জন্ম নিয়ন্ত্রণ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জন্ম নিয়ন্ত্রণ
Opened Oral Birth Control.jpg
মেশD003267

জন্ম নিয়ন্ত্রণ বা গর্ভবিরতিকরণ বা গর্ভনিরোধ বা প্রজনন নিয়ন্ত্রণ (ইংরেজি: Birth control), হলো গর্ভধারণ প্রতিরোধের এক বা একাধিক কর্মপ্রক্রিয়া, পদ্ধতি, সংযমিত যৌনচর্চা অথবা ঔষধ প্রয়োগের মাধ্যমে ঐচ্ছিকভাবে গর্ভধারণ বা সন্তান প্রসব থেকে বিরত থাকার স্বাস্থ্যবিধি।[১] জন্ম নিয়ন্ত্রণ পরিকল্পনা, বিধান ও ব্যবহারের পরিবার পরিকল্পনা বলা হয়।[২][৩] নিরাপদ যৌনতা, যেমন পুরুষ বা মহিলা কনডম ব্যবহার যৌন সংক্রমণ প্রতিরোধে সাহায্য করতে পারে।[৪][৫] জন্ম নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি আদিকাল থেকেই ব্যবহৃত হয়ে আসছে, কিন্তু এর কার্যকর ও নিরাপদ পদ্ধতি শুধুমাত্র বিশ শতকের মধ্যেই সহজলভ্য হয়ে ওঠে।[৬] কিছু সংস্কৃতিতে ইচ্ছাকৃতভাবে জন্ম নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি গ্রহণের সীমাবদ্ধতাও রয়েছে, কারণ তারা এটাকে নৈতিকভাবে বা রাজনৈতিকভাবে অবাঞ্ছিত বিবেচনা করে থাকে।[৬]

জন্ম নিয়ন্ত্রণের সবচেয়ে কার্যকর পদ্ধতি হলো, পুরুষদের ক্ষেত্রে ভেসেকটমি (vasectomy) (৯৯.৮৫% সাফল্যের হার) আর নারীদের ক্ষেত্রে টিউবাল বন্ধ্যাকরণ (tubal ligation) (৯৯.৫% সাফল্যের হার) অথবা টিউবেকটমি। এই পদ্ধতি অনুসরণ করা হয় মৌখিক ঔষধ, প্যাচ, যোনি আংটি, এবং ইনজেকশনসহ হরমোন ঘটিত গর্ভনিরোধক অনুসারে। স্বল্প কার্যকর পদ্ধতির মধ্যে রয়েছে কনডম, জন্মনিরোধক বড়ি, গর্ভনিরোধক স্পঞ্জ এবং প্রজনন সচেতনতা পদ্ধতি। ন্যুনতম কার্যকর পদ্ধতির মধ্যে রয়েছে শুক্রাণু নষ্ট করা এবং পুরুষের বীর্যস্খলনের পূর্বে তা অপসরণ করা। নির্বীজন একটি অত্যন্ত কার্যকর পদ্ধতি এবং যা সাধারণত প্রতি-বর্তনসাধ্য নয়, তবে অন্যান্য পদ্ধতি প্রতি-বর্তনযোগ্য। জরুরী গর্ভনিরোধক অরক্ষিত যৌনমিলনের পর কয়েক দিনের মধ্যে গর্ভাবস্থার প্রতিরোধ করতে পারে। কেউ-কেউ জন্ম নিয়ন্ত্রণ হিসাবে যৌন বিরতি বিবেচনা করে থাকে, তবে এই যৌন বিরতি পদ্ধতি গর্ভনিরোধক শিক্ষা ব্যতীত গ্রহণ করা হলে বাল্যবয়সে গর্ভধারণ বৃদ্ধি পেতে পারে।[৭][৮]

