উলাট সিদ্দিকিয়া ফাজিল মাদ্রাসা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(উলাট সিদ্দিকিয়া ফাযিল মাদ্রাসা থেকে পুনর্নির্দেশিত)
উলাট সিদ্দিকিয়া ফাজিল ডিগ্রি মাদ্রাসা
ধরনএমপিও ভুক্ত
স্থাপিত১ জানুয়ারি ১৯১৫; ১০৭ বছর আগে (1915-01-01)
প্রাতিষ্ঠানিক অধিভুক্তি
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ (২০০৬- ২০১৬)
ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় (২০১৬- বর্তমান)
অধ্যক্ষমোঃ মতিউর রহমান
মাধ্যমিক অন্তর্ভুক্তিবাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড
শিক্ষার্থীআনু. ৭০০
ঠিকানা
উলাট
, , ,
শিক্ষাঙ্গনগ্রাম্য
EIIN সংখ্যা১২৫৭৮০
ক্রীড়াক্রিকেট, ফুটবল, ভবিবল, ব্যাটমিন্টন
ওয়েবসাইটhttp://125780.ebmeb.gov.bd/

উলাট সিদ্দিকিয়া ফাজিল (ডিগ্রি) মাদ্রাসা পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলার অন্যতম প্রাচীন আলিয়া মাদ্রাসা ইসলামী বিদ্যাপীঠ। মাদ্রাসাটি স্থানীয়ভাবে সংক্ষেপে উলাট মাদ্রাসা নামেও পরিচিত। ১৯১৫ সালে প্রতিষ্ঠিত এই মাদ্রাসা পাবনা জেলার অন্যতম প্রাচীন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।[১][২] আলিয়া মাদ্রাসাসমূহের মধ্যে ফলাফলের দিক থেকে মাদ্রাসাটি সুজানগর উপজেলার শীর্ষে থাকে। মাদ্রাসার বর্তমানে অধ্যক্ষের নাম মো. মতিউর রহমান।[৩]

অবস্থান[সম্পাদনা]

মাদ্রাসাটি পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলার মানিকহাট ইউনিয়নের উলাট গ্রামে অবস্থিত। এটি ঢাকা পাবনা মহাসড়কের চিনাখড়া বাস স্টেশন হতে ৮ কিলোমিটার দক্ষিণে এবং সুজানগর উপজেলা সদর হতে ১২ কিলোমিটার পূর্বে গাজনার বিলের দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থিত।[৩] মাদ্রাসাটি বর্তমানে ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে পরিচালিত একটি ফাজিল মাদ্রাসা।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

মাওলানা ইসহাক মিয়া, উলাট মাদ্রাসার সবচেয়ে দীর্ঘমেয়াদী অধ্যক্ষ

উলাট মাদ্রাসা পাবনা জেলার মধ্যে ২য় তম প্রতিষ্ঠিত আলিয়া মাদ্রাসা। ১৯১২ সালে প্রথমে মক্তব আকারে চালু করা হয় মাদ্রাসাটি। উলাট গ্রামের হাজী তমিজউদদীন ও বদিউজ্জামান প্রথমে মাদ্রাসার জন্য জমি দান করেন। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় ছনের একটি ঘর বানানো হয়। ১৯১৫ সালে মাদ্রাসাটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন ভারতের ফুরফুরা শরীফের পীর মোহাম্মদ আবু বকর সিদ্দিকি, মাদ্রাসার নামকরণ করা হয়, উলাট সিদ্দিকিয়া এবতেদায়ী মাদ্রাসা। মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক ছিলেন যশোর জেলার মাওলানা আব্দুল মালেক।

প্রাথমিক এই মাদ্রাসাকে পরিচালনা করার জন্য আশে পাশের গ্রামের সবাইকে নিয়ে মাদ্রাসার পরিচালনা ও উন্নয়ন কমিটি তৈরি করা হয়। এই কমিটির তালিকা দেখুন:

