মেঘের অনেক রং

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মেঘের অনেক রং
পরিচালকহারুনর রশীদ
প্রযোজকআনোয়ার আশরাফ
শাজীদা শামীম
চিত্রনাট্যকারহারুনর রশীদ
কাহিনীকারহারুনর রশীদ
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারফেরদৌসী রহমান
চিত্রগ্রাহকহারুন-অল-রশীদ
সম্পাদকআতিকুর রহমান মল্লিক
পরিবেশকসালাউদ্দিন চিত্রকল্প (১৯৭৬)
লেজার ভিশন (২০১১)
মুক্তি১২ নভেম্বর, ১৯৭৬
দৈর্ঘ্য৭৮ মিনিট
দেশবাংলাদেশ
ভাষাবাংলা ভাষা

মেঘের অনেক রং ১৯৭৬ সালে নির্মিত বাংলাদেশী বাংলা ভাষার চলচ্চিত্র। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্রটি পরিচালনা করেছেন হারুনর রশীদ। রত্না কথাচিত্রের ব্যানারে চলচ্চিত্রটি প্রযোজনা করেছেন আনোয়ার আশরাফ ও শাজীদা শামীম। এতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন মাথিন, ওমর এলাহী, রওশন আরা, আদনান প্রমুখ।[১] মেঘের অনেক রং বাংলাদেশের দ্বিতীয় রঙ্গীন চলচ্চিত্র এবং মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক প্রথম রঙিন চলচ্চিত্র।

কাহিনী সংক্ষেপ[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্রতির উপজীব্য বিষয় বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ ও সে সময়ে লাঞ্ছিত নারীরা। যুদ্ধে পাক বাহিনীর দ্বারা লাঞ্ছিত এক নারী আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়। তার সদ্যবোধ সম্পন্ন ছেলে খুঁজে বেড়ায় তার মাকে। অবশেষে আশ্রয় পায় এক ডাক্তার দম্পতির কাছে।

শ্রেষ্ঠাংশে[সম্পাদনা]

  • মাথিন - মাথিন
  • ওমর এলাহী - ওমর
  • রওশন আরা - ডাক্তার রওশন
  • আদনান - আদনান
  • জয়ন্তী
  • উচিংমা
  • মিলি
  • শেখ মতিউর রহমান
  • ডাঃ এস এম চৌধুরী

নির্মাণ[সম্পাদনা]

মেঘের অনেক রং ছবির নির্মাতা হারুনর রশীদ প্রধান নারী চরিত্রে একজন পাহাড়ী মেয়ে সন্ধান করছিলেন। মাথিন তখন রাঙামাটিতে নাটক ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত ছিলেন। তার মেসো রশীদকে মাথিনের কাজের মহড়া নিয়ে আসেন। রশীদ তার কাজ দেখে তাকে এই ছবির জন্য নির্বাচন করেন।[২]

সঙ্গীত[সম্পাদনা]

মেঘের অনেক রং চলচ্চিত্রটির সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন ফেরদৌসী রহমান

পুরস্কার[সম্পাদনা]

পুরস্কার শিরোনাম বিভাগ পুরস্কারপ্রাপ্ত ফলাফল সূত্র
জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কার শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র আনোয়ার আশরাফ (প্রযোজক) বিজয়ী [৩]
শ্রেষ্ঠ পরিচালক হারুনর রশীদ বিজয়ী
শ্রেষ্ঠ শিশু শিল্পী মাস্টার আদনান বিজয়ী
শ্রেষ্ঠ সংগীত পরিচালক ফেরদৌসী রহমান বিজয়ী
শ্রেষ্ঠ চিত্রগ্রাহক হারুনর রশীদ বিজয়ী

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "কিছু কালজয়ী চলচ্চিত্র"দৈনিক প্রথম আলো। ৩ এপ্রিল ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১০ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  2. খানম, এমিলিয়া (১৮ ডিসেম্বর ২০১১)। "পাহাড়ের পাতার ধ্বনি এখনো শুনতে পাই: মাথিন"দৈনিক প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ১০ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  3. "জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রাপ্তদের নামের তালিকা (১৯৭৫-২০১২)"এফডিসিবাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন। সংগ্রহের তারিখ ১০ ডিসেম্বর ২০১৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]