অপ্রাপ্তবয়স্ক গর্ভধারণের ফলাফলে দরিদ্রতা বৃদ্ধির ঝুঁকি থাকে।[৯] সমন্বিত যৌন শিক্ষা এবং জন্ম নিয়ন্ত্রণ ব্যবহার করার সুযোগের কারণে এই বয়সের মধ্যে অবাঞ্ছিত গর্ভধারণের হার কম হয়।[৯][১০] যদিও, সব ধরনের জন্ম নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি অপ্রাপ্তবয়স্কদের দ্বারাই ব্যবহৃত হয়ে থাকে।[১১] দীর্ঘ মেয়াদী বিপরিতমুখী জন্ম নিয়ন্ত্রণ যেমন ইমপ্লান্ট, IUDs, বা যোনি আংটি অপ্রাপ্তবয়স্ক গর্ভাবস্থার হার কমাতে বিশেষ সুবিধার হয়।[১০] শিশু প্রসবের পর, স্বতন্ত্রভাবে স্তন্যপান করানো না হলে চার থেকে ছয় সপ্তাহ পরে পূন:রায় গর্ভবতী হবার সম্ভাবনা থাকে। জন্ম নিয়ন্ত্রণের কিছু পদ্ধতি অবিলম্বে শুরু করা যেতে পারে, যখন অন্যদের ছয় মাসের একটি বিরতি প্রয়োজন।[১১] যারা শুধুমাত্র স্তন্যদান পদ্ধতি ব্যবহার করে সম্মিলিত মৌখিক গর্ভনিরোধক হিসেবে।[১১] যারা রজবন্ধে পৌঁছেছেন তাদের ক্ষেত্রে ​​রজচক্রের শেষ সময়ের পরে এক বছরের জন্য এই জন্ম নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি অব্যাহত রাখা বাঞ্ছনীয়।[১১]

উন্নয়নশীল দেশে প্রায় ২২২ মিলিয়ন নারী গর্ভাবস্থা এড়াতে কোনো আধুনিক জন্মনিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি ব্যবহার করে না।[১২][১৩] উন্নয়নশীল দেশে জন্ম নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি ব্যবহারে ৪০% প্রসবকালীন মৃত্যু হ্রাস পেয়েছে (প্রায় ২৭০.০০০ মৃত্যু ২০০৮ সালে প্রতিরোধকারী) এবং জন্ম নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতির সম্পূর্ণ চাহিদা পূরণ করা হলে প্রায় ৭০% মৃত্যু প্রতিরোধ করতে পারে সক্ষম হবে।[১৪][১৫] গর্ভধারণের মধ্যে সময় দীর্ঘায়ীত দ্বারা, জন্ম নিয়ন্ত্রণ বয়স্ক মহিলাদের প্রসবের ফলাফলের এবং তাদের শিশুদের বেঁচে থাকার সম্ভাবনা উন্নত করতে পারে।[১৪] উন্নয়নশীল বিশ্বে, জন্ম নিয়ন্ত্রণ, নারীদের উপার্জন, সম্পদ, ওজন, এবং তাদের শিশুদের শিক্ষা এবং স্বাস্থ্য এসবের উন্নয়নে ভূমিকা রাখে।[১৬] জন্ম নিয়ন্ত্রণের কারণে নির্ভরশীল সন্তানের হার, কর্মক্ষেত্রে নারীর অংশগ্রহণ বৃদ্ধি, এবং সম্পদের কম খরচের মাধ্যমে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বৃদ্ধি পায়।[১৬][১৭]

জন্ম নিয়ন্ত্রণ পরিবার পরিকল্পনার একটি অন্যতম বিভাগ। জন্ম বা গর্ভ ব্যাহত করার উপায়গুলোকে মূলত তিন ভাগে বিভক্ত করা যায়। যথা- শুক্রানুডিম্বানুর মিলন ব্যাহত করা, ভ্রুণ সঞ্চারণ ব্যাহত করা এবং ঔষধ অথবা অস্ত্রপচারের মাধ্যমে ভ্রুণ অপসারণ করা। ধারণা করা হয় যে, যৌন মিলন ও গর্ভ ধরনের সরাসরি সংযোগ উপলব্ধির পরই জন্ম নিয়ন্ত্রণের আবিষ্কার হয়। প্রাচীনকালে বিঘ্নিত যৌন মিলন ও বিবিধ প্রকার প্রাকৃতিক ঔষধি (যা গর্ভনিরোধক হিসেবে প্রচলিত ছিল) সেবনের মাধ্যমে জন্ম নিয়ন্ত্রণের প্রচেষ্টা করা হত। মিশরীয় সভ্যতায় সর্বপ্রথম গর্ভনিরোধক ব্যবহারের উল্লেখ পাওয়া যায়।