গ্রামের নাম সদস্যদের নাম[৩]
উলাট হাজী তমিজ উদদীন, ওলি মোল্লা, আবেদ আলী মোল্লা,  তেলেম মৃধা,  ইরাদ শেখ ও গোড়ান শেখ
বোনকোলা নওজেস আলী মিয়া
মানিকহাট নিফাজ উদ্দিন মিয়া
খয়রান ইয়াদ আলী খান, হাজী ময়েজ উদ্দিন বিশ্বাস ও মহির উদ্দিন তালুকদার
রাইপুর হাজী মোহাম্মদ আলী
তেবিলা হাজী আছির উদ্দিন
খালইভাড়া মহর আলী প্রামানিক ও আব্দুস সাত্তার প্রামানিক

মাদ্রাসার সকল অধ্যক্ষের মধ্যে মাওলানা ইসহাক মিয়ার সবচেয়ে দীর্ঘ সময় অধ্যক্ষের দায়িত্ব (১৯৬৭-২০০৪) পালন করেছেন। এবং তার সময়েই মাদ্রাসার সবচেয়ে অবকাঠামো ও শিক্ষাসূচক উন্নয়ন ঘটেছে।[৩]

বোর্ডের স্বীকৃতি[সম্পাদনা]

১৯১৫ সালে ইবতেদায়ী শাখা চালু হবার পরে ১৯৪২ সালে কলকাতা আলিয়া মাদ্রাসা (বর্তমানে আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়) কর্তৃক দাখিল শ্রেণী অনুমোদন লাভ করে। তখন মাদ্রাসাটির নাম হয় উলাট সিদ্দিকিয়া সিনিয়র মাদ্রাসা, এবং প্রতিষ্ঠানে সুপারিন্টেন্ডেন্ট বা সুপার পদটি চালু হয়। এরপরে ১৯৭৬ সালে আলিম শ্রেণী অনুমোদন লাভ করে এবিং ১৯৯২ সালে ফাজিল অনুমোদন পায়। ফাজিল অনুমোদনের পরে মাদ্রাসার নামকরন হয়, উলাট সিদ্দিকীয়া ফাজিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসা। ২০০৬ সালে ফাজিল মাদ্রাসাগুলোকে সাধারণ শিক্ষার সমমান দেওয়ার জন্য ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের অধিভুক্ত করা হয়, এর প্রেক্ষিতে এই মাদ্রাসাও ইবির অধিভুক্তি লাভ করে।[৩]

মাদ্রাসাটি বর্তমানে আলিম পর্যন্ত বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড ঢাকা এবং ফাযিল শ্রেণি ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় (২০১৬ সাল থেকে) অধীনে পরিচালিত। অত্র মাদ্রাসার অধীনে একট কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কম্পিউটার ভকেশনাল ইনস্টিটিউট ২০০৪ সাল থেকে পরিচালিত হচ্ছে।

শিক্ষা কার্যক্রম[সম্পাদনা]

মাদ্রাসাটি দাখিল ও আলিম ফলাফলের দিক থেকে সুজানগর উপেজলার আলিয়া মাদ্রাসাসমূহের মধ্যে প্রথম স্থান দখল করে থাকে।[৪] মাদ্রাসার দাখিল ও আলিম শ্রেণীতে বিজ্ঞান শাখা চালু রয়েছে। এছাড়াও ফাজিল শ্রেণীতে কুরআন, হাদিস, ইসলামের ইতিহাস প্রভৃতি বিভাগ চালু রয়েছে।

অধ্যক্ষগনের তালিকা[সম্পাদনা]

নিম্নে মাদ্রাসার অধ্যক্ষগণের তালিকা দেওয়া হলো:

