২০১৩ পাকিস্তান ক্রিকেট দলের জিম্বাবুয়ে সফর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
২০১৩ পাকিস্তান ক্রিকেট দলের জিম্বাবুয়ে সফর
Flag of Zimbabwe.svg
জিম্বাবুয়ে
Flag of Pakistan.svg
পাকিস্তান
তারিখ ২৩ আগস্ট, ২০১৩ – ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
অধিনায়ক ব্রেন্ডন টেলর মিসবাহ-উল-হক (টেস্ট এবং ওডিআই)
মোহাম্মদ হাফিজ (টি২০আই)
টেস্ট সিরিজ
ফলাফল ২-ম্যাচের সিরিজ ১–১ এ ড্র হয়
সর্বাধিক রান হ্যামিল্টন মাসাকাদজা (১৩৯) ইউনুস খান (৩০৯)
সর্বাধিক উইকেট তেন্দাই চাতারা (১১) সাঈদ আজমল (১৪)
সিরিজ সেরা ইউনুস খান (পাকিস্তান)
একদিনের আন্তর্জাতিক সিরিজ
ফলাফল ৩-ম্যাচের সিরিজ পাকিস্তান ২–১ এ জয়ী হয়
সর্বাধিক রান ব্রেন্ডন টেলর (১৪৮) মোহাম্মদ হাফিজ (২৩২)
সর্বাধিক উইকেট তেন্দাই চাতারা (৫) সাঈদ আজমল (৬)
সিরিজ সেরা মোহাম্মদ হাফিজ (পাকিস্তান)
টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক সিরিজ
ফলাফল ২-ম্যাচের সিরিজ পাকিস্তান ২–০ তে জয়ী হয়
সর্বাধিক রান হ্যামিল্টন মাসাকাদজা (৫৯) আহমেদ শেহজাদ (১৬৮)
সর্বাধিক উইকেট তেন্দাই চাতারা (২)
শিঙ্গি মাসাকাদজা (২)
মোহাম্মদ হাফিজ (৪)
সিরিজ সেরা আহমেদ শেহজাদ

পাকিস্তান জাতীয় ক্রিকেট দল ২৩ আগস্ট থেকে ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৩ তারিখ পর্যন্ত জিম্বাবুয়ে সফর করে। সফরে দুইটি টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট, তিনটি একদিনের আন্তর্জাতিক খেলা এবং দুইটি টেস্ট খেলা অনুষ্ঠিত হয়। সীমিত ওভারের খেলাগুলো হারারে স্পোর্টস ক্লাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে। অন্যদিকে টেস্ট ম্যাচ হারারে ও বুলাওয়ের কুইন্স স্পোর্টস ক্লাবে অনুষ্ঠিত হবার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

প্রকৃতপক্ষে এ সিরিজটি গত ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত হবার কথা ছিল। কিন্তু ভারতে পাকিস্তান ক্রিকেট দলের সফরের সাথে সময়সূচীর মিল থাকায় দুই দেশের মধ্যকার ক্রিকেটে দ্বি-সম্পর্কীয় উত্তরণের জন্য তা স্থগিত রাখা হয়।[১][২]

বুলাওয়ের কুইন্স স্পোর্টস ক্লাবে অনুষ্ঠিত হবার কথা থাকলেও ব্যয় সঙ্কোচন নীতি প্রয়োগের ফলে তা হারারেতেই রাখা হয়।[৩] দ্বিতীয় টেস্টে জিম্বাবুয়ে জয়লাভ করে। এ জয়টি ছিল ২০০১ সালে ভারত ও পরবর্তীতে বাংলাদেশের বিপক্ষে বিজয়ের পর প্রথম।[৪][৫][৬]

দলের সদস্যবৃন্দ[সম্পাদনা]

টেস্ট ওডিআই টি২০আই
 জিম্বাবুয়ে  পাকিস্তান[৭]  জিম্বাবুয়ে[৮]  পাকিস্তান[৭]  জিম্বাবুয়ে[৯]  পাকিস্তান[৭]

টি২০আই সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম টি২০আই[সম্পাদনা]

২৩ আগস্ট
১৩:৩০
স্কোরকার্ড
পাকিস্তান 
১৬১/৫ (২০ ওভার)
 জিম্বাবুয়ে
১৩৬/৫ (২০ ওভার)
আহমেদ শেহজাদ ৭০ (৫০)
শহীদ আফ্রিদি ৩/২৫ (৪ ওভার)

২য় টি২০আই[সম্পাদনা]

২৪ আগস্ট
১৩:৩০
স্কোরকার্ড
পাকিস্তান 
১৭৯/১ (২০ ওভার)
 জিম্বাবুয়ে
১৬০/৬ (২০ ওভার)
পাকিস্তান ১৯ রানে বিজয়ী
হারারে স্পোর্টস ক্লাব, হারারে
আম্পায়ার: ওয়েন চিরুম্বে (জিম্বাবুয়ে) ও রাসেল টিফিন (জিম্বাবুয়ে)
সেরা খেলোয়াড়: আহমেদ শেহজাদ (পাকিস্তান)
  • জিম্বাবুয়ে টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • আহমেদ শেহজাদ টি২০ ক্রিকেটে পাকিস্তানের পক্ষে সর্বোচ্চ রান করেন। মোহাম্মদ হাফিজ-আহমেদ শেহজাদ দ্বিতীয় উইকেটে ১৪৩ রান করে পাকিস্তানের সর্বোচ্চ রানের জুটি গড়েন।