পদ্ধতি[সম্পাদনা]

ব্যবহারের প্রথম বছরের সময় গর্ভাবস্থার সম্ভাবনা:[১৮][১৯]
পদ্ধতি আদর্শ ব্যবহার যথার্থ ব্যবহার
জন্ম নিয়ন্ত্রণ হয়নি ৮৫% ৮৫%
সমাবেশ বড়ি ৯% ০.৩%
প্রোজেস্টিন পিল ১৩% ১.১%
বন্ধ্যাকরণ (স্ত্রী) ০.৫% ০.৫%
বন্ধ্যাকরণ (পুরুষ) ০.১৫% ০.১০%
কনডম (স্ত্রী) ২১% ৫%
কনডম (পুরুষ) ১৮% ২%
কপার আইইউডি ০.৪% ০.৬%
হরমোন আইইউডি ০.২% ০.২%
প্যাচ ৯% ০.৩%
যোনি রিং ৯% ০.৩%
ডিপো প্রোভেরা ৬% ০.২%
ইমপ্ল্যান্ট ০.০৫% ০.০৫%
Diaphragm and spermicide ১২% ৬%
প্রজনন সচেতনতা ২৪% ০.৪–৫%
প্রতিসারণ ২২% ৪%
স্তন্যদান বাধক পদ্ধতি
(6 months failure rate)
0-7.5%[২০] <2%

হরমোন ঘটিত[সম্পাদনা]

হরমোন ঘটিত গর্ভনিরোধক ডিম্বস্ফোটন এবং গর্ভাধান দমন করে থাকে। এগুলো মৌখিক ঔষধ, চামড়া অধীনে রোপন, ইঞ্জেকশন, প্যাচ, IUDs এবং একটি যোনি আংটি সহ বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে। এগুলো বর্তমানে সহজলভ্য শুধুমাত্র মহিলাদের ব্যবহারের জন্য।

প্রতিবন্ধক[সম্পাদনা]

কনডম একটি কার্যকরী জন্ম নিয়ন্ত্রক

অন্তরায় বা প্রতিবন্ধক সৃষ্টিকারী গর্ভনিরোধক, শারীরিকভাবে জরায়ু প্রবেশন থেকে শুক্রাণু প্রতিরোধ দ্বারা গর্ভধারণ রোধ করার প্রচেষ্টা করে।[২১] এগুলোর মধ্যে রয়েছে, পুরুষ কনডম, মহিলা কনডম, সার্ভিকাল ক্যাপ, ডায়াফ্রাম,স্পারমিসাইড এবং গর্ভনিরোধক স্পঞ্জ ইত্যাদি।[২১]

বন্ধ্যাকরণ[সম্পাদনা]

সার্জিকাল বন্ধ্যাকরণ নারীদের জন্য টিউবাল লাইগেশন ও পুরুষদের জন্য ভেসেকটমি রূপে পাওয়া যায়।[৬]

আচরণগত[সম্পাদনা]

আচরণগত বা ব্যবহারিক পদ্ধতি হলো সময়জ্ঞান নিয়ন্ত্রণ বা যৌনসঙ্গমের পদ্ধতি যা স্ত্রী প্রজনন অঞ্চলে শুক্রাণু প্রবর্তনের প্রতিরোধ ঘটানো। সঠিকভাবে ব্যবহার করা হলে প্রথম বছরের ব্যর্থতার দাঁড়ায় ৩.৪% তবে কম ব্যবহৃত হলে প্রথম বছরের ব্যর্থতার হার ৮৫% পর্যন্ত বৃদ্ধি পেতে পারে।[২২]

প্রথম বছরের ব্যর্থতার হার ৮৫%, তবে কম ব্যবহৃত হলে প্রথম বছরের ব্যর্থতার হার 85% যোগাযোগ করা হতে পারে.