উলাট মাদ্রাসার অধ্যক্ষগণের তালিকা
নং নাম কার্যকাল বাসস্থান মন্তব্য
মাওলানা আব্দুল মালেক ১৯১৫-১৯২১ যশোহর
আব্দুল হাকিম ১৯২১-১৯২৮ নোয়াখালী
রশিদুল্লাহ ১৯২৮-১৯৫৫ নোয়াখালী
আব্দুস সুবহান ১৯৫৫-১৯৫৬ মোমিনপাড়া, সুজানগর, পাবনা
আব্দুস সাত্তার (ভারপ্রাপ্ত) ১৯৫৬-১৯৫৬
আলিম উদ্দিন ১৯৫৬-১৯৫৯ উলাট, সুজানগর, পাবনা
আফসার উদ্দিন ১৯৫৯-১৯৬২ দুলাই, সুজানগর, পাবনা
মোখলেসুর রহমান ১৯৬২-১৯৬৫ ভিটবিলা, সুজানগর, পাবনা
আব্দুর গফুর ১৯৬৫-১৯৬৭ সাথিয়া, পাবনা
১০ মাওলানা ইসহাক মিয়া ১৯৬৭-২০০৪ কুমিল্লা ৩৭ বছর দায়িত্ব পালন
১১ রেজাউল হক (ভারপ্রাপ্ত) ২০০৪-২০০৫ নোয়াখালী
১২ জাহাঙ্গীর কবির ২০০৫-২০১০ ঘুঘুদহ, সুজানগর, পাবনা
১৩ নাসির উদ্দিন ২০১০-২০১২ সোনাপদ্ম, বেড়া, পাবনা
১৪ হুসাইন আহমদ ২০১২-২০২০ ছাতিয়ানি, পাবনা সদর, পাবনা
১৫ মো. মতিউর রহমান ২০২০-বর্তমান ফরিদপুর, পাবনা

অবকাঠামো[সম্পাদনা]

উলাট গ্রামের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত এ মাদ্রাসাটি প্রায় তিন একর জমির উপর নিজস্ব ক্যাম্পাস রয়েছে। তিনটি দ্বিতলা ও একটি একতলা বিশিষ্ট ভবন ও একটি চারতলা ভবন নির্মাণাধীন। বর্তমানে শিক্ষক কর্মচারীর পদের সংখ্যা ৩৪ জন।

সুযোগ-সুবিধা[সম্পাদনা]

বাৎসরিক উৎসব[সম্পাদনা]

এই মাদ্রাসা প্রাঙ্গনে প্রতিষ্ঠার সময় থেকেই প্রতি বছর ইসলামী জালছার আয়োজন করা হয়ে থাকে। যা সুজানগর উপজেলার মধ্যে সবচেয়ে বড় ইসলামি মাহফিল হিসাবে পরিচিত। আর ১৯৩০-৪০ সালের দিকে এই জালসায় বিভিন্ন জেলার মানুষের সমাগম ঘটতো। এছাড়াও মাদ্রাসার মাঠটি বিভিন্ন রাজনৈতিক প্রোগ্রামের স্থান হিসাবে ব্যবহৃত হয়।[৫]

সহশিক্ষা কর্মসুচি[সম্পাদনা]

  • বাংলাদেশ স্কাউট
  • বাৎসরিক শিক্ষা সফর
  • বাৎসরিক সাংস্কৃতিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা

পোশাক[সম্পাদনা]

  • ছাত্রঃ সাদা পাজামা, গাড় সবুজ (পেস্ট কালার) পাঞ্জাবী, সাদা টুপি এবং সাদা জুতা-মোজা।
  • ছাত্রীঃ সাদা পাজামা, গাড় সবুজ (পেস্ট কালার) ফ্রক, সাদা স্কার্ফ এবং সাদা জুতা-মোজা।

প্রাক্তন শিক্ষার্থী[সম্পাদনা]

  • আব্দুস সুবহান - প্রাক্তন শিক্ষার্থী ও মাদ্রাসার চতুর্থ অধ্যক্ষ।
  • আবদুল্লাহ - মাদ্রাসার প্রাক্তন শিক্ষার্থী ও আরবি শিক্ষক।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "পাবনা জেলা - বাংলাপিডিয়া"bn.banglapedia.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৫-০২ 
  2. "সুজানগর উপজেলা - বাংলাপিডিয়া"bn.banglapedia.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-১১-১৭ 
  3. হোসেন পানু, মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর (২০২১-০৮-০২)। "উলাট সিদ্দিকীয়া ফাজিল মাদ্রাসা"আমাদের সুজানগর। এই লেখাটি প্রকাশ হয়েছিলো, শখের তরী উলাট সাইদ ফুটবল ক্লাবের ক্রমবিকাশ শীর্ষক স্মরণিকাতে। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-১১-১৭ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  4. Mostafijar। "সুজানগর উপজেলার এসএসসি পরীক্ষার রেজাল্ট-২০২০ - Khoborsarabela.net"khoborsarabela.net। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-১১-১৭ 
  5. "বিশাল শোডাউন বিএনপির সাজ্জাদের"SAMAKAL। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-১১-১৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]