২০১৯-২১ আইসিসি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(2019–21 ICC World Test Championship থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
২০১৯-২১ আইসিসি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপ
আইসিসি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপের লোগো.jpg
তারিখ১ আগস্ট, ২০১৯ – ১৪ জুন, ২০২১
ব্যবস্থাপকআন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল
ক্রিকেটের ধরনটেস্ট ক্রিকেট
প্রতিযোগিতার ধরনলীগ ও ফাইনাল
অংশগ্রহণকারী
খেলার সংখ্যা৭২
ইউডিআরএসহ্যাঁ
২০২১-২৩ →

২০১৯-২১ আইসিসি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপ (ইংরেজি: 2019–21 ICC World Test Championship) টেস্ট ক্রিকেটকে ঘিরে চলমান আইসিসি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপের উদ্বোধনী আসর।[১] ১ আগস্ট, ২০১৯ তারিখ থেকে অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ডের মধ্যকার অ্যাশেজ সিরিজের প্রথম টেস্টের মাধ্যেম এ প্রতিযোগিতা শুরু হয়। ১৪ জুন, ২০২১ তারিখে নির্ধারিত সময়ে ইংল্যান্ডের লর্ডসে প্রতিযোগিতার পরিসমাপ্তি ঘটবে।[২] কোন কারণে চূড়ান্ত খেলা ড্র কিংবা টাইয়ে পরিণত হলে উভয় দলকে যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন হিসেবে ঘোষণা করা হবে।

২০১০ সালে এ প্রতিযোগিতা আয়োজনের চিন্তাধারা অনুমোদনের প্রায় এক দশক পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপের চিন্তাধারাটি বাস্তবরূপ লাভ করে। ২০১৩ ও ২০১৭ সালে দুইবার প্রতিযোগিতা আয়োজনের চেষ্টা চালানো হলেও তা বাতিল করতে হয়।

বারোটি টেস্টভূক্ত দেশের মধ্যে নয়টি দেশ এ প্রতিযোগিতায় অংশ নিচ্ছে।[৩][৪] প্রত্যেক দলই অপর আটটি দলের মধ্যে যে-কোন ছয়টির বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে অংশ নিবে। প্রত্যেক সিরিজই দুই থেকে পাঁচটি টেস্ট খেলার মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে। সকল দলই তিনটি নিজদেশে ও তিনটি প্রতিপক্ষের মাঠে মোট ছয়টি সিরিজ খেললেও একই সংখ্যক টেস্ট খেলার প্রয়োজন পড়বে না। প্রত্যেক দলেরই প্রতিটি সিরিজ থেকে সর্বাধিক ১২০ পয়েন্ট লাভের সুযোগ রয়েছে। লীগভিত্তিক সিরিজ খেলা শেষে সর্বাধিকসংখ্যক পয়েন্ট লাভকারী দুই দল চূড়ান্ত খেলায় অবতীর্ণ হবে।[৫]

এই চ্যাম্পিয়নশীপে দীর্ঘদিনব্যাপী চলমান টেস্ট সিরিজও এর অংশ হিসেবে গণ্য হবে। যেমন: ২০১৯ সালের অ্যাশেজ সিরিজ। এছাড়াও, নয়টি দলের কয়েকটি দল এ সময়কালে অতিরিক্ত টেস্ট খেলায় অংশ নিবে যা এ চ্যাম্পিয়নশীপের অংশ নয়। ২০১৮-২৩ সালের আইসিসি ফিউচার ট্যুরস প্রোগ্রাম এগুলোতে রয়েছে। প্রধানতঃ তিনটি টেস্টভূক্ত দলকে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ না করানোর কারণে এ প্রোগ্রামের আয়োজন করা হয়েছে।

২৯ জুলাই, ২০১৯ তারিখে আইসিসি কর্তৃপক্ষ আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপের উদ্বোধন করে।[৬] খেলোয়াড়দের পোশাক পরিধানের শর্ত হিসেবে সকল খেলোয়াড়ই তাদের ওডিআইটুয়েন্টি২০আইয়ের নম্বর ব্যবহার করবে। এছাড়াও, কেবলমাত্র টেস্ট ক্রিকেটে অংশগ্রহণকারী খেলোয়াড়ও এ শর্ত পালন করবে।[৭]

পরিচ্ছেদসমূহ

খেলার ধরণ[সম্পাদনা]