গর্ভধারণ ক্ষমতা বিষয়ক সচেতনতা[সম্পাদনা]

তুলো নেওয়া[সম্পাদনা]

যৌন বিরতি[সম্পাদনা]

স্তন্যদান[সম্পাদনা]

জরুরি অবস্থা[সম্পাদনা]

দ্বৈত সুরক্ষা[সম্পাদনা]

প্রতিক্রিয়া[সম্পাদনা]

প্রভাব[সম্পাদনা]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

মার্কিন সংস্কারক মার্গারেট সেনগার ১৯১৪ সালে দ্যা ওমেন রেবেল নামক একটি আট পৃষ্ঠার মাসিক পত্রিকা চালু করেন এবং এর মাধ্যমে জন্ম নিয়ন্ত্রণের প্রসার শুরু করেন। ইংরেজি 'বার্থ কন্ট্রোল' শব্দটিও তিনিই প্রচলন করেন। ১৯৬০ এর দশকে জন্ম নিয়ন্ত্রক বড়ি ও জরাযুস্থ গর্ভ-নিরোধক কলের বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু হলে সাধারণ জনগনের মধ্যে এটি কার্যকর বিস্তার লাভ করে।

বিভিন্ন পদ্ধতির ইতিহাস[সম্পাদনা]

আদিকালে ব্যবহৃত জন্ম নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতিগুলোর মধ্যে শুধুমাত্র- বিঘ্নিত যৌন মিলন, কতিপয় প্রতিবন্ধক পদ্ধতি ও কিছু ভেষজ পদ্ধতি বিদ্যমান ছিল বলে ধারণা করা হয়।

সোভিয়েত রাশিয়ায়, সামাজিক নারী-সমতা অধিষ্ঠিত করার লক্ষ্যে জন্ম নিরোধক অত্যন্ত সহজলভ্য করে দেয়া হয়েছিল। আলেক্সেন্দ্রা কলনটাই (ইংরেজি: Alexandra Kollontai) (১৮৭২-১৯৫২) নামক একজন মহিলা তৎকালীন জনকল্যাণ অধিদপ্তরে উচ্চ পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন। তিনি বয়স্কদের মধ্যে পরিবার পরিকল্পনা শিক্ষা বিস্তারের ব্যবস্থা নেন। অন্যদিকে ফরাসি নারীরা ১৯৬৫ সালে তাদের প্রবল বিরোধিতার মাধ্যমে ফ্রান্সের জন্ম-নিয়ন্ত্রণ নিষেধাজ্ঞা তুলে দিতে সক্ষম হয়। ১৯৭০ সালে ইতালিতে নারীবাদীরা জন্ম-নিয়ন্ত্রণমূলক তথ্যাদি আরোহণের অধিকার লাভ করে।

যদিও কন্ডমের ব্যবহার আরো আগে থেকেই প্রচলিত ছিল কিন্তু এটি প্রধানতঃ যৌন রোগ পরিহারের উপায় হিসেবেই ব্যবহৃত হত। ১৮শ শতকে ক্যাসানোভা তার উপপত্নীদের অন্তঃসত্ত্বা হওয়া থেকে বিরত রাখার জন্য এক প্রকার প্রতিবন্ধক ব্যবহার করেন যা কন্ডমের পূর্বরূপ হিসেবে ধারণা করা হয়।

সমাজ ও সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

বিভিন্ন ধর্মে জন্ম নিয়ন্ত্রণ[সম্পাদনা]

