পল ফারব্রেস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
পল ফারব্রেস
England Cricket Team - The Ashes Trent Bridge 2015 (20410463691) (Farbrace cropped).jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামপল ফারব্রেস
জন্ম (1967-07-07) ৭ জুলাই ১৯৬৭ (বয়স ৫২)
অ্যাশ-নেক্সট-স্যান্ডউইচ, কেন্ট, ইংল্যান্ড
ডাকনামফার্বি[১]
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি ব্যাটসম্যান
ভূমিকাউইকেট-রক্ষক, কোচ
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৯০–১৯৯৫মিডলসেক্স
১৯৮৭–১৯৮৯কেন্ট
প্রথম-শ্রেণী অভিষেক৬ মে ১৯৮৭ কেন্ট বনাম পাকিস্তান একাদশ
শেষপ্রথম-শ্রেণী২০ জুন ১৯৯৫ মিডলসেক্স বনাম অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়
এলএ অভিষেক২৪ জুন ১৯৮৭ কেন্ট বনাম স্কটল্যান্ড
শেষ এলএ১৬ জুলাই ১৯৯৫ মিডলসেক্স বনাম ওয়ারউইকশায়ার
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৪০ ২৮
রানের সংখ্যা ৭১১ ১৬০
ব্যাটিং গড় ১৮.২৩ ১১.৪২
১০০/৫০ ০/৪ ০/০
সর্বোচ্চ রান ৭৯ ২৬*
বল করেছে ৩১
উইকেট
বোলিং গড় ৬৪.০০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ১/৬৪
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৮৯/১২ ১৮/১২
উৎস: ক্রিকইনফো, ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৭

পল ফারব্রেস (ইংরেজি: Paul Farbrace; জন্ম: ৭ জুলাই, ১৯৬৭) কেন্টের[১] অ্যাশ-নেক্সট-স্যান্ডউইজ এলাকায় জন্মগ্রহণকারী প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটের সাবেক ইংরেজ ক্রিকেটারফার্বি[২] ডাকনামে পরিচিত ফারব্রেস ডানহাতি ব্যাটসম্যান এবং উইকেট-রক্ষক হিসেবে খ্যাতি অর্জন করেন।

পিটার মুরেজকে বরখাস্তের পর তিনি ইংল্যান্ড দলের অন্তর্বর্তীকালীন কোচের দায়িত্ব পালন করেন। এরপূর্বে শ্রীলঙ্কা জাতীয় ক্রিকেট দলের প্রধান কোচের দায়িত্ব থেকে পদত্যাগের পর ইংল্যান্ডের সহকারী কোচের দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৯৮৭ থেকে ১৯৮৯ মেয়াদকালে তিনি কেন্ট ক্রিকেট দলের এবং ১৯৯০ থেকে ১৯৯৫ মেয়াদকালে মিডলসেক্স দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। এ সময় তিনি ৪০টি প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট এবং ২৮টি লিস্ট এ ক্রিকেট খেলায় অংশগ্রহণ করেছিলেন।

১৯৯১ মৌসুমে তিনি কাউন্টি ক্রিকেটের স্বর্ণশিখরে ছিলেন। ২০টি প্রথম-শ্রেণীর খেলায় ৫৪বার আউট করতে সহায়তা করেন। কিন্তু, তাঁর ব্যাটিং গড় ছিল মাত্র ১৪.৮১ রান।[৩] সামগ্রীকভাবে তাঁর খেলোয়াড়ী জীবনে ব্যাটিং গড় ছিল ১৮.২৩ রান। এছাড়াও, তিনি আরও চারবার প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন যার সবগুলোই ছিল কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশীপের পরিবর্তে বিশ্ববিদ্যালয়ের দলগুলো বিপক্ষে।[৪] দলে থাকাকালীন তিনি মিডলসেক্সের খেলোয়াড় কিথ ব্রাউনের পরিবর্তে উইকেট-রক্ষকের দায়িত্ব পালন করতেন। তখন ব্রাউন ব্যাটসম্যান হিসেবে থাকতেন।[৫]

কোচিং[সম্পাদনা]

খেলোয়াড়ী জীবন থেকে অবসর নেয়ার পর ফারব্রেস কোচের ভূমিকায় অবতীর্ণ হন। ২০০০ সালে তিনি ইংল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট দল[৬]ইংল্যান্ড জাতীয় মহিলা ক্রিকেট দলের কোচের নেতৃত্ব দেন।[৭] কেন্ট একাডেমিতে দায়িত্ব পালনশেষে জুলাই, ২০০৭ সালে শ্রীলঙ্কার কোচ ট্রেভর বেলিসের অধীনে সহকারী কোচের দায়িত্ব পালন করেন।[৮] মার্চ, ২০০৯ সালে লাহোরে শ্রীলঙ্কা দলের উপর সন্ত্রাসীদের অতর্কিত আক্রমণে তিনি হাল্কা আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছিলেন।[৯] ৩১ জুলাই, ২০০৯ তারিখে ২০১০ মৌসুমের জন্য কেন্টের প্রথম-দলীয় কোচ হিসেবে নিযুক্ত হন।[১০] ক্যান্টারবুরি ত্যাগ করে ২০১২ মৌসুমে ফারব্রেস ইয়র্কশায়ারের দ্বিতীয় একাদশে কোচের দায়িত্ব পান।[১]