এ প্রতিযোগিতাটি দুই বছরের অধিক সময় ধরে চলবে। প্রত্যেক দলই অপর ছয়টি দলের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে অংশ নিবে। তিনটি স্ব-দেশে ও তিনটি প্রতিপক্ষের মাঠে মোট ছয়টি সিরিজ খেলবে। প্রত্যেক সিরিজই দুই থেকে পাঁচটি টেস্ট খেলার মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে। তবে, দলগুলোকে একই সংখ্যক টেস্ট খেলার প্রয়োজন পড়বে না; কিন্তু একইসংখ্যক সিরিজ খেলতে হবে। লীগভিত্তিক সিরিজ খেলা শেষে সর্বাধিকসংখ্যক পয়েন্ট লাভকারী শীর্ষস্থানীয় দুই দল জুন, ২০২১ সালে ইংল্যান্ডে চূড়ান্ত খেলায় অবতীর্ণ হবে।[৮] প্রত্যেক খেলাই পাঁচদিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হবে।

পয়েন্ট তালিকা[সম্পাদনা]

আইসিসির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রত্যেক সিরিজেই একই সংখ্যার পয়েন্ট বরাদ্দ রাখা হয়েছে। সিরিজের টেস্ট সংখ্যায় কোন প্রভাব ফেলবে না। ফলে, কোন দেশ কমসংখ্যায় টেস্ট খেললেও ক্ষতিগ্রস্ত হবে না। এছাড়াও, সিরিজের ফলাফলের উপর পয়েন্ট দেয়া হবে না। কেবলমাত্র খেলার ফলাফলেই পয়েন্ট দেয়া হবে। সিরিজের সকল খেলাতেই এ পয়েন্ট বিভাজিত হবে।[৯] পাঁচ খেলার সিরিজে প্রত্যেক খেলাতেই ২০% এবং দুই খেলার সিরিজের ক্ষেত্রে ৫০% পয়েন্ট প্রত্যেক খেলাতে দেয়া হবে।

প্রত্যেক সিরিজে সর্বাধিক ১২০ পয়েন্ট রাখা হয়েছে। পয়েন্ট বন্টনপ্রণালী নিম্নে দেয়া হলো:

আইসিসি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপের পয়েন্ট বন্টনপ্রণালী[৯]
সিরিজে খেলার সংখ্যা জয়লাভের ক্ষেত্রে পয়েন্ট সংখ্যা টাইয়ের ক্ষেত্রে পয়েন্ট সংখ্যা ড্রয়ের ক্ষেত্রে পয়েন্ট সংখ্যা পরাজয়ের ক্ষেত্রে পয়েন্ট সংখ্যা
৬০ ৩০ ২০
৪০ ২০ ১৩.৩
৩০ ১৫ ১০
২৪ ১২

অংশগ্রহণকারী দল[সম্পাদনা]

আইসিসির নয়টি পূর্ণাঙ্গ সদস্য এতে অংশ নিচ্ছে:

প্রত্যেক দলই আটটি সম্ভাব্য প্রতিপক্ষীয় দলের ছয়টির বিপক্ষে খেলবে। আইসিসি ঘোষণা করেছে যে, এ প্রতিযোগিতার প্রথম ও দ্বিতীয় আসরে ভারতপাকিস্তান দল একে-অপরের বিপক্ষে অংশগ্রহণ করা থেকে বিরত থাকবে।

আইসিসির নিম্নবর্ণিত তিনটি পূর্ণাঙ্গ সদস্য এ প্রতিযোগিতায় অংশ নিবে না:

আইসিসি র‍্যাঙ্কিংয়ে অবস্থানকারী তিনটি দেশ নিচেরসারিতে অবস্থান করছে। আইসিসি ফিউচার ট্যুরস প্রোগ্রামের আওতায় এ দলগুলো প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী দলগুলোর বিপক্ষে খেলবে। আয়ারলান্ড ও আফগানিস্তান ১২টি করে এবং জিম্বাবুয়ে ২১ টেস্টে অংশ নিবে।[১০] তবে, এরফলে চ্যাম্পিয়নশীপের খেলায় এর কোন প্রভাব পড়বে না।[১১]

খেলার সময়সূচী[সম্পাদনা]

