বিষয়বস্তুতে চলুন

হাশিমপুর ইসলামিয়া মুকবুলিয়া কামিল মাদ্রাসা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
হাশিমপুর ইসলামিয়া মুকবুলিয়া কামিল মাদ্রাসা
মাদ্রাসার লোগো
ধরনএমপিও ভুক্ত
স্থাপিত১৯৪১
প্রতিষ্ঠাতামুফতি শফিউর রহমান
প্রাতিষ্ঠানিক অধিভুক্তি
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া (২০০৬- ২০১৬)
ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় (২০১৬- বর্তমান)
অধ্যক্ষমুহাম্মদ নুরুল আলম
মাধ্যমিক অন্তর্ভুক্তিবাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড
শিক্ষার্থীআনু. ২০০০
ঠিকানা
গাছবাড়িয়া
, , ,
শিক্ষাঙ্গনশহুরে
EIIN সংখ্যা১০৪১৮৭
ক্রীড়াক্রিকেট, ফুটবল, ভলিবল, ব্যাটমিন্টন
এমপিও সংখ্যা২১৭০৬২৩০১
ওয়েবসাইটhttps://104187.ebmeb.gov.bd/

হাশিমপুর ইসলামিয়া মুকবুলিয়া কামিল মাদ্রাসা বাংলাদেশের চট্টগ্রাম জেলার চন্দনাইশ উপজেলার একটি উল্লেখযোগ্য আলিয়া মাদ্রাসা। মাদ্রাসাটি ১৯৪১ সালে মাওলানা নজীবুল্লাহর প্রতিষ্ঠিত প্রায় বিলুপ্ত মাদরাসাটি মুফতি শফিউর রহমান অক্লান্ত পরিশ্রম এবং দক্ষতার মাধ্যমে পুনঃ প্রতিষ্ঠা করেন। মাদ্রাসাটির কামিল স্তর ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত রয়েছে এবং দাখিল ও আলিম স্তর বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ডের অধীনে রয়েছে।[১] মাদ্রাসাটির ফাজিল স্তর সর্বপ্রথম ২০০৬ সালে কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্তি লাভ করে এরপরে ২০১৬ সালে মাদ্রাসাটি পুনরায় ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্তিতে স্থানান্তর করা হয়।[২] এই মাদ্রাসার ইআইআইএন নাম্বার হলো ১০৪১৮৭ এবং এমপিও নাম্বার হলো ২১৭০৬২৩০১।[৩] মাদ্রাসাটিতে ইসলামি শিক্ষার সমন্বয়ে পাঠদান করা হয়।[২] মাদ্রাসার বর্তমান অধ্যক্ষের নাম মাওলানা নুরুল আলম।

ইতিহাস

[সম্পাদনা]

দক্ষিণ চট্টগ্রামের মুফতি সাহেব খ্যাত আল্লামা মুফতি শফিউর রহমানের পিতা ১৯৩৯ সালে মারা গেলে তিনি বার্মা থেকে দেশে ফিরে আসেন এবং স্থানীয় জনগণ তাঁর অধিক খ্যাতি ও সুনাম এবং দক্ষতার জন্য বার্মায় যেতে দেয়নি এবং তিনি ১৯৪১ সালে তার শিক্ষক মাওলানা নজীবুল্লাহর প্রতিষ্ঠিত প্রায় বিলুপ্ত মাদরাসাটি অক্লান্ত পরিশ্রমের মাধ্যমে হাশিমপুর মকবুলিয়া সিনিয়ার মাদ্রাসাটি পুনঃ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে নবজীবন দান করেন।[৪]

শিক্ষা কার্যক্রম

[সম্পাদনা]

হাশিমপুর ইসলামিয়া মুকবুলিয়া মাদরাসাটি ১৯৪১ সালে প্রতিষ্ঠা হওয়ার পর মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড কতৃক ১৯৫৬ সালে দাখিল, ১৯৬২ সালে আলিম, ফাজিল এবং ১৯৮৩ সালে বিজ্ঞানের মনজুরি লাভ করে। এরপরে ২০০৬ সালে মাদ্রাসাটি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত হয়, এবং ২০১৬ সালে ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় অধীনে স্থানান্তরিত হয়। অত্র দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি প্রাথমিকভাবে কামিল পাঠদানের অনুমতিপ্রাপ্ত হয় ১৩ই এপ্রিল ২০২২ সালে। এই দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গরীব অসহায় ও এতীম ছাত্রদের জন্য ৩০ই জানুয়ারী ১৯৯২ সালে সমাজ সেবা অধিদপ্তর, চট্টগ্রাম কতৃক সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের ক্যাপিটেশন গ্রান্ট প্রাপ্ত "কর্ণেল (অবঃ) অলি আহমেদ (বীর বিক্রম) এতিমখানা" নামে এতিমখানা চালু করা হয়। ১৯৬০ সালে শাহ মজিদিয়া হেফজখানা নামে হেফজখানা চালু হয়।

অধ্যক্ষ তালিকা

[সম্পাদনা]

১। মাওলানা মুহাম্মদ নজিবুল্লাহ (১৯৪১ - ১৯৪৫)

২। মুফতি শফিউর রহমান (১৯৪৬ - ১৯৫৭)

৩। মাওলানা ইসহাক (১৯৫৭ - ৩১ মে ১৯৯৭)

৪। মাওলানা নুরুল ইসলাম (ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ) (০১ জুন ১৯৯৭ - ২৮ ফেব্রুয়ারি ১৯৯৮)

৫। মুহাম্মদ জব্বার আল কাদেরী (০১ মার্চ ১৯৯৮ - ৩১ জানুয়ারি ২০০১)

৬। মাওলানা নুরুল ইসলাম (ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ) (০১ ফেব্রুয়ারি ২০০১ - ৩০ জুন ২০০২)

৭। মুহাম্মদ নুরুল আলম (০১ জুলাই ২০০২ - বর্তমান)

উল্লেখযোগ্য শিক্ষার্থী

[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র

[সম্পাদনা]
  1. "গভর্নিং বডি – চট্টগ্রাম বিভাগের আলিয়া মাদ্রাসা – Islamic Arabic University"iau.edu.bd। ২০২৪-০৫-২৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২৪-০৫-২৭ 
  2. ইমাদ উদ্দীন, মোহাম্মদ। "ইলমে দ্বীন শিক্ষা চর্চায় হাশিমপুর ইসলামিয়া মুকবুলিয়া কামিল (এমএ) মাদরাসা"Desh Deshantor24 (ইংরেজি ভাষায়)। 
  3. "হাশিমপুর ইসলামিয়া মুকবুলিয়া কামিল মাদরাসা"সহপাঠী ওয়েবসাইট। সংগ্রহের তারিখ ২০২৪-০৫-০১ 
  4. ইমাদ উদ্দীন, মোহাম্মদ। "ইলমে দ্বীনি শিক্ষা চর্চায় হাশিমপুর ইসলামিয়া মুকবুলিয়া কামিল (এম এ) মাদরাসা"deshchitro.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২৪-০৫-২৭ 
  5. আমিন উল্লাহ, কাজী মোহাম্মদ। "স্মরণ : দ্বীনি শিক্ষার প্রসারে আল্লামা মুসলেহ উদ্দিন রহ."Daily Nayadiganta। সংগ্রহের তারিখ ২০২৪-০৫-২৭