জন্মনিয়ন্ত্রণের নৈতিকতা সম্পর্কে ধর্মগুলি তাদের দৃষ্টিভঙ্গিতে ব্যাপকভাবে পরিবর্তিত হয়। [২৩] রোমান ক্যাথলিক চার্চ ১৯৬৮ সালে তার শিক্ষাগুলিকে পুনরায় নিশ্চিত করে যে শুধুমাত্র প্রাকৃতিক পরিবার পরিকল্পনা অনুমোদিত, [২৪] যদিও উন্নত দেশগুলিতে বিপুল সংখ্যক ক্যাথলিক জন্ম নিয়ন্ত্রণের আধুনিক পদ্ধতি গ্রহণ করে এবং ব্যবহার করে। [২৫] [২৬] [২৭] গ্রীক অর্থোডক্স চার্চ কৃত্রিম গর্ভনিরোধক ব্যবহার নিষিদ্ধ করার ঐতিহ্যগত শিক্ষার সম্ভাব্য ব্যতিক্রম স্বীকার করে, যদি বিবাহের মধ্যে জন্মের ব্যবধান সহ নির্দিষ্ট কিছু উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা হয়। [২৮] প্রোটেস্ট্যান্টদের মধ্যে, জন্মনিয়ন্ত্রণের সমস্ত পদ্ধতির অনুমতি দেওয়ার মতো কুইভারফুল আন্দোলনের মতো কাউকে সমর্থন না করা থেকে শুরু করে বিস্তৃত মতামত রয়েছে। [২৯] ইহুদি ধর্মের দৃষ্টিভঙ্গি কঠোর অর্থোডক্স সম্প্রদায় থেকে বিস্তৃত, যা জন্মনিয়ন্ত্রণের সমস্ত পদ্ধতিকে নিষিদ্ধ করে, আরও স্বাচ্ছন্দ্যপূর্ণ সংস্কার সম্প্রদায় পর্যন্ত, যা সর্বাধিক অনুমতি দেয়। [৩০] হিন্দুরা প্রাকৃতিক এবং আধুনিক উভয় ধরনের গর্ভনিরোধক ব্যবহার করতে পারে। [৩১] একটি সাধারণ বৌদ্ধ মত হল যে গর্ভধারণ প্রতিরোধ করা গ্রহণযোগ্য, যদিও গর্ভধারণের পরে হস্তক্ষেপ করা হয় না। [৩২] ইসলামে, গর্ভনিরোধকগুলিকে অনুমতি দেওয়া হয় যদি সেগুলি স্বাস্থ্যের জন্য হুমকি না দেয়, যদিও কিছু তাদের ব্যবহারকে নিরুৎসাহিত করে। [৩৩]

