ভাজা ডিম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
Three fried eggs.jpg

ভাজা ডিম এক প্রকার রান্নার ধরন যেখানে ডিম পুরোটাই তাওয়া বা ফ্রাই প্যানে ভেজে তৈরী করা হয়। ইংরেজী ভাষার দেশগুলোতে ঐতিহ্যগতভাবে এই খাবার সকালের নাস্তা হিসেবে খাওয়া হয়। (ইংরেজদের পূর্ব উপনিবেশ) ভারতীয় উপমহাদেশে একে সাধারণত 'পোচ' বলা হয়।

প্রস্তুত প্রণালী[সম্পাদনা]

প্রথমে একটি পরিষ্কার বাটিতে পেঁয়াজ কুচি, মরিচ কুচি, পরিমানমতো লবণ ও হলুদ একত্রে নিতে হবে | অনেক সময় সামান্য মসলা দেওয়া হয় | এবার সবকিছু একত্রে চটকে নিয়ে ডিম ভেঙ্গে ভালভাবে মেশাতে হবে | [১][২][৩][৪] এবার একটি ফ্রাই প্যানে তেল দিয়ে চুলায় চড়িয়ে দিতে হবে | তেল গরম হলে ডিমের মিশ্রণ দিয়ে দিতে হয় |

ফ্রাই প্যানে ডিম ভাজা হচ্ছে

একটি ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিলে ডিমটি ফুলে উঠবে | ৪০ - ৬০ সেকেন্ড পরে উল্টিয়ে দিতে হবে | এভাবে ৩ থেকে ৪ মিনিট ভাজতে হবে | এবার নামিয়ে তেল ঝরিয়ে ভাজা ডিম প্লেটে পরিবেশন করা হয় |

অঞ্চলভেদে বিভিন্নতা এবং ঐতিহ্য[সম্পাদনা]

অস্ট্রেলিয়া, জার্মানি এবং সুইজারল্যান্ড[সম্পাদনা]

কানাডা এবং যুক্তরাষ্ট্র[সম্পাদনা]

এটি আমেরিকায় প্রায়ই এক ফালি বা একটি বৃত্ত বা অন্যান্য আকৃতিতে কাটা রুটি দ্বারা তৈরি করা হয়। রুটি একপাশে বাদামী হওয়া পর্যন্ত ভাজা হয় এবং তারপর ফ্লিপ, এবং একটি ডিম ভাজতে সাধারণত লবণ এবং মরিচ ব্যবহার করা হয়। ফ্রাই প্যানে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দেয়া হয় এবং তৈরি না হওয়া পর্যন্ত ডিম ফ্রাই করা হয়। রুটি মাঝে প্রায়ই পাশাপাশি ডিমের সাথে ভাজা হয় এবং ডিমের উপরে রুটি পরিবেশিত হয়। উত্তর আমেরিকানদের ভাজা ডিমে বিভিন্ন পদ ব্যবহার:

  • কুসুম ফেটিয়ে এবং ডিমের সাদা সম্পূর্ণরূপে রান্না করা হয়। ভাজা ডিম সাধারণভাবে সেন্ট্রাল পেনসিলভানিয়া বসবাসকারী পেনসিলভানিয়া ডাচ ব্যক্তিদের কাছে "ডিপ এগ" নামে ডাকা হয় এবং এদের ভাজা ডিম টোস্ট এর সাথে খাওয়ার অভ্যাস আছে। টোস্টের চারপাশে কুসুম খাওয়ার সময পেস্ট করে নেয়া হয়।
  • মাঝারি - উভয় পক্ষের রান্নায় কুসুমের কেন্দ্রে যেন নরম এবং তরলের কাছাকাছি থাকে সেভাবে রান্না করা হয়। ডিমের সাদা অংশ সূক্ষভাবে রান্না করা হয়।
  • ভাঙা কুসুমের সঙ্গে উভয় পক্ষের রান্নায় ডিম বেশি কড়া ভাজা হয়।
  • কুসুমের সঙ্গে সম্পূর্ণরূপে একটি সেদ্ধ ডিম ভেজেও রান্না করা হয়।
  • ডিমের সাদা অংশ রান্না করা হয়, যতক্ষণ না শুধুমাত্র একপাশে রান্না হয়, কিন্তু কুসুম তরলই রয়ে যায়। এই ডিম প্রায়ই "আপ এগ" হিসাবে পরিচিত। [তথ্যসূত্র প্রয়োজন]। শেষ করার আগে আধা-চামচ পানি যোগ করা হয়। রান্নার সময় একটি ঢাকনা দিয়ে ফ্রাইং প্যান মাঝে মাঝে ঢেকে দেয়া হয়।