২০১৮-২০২৩ সালের ভবিষ্যৎ সফর পরিকল্পনার অংশ হিসেবে ২০ জুন, ২০১৮ তারিখে আইসিসি কর্তৃপক্ষ বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপের সময়সূচী ঘোষণা করে।[১২] এপ্রিল ও মে মাসে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগের কোন খেলা অনুষ্ঠিত হবে না।

স্বাগতিক \ অতিথি
অস্ট্রেলিয়া  ৪ খেলা ৩ খেলা ২ খেলা
বাংলাদেশ  ২ খেলা ২ খেলা ৩ খেলা
ইংল্যান্ড  ৫ খেলা ৩ খেলা ৩ খেলা
ভারত  ২ খেলা ৫ খেলা ৩ খেলা
নিউজিল্যান্ড  ২ খেলা ২ খেলা ৩ খেলা
পাকিস্তান  ২ খেলা ২ খেলা ২ খেলা
দক্ষিণ আফ্রিকা  ২ খেলা ৪ খেলা ২ খেলা
শ্রীলঙ্কা  ৩ খেলা ২ খেলা 1–1
ওয়েস্ট ইন্ডিজ  0–2 ২ খেলা ২ খেলা
২৬ আগস্ট ২০১৯ তারিখের ম্যাচ(সমূহ) খেলা শেষের পর হালনাগাদকৃত। উৎস: ICC Cricket
রং: নীল = স্বাগতিক দল বিজয়ী; হলুদ = ড্র; লাল = সফরকারী দল বিজয়ী।
দল সর্বমোট খেলা খেলবে না
 অস্ট্রেলিয়া ১৯  শ্রীলঙ্কা ওয়েস্ট ইন্ডিজ
 বাংলাদেশ ১৪  ইংল্যান্ড দক্ষিণ আফ্রিকা
 ইংল্যান্ড ২২  বাংলাদেশ নিউজিল্যান্ড
 ভারত ১৮  পাকিস্তান শ্রীলঙ্কা
 নিউজিল্যান্ড ১৪  ইংল্যান্ড দক্ষিণ আফ্রিকা
 পাকিস্তান ১৩  ভারত ওয়েস্ট ইন্ডিজ
 দক্ষিণ আফ্রিকা ১৬  বাংলাদেশ নিউজিল্যান্ড
 শ্রীলঙ্কা ১৩  অস্ট্রেলিয়া ভারত
 ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৫  অস্ট্রেলিয়া পাকিস্তান

লীগ পর্ব[সম্পাদনা]

লীগের পয়েন্ট তালিকা[সম্পাদনা]

অব দল[১৩] সিরিজ খেলা প প্র প প্র অনুঃ আরপি ডব্লিউআর জরিমানা পয়েন্ট যোগ্যতা
খেলা হা ড্র খেলা হা ড্র টা
 ভারত ১২০ ১.০০০ ২.৪৩৪ ১২০
 নিউজিল্যান্ড ১২০ ০.৫০০ ১.৪০১ ৬০
 শ্রীলঙ্কা ১২০ ০.৫০০ ০.৭১৪ ৬০
 অস্ট্রেলিয়া ১২০ ০.৪৬৭ ১.১৫৮ ৫৬
 ইংল্যান্ড ১২০ ০.৪৬৭ ০.৮৬৪ ৫৬
 ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১২০ ০.০০০ ০.৪১১
 বাংলাদেশ --
 পাকিস্তান --
 দক্ষিণ আফ্রিকা --
সর্বশেষ হালনাগাদ: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯; উৎস : আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল[১৪]

যদি শীর্ষ দুই দলের পয়েন্ট সংখ্যা সমান হয়, তাহলে সর্বাধিক সিরিজ বিজয়ী দল শীর্ষে অবস্থান করবে। এরপরও যদি পয়েন্ট সংখ্যা সমান থাকে, তাহলে উইকেট প্রতি রান অনুপাতে শীর্ষ স্থান নির্ধারিত হবে। উইকেট প্রতি রানের অনুপাত হিসেব করতে রান সংগ্রহে উইকেট হারানো, ভাগ করা, উইকেট প্রতি রান দেয়া বিবেচনায় আনা হয়।[১৫]

২০১৯[সম্পাদনা]

ইংল্যান্ড ব অস্ট্রেলিয়া[সম্পাদনা]

