নওগাঁও রাশেদিয়া ফাজিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
নওগাঁও রাশেদিয়া ফাজিল মাদ্রাসা
নওগাঁও রাশেদিয়া ফাজিল মাদ্রাসা.jpg
ধরনএমপিও ভুক্ত মাদ্রাসা
স্থাপিত১৯২২
প্রতিষ্ঠাতামরহুম আইনুদ্দিন হাজী ও মরহুম ওয়ালী উল্লাহ আমীন
অধিভুক্তিইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ (২০০৬- ২০১৬)
ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় (২০১৬- বর্তমান)
অধ্যক্ষআল্লামা যাকারিয়া চৌধুরী আল মাদানী
শিক্ষার্থীছয়শতাধিক
ঠিকানা
নওগাঁও বাজার, মতলব, চাঁদপুর
,
ভাষাবাংলা, ইংরেজিআরবি
ওয়েবসাইটhttp://103870.ebmeb.gov.bd/

নওগাঁও রাশেদিয়া ফাজিল মাদ্রাসা বাংলাদেশের চট্টগ্রাম বিভাগের চাঁদপুর জেলার অন্তর্ভুক্ত মতলব উপজেলার একটি আলিয়া মাদ্রাসা। বর্তমানে এটি ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত একটি ফাজিল বা ডিগ্রী সমমানের মাদ্রাসা। মাদ্রাসাটির বর্তমান অধ্যক্ষ আল্লামা যাকারিয়া চৌধুরী আল মাদানী তিনি ঐতিহাসিক সাদরা দরবার শরীফের পীর হিসেবেও পরিচিত।[১][২][৩]

অবস্থান[সম্পাদনা]

এই মাদ্রাসাটি চাঁদপুর জেলার অন্তর্গত মতলব উপজেলার নওগাঁও বাজারের ৩০০মিটার উত্তর পাশ্বে অবস্থিত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

হাজী শরীয়তুল্লাহর চতুর্থ বংশধর আবা খালেদ রশীদ উদ্দিন ওরফে পীর বাদশা মিয়ার নির্দেশে তারই মুরীদ মরহুম আইনুদ্দিন হাজী ও মরহুম ওয়ালী উল্লাহ আমীন দ্বয় এর হাত ধরে ১৯২২ সালে প্রতিষ্ঠনটির যাত্রা শুরু হয়। এটি চাঁদপুর জেলার অন্যতম প্রচীন বিদ্যানিকেতন। প্রতিষ্ঠানটি ভারতীয় উপমহাদেশের ব্রিটিশ শাসনামলের ১৯৩৬ সালে দাখিল, পাকিস্তান শাসনামলের ১৯৬৩ সালে আলিম ও ১৯৬৫ সালে বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড এর অধিনে ফাজিল মঞ্জুরী প্রাপ্ত হয়। ব্রিটিশ শাসনামল থেকে এখন পর্যন্ত এই ইসলামি বিদ্যানিকেতনটি সমানতালে তার শিক্ষা প্রদান করে আসছে।[৪]

শিক্ষা ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

মাদ্রাসাটির ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা বর্তমানে ছয়শতাধিক। প্রতিষ্ঠানটির মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে রয়েছে সাধারণ ও বিজ্ঞান বিভাগ। এছাড়াও প্রথম থেকে ফাজিল (ডিগ্রী) পর্যন্ত অধ্যায়ন করার সুযোগ প্রতিষ্ঠানটিতে রয়েছে।

প্রতিষ্ঠান প্রধানগণ[সম্পাদনা]

  1. মরহুম রওশন আলী - ১৯২২ (প্রধান শিক্ষক)
  2. মরহুম ওয়ালী উল্লাহ আমীন - ১৯২৪ (প্রধান শিক্ষক)
  3. মরহুম আব্দূল হামিদ -১৯৩০ (প্রধান শিক্ষক)
  4. মাওলানা আব্দুল মজীদ - ১৯৫০ (সুপারেনটেনডেন্ট)
  5. মাওলানা দেলোয়ার হোসাইন - ১৯৬০ (সুপারেনটেনডেন্ট)
  6. মাওলানা ফজলুর রহমান - ১৯৬৯-১৯৭৮ (অধ্যক্ষ)
  7. মাওলানা আব্দুস সাত্তার মজুমদার - ১৯৭৮-১৯৯৯ (অধ্যক্ষ)
  8. আল্লামা যাকারিয়া চৌধুরী আল মাদানী - ১৯৯৯-বর্তমান (অধ্যক্ষ)

উল্লেখযোগ্য প্রাক্তন শিক্ষার্থী[সম্পাদনা]

  • মাওলানা নাছির উল্লাহ চাঁদপুরী (রহঃ) - তিনি সমগ্র আরব জাহান ভ্রমণকারী ও প্রখ্যাত ইসলামী বক্তা ছিলেন।
  • মুফতী শাহ সাঈয়্যেদ মু’তাসিম বিল্লাহ রব্বানী - বাংলাদেশের ইসলাম ও আধ্যাত্নিকতা প্রচারের অন্যতম প্রাচীন কেন্দ্র বদরপুর দরবার শরফের বর্তমান পীর।
  • ড. বাকীবিল্লাহ মিশকাত চৌধুরী - তিনি ইসলামি পন্ডিত, বিভিন্ন টেলিভিশনের উপস্থাপক ও জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ এর ৬৭তম অধিবেশনে আমন্ত্রিত ছিলেন।[৫]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "বাংলাদেশের সকল আলিয়া মাদ্রাসার-তালিকা - বাংলাদেশ শিক্ষাতথ্য ও পরিসংখ্যান ব্যুরো (ব্যানবেইস)-"www.banbeis.gov.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৭-২৬ 
  2. "নওগাঁও রাশেদিয়া ফাজিল মাদ্রাসার সংক্ষিপ্ত ইতিহাস"NOAGAON RASHEDIA SE. FAZIL MADRASAH। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০২-২৩ 
  3. "যে কারণে চাঁদপুরের ৪০ গ্রামে আজ ঈদ"আরটিভি। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৫-১২ 
  4. "নওগাঁও রাশেদিয়া ফাজিল মাদ্রাসার সংক্ষিপ্ত ইতিহাস"NOAGAON RASHEDIA SE. FAZIL MADRASAH। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০২-২৩ 
  5. "9 July 2013 - the United Nations" (PDF)United Nations। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০২-২৩