অরুন জেটলি স্টেডিয়াম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(ফিরোজ শাহ কোটলা গ্রাউন্ড থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
অরুণ জেটলি স্টেডিয়াম
अरुण जेटली स्टेडियम
ارون جیٹلی اسٹیڈیم
ਅਰੁਣ ਜੇਤਲੀ ਸਟੇਡੀਅਮ
কোটলা
Feroz Shah Kotla Cricket Stadium, Delhi.jpg
ফিরোজ শাহ কোটলা ক্রিকেট স্টেডিয়াম
স্টেডিয়ামের তথ্যাবলী
অবস্থানবাহাদুর শাহ জাফর মার্গ, দিল্লি
স্থানাঙ্ক২৮°৩৮′১৬″ উত্তর ৭৭°১৪′৩৫″ পূর্ব / ২৮.৬৩৭৭৮° উত্তর ৭৭.২৪৩০৬° পূর্ব / 28.63778; 77.24306স্থানাঙ্ক: ২৮°৩৮′১৬″ উত্তর ৭৭°১৪′৩৫″ পূর্ব / ২৮.৬৩৭৭৮° উত্তর ৭৭.২৪৩০৬° পূর্ব / 28.63778; 77.24306
প্রতিষ্ঠাকাল১৮৮৩
ধারন ক্ষমতা৪১,৮২০[১]
স্বত্ত্বাধিকারীদিল্লি জেলা ক্রিকেট সংস্থা
পরিচালনায়দিল্লি জেলা ক্রিকেট সংস্থা
অন্যান্যদিল্লি ক্রিকেট দল, দিল্লি ডেয়ারডেভিলস
প্রান্ত
বিরু ৩১৯ প্রান্ত
বিরু ৩০৯ প্রান্ত
আন্তর্জাতিক তথ্যাবলী
প্রথম টেস্ট১০-১৪ নভেম্বর ১৯৪৮: ভারত বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
শেষ টেস্ট৩-৭ ডিসেম্বর ২০১৫: ভারত বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
প্রথম ওডিআই১৫ সেপ্টেম্বর ১৯৮২: ভারত বনাম শ্রীলঙ্কা
শেষ ওডিআই১১ অক্টোবর ২০১৪: ভারত বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
১৭ ডিসেম্বর ২০১৫ অনুযায়ী
উৎস: ফিরোজ শাহ কোটলা মাঠ, ক্রিকইনফো

অরুণ জেটলি স্টেডিয়াম (হিন্দি: अरुण जेटली स्टेडियम, উর্দু: ارون جیٹلی اسٹیڈیم‎‎, পাঞ্জাবী: اਅਰੁਣ ਜੇਤਲੀ ਸਟੇਡੀਅਮ) (পূর্বে ফিরোজ শাহ কোটলা মাঠ) ভারতের দিল্লির বাহাদুর শাহ জাফর মার্গে অবস্থিত ক্রিকেট স্টেডিয়াম। ১৮৮৩ সালে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। দিল্লি ডিস্ট্রিক্ট ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন (ডিডিসিএ) কর্তৃক এ মাঠ নিয়ন্ত্রিত ও পরিচালিত হচ্ছে। কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সের পর এ মাঠটি ভারতের দ্বিতীয় প্রাচীনতম আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের মর্যাদা পায়। ২০১৫ সাল পর্যন্ত ভারত ক্রিকেট দল টেস্টে ২৮ বছর ও একদিনের আন্তর্জাতিকে ১০ বছরেরও অধিক সময় ধরে অপরাজিত অবস্থায় রয়েছে।[২] ২০০৮ সাল থেকে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগের অন্যতম দল দিল্লি ডেয়ারডেভিলস মাঠটিকে নিজেদের প্রশিক্ষণের কাজে ব্যবহার করে আসছে।

উল্লেখযোগ্য ঘটনা[সম্পাদনা]

