ললিত মোদী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ললিত কুমার মোদী
জন্ম (1963-11-29) ২৯ নভেম্বর ১৯৬৩ (বয়স ৫৫)
নয়া দিল্লি
শিক্ষা
পেশা
দাম্পত্য সঙ্গীমিনাল মোদী
সন্তান
ওয়েবসাইটlalitmodi.com

ললিত কুমার মোদী (জন্ম: নভেম্বর ২৯, ১৯৬৩) ভারতী ক্রিকেট সংগঠক, যিনি ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ এর চেয়ারম্যন এবং কমিশনার, চ্যাম্পিয়নস লিগ এর চেয়ারম্যন, বিসিসিআইয়ের ভাইস প্রেসিডেন্ট, পাঞ্জাব ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট।

এ ছাড়াও তিনি মোদী এন্টারপ্রাইজেস এর প্রেসিডেন্ট এবং ম্যানেজিং ডিরেক্টর এবং গডফ্রে ফিলিপস ইন্ডিয়ার এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর।

জীবনী[সম্পাদনা]

ললিত ১৯৬৩ সালে ভারতবর্ষের দিল্লি শহরে, একটি মাড়ওয়াড়ি পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। ললিত কুমার মোদী লেখাপড়া করেন নৈনিতালের মর্যাদা সম্পন্ন সেন্ট জসেফ্স কলেজে। ১৯৮৬ সালে ইউনাইটেড স্টেটস এর ড্যুক ইউনিভার্সিটি তে মার্কেটিং (বিপনন বিষয়)নিয়ে স্নাতক হন। তিনি ১৯৮৬ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ড্যুক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিপণন-এই বিষয়ের স্নাতক ডিগ্রী অর্জন করেন।[১]

পুরস্কার এবং স্বীকৃতি[সম্পাদনা]

  • ২০০৮ সালে বিসিসিআই কে ভারতের নতুন ধারণা প্রবর্তনকারী কোম্পানি হিসেবে গড়ে তোলার জন্য "দ্য বিসনেস স্ট্যানডার্ড অ্যাওয়ার্ড" পান।
  • এশিয়া ব্র্যান্ড কনফারেন্স কর্তৃক ২৫ সেপ্টেম্বর ২০০৮ -এ "ব্র্যান্ড বিল্ডার অফ দ্য ইয়ার " পুরস্কার পান।
  • সিএনবিসি আওয়াজ "দ্য কনস্যুমার অ্যাওয়ার্ড ফর ট্রান্সফর্মিং ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া " পুরস্কার দেয় ২৬ সেপ্টেম্বর ২০০৮ তারিখে।
  • ৬ অক্টোবর ২০০৮ এ এনডিটিভি প্রফিট দেয় "দ্য মোস্ট ইনোভেটিভ বিসনেস লিডার ইন ইন্ডিয়া " পুরস্কার।
  • ২৪ অক্টোবর ২০০৮ এ "এক্সেলেন্স ইন ইনোভেশন "এর জন্য ফ্রস্ট এন্ড সুলিভান গ্রোথ এক্সেলেন্স পুরস্কার লাভ করেন।
  • ৮ নভেম্বর ২০০৮ "টিচার্স এচিভমেন্ট অফ দ্য ইয়ার " পুরস্কার পান।
  • ১২ নভেম্বর ২০০৮ "স্পোর্টস বিসনেস রাশমানস অ্যাওয়ার্ড ফর স্পোর্টস ইভেন্ট ইনোভেশন" পুরস্কার দেওয়া হয়।
  • ২২ জানুয়ারি ২০০৯ পান "সিএনবিসি বিসনেস লিডার" পুরস্কার।