গবেষণা নির্দেশ[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "জন্ম নিয়ন্ত্রণের সংজ্ঞা"MedicineNet। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০১-১৮ 
  2. অক্সফোর্ড ইংরেজি অভিধান। অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি প্রেস। জুন ২০১২। 
  3. বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)। "পরিবার পরিকল্পনা"স্বাস্থ্য বিষয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)। 
  4. Taliaferro, L. A.; Sieving, R.; Brady, S. S.; Bearinger, L. H. (২০১১)। "We have the evidence to enhance adolescent sexual and reproductive health--do we have the will?"। Adolescent medicine: state of the art reviews২২ (৩): ৫২১–৫৪৩, xii। পিএমআইডি 22423463 
  5. "The Effectiveness of Group-Based Comprehensive Risk-Reduction and Abstinence Education Interventions to Prevent or Reduce the Risk of Adolescent Pregnancy, Human Immunodeficiency Virus, and Sexually Transmitted Infections"আমেরিকান জার্নাল অব প্রিভেন্টিভ মেডিসিন৪২ (৩): ২৭২–২৯৪। ২০১২। ডিওআই:10.1016/j.amepre.2011.11.006পিএমআইডি 22341164। ২ জানুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  6. "প্রজনন নিয়ন্ত্রণ"The Johns Hopkins manual of gynecology and obstetrics (৪র্থ সংস্করণ)। ফিলাডেলফিয়া: Wolters Kluwer Health/Lippincott Williams & Wilkins। ২০১০-১২-২১। পৃষ্ঠা ৩৮২–৩৯৫। আইএসবিএন 978-1-60547-433-5 
  7. DiCenso A, Guyatt G, Willan A, Griffith L (জুন ২০০২)। "বয়ঃসন্ধিকালের মধ্যে অনিচ্ছাকৃত গর্ভধারণ কমাতে হস্তক্ষেপ: এলোমেলোভাবে নিয়ন্ত্রিত বিচারের নিয়মানুগ পর্যালোচনা"বিএমজে৩২৪ (৭৩৫১): ১৪২৬। পিএমআইডি 12065267পিএমসি 115855অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  8. Duffy, K.; Lynch, D. A.; Santinelli, J. (২০০৮)। "বিবাহপূর্ব পর্যন্ত বিরতি শিক্ষায় সরকারের সমর্থন"ক্লিনিক্যাল ফার্মাকোলজি & প্রতিষেধক৮৪ (৬): ৭৪৬–৭৪৮। ডিওআই:10.1038/clpt.2008.188পিএমআইডি 18923389 
  9. Black, A. Y.; Fleming, N. A.; Rome, E. S. (২০১২)। "বয়ঃসন্ধিকালে গর্ভধারণ"। Adolescent medicine: state of the art reviews২৩ (১): ১২৩–১৩৮, xi। পিএমআইডি 22764559 
  10. Rowan, S. P.; Someshwar, J.; Murray, P. (২০১২)। "প্রাথমিক যত্ন প্রদানকারীদের জন্য গর্ভনিরোধ"। Adolescent medicine: state of the art reviews২৩ (১): ৯৫–১১০, x–xi। পিএমআইডি 22764557 
  11. Family planning : a global handbook for providers : evidence-based guidance developed through worldwide collaboration. (পিডিএফ) (Rev. and Updated ed. সংস্করণ)। জেনেভা, সুইজারল্যান্ড: WHO and Center for Communication Programs। ২০১১। পৃষ্ঠা ২৬০–৩০০। আইএসবিএন 978-0-9788563-7-3। ২০১৩-০৯-২১ তারিখে মূল (পিডিএফ) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০১-১৮ 
  12. "Costs and Benefits of Contraceptive Services: Estimates for 2012" (pdf)জাতিসংঘ জনসংখ্যা তহবিল। জুন ২০১২। পৃষ্ঠা ১। 
  13. Carr, B.; Gates, M. F.; Mitchell, A.; Shah, R. (২০১২)। "নারীদের পরিবার পরিকল্পনা ক্ষমতা প্রদান"দ্যা ল্যানসেট৩৮০ (৯৮৩৭): ৮০–৮২। ডিওআই:10.1016/S0140-6736(12)60905-2পিএমআইডি 22784540। ১০ মে ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ জানুয়ারি ২০১৪ 
  14. "Contraception and health."। দ্যা ল্যানসেট380 (9837): ১৪৯–৫৬। জুলাই ১৪, ২০১২। ডিওআই:10.1016/S0140-6736(12)60609-6পিএমআইডি 22784533 
  15. Ahmed, S.; Li, Q.; Liu, L.; Tsui, A. O. (২০১২)। "গর্ভনিরোধক ব্যবহারের দ্বারা ব্যর্থ প্রসবকালীন মৃত্যু: ১৭২ টি দেশের একটি বিশ্লেষণ"দ্যা লানসটে৩৮২০ (৯৮৩৭): ১১১–১২৫। ডিওআই:10.1016/S0140-6736(12)60478-4পিএমআইডি 22784531। ১০ মে ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ জানুয়ারি ২০১৪ 
  16. Canning, D.; Schultz, T. P. (২০১২)। "The economic consequences of reproductive health and family planning"The Lancet380 (9837): 165–171। ডিওআই:10.1016/S0140-6736(12)60827-7পিএমআইডি 22784535। ২ জুন ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ জানুয়ারি ২০১৪ 