২০ ডিসেম্বর, ২০১৩ তারিখে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট কর্তৃক তিনি দুই বছর মেয়াদকালের জন্য মনোনীত হয়েছেন যা ১ জানুয়ারি, ২০১৪ তারিখ থেকে কার্যকর হয়।[১১] জানুয়ারি, ২০১২ সাল থেকে প্রধান কোচের দায়িত্ব পালনকারী দক্ষিণ আফ্রিকান গ্রাহাম ফোর্ডের স্থলাভিষিক্ত হন। গ্রাহাম ফোর্ড সেপ্টেম্বর, ২০১৩ সালে দুই বছরের চুক্তির মেয়াদ বৃদ্ধিতে অস্বীকার করেন। এরফলে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট কর্তৃপক্ষ ফারব্রেসকে জাতীয় দলের কোচ হিসেবে ঘোষণা করে।[১২] ২০১৪ সালের এশিয়া কাপআইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০ প্রতিযোগিতায় শ্রীলঙ্কা দলের শিরোপা লাভে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন। এরপর এপ্রিল, ২০১৪ সালে কোচের দায়িত্ব থেকে অব্যহতি নিয়ে[১৩] ইংল্যান্ডের সহকারী কোচ মনোনীত হন। কিন্তু বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের গ্রুপ পর্ব থেকেই ছিটকে আসার কারণে মে, ২০১৫ সালে প্রধান কোচ পিটার মুরেজকে অব্যহতি দেয়ার পর সফরকারী নিউজিল্যান্ড দলের বিপক্ষে দলের খেলা পরিচালনার জন্য সাময়িকভাবে কোচের দায়িত্বভার অর্পণ করা হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Paul Farbrace"। Yorkshireccc.com। ৭ জুলাই ১৯৬৭। ২৩ জুন ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ জুলাই ২০১৩ 
  2. "www.bunburycricket.com profile of Farbrace"। ৬ এপ্রিল ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জানুয়ারি ২০১৪ 
  3. "The Home of CricketArchive"। Cricketarchive.com। সংগ্রহের তারিখ ২১ জুলাই ২০১৩ 
  4. "The Home of CricketArchive"। Cricketarchive.com। সংগ্রহের তারিখ ২১ জুলাই ২০১৩ 
  5. "The Home of CricketArchive"। Cricketarchive.com। ১৮ মার্চ ১৯৬৩। সংগ্রহের তারিখ ২১ জুলাই ২০১৩ 
  6. "Hamilton-Brown to lead England Under-19s | England Cricket News | ESPN Cricinfo"। Content-uk.cricinfo.com। সংগ্রহের তারিখ ২১ জুলাই ২০১৩ 
  7. Fay, Stephen (২৬ নভেম্বর ২০০০)। "England struggle in a women's world"The Independent। London। সংগ্রহের তারিখ ২২ মে ২০১০ 
  8. "Farbrace named as Sri Lanka's assistant coach | England Cricket News | ESPN Cricinfo"। Content-uk.cricinfo.com। সংগ্রহের তারিখ ২১ জুলাই ২০১৩ 
  9. "news.bbc.co.uk"। ৪ মার্চ ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জানুয়ারি ২০১৪ 
  10. "New coaching structure at Kent County Cricket Club"Kent County Cricket Club। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জুলাই ২০০৯ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  11. "Paul Farbrace appointed as Sri Lanka's National Head Coach, Sri Lanka Cricket, collect: 13 January, 2014"। ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জানুয়ারি ২০১৪ 
  12. ""Ford to step down as Sri Lanka coach". Wisden India. 18 September 2013."। ২৮ জানুয়ারি ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জানুয়ারি ২০১৪ 
  13. "Marvan Atapattu appointed head coach of Sri Lankan Cricket Team"IANS। news.biharprabha.com। সংগ্রহের তারিখ ২৫ এপ্রিল ২০১৪ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]


পূর্বসূরী:
গ্রাহাম ফোর্ড
শ্রীলঙ্কা জাতীয় ক্রিকেট দলের কোচ
২০১২-২০১৪
উত্তরসূরী:
মারভান আতাপাত্তু (অন্তর্বর্তীকালীন)
পূর্বসূরী:
পিটার মুরেজ
ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের কোচ
(অন্তর্বর্তীকালীন)

২০১৫
উত্তরসূরী:
ট্রেভর বেলিস