ইন্ডিয়া টুডে ম্যাগাজিন তাকে ভারতের ২০ জন সর্বাধিক ক্ষমতা সম্পন্ন ভারতীয়দের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করেছে। তিনি এতে অন্তর্ভুক্ত হন কারণ ২০০৫ এ তিনি বোর্ডে যোগ দেওয়ার পর থেকে বিসিসিআইয়ের আয় ৭ গুণ বেড়ে যায়। তিনি একজন ক্রিকেট প্রশাসক হিসেবে পরিচিত.[২] অগ্রগণ্য ক্রীড়া পত্রিকা স্পোর্টস প্রো এর ২০০৮ আগস্ট সংখ্যায় তাকে ক্রীড়া দুনিয়ার ক্ষমতাশালীদের তালিকায় ১৭তম স্থান দেওয়া হয়। পরে বিশ্বের খেলাধুলার ইতিহাসে সর্বশ্রেষ্ঠ রেইন মেকার (অর্থ উত্পাদনকারী) হিসেবে গণ্য হন। ক্রীড়া প্রশাসক হওয়ার অল্প দিনের মধ্যেই তিনি নিজের সংগঠনের জন্য চার বিলিয়ন মার্কিন ডলার পরিমাণ অর্থ সংগ্রহে সক্ষম হন। এই সবই তিনি এক সাম্মানিক ক্ষমতার আসনে থেকেই করেন। টেলিগ্রাফ পত্রিকায় মাইক আর্থারটন-এর একটি নিবন্ধে তিনি ক্রিকেটের সব থেকে ক্ষমতা সম্পন্ন মানুষ হিসেবে বর্ণিত হন। টাইম ম্যাগাজিন এর জুলাই ২০০৮ এর সংখ্যা অনুসারে সেই বছরের বিশ্বের সর্বোত্তম ক্রীড়া কার্য নির্বাহকদের তালিকায় তিনি ১৬ তম স্থানাধিকারী। আন্তর্জাতিক বাণিজ্য পত্রিকা বিসনেস উইক এর অক্টোবর ২০০৮ সংখ্যায় ললিত মোদী ২৫ জন বিশ্ব ক্রীড়াবিদ দের মধ্যে ১৯ তম হিসেবে ভোট পান। ললিত মোদী ভারতের বাণিজ্য প্রতিনিধি দের মধ্যে নতুন চিন্তা ধারার শ্রেষ্ঠ প্রবর্তক হিসেবে এনডিটিভি পুরস্কার জয় করেন। ভারতের অগ্রণী বাণিজ্য পত্রিকা বিসনেস টুডে-র নভেম্বর সংখ্যা মোদীকে নিয়েই তাদের প্রচ্ছদের বিষয় তৈরি করে এবং তাকে ভারতের একজন অন্যতম প্রধান বাজার তৈরীকারী (মার্কেটার) হিসেবে চিহ্নিত করে। ৩১ ডিসেম্বর ২০০৮ এ বার্ষিক ক্রীড়া-ক্ষমতা তালিকায় তিনি উঠে আসেন ১ নম্বরে এবং ডিএনএ সংবাদপত্র তাদের ৫০ জন সর্বাধিক প্রভাবশালী ভারতীয়দের তালিকায় তাকে ১৭তম স্থান দেয়। ২০০৯ এ ভারতবর্ষে আইপিএল-২ র জন্য অনুমতি না মেলায় মাত্র তিন সপ্তাহের নোটিশে দক্ষিণ আফ্রিকায় তা সংগঠিত করতে সক্ষম হন।

পারিবারিক হুমকি এবং সুরক্ষা[সম্পাদনা]

২০০৯ মার্চ এর শেষের দিকে মুম্বাই পুলিশ অপরাধ জগতের ডন ছোটা শাকিল এর দলের ঘাতক রশিদ মালবারি কে গ্রেপ্তার করে এবং তাকে জিজ্ঞাসাবাদের সময় জানা যায় যে ক্রিকেট প্রধান ললিত মোদী,তার স্ত্রী মিনাল এবং পুত্র রুচির কে হত্যা করার একটি পরিকল্পনা তৈরি হয়েছিল। এই তথ্য একটি সরকারি গোয়েন্দা দফতরের দ্বারা সমর্থিত হয় যারা ছোটা শাকিল এবং তার বস দাউদ ইব্রাহিম এর একটি দূরভাষ কথোপকথন জোগাড় করে যেখানে ৪ জন ঘাতক ভাড়া করার নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে মোদী এবং তার পরিবার কে দক্ষিণ আফ্রিকা অথবা ভারতবর্ষে হত্যা করতে বলা হচ্ছে। গোয়েন্দা দফতরের বৈদ্যুতিন পর্যবেক্ষণ নথি এই দিকেই ইঙ্গিত করে যে ছোটা শাকিল তার বন্দুকবাজদের নির্দেশ দিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা অথবা মুম্বাই তে মোদীকে হত্যার লক্ষ্য বানাতে। "উসকো খতম কর দো ইন্ডিয়া ইয়া সাউথ আফ্রিকা মে" এই ছিল সংলাপ। মোদীর পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের আইপিএল-২ এ অংশগ্রহনে নিষেধাজ্ঞা জারিই এর কারণ। ললিত মোদী বাড়িতে থাকুন বা না থাকুন তার বাড়ি সশস্ত্র পুলিশ বাহিনীর দ্বারা পাহারা দেওয়ার ব্যবস্থা হয়েছে,এ ছাড়াও তিনি যখনি বাড়ি থেকে বেরোবেন তখনি একটি পুলিশী নিরাপত্তা বলয়ের ব্যবস্থা দেওয়া হচ্ছে যার মধ্যে থাকবে ২৪ ঘণ্টা সশস্ত্র পুলিশদল এবং একটি সরকারি সুরক্ষা যান. কিন্তু তার স্ত্রী মিনাল এবং পুত্র রুচির বাড়ির বাইরে পাবেন মাত্র একজন সশস্ত্র প্রহরী। মোদীর বাড়ি ২৪ ঘণ্টা পাহারা দেওয়ার জন্য তার নিজস্ব সুরক্ষা ব্যবস্থা আছে আর মোদীর নিজের নিয়োগ করা দেহরক্ষী রয়েছে যারা সারাক্ষণ তাকে, তার স্ত্রী ও পুত্রকে পাহারা দেয়। এ কথাও জানা যে আইপিএল এর সুরক্ষা সংস্থা ও মোদীর চারিদিকে সব সময়ের জন্য সুরক্ষার বন্দোবস্ত করেছে। আইপিএল এর সুরক্ষা সংস্থা নিকোলাস এন্ড স্টাইন এর একজন অংশীদার বব নিকোলাস মোদীর চার পাশে বেসরকারী সুরক্ষা বাড়ানো এবং দৃঢ় করার বিষয় টি নিশ্চিত করেছে।