মিশর[সম্পাদনা]

মিশরে ভাজা ডিম একটি সাধারণ ব্রেকফাস্ট খাবার। তারা শুধুমাত্র উদ্ভিজ্জ তেল বা মাখন/ ঘি দিয়ে প্লেইন প্রস্তুত করে। অথবা একাধিক উপকরনও যোগ করে। এটা সাধারণত পেঁয়াজ এবং মশলা দিয়ে টমেটো, চিজ, বিভিন্ন ধরনের গরুর মাংসের সসেজ (পাতলা তাজা টাইপ, এবং গোলাকার শুকনো কাঠি টাইপ উভয়) বা বিশেষভাবে প্রস্তুত করা কিমা থাকে। তারা মটরশুটির সঙ্গে ভাজা ডিম পরিবেশন করে। কম ঘন গভীর উদ্ভিজ্জ একটি পুরসহ ভাজা সেদ্ধ ডিম ভেজে প্রস্তুত করে, এটি স্কটল্যান্ডের ডিমের কিছুটা অনুরূপ "ষ্টার এগ" এর মত।

ভারত[সম্পাদনা]

ভারতে (এবং ভারতীয় উপমহাদেশে) ভাজা ডিমকে সবচেয়ে বেশি পোচ বলা হয়। তারা কিছুটা কুসুম ভিতরে নরম রেখে রান্না করে। কিছু রেস্টুরেন্টে ডিম ভাজা (কড়া) বা "ডিম আধা ভাজা" তৈরি করে। দক্ষিণ ভারতে ডিম বিক্রেতা সাধারণ রাস্তার ডিম বিক্রি করে। তারা সাধারণত এই ধরনের খাবারে সরিষার তেল এবং উদ্ভিজ্জ তেল এর সঙ্গে বিভিন্ন মসলা দিয়ে ভাজা ডিম এবং রুটি সহ ডিশ তৈরি করে। সময় সময় ভাজার পরে, তারা কখনো কখনো গোলমরিচ, লঙ্কা গুরা, কাচা মরিচ কুচি, এবং লবণ মশলা হিসাবে এর সঙ্গে অল্প ছিটিয়ে দেয়া হয়। সেন্ট্রাল এবং উত্তর ভারতের ইংরেজিভাষী মধ্যবিত্ত ও মধ্য স্তরের রেস্টুরেন্ট ইন, সিঙ্গেল ভাজা একদিকে এবং ডবল ভাজা উভয় দিকে ভাজা বুঝায়।

আয়ারল্যান্ড এবং যুক্তরাজ্য[সম্পাদনা]

এটি ঐতিহ্যবাহী ইংরেজ ব্রেকফাস্ট (সকালের নাস্তা): বেকন, ভাজা ডিম, কালো পুডিং, ভাজা টমেটো, ভাজা মাশরুম, হ্যাশ ব্রাউনস (ঐতিহ্যবাহী না), বেকড মটরশুটি, এবং সাগু রয়েছে

ভাজা ডিমে বেকন, সসেজ, এবং বিভিন্ন মশলা এর সঙ্গে টোস্ট পরিবেশন করা হয়। অথবা একটি স্যান্ডউইচ মধ্যে ভাজা ডিম দেয়া হয়। সাধারণত ব্রিটেন ও আয়ারল্যান্ডের খাওয়া ফুল ব্রেকফাস্টে একটি অপরিহার্য অংশ। প্রায়ই ভাজা ডিম একটি জনপ্রিয় খাবার হিসেবে হ্যাম বা ধোঁকা স্টেকের সঙ্গে পরিবেশিত হয়। ডিম উচ্চ তাপের উপর রান্না করা হয় এবং গরম চর্বি ডিমের উপরে আবরন দেয়া হয়। এটি রান্নার সঙ্গে একটি কাস্টার্ড এর মত কুসুম থাকে।

ইতালি, লাতিন আমেরিকা, পর্তুগাল এবং স্পেন[সম্পাদনা]

জাপান[সম্পাদনা]

জাপানে ভাজা ডিমকে বলা "medama Yaki" (目 玉 焼 き)। ভাজা ডিম সাধারণত খুশির মুহুর্তগুলোতে তৈরি করা হয়। তারা লবণ এবং মরিচ, বা সয়া সস দিয়ে এটি পরিবেশন করে।