১–৫ আগস্ট, ২০১৯
স্কোরকার্ড
অস্ট্রেলিয়া 
২৮৪ (৮০.৪ ওভার)

৪৮৭/৭ডি. (১১২ ওভার)
 ইংল্যান্ড
৩৭৪ (১৩৫.৫ ওভার)

১৪৬ (৫২.৩ ওভার)
অস্ট্রেলিয়া ২৫১ রানে বিজয়ী
এজবাস্টন, বার্মিংহাম
পয়েন্ট : অস্ট্রেলিয়া ২৪, ইংল্যান্ড ০।
১৪–১৮ আগস্ট, ২০১৯
স্কোরকার্ড
ইংল্যান্ড 
২৫৮ (৭৭.১ ওভার)

২৫৮/৫ডি. (৭১ ওভার)
 অস্ট্রেলিয়া
২৫০ (৯৪.৩ ওভার)

১৫৪/৬ (৪৭.৩ ওভার)
ড্র
লর্ডস, লন্ডন
পয়েন্ট : অস্ট্রেলিয়া ৮, ইংল্যান্ড ৮।
২২–২৬ আগস্ট, ২০১৯
অস্ট্রেলিয়া 
১৭৯ (৫২.১ ওভার)

২৪৬ (৭৫.২ ওভার)
 ইংল্যান্ড
৬৭ (২৭.৫ ওভার)

৩৬২/৯ (১২৫.৪ ওভার)
ইংল্যান্ড ১ উইকেটে জয়ী
হেডিংলি, লিডস
পয়েন্ট : অস্ট্রেলিয়া ০, ইংল্যান্ড ২৪।
৪–৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
স্কোরকার্ড
অস্ট্রেলিয়া 
৪৯৭/৮ডি. (১২৬ ওভার)

১৮৬/৬ডি. (৪২.৫ ওভার)
 ইংল্যান্ড
৩০১ (১০৭ ওভার)

১৯৭ (৯১.৩ ওভার)
অস্ট্রেলিয়া ১৮৫ রানে জয়ী
ওল্ড ট্রাফোর্ড, ম্যানচেস্টার
পয়েন্ট : অস্ট্রেলিয়া ২৪, ইংল্যান্ড ০।
১২–১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
স্কোরকার্ড
ইংল্যান্ড 
২৯৪ (৮৭.১ ওভার)

৩২৯ (৯৫.৩ ওভার)
 অস্ট্রেলিয়া
২২৫ (৬৮.৫ ওভার)

২৬৩ (৭৬.৫ ওভার)
ইংল্যান্ড ১৩৫ রানে জয়ী
দি ওভাল, লন্ডন
পয়েন্ট : ইংল্যান্ড ২৪, অস্ট্রেলিয়া ০।

শ্রীলঙ্কা ব নিউজিল্যান্ড[সম্পাদনা]

১৪ - ১৮ আগস্ট, ২০১৯
স্কোরকার্ড
নিউজিল্যান্ড 
২৪৯ (৮৩.২ ওভার)

২৮৫ (১০৬ ওভার)
 শ্রীলঙ্কা
২৬৭ (৯৩.২ ওভার)

২৬৮/৪ (৮৬.১ ওভার)
শ্রীলঙ্কা ৬ উইকেটে বিজয়ী
গালে আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম, গালে
পয়েন্ট : শ্রীলঙ্কা ৬০, নিউজিল্যান্ড ০।
২২-২৬ আগস্ট, ২০১৯
স্কোরকার্ড
শ্রীলঙ্কা 
২৪৪ (৯০.২ ওভার)

১২২ (৭০.২ ওভার)
 নিউজিল্যান্ড
৪৩১/৬ ডি (১১৫ ওভার)

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব ভারত[সম্পাদনা]

২২-২৬ আগস্ট, ২০১৯
স্কোরকার্ড
ভারত 
২৯৭ (৯৬.৪ ওভার)

৩৪৩/৭ ডি (১১২.৩ ওভার)
 ওয়েস্ট ইন্ডিজ
২২২ (৭৪.২ ও।আর)

১০০ (২৬.৫ ওভার)
৩০ আগস্ট - ৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
স্কোরকার্ড
ভারত 
৪১৬ (১৪০.১ ওভার)

১৬৮/৪ ডি (৫৪.৪ ওভার)
 ওয়েস্ট ইন্ডিজ
১১৭ (৪৭.১ ওভার)