তিনি এও নিশ্চিত করেছেন যে মোদী ভারতের বাইরে থাকলেও ভারত সরকার তার জন্য দৃঢ় পুলিশী প্রহরার ব্যবস্থা করবেন.এও জানা গেছে যে ললিত মোদীর পুত্র ও কন্যা রুচির ও আলিয়া দুই থেকে চারটি গাড়ির কনভয় নিয়ে চলা ফেরা করে,বান্দ্রা কুরলা কমপ্লেক্স এর দ্য আমেরিকান স্কুল অফ বম্বে তে তা দেখা গেছে. রুচির আর আলিয়ার স্কুলে ঢোকা আর বেরোনোর সময় সাত জন দেহরক্ষীর একটি দল থাকে যাদের দু জন সশস্ত্র পুলিশ অফিসার আর পাঁচ জন নিজস্ব দেহরক্ষী, তাদের মধ্যে দু জন কালো পোশাকের শক্তিশালী মানুষ আর বাকি তিন জন বিভিন্ন পোশাকের। জুহু তে ললিত মোদীর বাংলোতে রয়েছে পূর্ণ-সুরক্ষা। বিভিন্ন সূত্রে জানা যায় তার বাড়ির চারপাশে দশ থেকে পনেরো জন প্রহরী 24 ঘণ্টা টহল দেয়। মোদীর সামনের গেটে দুই তিন জন নিজস্ব প্রহরী 24 ঘণ্টা এলাকাটি জরিপ করে আর প্রতিটি পথ চলতি মানুষ কে জেরা করে।[৩][৪][৫][৬]

ক্ষমতার লড়াই[সম্পাদনা]

২০০৫ এ ক্ষমতার লড়াই-এ মোদীর অস্তিত্ব প্রকাশ পায় যখন প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটের প্রধান এবং আন্তর্জাতিক ক্রিকেট পরিষদের প্রধান জগমোহন ডালমিয়া কে সরিয়ে একজন প্রতিপত্তিশালী রাজনীতিক ও কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, শারদ পাওয়ার বোর্ড অফ কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া-তে নির্বাচিত হন।।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

পারিবারিক ও ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

যদিও মোদী ও তার পুত্র রুচিরকে বহু IPL খেলায় দেখতে পাওয়া যায়, তার স্ত্রী মিনাল ও কন্যা আলিয়া কে খুব কম ক্ষেত্রেই তার সঙ্গে দেখা গেছে. তার সন্তানদ্বয় রুচির এবং আলিয আমেরিকান স্কুল অফ বম্বে তে পড়াশোনা করে। মুম্বাই-এর শহরতলির জুহু তে তার 'বিচ হাউস' এ তিনি তার স্ত্রী এবং সন্তানদের নিয়ে খুব বিলাসিতার জীবন কাটান। মুম্বাই-এর বহির-ভাগে ওর্লি তেও তাঁদের একটি ফ্ল্যাট আছে।[৭][৭][৮]]</ref>[৮][৯][১০]

বিজনেস স্ট্যানডার্ড [১১] এবং আরো অনেক সংবাদ সূত্র থেকেই ৯৭৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের ইএসপিএন চুক্তির খবর পাওয়া যায়[১২][১৩].