কোরিয়া[সম্পাদনা]

ডিমের উপর কখনও কখনও লবণ ছিটিয়ে রান্নার সঙ্গে তেলে ভাজা হয়। এটা "bibimbap" বা "Kimchi bokkeumbap" নামে সাধারন ভাজা ডিম বলে। কখনও কখনও তরকারি হিসেবে রান্না করে কেবল সরিষা এবং তিল তেল একটি চামচের এক চামচ, সঙ্গে গরম ভাত, একটি ভাজা ডিমের আইটেম তৈরি করা হয়। মাঝে মধ্যে পাঁউরুটি মাঝে লবণ দিয়ে ভাজা ডিমের সাথে দেয়া হয়।

নেদারল্যান্ড[সম্পাদনা]

একটি ডাচ খাবারে বেকন এবং পনির সঙ্গে ভাজা ডিম

নেদারল্যান্ডে ভাজা ডিম সাধারণত ব্রেকফাস্ট বা লাঞ্চের জন্য তৈরি করা হয়। ভাজা বেকনের সঙ্গে প্রায়ই, রুটির একটি ফালির উপরে পরিবেশিত হয়। একটি দুটি বা তিনটি ভাজা ডিম একই সাথে একটি থালায় পরিবেশন করা হয়। [৫] প্রথমে হ্যাম এবং পনির বা বেকন এবং পনিরের সঙ্গে একসাথে ভাজা হয়। পরে ঠান্ডা মাংসে যেমন গরুর মাংস বা হ্যাম এর উপর বাটার রুটি দিয়ে রান্না করা হয় এবং সাধারণত একটি শুলফা জরান সঙ্গে এটি করা হয়। এটা নেদারল্যান্ড অনেক ক্যাফে, ক্যান্টিন, এবং লাঞ্চ আসরে পরিবেশিত হয়। [৬]

রাশিয়া[সম্পাদনা]

яичница

সাধারণভাবে রাশিয়ায় খাওয়া সবচেয়ে জনপ্রিয দুই ভাজা ডিম ডিশ হল ঈয়্যেসনিৎসা (রাশিয়ান: яичница) বিশুদ্ধ ভাজা ডিমের জন্য এবং অমলেট (রাশিয়ান: омлет) দুধ বা অন্যান্য তরলের সাথে তৈরি করা হয়।

সাধারণত আস্ত কুসুমের সঙ্গে ভাজা হয় এবং এটিকে একত্রে বালতুনিয়া (রাশিয়ান: болтунья) বলা হয়। এতে বিভিন্ন বৈচিত্র থাকতে পারে: ঈয়্যেসনিৎসা দুটি প্রধান বৈচিত্র্যের, একটি গ্লাজুন্‌ইয়া (глазунья রাশিয়ান) যেমন ভাজা বেকন, হ্যাম, ভাজা রুটি বা পেঁয়াজ, বা অন্যান্য সবজির সাথে তৈরি করা হয়। উভয় ধরনের খাবার প্রস্তুতিতে একাধিক ডিম একটি কড়াই বা ফ্রাই প্যানে রান্না করা হয়।

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া[সম্পাদনা]

Mie goreng ভাজা ডিম এবং সবজির সঙ্গে শীর্ষস্থানে
Yam khai dao :এটি ভাজা ডিম দিয়ে তৈরি ঝাঁল এবং টক থাই সালাদ
ভাত ও ডিম দিয়ে ভাজা স্প্যাম ফিলিপাইনে একটি সাধারণ খাবার

গ্যালারী[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Can someone please give an explanation of different egg preparations?"stackexchange.com 
  2. "Kitchen Riffs: Fried Eggs"kitchenriffs.com 
  3. হিটার সোলস্। "How to Fry an Egg"হোম ইসি ১০২ 
  4. "ডিম ১০১"Eggs.ca 
  5. ভ্যান Limburg স্টিরাম, সি. কানট্রিস (১৯৬২)। The Art of Dutch Cooking (সম্পাদনা সংস্করণ)। লন্ডন: Andre Deutsch Limited। পৃ: ৪৫। 
  6. "Uitsmijter"। The Dutch Table। ৩ এপ্রিল, ২০১১। সংগৃহীত ২ সেপ্টেম্বর, ২০১২ 


বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

  • উইকিমিডিয়া কমন্সে Fried eggs সম্পর্কিত মিডিয়া