মাসুদ পথিক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মাসুদ পথিক
মাসুদ পথিক, চলচ্চিত্র পরিচালক, গীতিকার এবং কবি (২০২০).jpg
জন্ম০১ আগস্ট ১৯৭৯
জাতীয়তাবাংলাদেশী
পেশাচলচ্চিত্র পরিচালক, গীতিকার, কবি
পরিচিতির কারণনেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ
ওয়েবসাইটwww.masudpathikbd.com

মাসুদ পথিক (জন্ম ১ আগস্ট ১৯৭৯) বাংলাদেশের একজন চলচ্চিত্র পরিচালক, গীতিকার এবং কবি। তিনি নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ" চলচ্চিত্রের জন্য বাংলাদেশের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন[১]। ২০১৪ সালে কাহিনী নকলের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় মুরাদ পারভেজের চলচ্চিত্র ‘বৃহন্নলা’র জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বাতিল করা হলে নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ কে নতুন করে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার দেওয়া হয়।[২] পরবর্তীতে তিনি "মায়া দ্য লস্ট মাদার" নামক চলচ্চিত্র নির্মাণ করেন। চলচ্চিত্রের পাশাপাশি তিনি গান রচনা ও কবিতা লেখেন।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

মাসুদ পথিক স্কুল ও কলেজের পাঠ শেষ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চলচ্চিত্র ভাষায় পি, এইচ, ডি ডিগ্রি লাভ করেন।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন] তিনি ঢাকা কলেজ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সঙ্গে নিবিড়ভাবে যুক্ত ছিলেন।'[৩]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

মাসুদ পথিক কবিতা রচনা এবং চলচ্চিত্র নির্মাণের পাশাপাশি গবেষণার কাজ করেন। তিনি বাংলাদশের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন দর্শনের উপর প্রায় দীর্ঘ পনেরো বছর যাবৎ গবেষণা করছেন[৪]

সাহিত্যকর্ম[সম্পাদনা]

মাসুদ পথিক মোট ২১টি গ্রন্থের প্রণেতা। তার সাহিত্য রচনার মধ্যে রয়েছে কৃষকফুল (১৯৯৬), বাতাসের বাজার (২০০৭), সেতু হারাবার দিন, চাষার বচন (২০১৬) ইত্যাদি। মাসুদ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নিয়মিত প্রকাশনা ‘মাতৃভূমি’র সম্পাদনা করেছেন টানা আট বছর। তিনি ‘গণতন্ত্র মুক্তি পাক’, ‘জননেত্রী শেখ হাসিনা’ নামের বই সম্পাদনার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন।[৫]

চলচ্চিত্র[সম্পাদনা]

তিনি বিখ্যাত কবি নির্মলেন্দু গুণের কবিতা অবলম্বনে তার প্রথম চলচ্চিত্র "নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ" তৈরি করেন এবং প্রথম চলচ্চিত্রেই জাতীয় পুরস্কার লাভ করেন।[৬] এই সাফল্যের পর তিনি আরো বেশ কিছু ছবির কাজ হাতে নিয়েছেন।

চলচ্চিত্র সাল
নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ ২০১৪
মায়া দ্য লষ্ট মাদার ২০১৯
পোয়েট্রি অসম্পূর্ণ

এছাড়াও তিনি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের প্রযোজনায় শেখ হাসিনাকে নিয়ে "আলোর পথের সারথি" নামে একটি তথ্যচিত্র নির্মাণ করেছেন।

বাংলাদেশের খ্যাতিমান চিত্রশিল্পী জনাব শাহাবুদ্দিন আহমেদের চিত্রকর্ম “নারী” এবং কবি কামাল চৌধুরীর “যুদ্ধশিশু” কবিতা অবলম্বনে মুক্তিযুদ্ধ, বীরাঙ্গনা এবং যুদ্ধশিশুকে কেন্দ্র করে “মায়া দ্য লস্ট মাদার”[৭] চলচ্চিত্রটি ২৭ ডিসেম্বর ২০১৯ সালে মুক্তি পেয়েছে।[৮]। সিনেমাটিতে অভিনয় করেছেন ভারতের আলোচিত অভিনেত্রী মমতাজ সরকার। মমতাজ সরকার যাদুকর পিসি সরকার জুনিয়রের মেয়ে। [৯]

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

মাসুদ পথিক চলচ্চিত্র ও সাহিত্যে একাধিক পুরস্কার ও সম্মান পেয়েছেন; তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলোঃ

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "'চাষার পুত'-এর গলায় দুই মেডেল"প্রথম আলো। মতিউর রহমান। সংগ্রহের তারিখ ২৩ নভেম্বর ২০১৮ 
  2. "নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ ও মাসুদ পথিকের বয়ান" 
  3. "নরসিংদী-৫: রাজনীতি ও সংস্কৃতির বিভেদ ঘুচাতে চান ড. মাসুদ পথিক"যুগান্তর। সংগ্রহের তারিখ ২৩ নভেম্বর ২০১৮ 
  4. "বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ১৫ বছর গবেষণা করছি"Amadershomoy Online। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৮-১৩ 
  5. "মনোনয়নপত্র নিলেন চলচ্চিত্র নির্মাতা মাসুদ পথিক"। সংগ্রহের তারিখ ২৩ নভেম্বর ২০১৮ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  6. "দারুণ খুশি, কিছু অভিমান"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ 
  7. "'মায়া—দ্য লস্ট মাদার' চলচ্চিত্রের শুটিং শুরু"প্রিয়.কম (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৫-২৬ 
  8. এনটিভি অনলাইন , ২৭ ডিসেম্বর ২০১৯
  9. "মাসুদ পথিকের সিনেমায় মুমতাজ সরকার"। বাংলাদেশ প্রতিদিন  অজানা প্যারামিটার |1= উপেক্ষা করা হয়েছে (সাহায্য);

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]