নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ
পরিচালক মাসুদ পথিক
প্রযোজক মাসুদ পথিক
চিত্রনাট্যকার মাসুদ পথিক
উৎস নির্মলেন্দু গুণ কর্তৃক 
নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকার সাইম রানা
চিত্রগ্রাহক লরেন্স অপু রোজারিও
সম্পাদক জুনায়েদ হালিম
প্রযোজনা
কোম্পানি
পরিবেশক ব্রাত্য চলচ্চিত্র
মুক্তি জুন ২০, ২০১৪ (২০১৪-০৬-২০)
দেশ বাংলাদেশ
ভাষা বাংলা

নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ মাসুদ পথিক পরিচালিত ২০১৪ সালের বাংলাদেশী নাট্য চলচ্চিত্র। নির্মলেন্দু গুণ রচিত নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ কবিতা অবলম্বনে চলচ্চিত্রটির চিত্রনাট্য লিখেছেন মাসুদ পথিক এবং সংলাপ লিখেছেন রাজিব আহসান ও মাসুদ পথিক।[১] বাংলাদেশ সরকার-এর অনুদান প্রাপ্ত চলচ্চিত্রটি প্রযোজনা ও পরিবেশনা করেছে ব্রাত্য চলচ্চিত্র। এতে নাম চরিত্রে (নেকাব্বর) অভিনয় করেছেন জুয়েল জহুর এবং ফাতেমা চরিত্রে অভিনয় করেছেন শিমলা। কয়েকটি উল্লেখযোগ্য চরিত্রে মামুনুর রশীদ, প্রবীর মিত্র, রানী সরকার, বাদল শহীদ, রেহানা জলি প্রমুখ। এছাড়া আরও অভিনয় করেছেন প্রখ্যাত কবি নির্মলেন্দু গুণসহ আরো ১৫ জন কবি।[২] চলচ্চিত্রটিতে কাহিনী চিত্রের পাশাপাশি তথ্যচিত্রের আবহকে ধারণ করার চেষ্টা করে, প্রেম, প্রকৃতি ও মুক্তিযুদ্ধের গাথা সূত্রে তথ্যের ইমেজ ধরে আবহমান বাংলার নিবিড় সংস্কৃতি, জীবনের অন্তর্গত দর্শন, তথা জীবনবোধকে তুলে ধরা হয়েছে।[৩]

চলচ্চিত্রটি প্রাথমিকভাবে ৫টি বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ঘোষিত হয়। পরে বৃহন্নলা চলচ্চিত্রের বিরুদ্ধে গুল্প চুরির অভিযোগ উঠলে[৪] নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র বিভাগেও পুরস্কৃত হয়।[৫][৬] অন্য বিভাগগুলো হল শ্রেষ্ঠ গীতিকার, শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত পরিচালক, শ্রেষ্ঠ সুরকার, শ্রেষ্ঠ নারী কণ্ঠশিল্পী, শ্রেষ্ঠ রূপসজ্জাকার[৭]

কাহিনী সংক্ষেপ[সম্পাদনা]

একজন বঞ্চিত মানুষের প্রতিকৃতি হচ্ছেন নেকাব্বর। যিনি অন্যায় ভাবে তাঁর সম্পদ হারিয়েছেন, ১৯৭১ এর মুক্তিযুদ্ধে যোগ দিয়ে সে তার প্রেমিকাকে হারিয়েছেন, যুদ্ধে একটি পা খুইয়েছেন। যুদ্ধের পরে পঙ্গু হয়ে বাকি জীবনটা কাটাতে হয়েছে। তাঁকে পাগলা গারদেও থাকতে হয়েছে। পাগলা গারদ থেকে বেরিয়ে অনাহারে থেকেছেন, পেয়েছেন সমাজের  বঞ্চনা আর লাঞ্চনা। একজন নেকাব্বর এমনি লাঞ্চনা বঞ্চনা সহ্য করতে করতে একসময় মৃত্যুবরন করেন।

কুশীলব[সম্পাদনা]

  • জুয়েল জহুর - নেকাব্বর
  • শিমলা - ফাতেমা
  • মামুনুর রশীদ - মুন্সী
  • আফফান আহমেদ - তোরাব আলী
  • এহসানুর রহমান
  • প্রবীর মিত্র - ফাতেমার বাবা
  • বাদল শহীদ - বৃদ্ধ নেকাব্বর
  • রানী সরকার
  • তারেক মাহমুদ
  • রেহানা জলি
  • অসীম সাহা
  • বেগম মন্টু
  • সোহেল বয়াতি
  • মাসুম খান
  • কাসেম
  • সৈয়দ জুবায়ের
  • কবিন্দ্র মল্লিক
  • হাসান আরিফ
  • ফারহানা শুচি
  • মহসিন খোন্দকার
  • সনজিব পুরোহিত
  • সৌমিত্র দেব
  • মাঈন মজুমদার
  • বাহার খান
  • মিতুল
  • হিমু
  • অমল রায়

