ১৯২৭(১৯২৭-০৪-১০) (৬৮ বছর)
শর্ন, কেন্ট
ব্যাটিংয়ের ধরন ডানহাতি
ভূমিকা অধিনায়ক
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৩৮)
৩০ ডিসেম্বর ১৮৮২ বনাম অস্ট্রেলিয়া
শেষ টেস্ট ২১ ফেব্রুয়ারি ১৮৮৩ বনাম অস্ট্রেলিয়া
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছর দল
১৮৭৭-১৮৮৩ কেন্ট
১৮৭৮-১৮৮১ কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৮৪
রানের সংখ্যা ৬২ ২,৭৩৩
ব্যাটিং গড় ১০.৩৩ ২০.৭০
১০০/৫০ ০/০ ২/১২
সর্বোচ্চ রান ১৯ ১১৩*
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৭/– ৮১/–
উৎস: ক্রিকইনফো, ১৩ আগস্ট ২০১৭

ইভো ফ্রান্সিস ওয়াল্টার ব্লাই, ডার্নলির ৮ম আর্ল, জেপি, ডিএল (ইংরেজি: Ivo Bligh; জন্ম: ১৩ মার্চ, ১৮৫৯ - মৃত্যু: ১০ এপ্রিল, ১৯২৭) লন্ডনে জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা ব্রিটিশ অভিজাত ব্যক্তিত্ব, সংসদ সদস্য ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। পাশাপাশি দলের অধিনায়কেরও দায়িত্ব পালন করেছেন। ১৯০০ সাল পর্যন্ত তিনি সম্মানীয় ইভো ব্লাই পদবী ধারণ করেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

লন্ডনে ব্লাইয়ের জন্ম। ডার্নলির ৬ষ্ঠ আর্ল জন ব্লাই ও চিচেস্টারের ৩য় আর্ল হেনরি পেলহামের কন্যা লেডি হ্যারিয়েট মেরি দম্পতির দ্বিতীয় পুত্র ছিলেন তিনি।[১] এটনে অধ্যয়ন করেন তিনি ও ১৮৮২ সালে কেমব্রিজের ট্রিনিটি কলেজ থেকে স্নাতক ডিগ্রি সম্পন্ন করেন।[২] কেমব্রিজে থাকাকালে বিশ্ববিদ্যালয় পিট ক্লাবের সচিবের দায়িত্বে ছিলেন।[৩]

ব্লাই ইংল্যান্ড ও এমসিসি দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেন। ১৮৮২-৮৩ মৌসুমে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে অ্যাশেজ সিরিজের সর্বপ্রথম টেস্ট সিরিজে দলের নেতৃত্ব দেন।[৪] এছাড়াও ব্লাই কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে খেলেন ও ১৮৭৭ থেকে ১৮৮৩ সময়কালে কেন্টের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেন।

১৯০০-০১ মৌসুমে মেরিলেবোন ক্রিকেট ক্লাবের সভাপতি নির্বাচিত হন তিনি। ১৮৯২ ও ১৯০২ সালে কেন্ট কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাবের পক্ষে এ দায়িত্বে ছিলেন।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৮৭৭ সালে ইংল্যান্ডঅস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার টেস্টের সূত্রপাত ঘটে। এরপর ১৮৮২ সালে ওভালে সফরকারী অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মাঙ্কি হর্নবি’র নেতৃত্বে ইংল্যান্ড দল পরাজিত হয়। এরফলে স্পোর্টিং টাইমস সংবাদপত্রে ইংরেজ ক্রিকেটকে ঘিরে বিদ্রুপাত্মক প্রতিবেদন প্রকাশ করে যাতে দেহ পুরোপুরি জ্বলে গেছে ও ছাঁই অস্ট্রেলিয়ায় প্রেরণ করা হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়। পরবর্তী শীতকালীন সফরে অস্ট্রেলিয়া গমন করে ইংল্যান্ড দল ও অ্যাশেজ পুণরুদ্ধারের চেষ্টা চালায়। ব্লাইয়ের দল সফলতা পায়। তিন খেলার অ্যাশেজ সিরিজে ২-১ ব্যবধানে জয়ী হয়। চতুর্থ খেলাটি অ্যাশেজের অন্তর্ভূক্ত ছিল না ও পরাজিত হয়।[৫]

টেস্ট সিরিজ জয়ের পর মেলবোর্নের রমণীদের একটি দল সম্মানীয় ইভো ব্লাইকে একটি ছোট লালচে বাদামী বর্ণের পাত্র উপহার দেয়। ছাঁই ভর্তি পাত্রটি বেইল পুড়িয়ে ভরে দেয়া হয়েছিল যা ইংরেজ ক্রিকেটের ছাঁইয়ের প্রতীকিরূপ বহন করে। অ্যাশেজ সিরিজের প্রতীকীরূপে পাত্রটি আসলে দি অ্যাশেজ পরিভাষাটির উৎপত্তি ঘটে। তবে, অ্যাশেজ সিরিজের ট্রফিতে এ পাত্র ব্যবহার করা হয় না ও অ্যাশেজ সিরিজের ট্রফি যে-দলের অনুকূলেই থাকুক না কেন, লর্ডসের এমসিসি জাদুঘরে পাত্রটি রক্ষিত আছে।[৬] ১৯৯৮-৯৯ অ্যাশেজ সিরিজ থেকে বিজয়ী দলকে একটি ওয়াটারফোর্ড স্ফটিক ট্রফি প্রদান করা হচ্ছে।[৭]

রাজনৈতিক জীবন[সম্পাদনা]

জীবনের শেষদিকে ডার্নলিতে বসবাস করতে থাকেন ও ওয়েস্টমিনস্টারে আইরিশদের প্রতিনিধিরূপে নির্বাচিত হন ইভো ব্লাই।[১]