ওডিআই সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম ওডিআই[সম্পাদনা]

২৭ আগস্ট
০৯:৩০
স্কোরকার্ড
পাকিস্তান 
২৪৪/৭ (৫০ ওভার)
 জিম্বাবুয়ে
২৪৬/৩ (৪৮.২ ওভার)
মিসবাহ-উল-হক ৮৩*(৮৫)
তেন্দাই চাতারা ২/৩২ (১০ ওভার)
  • পাকিস্তান টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

২য় ওডিআই[সম্পাদনা]

২৯ আগস্ট
০৯:৩০
স্কোরকার্ড
পাকিস্তান 
২৯৯/৪ (৫০ ওভার)
 জিম্বাবুয়ে
২০৯ (৪২.৪ ওভার)
মোহাম্মদ হাফিজ ১৩৬* (১৩০)
ব্রায়ান ভিটোরি ২/৬৮ (১০ ওভার)
  • জিম্বাবুয়ে টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

৩য় ওডিআই[সম্পাদনা]

৩১ আগস্ট
০৯:৩০
স্কোরকার্ড
পাকিস্তান 
২৬০/৬ (৫০ ওভার)
 জিম্বাবুয়ে
১৫২ (৪০ ওভার)
মিসবাহ-উল-হক ৬৭ (৮৫)
তেন্দাই চাতারা ৩/৪৮ (১০ ওভার)
ম্যালকম ওয়ালার ৪৮ (৭১)
সাঈদ আজমল ২/১৫ (৭ ওভার)
  • জিম্বাবুয়ে টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

টেস্ট সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম টেস্ট[সম্পাদনা]

৩-৭ সেপ্টেম্বর
স্কোরকার্ড
২৪৯/৯ (৯০.১ ওভার)
আজহার আলী ৭৮ (১৮৫)
তিনাশে প্যানিয়াঙ্গারা ৩/৭১ (১৯.৫ ওভার)
৩২৭ (১০৩.৩ ওভার)
ম্যালকম ওয়ালার ৭০ (১০০)
সাঈদ আজমল ৭/৯৫ (৩২.৩ ওভার)
৪১৯/৯ডিঃ (১৪৯.৩ ওভার)
ইউনুস খান ২০০* (৪১৪)
প্রসপার উতসেয়া ৩/১৩৭ (৩৭.৩ ওভার)
১২০ (৪৬.৪ ওভার)
এলটন চিগুম্বুরা ২৮ (৩৫)
সাঈদ আজমল ৪/২৩ (১৬.৪ ওভার)
পাকিস্তান ২২১ রানে বিজয়ী
হারারে স্পোর্টস ক্লাব, হারারে
আম্পায়ার: স্টিভ ডেভিস (অস্ট্রেলিয়া) ও র‌্যানমোর মার্টিনেজ (শ্রীলঙ্কা)
ম্যাচসেরা: ইউনুস খান (পাকিস্তান)
  • জিম্বাবুয়ে টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • জিম্বাবুয়ের পক্ষে সিকান্দার রাজা’র টেস্ট অভিষেক ঘটে।

২য় টেস্ট[সম্পাদনা]

১০-১৪ সেপ্টেম্বর
স্কোরকার্ড
২৯৪ (১০৯.৫ ওভার)
হ্যামিল্টন মাসাকাদজা ৭৫ (১৬৯)
জুনাঈদ খান ৪/৬৭ (৩৩ ওভার)
২৩০ (১০৪.৫ ওভার)
ইউনুস খান ৭৭ (২২৩)
ব্রায়ান ভিটোরি ৫/৬১ (২৬.৫ ওভার)
১৯৯ (৮৯.৫ ওভার)
টিনো মায়ুয়ো ৫৮ (১৬৫)
রাহাত আলী ৫/৫২ (২৪.৫ ওভার)
২৩৯ (৮১ ওভার)
মিসবাহ-উল-হক ৭৯ (১৮১)
তেন্দাই চাতারা ৫/৬১ (২৩ ওভার)
জিম্বাবুয়ে ২৪ রানে বিজয়ী
হারারে স্পোর্টস ক্লাব, হারারে
আম্পায়ার: স্টিভ ডেভিস (অস্ট্রেলিয়া) ও র‌্যানমোর মার্টিনেজ
ম্যাচসেরা: তেন্দাই চাতারা (জিম্বাবুয়ে)
  • জিম্বাবুয়ে টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

সম্প্রচার সত্ত্ব[সম্পাদনা]

টেলিভিশন সম্প্রচার দেশ মন্তব্য
সুপার স্পোর্ট  দক্ষিণ আফ্রিকা
 জিম্বাবুয়ে
আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিযোগিতার সম্প্রচারক
টেন ক্রিকেট  বাংলাদেশ
 ভারত
পিটিভি স্পোর্টস  পাকিস্তান
টেন স্পোর্টস  পাকিস্তান
 ওয়েস্ট ইন্ডিজ
 শ্রীলঙ্কা

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]