জাভাগাল শ্রীনাথ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জাভাগাল শ্রীনাথ
Javagal Srinath.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
জন্ম (১৯৬৯-০৮-৩১) ৩১ আগস্ট ১৯৬৯ (বয়স ৪৫)
মহিশুর, কর্ণাটক, ভারত
ব্যাটিংয়ের ধরণ ডানহাতি
বোলিংয়ের ধরণ ডানহাতি ফাস্ট মিডিয়াম
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক (ক্যাপ ১৯৩) ২৯ নভেম্বর ১৯৯১ বনাম অস্ট্রেলিয়া
শেষ টেস্ট ৩০ অক্টোবর ২০০২ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
ওডিআই অভিষেক (ক্যাপ ৮১) ১৮ অক্টোবর ১৯৯১ বনাম পাকিস্তান
শেষ ওডিআই ২৩ মার্চ ২০০৩ বনাম অস্ট্রেলিয়া
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই
ম্যাচ সংখ্যা ৬৭ ২২৯
রানের সংখ্যা ১০০৯ ৮৮৩
ব্যাটিং গড় ১৪.২১ ১০.৬৩
১০০/৫০ -/৪ -/১
সর্বোচ্চ রান ৭৬ ৫৩
বল করেছে ২৫১৭.২ ১৯৮৯.১
উইকেট ২৩৬ ৩১৫
বোলিং গড় ৩০.৪৯ ২৮.০৮
ইনিংসে ৫ উইকেট ১০
ম্যাচে ১০ উইকেট n/a
সেরা বোলিং ৮/৮৬ ৫/২৩
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ২২/- ৩২/-
উত্স: [১], ৫ আগস্ট ২০১৪

জাভাগাল শ্রীনাথ (এই শব্দ সম্পর্কে উচ্চারণ ; জন্ম: ৩১ আগস্ট, ১৯৬৯) ভারতে জন্মগ্রহণকারী সাবেক ক্রিকেটার। বর্তমানে তিনি আইসিসি’র ম্যাচ রেফারি’র দায়িত্ব পালন করছেন। তাঁকে ভারতের সর্বাপেক্ষা সুন্দরতম ফাস্ট বোলার হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ভারতের একমাত্র ফাস্ট বোলার হিসেবে একদিনের আন্তর্জাতিকে তিন শতাধিক উইকেট লাভ করেছেন তিনি।[১] অবসর গ্রহণের পূর্ব পর্যন্ত ভারতীয় ক্রিকেট দলের সম্মুখসারির ফাস্ট বোলার ছিলেন।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

বিখ্যাত বোলার কপিল দেবের পর পেস বোলিংয়ে তিনি দুই শতাধিক টেস্ট উইকেট পেয়েছেন। ১৯৯৬ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে তাঁর বলের গতিবেগ ছিল ১৫৬ কিমি/ঘ (৯৭ মা/ঘ)। এছাড়াও, ১৯৯৯ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে তিনি ৯৩ মাইল বেগে বোলিং করেছেন।[২] নভেম্বর, ২০০৩ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অঙ্গন থেকে অবসর ঘোষণার পর ভারতের একটি সংবাদপত্র প্রতিবেদন প্রকাশ করে যে, তিনি দক্ষিণ আফ্রিকার স্পিড গানে ঘন্টা প্রতি ১৫৬+ বেগে বোলিং করেছেন।[৩]

১৯৯২, ১৯৯৬, ১৯৯৯ ও ২০০৩ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে সর্বমোট ৪৪ উইকেট দখল করেন। জহির খানও সমসংখ্যক উইকেট নিয়ে তাঁর সাথে যৌথভাবে ভারতের পক্ষে শীর্ষস্থানে অবস্থান করছেন।[৪] ফেব্রুয়ারি, ১৯৯৯ সালে কলকাতায় অনুষ্ঠিত টেস্টে পাকিস্তানের বিপক্ষে ২য় ইনিংসে ৮ উইকেট তুলে নেন।[৫] ১৯৬-৯৭ মৌসুমে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে অনুষ্ঠিত ৬ টেস্টের সিরিজে তিনি ৩৫ উইকেট পান।

অবসর[সম্পাদনা]

২০০৩ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপের পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেন। চূড়ান্ত খেলায় অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে তাঁর ১০ ওভারে ৮৭ রান দেয়াই এর প্রধান কারণ বলে মনে করা হয়। কিন্তু সেমি-ফাইনাল পর্যন্ত তাঁর বোলিং গড় ছিল ১৭.৬২ এবং ওভার প্রতি ৩.৪৮ রান দিয়েছিলেন। পূর্ববর্তী দুই খেলার মধ্যে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৮ ওভারে ২০ ও সেমি-ফাইনালে কেনিয়ার বিরুদ্ধে ৭ ওভারে মাত্র ১১ রান দিয়েছিলেন। অবসর গ্রহণের সময় আইসিসি প্লেয়ার র‌্যাঙ্কিংয়ে ৭০১ পয়েন্ট নিয়ে ৮ম স্থানে অবস্থান করছিলেন।

এপ্রিল, ২০০৬ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল কর্তৃক তিনি ম্যাচ রেফারি হিসেবে মনোনীত হয়। এরপর তিনি ২০০৭ সালের বিশ্বকাপে দায়িত্ব পালন করেন।[৬] এ পর্যন্ত তিনি ২৪ টেস্ট, ১২২ ওডিআই ও ২৫ টি২০আই পরিচালনা করেছেন।[৭] ক্রিকেটে অসামান্য অবদান রাখায় ১৯৯৯ সালে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ তাঁকে অর্জুন পদকে ভূষিত করে।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

কর্ণাটকের হাসান জেলার মহিশূরে শ্রীনাথ জন্মগ্রহণ করেন। শৈশবকাল থেকে ক্রিকেটের দিকে ঝুঁকে পড়েন। মহিশূরের শ্রী জয়াচামারাজেন্দ্র প্রকৌশল কলেজ থেকে স্নাতক ডিগ্রী লাভ করেন। ১৯৯৯ সালে জ্যোৎস্না নাম্নী এক তরুণীর পাণিগ্রহণ করেন। পারস্পরিক সমঝোতায় বিবাহ-বিচ্ছেদ ঘটলে মাধবী পত্রাবলী নাম্নী এক সাংবাদিকের সাথে পুণরায় বিবাহ-বন্ধনে আবদ্ধ হন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Cricket Records-India-ODI-Most Wickets"। Cricinfo। সংগৃহীত ৫ মে ২০১৪ 
  2. "Javagal Srinath"Wisden overview। Cricinfo। সংগৃহীত ১৩ জুলাই ২০০৭ 
  3. http://articles.economictimes.indiatimes.com/2003-11-16/news/27538394_1_javagal-srinath-body-language-indian-pace-attack
  4. "Cricket Records - World Cup - Most Wickets"। Cricinfo। সংগৃহীত ৫ মে ২০১৪ 
  5. http://www.espncricinfo.com/ci/engine/current/match/63830.html
  6. India today। Thomson Living Media India Ltd.। ২০০৬। সংগৃহীত ৩১ মে ২০১২ 
  7. "Javagal Srinath"। ESPNCricinfo। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]