১৯০০ সালে বড় ভাই এডওয়ার্ডের স্থলাভিষিক্ত হয়ে ডার্নলির আর্ল মনোনীত হন। তবে, আইরিশ পদবী ধারণ করলেও স্বয়ংক্রিয়ভাবে লর্ডস সভায় আসন লাভ করেননি। মার্চ, ১৯০৫ সালে নির্বাচনে জয়লাভের পর আইরিশ প্রতিনিধিরূপে সংসদে প্রবেশের সুযোগ লাভ করেন তিনি।

পারিবারিক পদবী লর্ড ডার্নলি ধারণের পর ডেপুটি লেফট্যানেন্ট মনোনীত হন[৮] ও কেন্টের শান্তিবিষয়ক বিচারপতি হন।[১] ১৬ জুলাই, ১৯০২ তারিখে দ্য কুইন্স অওনের (রয়্যাল ওয়েস্ট কেন্ট রেজিম্যান্ট) ৪র্থ ভলান্টিয়ার ব্যাটালিয়নের সম্মানসূচক কর্নেলরূপে মনোনীত হন।[৯]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

৯ ফেব্রুয়ারি, ১৮৮৪ তারিখে অস্ট্রেলিয়ার ভিক্টোরিয়ার বীচওয়ার্থ এলাকার জন স্টিফেন মর্ফি'র কন্যা ফ্লোরেন্স রোজ মর্ফি নাম্নী এক রমণীর পাণিগ্রহণ করেন তিনি।[১] রুপার্টসউড এলাকায় তিনি সঙ্গীত শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তখন তাঁর ভবিষ্যতের স্বামী ব্লাই অস্ট্রেলিয়া সফরে ছিলেন। তাঁদের দুই পুত্র ও এক কন্যা ছিল:[১]

  • এসমে ব্লাই, ডার্নলির ৯ম আর্ল (১৮৮৬-১৯৫৫)
  • সম্মানীয় নোয়েল জার্ভেস ব্লাই (১৪ নভেম্বর, ১৮৮৮ - ১৯৮৪), মেরি জ্যাক ফ্রস্টকে বিয়ে করেন।
  • লেডি ডরোথি ভায়োলেট ব্লাই (৮ ফেব্রুয়ারি, ১৮৯৩ - ১৬ জানুয়ারি, ১৯৭৬)

লর্ড ডার্নলি ১০ এপ্রিল, ১৯২৭ তারিখে ৬৮ বছর বয়সে কেন্টের শর্ন এলাকায় দেহত্যাগ করেন। কেন্টের কোবহাম এলাকার সেন্ট মেরি মাগদালেন চার্চে পারিবারিক সংরক্ষিত জায়গায় তাঁকে সমাহিত করা হয়।[১০][১১]

তাঁর মৃত্যুর পর জ্যেষ্ঠ সন্তান এসমে পারিবারিক পদবী ধারণ করেন। তাঁর স্ত্রী ফ্লোরেন্স স্বামীর মৃত্যুর পর পাত্রটি এমসিসিতে দান করে দেন। ১৯১৯ সালে ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের অন্যতম প্রথম ডেমের মর্যাদা লাভকারী ফ্লোরেন্স আগস্ট, ১৯৪৪ সালে মৃত্যুবরণ করেন।[১২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Burke, Sir Bernard; Burke, Ashworth P. (১৯১৪)। Genealogical and Heraldic Dictionary of the Peerage and Baronetage of the British Empire। London: Harrison & Sons। পৃ: 570–571। 
  2. "Bligh, the Hon. Ivo Francis [Walter] (BLH877IF)"A Cambridge Alumni Databaseকেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় 
  3. Fletcher, Walter Morley (২০১১) [১৯৩৫]। The University Pitt Club: 1835–1935 (First Paperback সংস্করণ)। Cambridge: Cambridge University Press। পৃ: 86–87। আইএসবিএন 978-1-107-60006-5 
  4. "Ivo Bligh"Cricinfo। সংগৃহীত ২৪ জানুয়ারি ২০১৬ 
  5. "Ivo Bligh – Player Profile Sky Sports Cricket"SkySports। সংগৃহীত ২৪ জানুয়ারি ২০১৬ 
  6. "MCC Museum"। সংগৃহীত ২৪ জানুয়ারি ২০১৬ 
  7. "Cricket's burning passion : Ivo Bligh and the story of the Ashes / Scyld Berry and Rupert Peploe. - Version details - Trove"। সংগৃহীত ২৪ জানুয়ারি ২০১৬ 
  8. "নং. 27300"দ্যা লন্ডন গেজেট (ইংরেজি ভাষায়)। ২৯ মার্চ ১৯০১ 
  9. "নং. 27454"দ্যা লন্ডন গেজেট (ইংরেজি ভাষায়)। ১৫ জুলাই ১৯০২ 
  10. "Cobham and Luddesdowne"। সংগৃহীত ২৪ জানুয়ারি ২০১৬ 
  11. "Regesta 256: 1366-1367"। সংগৃহীত ২৪ জানুয়ারি ২০১৬ 
  12. "- Person Page 864"। সংগৃহীত ২৪ জানুয়ারি ২০১৬ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

ক্রীড়া অবস্থান
পূর্বসূরী
এ. এন. হর্নবি
ইংল্যান্ড জাতীয় ক্রিকেট অধিনায়ক
১৮৮২-৮৩
উত্তরসূরী
দ্য লর্ড হ্যারিস
Peerage of Ireland
পূর্বসূরী
এডওয়ার্ড ব্লাই
ডার্নলির আর্ল
১৯০০-১৯২৭
উত্তরসূরী
এসমে ব্লাই