  • ১০ নভেম্বর, ১৯৪৮ তারিখে সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্টের মধ্য দিয়ে এ মাঠের শুভ উদ্বোধন ঘটে।
  • ১৯৫২ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে হিমু অধিকারীগুলাম আহমেদ দশম উইকেটে ১০৯ রান তুলেছিলেন যা অদ্যাবধি অক্ষত রয়েছে।[৩] এই মাঠে প্রথম মীমাংসিত ম্যাচ হয় ও ভারতের বিজয়ী হয় । সব ইনিংস মিলিয়ে ৬৭৪ রান ওঠে যা এই মাঠে করা সর্বনিম্ন দলগত ম্যাচ স্কোর ।
  • ১৯৫৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ভারতের বিপক্ষে ২য় ইনিংসে ৮ উইকেটে ৬৪৪ রান করে যা এই মাঠে করা সর্বোচ্চ দলগত স্কোর ।
  • ১৯৮১ সালে জিওফ বয়কট গ্যারি সোবার্সের টেস্টে সর্বোচ্চ রানের বিশ্বরেকর্ড ভেঙ্গে নিজের করে নেন।
  • ১৯৮৩-৮৪ মৌসুমে সুনীল গাভাস্কার তার ২৯তম সেঞ্চুরি করে ডন ব্র্যাডম্যানের দীর্ঘদিনের সর্বোচ্চ টেস্ট সেঞ্চুরির রেকর্ডের সমকক্ষ হন।
  • ১৯৮৭ সালে ভারত ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১ম ইনিংসে মাত্র ৭৫ রানে অলআউট হয়ে যায় যা এই মাঠে করা সর্বনিম্ন দলগত স্কোর ।
  • ১৯৯৯ সালে অনিল কুম্বলে পাকিস্তানের বিপক্ষে অনুষ্ঠিত টেস্টের ৪র্থ ইনিংসে ৭৪ রান খরচ করে ১০টি উইকেটই লাভ করেন। এরফলে জিম লেকারের পর দ্বিতীয় ব্যক্তি হিসেবে ১০ উইকেট লাভ করেন।
  • ২০০৫-০৬ মৌসুমে একই মাঠে শচীন তেন্ডুলকর ৩৫তম টেস্ট সেঞ্চুরি করে গাভাস্কারের সর্বোচ্চ সেঞ্চুরি গড়ার রেকর্ড ভেঙ্গে ফেলেন।
  • ২০০৮ সালে ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে খেলায় সব ইনিংস মিলিয়ে ১৪২৯ রান ওঠে যা এই মাঠে করা সর্বোচ্চ দলগত ম্যাচ স্কোর ।
  • ২০১৭ সালে বিরাট কোহলি শ্রীলংকার বিপক্ষে ২৮৭ বলে ২৪৩ রান করে যা এই মাঠে করা সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত স্কোর ।

বিতর্ক[সম্পাদনা]

২৭ ডিসেম্বর, ২০০৯ তারিখে ভারত ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার একদিনের আন্তর্জাতিক পীচের নাজুক অবস্থার কারণে খেলা অনুপযোগী হয়ে পড়ে। ম্যাচ রেফারি’র প্রতিবেদনের উপর ভিত্তি করে আইসিসি কর্তৃপক্ষ ১২ মাসের জন্য মাঠে খেলার উপর নিষেধাজ্ঞা প্রদান করে। পরবর্তীতে ২০১১ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপ উপলক্ষে এ মাঠে খেলা অনুষ্ঠিত হয়।[৪]

২০১৭ সালে ভারত শ্রীলংকা টেস্ট ম্যাচে বায়ু দূষণের কারণে একাধিক খেলোয়াড় অসুস্থ হয়ে পরে। পরিবেশ দূষণের কারণে দিল্লিতে আপাতত আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ম্যাচ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড।

পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

অদ্যাবধি ভারত ক্রিকেট দল ১০ টেস্টে জয় পায়।

  • সর্বাধিক সফল দল: ভারত - ১০ জয়
  • সর্বাধিক সফল সফরকারী দল: ইংল্যান্ড - ৩ জয়
  • সর্বোচ্চ ইনিংস: ৬৪৪/৮, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ৬ ফেব্রুয়ারি, ১৯৫৯
  • সর্বনিম্ন ইনিংস: ৭৫, ভারত, ২৫ নভেম্বর, ১৯৮৭
  • প্রথমে ব্যাটিং করে জয়: ৫
  • প্রথমে বোলিং করে জয়: ১৩
  • ইনিংস প্রতি গড়: ২৮৮
  • সর্বাধিক রান: ৬৭১, দিলীপ ভেংসরকার
  • সর্বাধিক ব্যক্তিগত রান: ২৩০*, বার্ট সাটক্লিফ ব ভারত, ১৬ ডিসেম্বর, ১৯৫৫
  • সর্বাপেক্ষা সফলতম বোলার: অনিল কুম্বলে, ৫৮ উইকেট

অনিল কুম্বলে এর অবসর[সম্পাদনা]

২০০৮ সালে এই মাঠে কুম্বলে ক্রিকেট জীবনে অবসর নেন।

ঋষভ পন্ত-এর টি২০ রেকর্ড[সম্পাদনা]

এই মাঠে পন্ত ঘরোয়া টি২০ টুর্নামেন্ট ২০১৭-১৮ সৈয়দ মুস্তাক আলী ট্রফির নর্থ জোনের ম্যাচে হিমাচল প্রদেশের বিরুদ্ধে রান তাড়া করতে নেমে ৩২ বলে ১০০ রান করেন যা টি২০ ক্রিকেট ইতিহাসে দ্বিতীয় দ্রুততম।[৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Feroz Shah Kotla" 
  2. Indian record at the Kotla
  3. India v Pakistan, Delhi 1952-53
  4. "No International matches in Feroze Shah Kotla until end 2010"। ৩ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ডিসেম্বর ২০১৫ 
  5. "Second Fastest 100 in T20" 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]