নির্মাণ[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্রটির শ্যুটিং শেষ হয় ২০১২ সালের ডিসেম্বরে।[৮] শব্দ ও আবহসংগীতসহ সম্পাদনার কাজ শেষ হয় ২০১৩ সালের জুলাই মাসে।[৯] ২০১৩ সালে ডিসেম্বরে ছবিটি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড থেকে বিনা কর্তনে ছাড়পত্র লাভ করে।[১০]

মুক্তি[সম্পাদনা]

নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ ২০১৪ সালের ২০ জুন সারাদেশে নয়টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায়। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিল ঢাকার স্টার সিনেপ্লেক্স, বলাকা সিনেওয়ার্ল্ড ও মধুমিতা।[১১] এছাড়া ২০১৬ সালের ২ জুন শ্রীলংকার কলম্বোতে অনুষ্ঠিত সার্ক চলচ্চিত্র উৎসব-এ ছবিটি প্রদর্শিত হয়।[১২]

সঙ্গীত[সম্পাদনা]

নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ চলচ্চিত্রের সঙ্গীত পরিচালনা ও শব্দ সম্পাদনা করেছেন সাইম রানা। সুর করেছেন বেলাল খান, মুশফিক লিটু, প্রিন্স মাহমুদ, সাইম রানা ও সেলিম মাহমুদ। গীত রচনা করেন মাসুদ পথিক, নির্মলেন্দু গুণ, অসীম সাহা, সাইম রানা, অতনু তিয়াস। গানে কণ্ঠ দিয়েছেন মমতাজ বেগম, বারী সিদ্দিকী, বেলাল খান, সাবরিনা পড়শী, বাদল শহীদ[১৩]

মূল্যায়ন[সম্পাদনা]

সমালোচকদের প্রতিক্রিয়া[সম্পাদনা]

আলোকিত বাংলাদেশে লেখা একটি চলচ্চিত্র সমালোচনায় ওয়াহিদ সুজন চলচ্চিত্রটির দৃশ্যায়ন ও সঙ্গীতের প্রশংসা করেছেন। তবে তিনি আবহ সঙ্গীত, দৃশ্যের দিক পরিবর্তন ও কাহিনীর অসামঞ্জস্যতার জন্য এর সমালোচনা করেছেন।[১৪]

পুরস্কার[সম্পাদনা]

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার

টেলি-সিনে পুরস্কার

  • বিজয়ী: বিশেষ পুরস্কার - মাসুদ পথিক[১৬]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "আসছে নির্মলেন্দু গুণের 'নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ'"বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম। ২০১৩-১১-২০। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৭ 
  2. "ডিসেম্বরেই আসছে নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ"রাইজিংবিডি.কম। ২০১৩-১১-২০। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৭ 
  3. আকবর, মুহম্মদ (জুন ২২, ২০১৪)। "দেশজ দায়বদ্ধতার ছবি 'নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ'"দ্য রিপোর্ট। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৭ 
  4. "বৃহন্নলা বাদ, সেরা চলচ্চিত্র নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ"বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম। ২০১৬-০৪-১৮। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৭ 
  5. "'Nekabborer Mohaproyan' now nominated for national film awards 2014"দ্য ডেইলি স্টার। এপ্রিল ১৮, ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৭ 
  6. "২০১৪ এর সেরা চলচ্চিত্র 'নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ'"দৈনিক সমকাল। এপ্রিল ১৮, ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৭ 
  7. "Nekabborer Mohaproyan: A tale of an unknown fighter"ডেইলি এশিয়ান এইজ। ১৯ মে ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৭ 
  8. "সম্পাদনার টেবিলে 'নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ'"যায়যায়দিন। ডিসেম্বর ২১, ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৭ 
  9. "মুক্তির অপেক্ষায়'নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ'"দৈনিক প্রথম আলো। জুলাই ০৯, ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৭  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  10. "Nekabborer Mohaproyan gets uncut censor certificate"ঢাকা ট্রিবিউন। ৬ জানুয়ারি ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৭ 
  11. "Nekabborer Mohaproyan hits cinemas today"ঢাকা ট্রিবিউন। ২০ জুন ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৭ 
  12. "Nekabborer Mohaproyan - at SAARC Film Fest"দ্য ডেইলি স্টার। মে ২৭, ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৭ 
  13. "আসছে নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ"বাংলা মুভি ডেটাবেজ। ২২ নভেম্বর ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৭ 
  14. সুজন, ওয়াহিদ (মে ১১, ২০১৬)। "আলাদা আলাদা নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ"বাংলা মুভি ডেটাবেজ। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৭ 
  15. "'নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ' শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র"দৈনিক কালের কণ্ঠ। ১৮ এপ্রিল ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৭ 
  16. "সার্ক ফিল্ম ফেস্টিভালে বাংলাদেশের ছবি 'নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ'"ডিএমপি নিউজ। মে ২৬, ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]