  17. Van Braeckel, D.; Temmerman, M.; Roelens, K.; Degomme, O. (২০১২)। "Slowing population growth for wellbeing and development"The Lancet380 (9837): 84–85। ডিওআই:10.1016/S0140-6736(12)60902-7পিএমআইডি 22784542। ১০ মে ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ জানুয়ারি ২০১৪ 
  18. ট্রুসেল, জেমস (মে ২০১১)। "Contraceptive failure in the United States"কনট্রাসেপশান৮৩ (৫): ৩৯৭–৪০৪। ডিওআই:10.1016/j.contraception.2011.01.021পিএমআইডি 21477680পিএমসি 3638209অবাধে প্রবেশযোগ্য 
    ট্রুসেল, জেমস (২০১১-১১-০১)। "Contraceptive efficacy"। Hatcher, রবার্ট এ.; ট্রুসেল, জেমস; নেলসন, অনিতা এল.; Cates, Willard Jr.; Kowal, Deborah; Policar, Michael S. (eds.)। Contraceptive technology (20th revised সংস্করণ)। New York: Ardent Media। পৃষ্ঠা 779–863। আইএসএসএন 0091-9721আইএসবিএন 978-1-59708-004-0ওসিএলসি 781956734 
  19. Division of Reproductive Health, National Center for Chronic Disease Prevention and Health Promotion, Centers for Disease Control and Prevention (CDC) (২১ জুন ২০১৩)। "U.S. Selected practice recommendations for contraceptive use, 2013: adapted from the World Health Organization Selected practice recommendations for contraceptive use, 2nd edition"MMWR Recommendations and Reports62 (5): 1–60। পিএমআইডি 23784109 
  20. "Lactational amenorrhea for family planning."। Cochrane Database of Systematic Reviews (৪): CD001329। ২০০৩। ডিওআই:10.1002/14651858.CD001329পিএমআইডি 14583931 
  21. Neinstein, Lawrence (২০০৮)। Adolescent health care : a practical guide (5th ed. সংস্করণ)। Philadelphia: Lippincott Williams & Wilkins। পৃষ্ঠা 624। আইএসবিএন 9780781792561 
  22. Lawrence, Ruth (২০১০)। Breastfeeding : a guide for the medical professional. (7th ed. সংস্করণ)। Philadelphia, Pa.: Saunders। পৃষ্ঠা 673। আইএসবিএন 9781437707885 
  23. Srikanthan A, Reid RL (ফেব্রুয়ারি ২০০৮)। "Religious and cultural influences on contraception": 129–137। ডিওআই:10.1016/s1701-2163(16)32736-0পিএমআইডি 18254994 
  24. Pope Paul VI (জুলাই ২৫, ১৯৬৮)। "Humanae Vitae: Encyclical of Pope Paul VI on the Regulation of Birth"। Vatican। আগস্ট ২৪, ২০০০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১, ২০০৬ 
  25. Ruether RR (২০০৬)। "Women in North American Catholicism"। Keller RS। Encyclopedia of women and religion in North America। Indiana Univ. Press। পৃষ্ঠা 132আইএসবিএন 978-0-253-34686-5। মে ২৯, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  26. Digby B, Ferretti J, Flintoff I, Owen A, Ryan C (২০০১)। Digby B, সম্পাদক। Heinemann 16–19 Geography: Global Challenges Student Book (2nd সংস্করণ)। Heinemann। পৃষ্ঠা 158আইএসবিএন 978-0-435-35249-3। মে ১২, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  27. Rengel M (২০০০)। Encyclopedia of birth control। Oryx Press। পৃষ্ঠা 202। আইএসবিএন 978-1-57356-255-3। জুন ৩, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  28. Harakas, Stanley S. (১২ আগস্ট ১৯৮৫)। "The Stand of the Orthodox Church on Controversial Issues - Society Articles - Greek Orthodox Archdiocese of America" (English ভাষায়)। Greek Orthodox Archdiocese of America। সংগ্রহের তারিখ ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 
  29. Bennett JA (২০০৮)। Water is thicker than blood : an Augustinian theology of marriage and singleness। Oxford University Press। পৃষ্ঠা 178। আইএসবিএন 978-0-19-531543-1। মে ২৮, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  30. Feldman DM (১৯৯৮)। Birth Control in Jewish Law। Jason Aronson। আইএসবিএন 978-0-7657-6058-6 
  31. "Hindu Beliefs and Practices Affecting Health Care"। University of Virginia Health System। মার্চ ২৩, ২০০৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ৬, ২০০৬ 
  32. "More Questions & Answers on Buddhism: Birth Control and Abortion"। Alan Khoo। জুন ২৯, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ১৪, ২০০৮ 
  33. Akbar KF। "Family Planning and Islam: A Review"। সেপ্টেম্বর ২৬, ২০০৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]