সৌদি আরব

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(সৌদি আরবের জনপরিসংখ্যান থেকে পুনর্নির্দেশিত)
রাজতন্ত্রীয় সৌদি আরব
المملكة العربية السعودية
মামলেকাতুল আরবিয়াতুস সৌদিয়া
পতাকা Emblem
নীতিবাক্য"لا إله إلا الله محمد رسول الله"
আল্লাহ ছাড়া কোন উপাস্য নাই এবং মোহাম্মদ সাঃ তাঁহার প্রেরিত রাসুল" কালেমা)[১]
জাতীয় সঙ্গীত: "আশ আল মালেক"
"দীর্ঘজীবী হোক রাজা"
রাজধানী
এবং বৃহত্তম নগরী
রিয়াদ
২৪°৩৯′ উত্তর ৪৬°৪৬′ পূর্ব / ২৪.৬৫০° উত্তর ৪৬.৭৬৭° পূর্ব / 24.650; 46.767
রাষ্ট্রীয় ভাষাসমূহ আরবি
জাতীয়তাসূচক বিশেষণ সৌদি, সৌদি আরবি
সরকার রাজতন্ত্র
 •  বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ
 •  যুবরাজ মুহাম্মদ বিন নায়েফ
 •  দ্বিতীয় যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমান আল সৌদ
আইন-সভা মন্ত্রি পরিষদ
বাদশাহ কর্তৃক নিযুক্ত
প্রতিষ্টিত
 •  প্রথম সৌদি রাষ্ট্র প্রতিষ্টিত ১৭৪৪ 
 •  দ্বিতীয় সৌদি রাষ্ট্র প্রতিষ্টিত ১৮২৪ 
 •  তৃতীয় সৌদি রাষ্ট্র ঘোষিত ৮ই জানুয়ারী, ১৯২৬ 
 •  স্বীকৃত ২০শে মে, ১৯২৭ 
 •  রাজতন্ত্র একীভূত ২৩শে সেপ্টেম্বর, ১৯৩২ 
 •  মোট  কিমি (১৪ই)
 বর্গ মাইল
 •  পানি (%) অতি সামান্য
জনসংখ্যা
 •  ২০১০ আনুমানিক ২৭,১৩৬,৯৭৭[২] (৪১st)
 •  ঘনত্ব ১২/কিমি (২০৫তম)
/বর্গ মাইল
জিডিপি (পিপিপি) 2010 আনুমানিক
 •  মোট $৬১৮.৭৪৪ বিলিয়ন[৩]
 •  মাথা পিছু $২৩,৭০১.২৬০[৩]
জিডিপি (নামমাত্র) ২০১০ আনুমানিক
 •  মোট $৪৩৮.০০৯ বিলিয়ন[৩]
 •  মাথা পিছু $১৬,৭৭৮.১১২[৩]
এইচডিআই (২০১০) বৃদ্ধি ০.৭৫২[৪]
ত্রুটি: অকার্যকর এইচডিআই মান · ৫৫তম
মুদ্রা রিয়াল (SR) (SAR)
সময় অঞ্চল AST (ইউটিসি+৩)
 •  গ্রীষ্মকালীন (ডিএসটি) (নিরীক্ষিত না) (ইউটিসি+৩)
ড্রাইভের দিক ডান
কলিং কোড +৯৬৬
ইন্টারনেট টিএলডি .sa, السعودية.

সৌদি আরব (আরবি: العربية السعودية আল'আরবিয়া আস্‌সা'উদিয়া‎) সরকারিভাবে সৌদি আরব সাম্রাজ্য নামে পরিচিত। আয়তনের দিক দিয়ে পশ্চিম এশিয়ার সবচেয়ে বড় আরব দেশ যার আয়তন ২১,৫০,০০০ বর্গ কিমি। আলজেরিয়ার পরে আরব বিশ্বে দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ। এর উত্তরে জর্ডানইরাক, উত্তরপূর্বে কুয়েত অবস্থিত, কাতার, বাহরাইন এবং সংযুক্ত আরব আমিরাত পূর্বে অবস্থিত, ওমান দক্ষিনপুর্বে আর ইয়েমেন দক্ষিনে।