অন্যান্য চুক্তি[সম্পাদনা]

যেহেতু মোদী বিসিসিআই এ যোগদান করছেন, তিনি বিসিসিআই এর হয়ে নিম্নলিখিত চুক্তিগুলি সফলতার সঙ্গে সম্পন্ন করেছেন :

  • টিম ইন্ডিয়ার ব্যয়ভার বহনের জন্য সাহারা গ্রুপ-এর সঙ্গে ২০-১২-০৫ -এ ৪ বছরের জন্য ১০৩ মিলিয়ন ডলার (৪১৫ কোটি)-এর চুক্তি।
  • টিম ইন্ডিয়ার পোশাক পরিচ্ছদের ব্যয়ভার বহনের জন্য নায়িক-এর সঙ্গে ২৪-১২-০৫-এ ৪ বছরের ৫৩ মিলিয়ন ডলার (২১৫ কোটি)-এর চুক্তি।
  • নিম্বাস-এর সঙ্গে ১৮-১২-০৬-এ প্রচার স্বত্ব ৪ বছরের জন্য - ৬১২ মিলিয়ন ডলার-এর চুক্তি।
  • জী-এর সঙ্গে ০৭-০৪-০৬ এ বিদেশের খেলাগুলির প্রচার-স্বত্ব ৪ বছরের জন্য - ২১৯ মিলিয়ন ডলারের চুক্তি।
  • ডাব্লিউএসজি এর সঙ্গে বিসিসিআই এর ব্যয়ভার বহনের জন্য ২৮-০৮-০৭ এ ৪৬ মিলিয়ন ডলার (১৭৩ কোটি) - এর চুক্তি।
  • শনির সঙ্গে ১৫-০১-০৮ এ আইপিএল প্রচার স্বত্ব-এর জন্য ১.২৬ বিলিয়ন ডলারের চুক্তি।
  • ২৫-০১-০৮ -এ আইপিএল টিম সেল-এর জন্য বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ৭২৩.৬ মিলিয়ন ডলারের চুক্তি।
  • ১৮-০৪-০৮ -এ লাইভ কারেন্ট মেডিয়া কে ওয়েব মেডিয়া স্বত্ব প্রদানের জন্য ৫০ মিলিয়ন ডলারের চুক্তি।
  • মার্চ-এপ্রিল ২০০৮ এর আইপিএল টাইটেল এবং মাঠের ব্যয়ভার বহনের জন্য ২২০ মিলিয়ন ডলারের চুক্তি।
  • ২৫-০৩-২০০৯ এ শনি ডাব্লিউএসজি এর সঙ্গে আইপিএল প্রচার স্বত্ব প্রদানের জন্য চুক্তি-মূল্যের ১.২৬ বিলিয়ন ডলার থেকে বাড়িয়ে ২ বিলিয়ন ডলার-এ পূনর্নির্ধারণ।

তথ্যসূথ্র[সম্পাদনা]

  1. http://www.bloomberg.com/apps/news?pid=20601109&sid=agXm3oIJqEUA
  2. [ http://www.theage.com.au/articles/2008/03/07/1204780070687.html?page=fullpage#contentSwap2 The tycoon who changed cricket - Cricket - Sport - theage.com.au]
  3. http://www.thaindian.com/newsportal/feature/ipl-beefs-up-security-for-lalit-modi-following-reports-of-threat-to-his-life_100179415.html
  4. http://www.mid-day.com/news/2009/apr/130409-Lalit-Modi-Nicholls-Steyn-IPL-Dawood-underworld.htm
  5. http://www.mid-day.com/news/2009/apr/020409-Mumbai-News-Lalit-Modi-IPL-chairperson-Indian-Premier-League-family-under-treat.htm
  6. http://www.mid-day.com/news/2009/apr/120409-Dawood-Ibrahim-Lalit-Modi-4-assassins-D-Company-targets-Mumbai-news.htm
  7. http://edition.cnn.com/2008/SHOWBIZ/05/22/ta.modi/index.html
  8. http://www.telegraph.co.uk/sport/cricket/2335008/Modi-masterminds-India%27s-billion-dollar-bonanza.html
  9. [১] হিন্দুস্তান টাইমস/1}
  10. http://www.mid-day.com/news/2009/mar/190309-Lalit-Modi-Indian-Premier-League-youngest-vice-president-BCCI-interview-PEOPLE-magazine.htm
  11. http://www.business-standard.com/india/storypage.php?autono=334250
  12. http://www.moneycontrol.com/india/news/sports/espn-star-sports-bags-975-m-t20-deal-for-10-yrs/20/01/356037
  13. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৭ এপ্রিল ২০১৯