অসমাপ্ত আত্মজীবনী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
অসমাপ্ত আত্মজীবনী
অসমাপ্ত আত্মজীবনী.jpg
লেখক শেখ মুজিবুর রহমান
প্রচ্ছদ শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী
দেশ  বাংলাদেশ
ভাষা বাংলা
বিষয় ইতিহাস, রাজনীতি
ধরন আত্মজীবনী
প্রকাশক ইউনিভার্সিটি প্রেস লিমিটেড
প্রকাশনার তারিখ
জুন ২০১২
পৃষ্ঠাসংখ্যা ৩৩০
আইএসবিএন 9789845060592

অসমাপ্ত আত্মজীবনী শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মজীবনী সংকলন। ২০১২ সালে বইটি প্রকাশিত হয়।[১] এই বইটি ইংরেজি, উর্দু, জাপানি, চীনা, আরবি, ফরাসি, হিন্দী, তুর্কিস্প্যানিশ ভাষা অনূদিত হয়েছে।

সংকলনের ইতিহাস[সম্পাদনা]

২০০৪ সালে শেখ মুজিবুর রহমানের লেখা চারটি খাতা আকস্মিকভাবে তাঁর কন্যা শেখ হাসিনার হস্তগত হয়। খাতাগুলি ছিল অতি পুরানো, পাতাগুলি জীর্ণপ্রায় এবং লেখা প্রায়শ অস্পষ্ট। সেই খাতায় শেখ মুজিব ১৯৬৭ সালের মাঝামাঝি সময়ে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে অন্তরীণ অবস্থায় লেখা শুরু করেছিলেন। বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খানের সম্পাদনায় এই আত্মজীবনীমূলক লেখাকে গ্রন্থে রূপান্তরিত করা হয়।

আত্মজীবনী[সম্পাদনা]

বইটিতে আত্মজীবনী লেখার প্রেক্ষাপট, লেখকের বংশ পরিচয়, জন্ম, শৈশব, স্কুল ও কলেজের শিক্ষাজীবনের পাশাপাশি সামাজিক ও রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড, দুর্ভিক্ষ, বিহার ও কলকাতার দাঙ্গা, দেশভাগ, কলকাতাকেন্দ্রিক প্রাদেশিক মুসলিম ছাত্রলীগ ও মুসলিম লীগের রাজনীতি, দেশ বিভাগের পরবর্তী সময় থেকে ১৯৫৪ সাল অবধি পূর্ব বাংলার রাজনীতি, কেন্দ্রীয় ও প্রাদেশিক মুসলিম লীগ সরকারের অপশাসন, ভাষা আন্দোলন, ছাত্রলীগ ও আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠা, যুক্তফ্রন্ট গঠন ও নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে সরকার গঠন, আদমজীর দাঙ্গা, পাকিস্তান কেন্দ্রীয় সরকারের বৈষম্যমূলক শাসন ও প্রাসাদ ষড়যন্ত্রের বিস্তৃত বিবরণ এবং এসব বিষয়ে লেখকের প্রত্যক্ষ অভিজ্ঞতার বর্ণনা রয়েছে।[২] আছে লেখকের কারাজীবন, পিতা-মাতা, সন্তান-সন্ততি ও সর্বোপরি সর্বংসহা সহধর্মিণী বেগম ফজিলাতুন্নেসার কথা, যিনি তাঁর রাজনৈতিক জীবনে সহায়ক শক্তি হিসেবে সকল দুঃসময়ে অবিচল পাশে ছিলেন। একইসঙ্গে লেখকের চীন, ভারত ও পশ্চিম পাকিস্তান ভ্রমণের বর্ণনাও বইটিকে বিশেষ মাত্রা দিয়েছে।[২]

অনুবাদ[সম্পাদনা]

  • ইংরেজি ভাষা - অনুবাদক মোঃ ফকরুল আলম; ২০১২ সালের ১২ জুন বাংলা সংস্করণের সাথে প্রকাশিত হয়।[৩]
  • জাপানি ভাষা - অনুবাদক কাজুহিরো ওয়াতানাবে।[৪]; ২ আগস্ট ২০১৫ জাপানি সংস্করণের মোড়ক উন্মোচিত হয়।
  • চীনা ভাষা - অনুবাদক চাই সি;[৫] ২০১৬ সালের ২৮ জানুয়ারি গণভবনে বইটির মোড়ক উন্মোচিত হয়।[৬]
  • আরবি ভাষা - অনুবাদক ফিলিস্তিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়; ২০১৬ সালে আরবি সংস্করণ প্রকাশিত হয়।
  • ফরাসি ভাষা - অনুবাদক প্রফেসর ফ্রান্স ভট্টাচারিয়া; ২৬ মার্চ ২০১৭ ফরাসি সংস্করণের মোড়ক উন্মোচিত হয়।
  • হিন্দি ভাষা - অনুবাদক ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়; ৮ এপ্রিল ২০১৭ হিন্দি সংস্করণের মোড়ক উন্মোচিত হয়।
  • তুর্কি ভাষা - অনুবাদক তুরস্কের আতাতুর্ক সংস্কৃতি ও গবেষণা কেন্দ্র; ২৭ মার্চ ২০১৮ তুর্কি সংস্করণের মোড়ক উন্মোচিত হয়।[৭]
  • স্প্যানিশ ভাষা- অনুবাদক বেঞ্জামিন ক্লার্কেও। " ১১ অক্টোবর,২০১৮ মোড়ক উন্মোচন হয়"। [৮]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. সরকার, মোনায়েম (আগস্ট ২৬, ২০১২)। "ভালোবাসার টানেই বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনীর সঙ্গে যুক্ত হয়েছি : ফকরুল আলম"যায়যায়দিন। সংগ্রহের তারিখ ৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  2. "বঙ্গবন্ধুর 'অসমাপ্ত আত্মজীবনী'প্রকাশিত হচ্ছে আজ"দৈনিক প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ৩ ডিসেম্বর ২০১৫ 
  3. হাসান, সোহরাব (আগস্ট ১৪, ২০১৫)। "ভালোবাসার টানেই বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনীর সঙ্গে যুক্ত হয়েছি : ফকরুল আলম"দৈনিক প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  4. হক, মনজুরুল (আগস্ট ১, ২০১৫)। "জাপানি ভাষায় বঙ্গবন্ধুর 'অসমাপ্ত আত্মজীবনী'"দৈনিক প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  5. "বঙ্গবন্ধুর 'অসমাপ্ত আত্মজীবনী' এবার চীনা ভাষায়"বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম। ২৮ জানুয়ারি ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  6. "এবার চীনা ভাষায় বঙ্গবন্ধুর 'অসমাপ্ত আত্মজীবনী'"দৈনিক ইত্তেফাক। ২৭ জানুয়ারি ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  7. https://m.bdnews24.com/bn/detail/probash/1477261?
  8. https://www.prothomalo.com/bangladesh/article/1560987/স্প্যানিশ-ভাষায়-বঙ্গবন্ধুর-অসমাপ্ত-আত্মজীবনীর-মোড়ক

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]