সৌদি আরব মূলত চারটি সতন্ত্র অঞ্চল হেজাজ, নজদ, আল হাসা পুর্বাঞ্চলীয় আরব এবং আসির দক্ষিণাঞ্চলীয় আরব নিয়ে গঠিত। আবদুল আজিজ ইবনে সৌদ ১৯৩২ সালে সৌদি আরব সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি ১৯০২ সালের শুরুতে রিয়াদ ও তার পুর্ব পুরুষের রাজ্য দখলসহ ধারাবাহিক যুদ্ধের মাধ্যমে চারটি অঞ্চলকে একত্রিত করে একটি রাষ্ট্রে পরিণত করেন। দেশটি পুরোপুরি রাজতান্ত্রিক পদ্ধতিতে পরিচালিত হয় এবং আইনের ক্ষেত্রে ইসলামি আইনের অনুসরণ করা হয়। ইসলামের দুই পবিত্র মসজিদ মসজিদুল হারামমসজিদে নববীর কারণে এই দেশটাকে দুই পবিত্র মসজিদের দেশ বলা হয়। দেশটিতে ২,৮৭,০০০০০ জন বাস করে যার মধ্যে দুই কোটি সৌদিয়ান আর ৮৭০০০০০ জন বিদেশী। পৃথিবীর এক নাম্বার তেল উৎপাদনকারী ও রপ্তানিকারক দেশ এবং পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম হাইড্রোকার্বন মজুদকারি। এই তেলের কারণে দেশটির অর্থনীতি যেমন বাড়ছে তেমনিভাবে এর মানব সম্পদ উন্নয়ন সূচকেও উপরের দিকে তাছাড়াও একমাত্র আরব দেশ হিসেবে জি-২০ প্রধান অর্থনৈতিক শক্তির সদস্য। দেশটি তার অর্থনীতিকে কর্পোরেশন কাউন্সিল ফর দ্য আরব স্টেটস অব দ্য গালফ (জিসিসি) এর মধ্যে ডাইভারছিফাইড করছে। পৃথিবীর চতুর্থ সামরিক খরচ দেশটি বহন করে। দেশটিকে মধ্যপ্রাচ্যের ক্ষমতাধর দেশ হিসেবে ধরা হয়।দেশটি জিসিসি, ওআইসি ও ওপেক এর সদস্য।

রাজনীতি[সম্পাদনা]

রাষ্ট্র রাজতান্ত্রিক পদ্ধতিতে শাসিত হয়।[৫] তাই রাজনৈতিক দলের কর্মকাণ্ড বা নির্বাচনের ব্যবস্থা নেই। ১৯৯২ সালে রাজকীয় ফরমানের মাধ্যমে চালু করা মৌলিক আইন অনুযায়ী বাদশাহকে অবশ্যই শরিয়ার প্রয়োগ করতে হবে এবং এতে কুরআন ও সুন্নাহকে রাষ্ট্রের সংবিধান হিসেবে গ্রহণ করা হয়।[৬] সংবিধান হিসেবে কোরআানকে গ্রহন করা হলেও এখানে রাজতন্ত্রই বিদ্যমান। প্রথা অনুযায়ী ঐতিহ্যবাহী গোত্রীয় সম্মেলন মজলিসে প্রাপ্ত বয়স্ক যেকোনো ব্যক্তি বাদশাহর কাছে আবেদন করতে পারে।[৭]

প্রশাসনিক অঞ্চলসমূহ[সম্পাদনা]

ভূগোল[সম্পাদনা]

দেশের বেশির ভাগ অঞ্চলই মরুভূমি। দেশের সবচেয়ে বড় মরুভুমির নাম রাব-আল-খালি।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন] পশ্চিমাংশ উর্বর।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

সৌদি আরব এর মূল অর্থনীতি পেট্রোলিয়াম ভিত্তিক; বাজেটে রাজস্ব মোটামুটি ৭৫% এবং রপ্তানি আয়ের ৯০% তেল শিল্প থেকে আসে।

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

সৌদি আরবের জনসংখ্যা প্রায় ২ কোটি ৭০ লক্ষ। এর মধ্যে নথিভুক্ত অভিবাসীর সংখ্যা ৮৮ লক্ষ আর অবৈধ অভিবাসী প্রায় ১৫ লক্ষ। সৌদি আরবের নিজস্ব জনসংখ্যা প্রায় ১ কোটি ৬০ লক্ষ।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন] আরবি ভাষা সৌদি আরবের সরকারি ভাষা। এখানকার ৮০%-এরও বেশি লোক আরবি ভাষায় কথা বলে। এছাড়াও সৌদি আরবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে আগত অভিবাসী সম্প্রদায় আছে, যেগুলিতে বহু বিদেশী ভাষা প্রচলিত। এই সম্প্রদায়গুলিতে ফিলিপাইন দ্বীপপুঞ্জ, ভারতীয় উপমহাদেশ, ইরান, ইত্যাদি দেশের ভাষাগুলি প্রচলিত। আন্তর্জাতিক কর্মকাণ্ডে ইংরেজি ভাষা ব্যবহার করা হয়।

সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. About Saudi Arabia: Facts and figures, The Royal Embassy of Saudi Arabia, Washington D.C.
  2. Alriyadh Newspaper
  3. ৩.০ ৩.১ ৩.২ ৩.৩ "Saudi Arabia"। International Monetary Fund। সংগৃহীত ২০১০-০৪-২১ 
  4. "Human Development Report 2010"। United Nations। ২০১০। সংগৃহীত ৫ নভেম্বর ২০১০ 
  5. Cavendish, Marshall (২০০৭)। World and Its Peoples: the Arabian Peninsula। পৃ: ৭৮। আইএসবিএন 978-0-7614-7571-2 
  6. Robbers, Gerhard (২০০৭)। Encyclopedia of world constitutions, Volume 1। পৃ: ৭৯১। আইএসবিএন 0-8160-6078-9 
  7. Cavendish, Marshall (২০০৭)। World and Its Peoples: the Arabian Peninsula। পৃ: 92–93। আইএসবিএন 978-0-7614-7571-2 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]