২১০ (৫৯.৫ ওভার)
ভারত ২৫৭ রানে বিজয়ী।
সাবিনা পার্ক, জ্যামাইকা
পয়েন্ট : ভারত ৬০, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ০

২০১৯-২০[সম্পাদনা]

ভারত ব দক্ষিণ আফ্রিকা[সম্পাদনা]

২–৬ অক্টোবর ২০১৯
স্কোরকার্ড
১০–১৪ অক্টোবর ২০১৯
স্কোরকার্ড
১৯–২৩ অক্টোবর ২০১৯
স্কোরকার্ড

পাকিস্তান ব শ্রীলঙ্কা[সম্পাদনা]

অস্ট্রেলিয়া ব পাকিস্তান[সম্পাদনা]

ভারত ব বাংলাদেশ[সম্পাদনা]

অস্ট্রেলিয়া ব নিউজিল্যান্ড[সম্পাদনা]

দক্ষিণ আফ্রিকা ব ইংল্যান্ড[সম্পাদনা]

পাকিস্তান ব বাংলাদেশ[সম্পাদনা]

বাংলাদেশ ব অস্ট্রেলিয়া[সম্পাদনা]

নিউজিল্যান্ড ব ভারত[সম্পাদনা]

শ্রীলঙ্কা ব ইংল্যান্ড[সম্পাদনা]

২০২০[সম্পাদনা]

ইংল্যান্ড ব ওয়েস্ট ইন্ডিজ[সম্পাদনা]

ইংল্যান্ড ব পাকিস্তান[সম্পাদনা]

শ্রীলঙ্কা ব বাংলাদেশ[সম্পাদনা]

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব দক্ষিণ আফ্রিকা[সম্পাদনা]

বাংলাদেশ ব নিউজিল্যান্ড[সম্পাদনা]

২০২০-২১[সম্পাদনা]

অস্ট্রেলিয়া ব ভারত[সম্পাদনা]

নিউজিল্যান্ড ব ওয়েস্ট ইন্ডিজ[সম্পাদনা]

নিউজিল্যান্ড ব পাকিস্তান[সম্পাদনা]

বাংলাদেশ ব ওয়েস্ট ইন্ডিজ[সম্পাদনা]

ভারত ব ইংল্যান্ড[সম্পাদনা]

পাকিস্তান ব দক্ষিণ আফ্রিকা[সম্পাদনা]

দক্ষিণ আফ্রিকা ব শ্রীলঙ্কা[সম্পাদনা]

দক্ষিণ আফ্রিকা ব অস্ট্রেলিয়া[সম্পাদনা]

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব শ্রীলঙ্কা[সম্পাদনা]

ফাইনাল[সম্পাদনা]

১০-১৪ জুন, ২০২১
১ম স্থান
২য় স্থান

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Test, ODI leagues approved by ICC Board"ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৩ অক্টোবর ২০১৭ 
  2. "How will the Test championship be played?"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৭ মে ২০১৮ 
  3. "Schedule for inaugural World Test Championship announced" 
  4. "Australia's new schedule features Afghanistan Test" 
  5. "FAQs - What happens if World Test Championship final ends in a draw or tie?"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জুলাই ২০১৯ 
  6. "ICC launches World Test Championship"International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জুলাই ২০১৯ 
  7. Neil Wagner - ICC World Test Championship Launch (ইংরেজি ভাষায়), সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-০১ 
  8. Association, Press (১৩ অক্টোবর ২০১৭)। "ICC approves Test world championship and trial of four-day and matches"The Guardian (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0261-3077। সংগ্রহের তারিখ ১৪ অক্টোবর ২০১৭ 
  9. "World Test Championship points system values match wins over series triumphs" 
  10. Ireland, Afghanistan and Zimbabwe, like the nine Championship participants will be able to add further fixtures outside the FTP including Test matches.
  11. Netherlands have also been included on the FTP as a one-day and T20 playing nation only.
  12. "Men's Future Tour Programme 2018-2023 released"International Cricket Council। ২০ জুন ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ২০ জুন ২০১৮ 
  13. "ICC World Test Championship 2019–21"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৩ আগস্ট ২০১৯ 
  14. "Standings"International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 
  15. "World Test Championship Playing Conditions: What's different?" (PDF)International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ২ আগস্ট ২০১৯ 
  16. "Final Venue" 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]